Login | Register

নুয়াইম বিন হাম্মাদের: আল ফিতান

হাবশিদের আগমন

   

হাবশিদের আগমন

Double clicking on an arabic word shows its dictionary entry
হযরত আব্দুর রহমান ইবনে যুবাইর রাযিয়াল্লাহু আনহু হতে বর্ণিত যে, তিনি বলেন একবার হযরত ওমর ইবনুল খাত্তাব রাযিয়াল্লাহু আনহু মক্কায় হজের জন্য অবস্থান করছিলেন। আর তখন তিনি বলেন হে ইয়ামানবাসী! তোমরা দুটি অন্ধকারের পূর্বে হিজরত কর। উহার একটি হাবসা। উহা বের হবে এমনকি উহা আমার এই স্থান পর্যন্ত পৌছে যাবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৮৭৭ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ١٨٧٧
حدثنا بقية وشريح بن يزيد أبو حيوة عن أرطاة عن عبد
الرحمن بن جبير قال
قام عمر بن الخطاب رضى الله عنه بمكة في الحج فقال يا أهل
اليمن هاجروا قبل الظلمتين أما أحدهما فالحبشة يخرجون حتى يبلغوا مقامي هذا
হযরত কা’ব রাযিয়াল্লাহু আনহু হতে বর্ণিত যে, তিনি বলেন হাবসা একবার বের হবে। আর উহার মাধ্যে ঘরের দিকে সব ধ্বংস করে দিবে। অতপর তাদের দিকে সিরিয়াবাসীরা বের হবে। অতপর তারা তাদেরকে যমিনে শোয়া অবস্থায় পাবে। অতপর তারা বনু আলীর উপত্যকায় তাদের সাথে যুদ্ধ করবে। আর সেটা মদীনার নিকটবর্তী একটি এলাকা। এমনকি নিশ্চই হাবসী শিমলা বা মস্তকবন্ধনী বিনিময়ে বিক্রীত হবে। হযরত সাফওয়ান রাযিয়াল্লাহু আনহু বলেন যে, আমার নিকট হযরত কা’ব রাযিয়াল্লাহু আনহু হতে হযরত ইয়ামান রাযিয়াল্লাহু আনহু বর্ণনা করেন যে, তারা ঘরবাড়ি ধ্বংস করবে। ভূমি আত্মসাৎ করবে। অতপর তারা সেখানে মিলিত হবে। অতপর আল্লাহ তা’আলা তাদের কতল করে দিবেন।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৮৭৮ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ١٨٧٨
حدثنا بقية وأبو المغيرة عن صفوان عن شريح بن عبيد
عن كعب قال تخرج
الحبشة خرجة ينتهون فيها إلى البيت ثم يخرج إليهم أهل الشام فيجدونهم قد افترشوا
الأرض فيقتلونهم في أودية بني علي وهي قريبة من المدينة حتى إن الحبشي يباع بالشملة
قال صفوان وحدثني أبو اليمان عن كعب قال
يخربون البيت ويأخذون المقام
فيدركون على ذلك فيقتلهم الله تعالى
হযরত ইরইয়ান ইবনে হাইসাম রাযিয়াল্লাহু আনহু হতে বর্ণিত যে, তিনি হযরত আব্দুল্লাহ ইবনে আমর রাযিয়াল্লাহু আনহু কে বলতে শুনেছেন যে, হযরত ঈসা ইবনে মারিয়াম আলাইহিস সালামের অবতরণের পর হাবসার প্রকাশ ঘটবে। অতপর ঈসা আলাইহিস সালাম অগ্রভাগের কিছু সৈন্য প্রেরণ করবেন। আর তারা তাদের পরাজিত করবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৮৭৯ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ١٨٧٩
حدثنا عبد الصمد بن عبد الوارث عن
حماد بن سلمة عن علي بن زيد عن العريان بن الهيثم
سمع عبد الله بن عمرو يقول
تخرج الحبشة بعد نزول عيسى بن مريم فيبعث عيسى طليعة فينهزموا
হযরত ইবনে ওহাব রাযিয়াল্লাহু আনহু বলেন আমি হযরত আবু হুরাইরা রাযিয়াল্লাহু আনহু কে হযরত আবু কাতাদা রাযিয়াল্লাহু আনহু এর নিকট রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম এর হতে বর্ণনা করতে শুনেছি যে, রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেন হাবসা বের হবে। অতপর উহা ঘরবাড়ি এমনভাবে ধ্বংস করবে যে, উক্ত ধ্বংসের পর আর কখনো সেখানে ঘরবাড়ি তৈরী করা হবে না। আর তারা হল ঐসমস্ত লোক যারা উহার গুপ্তধন বের করবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৮৮০ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ١٨٨٠
حدثنا
ابن وهب عن ابن أبي ذئب عن سعيد بن سمعان مولى آل فلان سماه ابن وهب قال
سمعت
ابا هريرة رضى الله عنه يحدث أبا قتادة عن النبي صلى الله عليه وسلم قال تأتي
الحبشة فيخربون البيت خرابا لا يعمر بعده أبدا وهم الذين يستخرجون كنزه
হযরত ইবনুল মুসাইয়াব রাযিয়াল্লাহু আনহু হতে বর্ণিত যে, তিনি হযরত আবু হুরাইরা রাযিয়াল্লাহু আনহু কে বলতে শুনেছেন যে, রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেন হাবসার দুই কান্ডবিশিষ্ট লোক কা’বা ঘরকে ধ্বংস করবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৮৮১ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ١٨٨١
حدثنا ابن وهب عن يونس عن الزهري عن ابن المسيب
سمع أبا هريرة يقول قال رسول
الله صلى الله عليه وسلم يخرب الكعبة ذو السويقتين
من الحبشة
হযরত আবু হুরাইরা রাযিয়াল্লাহু আনহু রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম হতে বর্ণনা করেন যে, রাসুল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেন কেমন যেন আমি কা’বা ঘরের উপরে (কা’বা ঘরের ধ্বংসকারীকে) টেকো, বাকা গ্রন্থিওয়ালা, অহংকারী, এক ব্যক্তিকে দেখতেছি। সে কা’বা ঘরকে বড় কুঠার দ্বারা আঘাত করছে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৮৮২ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ١٨٨٢
حدثنا ابن
وهب عن ابن لهيعة عن يزيد بن عمرو المعافري عن شيخ من أهل المدينة
عن أبي هريرة
رضى الله عنه عن النبي صلى الله عليه وسلم قال كأني أنظر إلى أصلع أفيدع أفيحج على
ظهر الكعبة يضربها بالكرزنة
হযরত আবু হুরাইরা রাযিয়াল্লাহু আনহু হতে বর্ণিত যে, তিনি বলেন হাবসার দুই কান্ডবিশিষ্ট এক ব্যক্তি আল্লাহর ঘরকে ধ্বংস করবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৮৮৩ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ١٨٨٣
حدثنا الدراوردي عن ثور بن زيد الديلي عن
أبي الغيث
عن أبي هريرة قال ذو السويقتين من الحبشة يخرب بيت الله
হযরত আব্দুল্লাহ ইবনে আমর রাযিয়াল্লাহু আনহু হতে বর্ণিত যে, তিনি বলেন কা’বা ঘরকে দুইবার ধ্বংস করা হবে। আর তৃতীয়বার পাথর (হজরে আসওয়াদকে) উঠিয়ে নেয়া হবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৮৮৪ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ١٨٨٤
حدثنا توبة بن علوان عن حميد عن بكر بن عبد الله
عن عبد الله بن عمرو قال تهدم
الكعبة مرتين ويرفع الحجر في المرة الثالثة
হযরত আব্দুল্লাহ ইবনে আমর রাযিয়াল্লাহু আনহু হতে বর্ণিত যে, তিনি বলেন কেমন যেন আমি এক হাবসী ব্যক্তিকে দেখছি যার উভয় পায়ের গোছা উথিত সে কা’বা ঘরের উপর তার কুঠার সহ বসে আছে। আর সেই কা’বা ঘর ধ্বংস করবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৮৮৫ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ١٨٨٥
حدثنا أبو معاوية عن
الأعمش عن مجاهد
عن عبد الله بن عمرو قال كأني أنظر إلى حبشي حمش الساقين جالسا
على الكعبة بمسحاته وهي تهدم
হযরত কা’ব রাযিয়াল্লাহু আনহু হতে বর্ণিত যে, তিনি বলেন অবশ্যই অবশ্যই এক হাবসী ব্যক্তি কা’বা ঘর ধ্বংস করবে। আর অবশ্যই মাকাম দখল করবে। অতপর তারা উহার উপর সক্ষম হবে। অতপর আল্লাহ তা’আলা তাদের কতল করে দিবেন।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৮৮৬ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ١٨٨٦
حدثنا بقية عن صفوان بن عمرو حدثني أبو
اليمان
عن كعب قال ليخربن البيت الحبشي وليأخذن المقام فيدركون على ذلك فيقتلهم
الله تعالى
হযরত আবু কুবাইল রাযিয়াল্লাহু আনহু হতে বর্ণিত যে, তিনি বলেন তিনি একবার মাসলামা ইবনে মাখলাদ এর নিকট হতে ওয়ারদান নামক এলাকার উদ্দেশ্যে বের হন। আর মাসলামা হল মিসরের আমীর। অতপর তিনি আব্দুল্লাহ ইবনে আমর রাযিয়াল্লাহু আনহু এর নিকট দিয়ে দ্রুত অতিক্রম করলেন। তখন আব্দুল্লাহ ইবনে আমর রাযিয়াল্লাহু আনহু তাকে ডাকলেন। অতপর বললেন হে আবু উযবাইদ কোথায় যাচ্ছ? তখন তিনি বললেন আমাকে আমীর মানাফের দিকে পাঠিয়েছেন। অতপর তার নিকট ফিরআউনের গুপ্তধন আনা হল। তিনি বললেন তুমি তার নিকট ফিরে যাও। আর আমার পক্ষ হতে তাকে সালাম দাও। এবং তাকে বল যে, ফিরআউনের গুপ্তধন তোমার জন্য নয়, এমনকি তোমার সাথীবর্গের জন্যও নয়। কেননা উক্ত সম্পদ হল হাবসার। যারা তাদের নৌজানে করে আসবে। তারা মিশরের ফুসতাত নগরীর উদ্দেশ্য করে আসবে। তারা সফর করে এসে মানাফে অবতরণ করবে। অতপর আল্লাহ তা’আলা তাদের জন্য ফিরআউনের গুপ্তধন খুলে দিবেন। অতপর তারা সেখান থেকে তারা যতটুকু চাইবে নিবে। অতপর তারা বলবে আমরা এর থেকে উত্তম কোন গণীমতের আশা করি নাই। অতপর তারা ফিরে যাবে। আর তাদের পরপরই মুসলমানগণ বাহির হবে। এমনকি তারা তাদের পেয়ে যাবে। আর তখন আল্লাহ তা’আল্ হাবসাকে পরাজিত করবেন। তখন মুসলমানগণ তাদের কতল করবে। এবং (জীবিতদের) আটক করবে। এমনকি সেদিন হাবসীদেরকে পোষাকের বিনিময়ে বিক্রি করা হবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৮৮৭ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ١٨٨٧
حدثنا ابن وهب عن ابن لهيعة عن أبي قبيل قال
خرج يوما
وردان من عند مسلمة بن مخلد وهو أمير على مصر فمر على عبد الله بن عمرو مستعجلا
فناداه
فقال أين تريد يا أبا عبيد
قال أرسلني الأمير إلى منف فأحضر له كنز
فرعون
قال فارجع إليه فأقره مني السلام وقل له إن كنز فرعون ليس لك ولا لأصحابك
إنما هو للحبشة يأتون في سفنهم يريدون الفسطاط فيسيرون حتى ينزلوا منفا فيظهر الله
لهم كنز فرعون فيأخذون منه ما شاؤا
فيقولون ما نبتغي غنيمة أفضل من هذه فيرجعون
ويخرج المسلمون في آثارهم حتى يدركوهم فيهزم الله الحبش فيقتلهم المسلمون ويأسرونهم
حتى يباع الحبشي يومئذ بالكساء
হযরত আব্দুল্লাহ ইবনে আমর রাযিয়াল্লাহু আনহু হতে বর্ণিত যে, তিনি বলেন ওয়াসীম নামক স্থানে তোমরা ও স্পেনের অধিবাসীরা যুদ্ধ করবে। আর তখন তোমাদের নিকট সিরিয়া হতে তোমাদের সাহায্য আসবে। অতপর যখন তাদের প্রথম দল নামবে তখন আল্লাহ তা’আলা তোমাদের শত্রুদের পরাজিত করবেন। আর তারা লাউবিয়া পর্যন্ত তাদের হত্যা করতে থাকবে।

অতপর তোমরা ফিরে আসবে। তারপর তোমাদের নিকট তিন লক্ষ হাবসা আসবে। যাদের নেতৃত্বে আসবাস নামক ব্যক্তি থাকবে। অতপর তোমরা এবং সিরিয়ার অধিবাসীরা তাদের সাথে যুদ্ধ করবে। ফলে আল্লাহ তা’আলা তাদেরকে পরাজিত করবেন।

তারপর তোমরা কিবতীতে ফিরে যাবে। তোমরা বলবে যে, আমাদেরকে আমাদের শত্রুদের উপর নির্দিষ্ট করা হয় নাই।

তারা বলবে, তোমরা আমাদের সাথে এরূপ করেছ। তোমরা আমাদের শক্তি সামর্থ নিয়ে গিয়েছ, আমদের জন্য কোন অস্ত্রও রেখে যাও নি। আর তোমরা হলে আমাদের নিকট অতিপ্রিয় পাত্র। 

তিনি বলেন ফলে তারা তাদেরকে ক্ষমা করে দিবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৮৮৮ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ١٨٨٨
حدثنا رشدين عن ابن لهيعة عن بكر بن
سوادة [ أن ] مولى لعبد الله بن عمرو حدثه عن أبي زرعة عن شفي
عن عبد الله
بن عمرو قال تقتتلون بوسيم أنتم و
أهل الأندلس
فيأتيكم مددكم من الشام فإذا نزل
أولهم هزم الله عدوكم ولا يزالون يقتلونهم إلى لوبية ثم ترجعون فتأتيكم
الحبشة
في
ثلثمائة ألف عليهم أسبس فتقاتلونهم أنتم وأهل الشام فيهزمهم الله ثم ترجعون إلى
القبط
فتقولون لم تعينونا على عدونا
فيقولون أنتم فعلتم هذا بنا ذهبتم
بقوتنا لم تتركوا لنا سلاحا وإنكم لأحب الناس إلينا
قال فيصفحون عنهم
হযরত মুসাল্লামা ইবনে মাখলাদ এর হাবসা এর ব্যাপারে হাদীস যা ইবনে ওহাব বর্ণনা করেছেন। ঠিক এরূপই হযরত আব্দুল্লাহ ইবনে আমর রাযিয়াল্লাহু আনহু হতে বর্ণিত হয়েছে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৮৮৯ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ١٨٨٩
حدثنا رشدين عن ابن لهيعة عن أبي قبيل عن عبيد بن فيروز عن عبد الله بن عمرو مثل
حديث ابن وهب في الحبشة حديث مسلمة بن مخلد
হযরত আব্দুল্লাহ ইবনে আমর রাযিয়াল্লাহু আনহু হতে বর্ণিত যে, স্পেনের মুসলমানদের শত্রুদের একজন যার আলোচনা পরিচিত এবং আমি তার দীর্ঘ আলোচনা রোমে লিখিয়াছি।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৮৯০ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ١٨٩٠
حدثنا رشدين عن ابن لهيعة عن
أبي قبيل
عن عبد الله بن عمرو أن رجلا من أعداء المسلمين بالأندلس حديث
ذي
العرف
حديث طويل قد كتبته في الروم
হযরত আব্দুল্লাহ ইবনে আমর রাযিয়াল্লাহু আনহু হতে বর্ণিত যে, তিনি বলেন তোমাদের সাথে স্পেনের অধিবাসীরা ওয়াসীম নামক স্থানে যুদ্ধ করবে। আর তখন তোমাদের নিকট সিরিয়া হতে তোমাদের সাহায্য পৌছবে। ফলে আল্লাহ তা’আলা তাদের পরাজিত করবেন।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৮৯১ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ١٨٩١
حدثنا الوليد بن مسلم عن ابن لهيعة
عن بكر بن سوادة قال حدثني مولى لعبد الله بن عمرو
عن عبد الله بن عمرو قال
يقاتلكم
أهل الأندلس
بوسيم فيأتيكم مددكم من الشام فيهزمهم الله
ওমর ইবনুল খাত্তাব রাযিয়াল্লাহু আনহু হতে বর্ণিত যে, তিনি বলেন একদল লোক ওয়াসীম নামক স্থানে তোমাদের সাথে যুদ্ধ করবে। আর তখন আল্লাহ তা’আলা তাদের পরাজিত করবেন। অতপর দ্বিতীয় বৎসর হাবসা আসবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৮৯২ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ١٨٩٢
حدثنا
الوليد بن مسلم عن ليث بن سعد عن عمرو بن الحارث قال
قال عمر بن الخطاب رضى
الله عنه يقاتلونكم بوسيم فيهزمهم الله ثم تأتي الحبشة في العام الثاني
হযরত আব্দুল্লাহ ইবনে ওমর রাযিয়াল্লাহু আনহু হতে বর্ণিত যে, তিনি বলেন তিন লক্ষ লোকের ভিতর হাবসা আসবে। যাদের নেতৃত্বে থাকবে আসীস নামক এক ব্যক্তি। অতপর তোমরা ও সিরিয়াবাসীরা তাদের সাথে যুদ্ধ করবে। আর তখন আল্লাহ তা’আলা তাদের পরাজিত করবেন।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৮৯৩ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ١٨٩٣
حدثنا الوليد عن ابن لهيعة عن بكر بن سوادة
عن عبد الله بن عمر
قال تأتي الحبشة في ثلثمائة ألف عليهم رجل يقال له أسبس فتقاتلونهم أنتم وأهل الشام
فيهزمهم الله
হযরত আব্দুল্লাহ ইবনে আমর রাযিয়াল্লাহু আনহু হতে বর্ণিত যে, তিনি বলেন তারা হল ঐসমস্ত লোক যারা মানাফ নামক শহরে ফিরআউনের গুপ্তধন বের করবে। আর মুসলমানগণ তাদের বিরুদ্ধে বের হবে। তাদের সাথে যুদ্ধ করবে এবং মুসলমানগণ উক্ত সম্পদ গণীমত হিসেবে পাবে। এমনকি একজন হাবসী ব্যক্তি পোষাকের বিনিময়ে বিক্রি হবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৮৯৪ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ١٨٩٤
حدثنا الوليد عن ابن لهيعة عن أبي قبيل
عن عبد الله بن
عمرو قال هم الذين
يستخرجون كنز فرعون
بمدينة يقال لها منف ويخرج إليهم المسلمون
فيقاتلونهم ويغنمون تلك الكنوز حتى يباع الحبشي بعباءة
হযরত ইবনে লাহইয়াহ রাযিয়াল্লাহু আনহু হতে বর্ণিত যে, তিনি বলেন যে ব্যক্তি স্পেনের অধিবাসীদের নিয়ে সফর করবে, সে হবে অনারবীদের বাদশাদের থেকে একজন বাদশা। যাবে যুল উরফ বলা হবে। স্পেনের অধিবাসী ও পূর্বাঞ্চলের মুসলমানগণ উজ্জলিত হবে এমনকি তাদের সাথে মিশরবাসীরা যুদ্ধ করবে। ফলে আল্লাহ তা’আলা তাদের পরাজিত করবেন। অতপর পরাজয়ের পর যুল উরফ আত্মসমর্পণ করবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৮৯৫ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ١٨٩٥
حدثنا الوليد عن
ليث وابن لهيعة قال
الذي يسير
بأهل الأندلس
ملك من ملوك العجم يقال له
ذو العرف
يجلي أهل الأندلس وأهل المغرب من المسليمن حتى يقاتله أهل مصر فيهزمه الله ثم
يسلم ذو العرف بعد الهزيمة
হযরত আব্দুল্লাহ ইবনে আমর রাযিয়াল্লাহু আনহু হতে বর্ণিত যে, তিনি বলেন সম্ভবত বনী কানতুর ইবনে কিরকিরা বের হয়ে খোরাসানবাসীদের এমন তীব্র ভাবে ধাওয়া করবে যে, তাদের ঘোড়া নাখলায়ে ইবলাতে পৌছে যাবে। ফলে তারা বসরাবাসীদের নিকট পত্র পাঠাবে যে, হয়তো তোমরা আমাদের সাথে মিলিত হও নতুবা আমাদের হয়ে তাদেরকে বের করে দাও। ফলে তাদের সাথে একতৃতীয়াংশ, অনারবীদের সাথে একতৃতীয়াংশ, আর কূফার সাথে একতৃতীয়াংশ মিলিত হবে। অতপর তারা কূফার দিকে সফর করবে। ফলে তাদের সাথে একতৃতীয়াংশ, অনারবীদের সাথে একতৃতীয়াংশ এবং সিরিয়ার সাথে একতৃতীয়াংশ মিলিত হবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৮৯৬ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ١٨٩٦
حدثنا الوليد عن سعيد بن بشير عن قتادة عن
عقبة بن أوس
عن عبد الله بن عمرو قال يوشك بنو قنطور بن كركرا يخرجون فيسوقون
أهل خراسان سوقا عنيفا حتى يربطوا خيولهم بنخل الأبلة فيبعثون إلى أهل البصرة إما
أن تلحقوا بنا وإما أن تخلوها لنا فيلحق بهم ثلث وبالأعراب ثلث وثلث بالكوفة ثم
يسيرون إلى الكوفة فيلحق بهم ثلث وبالأعراب ثلث وثلث بالشام
হযরত কা’ব রাযিয়াল্লাহু আনহু হতে বর্ণিত যে, তিনি বলেন যখন আল্লাহ তা’আলা ইয়াজুয ও মাজুযকে হত্যা করবেন তখন মানুষের মাঝে অনুরূপ থাকাবস্থায় তাদের নিকট একটি আওয়াজ আসবে। আর সেটা হল যে, দুই কান্ডবিশিষ্ট ব্যক্তি আল্লাহ তা’আলার ঘর ধ্বংস করার জন্য আক্রমন করেছে। তখন ঈসা ইবনে মারিয়াম আলাইহিস সালাম সাত শত সৈন্য বিশিষ্ট বা সাতশ থেকে আটশ সৈন্য বিশিষ্ট একটি সৈন্যদল প্রেরণ করবেন। এমনকি যখন তারা কিছুটা পথ অতিক্রান্ত করবে তখন আল্লাহ তা’আলা ইয়ামানের দিক হতে মঙ্গল জনক বাতাশ প্রেরণ করবে যা প্রত্যেক মুমিনের রুহ কবজ করে নিবে। অতপর মানুষের মাঝে তখন শোরগোলকারী ও চিৎকারকারীরা বাকী থাকবে। তখন তারা পশুর ন্যায় একে অপরের সাথে সহবাস করবে। আর (তখন) কিয়ামাতের উদাহরণ হল ঐ ব্যক্তির ন্যায় যে তার ঘোড়া পাশ দিয়ে প্রদক্ষিন করবে আর অপেক্ষা করবে এমনকি উহা বাচ্চা প্রসব করবে। আর যে ব্যক্তি আমার এই কথার পর অথবা আমার এবিষয়ে জানার পর ভনিতা করলো সে হল ভনিতাকারী বা কৃত্রিমতাকারী।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৮৯৭ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ١٨٩٧
حدثنا
عبد الرزاق عن معمر عن أيوب عن ابن الضيف
عن كعب قال
إذا قتل الله يأجوج ومأجوج
فبينما الناس كذلك أذ
جاءهم الصراخ أن ذا السويقتين قد غزا البيت
يريده فيبعث عيسى
ابن مريم عليه السلام طليعة سبع مئة أو بين السبع مئة والثمان مئة حتى إذا كانوا
ببعض الطريق
بعث الله ريحا يمانية طيبة
فتقبض روح كل مؤمن ثم يبقى عجاج من الناس
يتسافدون كما يتسافد البهائم فمثل الساعة مثل رجل يطيف حول فرسه ينتظر حتى تضع فمن
تكلف بعد قولي هذا شيئا أو بعد علمي هذا شيئا فهم المتكلف
হযরত হারেছ ইবনে মালেক ইবনে বারসা রাযিয়াল্লাহু আনহু হতে বর্ণিত যে, তিনি বলেন আমি রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম কে মক্কা বিজয়ের দিন বলতে শুনেছি যে, তোমরা এই দিন হতে কিয়ামাত পর্যন্ত যুদ্ধ করিও না।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৮৯৮ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ١٨٩٨
حدثنا عبدة بن
سليمان عن زكريا عن الشعبي
عن الحارث بن مالك بن برصاء قال سمعت النبي صلى الله
عليه وسلم يقول يوم فتح مكة لا تغزوا بعد هذا اليوم إلى يوم القيامة
হযরত মুজাহিদ র. এর হতে বর্ণিত যে, তিনি বলেন যখন হযরত ইবনে যুবাইর রাযিয়াল্লাহু আনহু কা’বা ঘরকে (পুনঃ নির্মাণের জন্য) ধ্বংস করলেন তখন আমরা তিনজন মিনায় গিয়ে আযাবের অপেক্ষা করতে লাগলাম।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৮৯৯ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ١٨٩٩
حدثنا ابن عيينة عن داود بن شابور
عن مجاهد قال
لما هدم ابن الزبير الكعبة
خرجنا إلى منى ثلاثا ننتظر العذاب
হযরত আব্দুল্লাহ ইবনে আমর রাযিয়াল্লাহু আনহু হতে বর্ণিত যে, তিনি বলেন কেমনযেন আমি বাকা গ্রন্থি ও শীর্ণ দুই পায়ের গোছা বিশিষ্ট এক ব্যক্তিকে দেখতেছি যে তার হাতুড়ি নিয়ে কা’বার উপরে বসে আছে। আর সেই উহা ধ্বংস করবে।
অধ্যায়
তুর্কি সম্পর্কে
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৯০০ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ١٩٠٠
حدثنا أبو معاوية عن الأعمش عن مجاهد
عن عبد الله بن عمرو قال كأني أنظر إلى حبشي أفدع حمش الساقين جالس على الكعبة
بمسحاته وهي تهدم
الترك

Execution time: 0.06 render + 0.00 s transfer.