Login | Register

নুয়াইম বিন হাম্মাদের: আল ফিতান

পশ্চিমে সূর্যোদয়ের পরবর্তিতে কিয়ামতের আলামত

   

পশ্চিমে সূর্যোদয়ের পরবর্তিতে কিয়ামতের আলামত

Double clicking on an arabic word shows its dictionary entry
জাবের রা: বলেছেন,
নবী ﷺ উনার মৃত্যুর একমাস আগে বলেছিলেন, "তোমরা আমাকে কিয়ামত কখন হবে জিজ্ঞাসা কর, অথচ এর ইলম শুধু আল্লাহর কাছে আছে।"
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৭৮৪ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ١٧٨٤
حدثنا ابن وهب عن ابن لهيعة عن أبي الزبير
عن جابر رضي
الله عنه عن النبي صلى الله عليه وسلم أنه قال قبل موته بشهر تسألونني عن الساعة
وإنما علمها عند الله
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৭৮৫ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ١٧٨٥
حدثنا الحكم بن نافع عن جراح عن أرطاة عن كثير بن
مرة ويزيد بن شريح وعمر بن سليمان
قالوا أخر طلوع الشمس من المغرب يوما واحدا
قط وترفع الحفظة وتؤمر بأن لايكتبوا شيئا فإذا كان ذلك سجدوا لله وتستوحش الملائكة
بحضور الساعة وتفزع الشمس والقمر وتحرس السماء حرسا شديدا لا يستطيع شيطان ولا جان
أن يدنو وتستوحش الجن وتموج الجن والإنس والطير والوحش والسباع بعضها من بعض فتأتي
الجن الخافقين والشياطين لتستمع فيرمون بشهب النار فلا يسمعون شيئا ويتغير لون
السماء وتهد الأرض وتنسف الجبال إلا أربعة طور سينا والجودي وجبل لبنان وجبل ثابور
الذي فوق طبرية فإن الله تعالى نصبها روضة خضراء ذات شجر بين الجنة والنار عليها
بناء اللؤلؤ والزبرجد والدر والياقوت فيجعل عرشه عليها ليدنن الخلق وإن رجل الملك
صاحب
الصور عند القلزم وإنه لينفخ النفخة الأولى فيصعق من في السماوات
والأرض فيمكثون أربعين عاما وتنفطر السماء وتناثر نجومها ويرسل الله ماء الحياة
فينبت البشر وإن كل بشر منهم لعلى مثل عين الجرادة من عجب الذنب وعلى الذرة التي في
السرة
وقال قال عبد الله بن عمرو فينفخ النفخة الأخرى من عند باب مدين الغربي
فإذا هم قيام ينظرون يبعثون في دخن وظلمة
قال وقال أبو الدرداء فمن كان له عمل
صالح يفرح عند الدخن والظلمة حتى يصير في رخاء ويقسم النور بين الناس على قدر
الأعمال
হযরত ওহাব ইবনে মানবাহ হতে বর্ণিত যে, তিনি বলেন যখন কিয়ামাতের সময় নিকটবর্তী হবে তখন সমুদ্রের পাহাড় স্থলের দিকে বের হবে। আর স্থলের পাহাড় সমুদ্রে পতিত হবে। আর সমুদ্র (তার নিজের জায়গা হতে) বের হয়ে যাবে। ফলে তা পৃথীবির উপর প্লাবিত হবে। আর এর কারণে পৃথীবির উপর দালান কোঠা. পাহাড় পর্বত কোন কিছুই অবশিষ্ট থাকবে না। বরং সমস্ত কিছু ধ্বংস হয়ে যাবে এবং হেলে পড়বে। আর কিয়ামাতের অনুষ্ঠিত হওয়ার ভয়ের কারণে নক্ষত্ররাজি ছড়িয়ে পড়বে, আকাশ পরিবর্তন হয়ে যাবে, যমিন ফেটে যাবে। অতপর কিয়ামাত অনুষ্ঠিত হবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৭৮৬ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ١٧٨٦
حدثنا عبد الملك بن الصباح عن بكار
عن وهب بن منبه قال إذا
كان عند قيام الساعة خرجت جبال البحر إلى البر ووقعت جبال البر في البحر وخرج البحر
ففاض على الأرض ولم يبق على وجه الأرض بنيان ولا جبل إلا انهدم وخر وانتثرت النجوم
وتغيرت السماء وتشققت الأرض خوفا من قيام الساعة ثم تقوم الساعة
হযরত জাবের রাযিয়াল্লাহু আনহু হতে বর্ণিত যে, তিনি বলেন রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তার মৃত্যুর এক মাস পূর্বে বলেন আমি আল্লাহ তা’আলার কসম করে বলছি যে, আজ পৃথীবির উপর এমন কোন মানুষ জীবিত নেই যে, তার উপর একশ বছর আসবে। (অতিবাহিত হবে।)
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৭৮৭ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ١٧٨٧
حدثنا
ابن وهب عن ابن لهيعة عن أبي الزبير
عن جابر رضي الله عنه قال قال رسول الله
صلى الله عليه وسلم قبل موته بشهر أقسم بالله ما على الأرض نفس منفوسة اليوم يأتي
عليها مئة سنة
হযরত সা’দ ইবনে আবু ওয়াক্কাস রাযিয়াল্লাহু আনহু রাসূল সা, হতে বর্ণনা করেন যে, রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেন আমি নিশ্চই এটা আশা করি যে, আমার উম্মত আমার প্রতিপালকের নিকট অক্ষম হবে না যে, তাদের কে অর্ধ দিবস বিলম্ব করা হবে। অতপর সা’দ রাযিয়াল্লাহু আনহু কে প্রশ্ন করা হল, অর্ধ দিবস কতটুকু? (অর্ধ দিবসের পরিমান কতটুকু?) উত্তরে তিনি বললেন পাঁচশত বছর।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৭৮৮ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ١٧٨٨
حدثنا بقية بن الوليد عن أبي بكر عن راشد بن سعد
عن
سعد بن أبي وقاص رضى الله عنه عن النبي صلى الله عليه وسلم قال إني لأرجو أن لا
تعجز أمتي عند ربي ان يؤخرهم نصف يوم
فقيل لسعد كم نصف [ يوم
]
قال خمسمائة
سنة
হযরত যুবাইর ইবনে নুফাইর রাযিয়াল্লাহু আনহু হতে বর্ণিত যে, তিনি বলেন রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম এর সময়ে ইহুদি ও তাদের অন্যান্যরা (রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম এর নিকটে) বেশী বেশী কিয়ামাত সম্পর্কে প্রশ্ন করতো। অতপর রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম এর নিকটে জীবরাঈল আলাইহিস সালাম আসল। তখন তিনি তাকে বললেন, হে জীবরাঈল! আমার নিকট অধিকাংশ ইহুদি ও তাদের অন্যান্যরা (আমার নিকট) কিয়ামাত সম্পর্কে বেশী বেশী প্রশ্ন করছে। তখন উত্তরে জীবরাঈল আলাইহিস সালাম বললেন (কিয়ামাত সম্পর্কে) প্রশ্নকারী হতে জিজ্ঞাসিত ব্যক্তি বেশী জানে না।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৭৮৯ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ١٧٨٩
حدثنا بقية عن صفوان عن شريح بن عبيد عن جبير ابن نفير قال
أكثروا اليهود وغيرهم على عهد رسول الله صلى الله عليه وسلم في السؤال عن
الساعة فأتاه جبريل عليه السلام
فقال يا جبريل قد اكثر علي اليهود وغيرهم في
السؤال عن الساعة
فقال ما المسئول عنها بأعلم من السائل
হযরত ফারয কালায়ী হতে বর্ণিত যে, তিনি হযরত আবু যামরাহ কালায়ীকে বলতে শুনেছেন যে, মদীনাবাসী রাত্রি যাপন করবে। অতপর তারা সকাল করবে। অর্থাৎ হিমস (এ রাত্রি যাপন করবে।) অতপর পূর্ব দিকের দরজা দিয়ে এক বহির্গামী বের হয়ে সিন্নীরকে দেখবে পাবে না। ফলে সে তার নফসকে মিথ্যারোপ করবে। অতপর সে উহার অধিবাসীদের আহবান করবে। ফলে তারা বাহির হবে। অতপর তারা উহার দিকে তাকাবে যার দিকে সে তাকিয়ে ছিল। অতপর তারা যখন তার স্থানে লেবাননে অবস্থান করবে। আর যখন সিন্নীর তার স্থান হতে অপসারণ হবে। ঐ দিন সেখানে তারা আল্লাহ তা’আলা যতক্ষণ চান ততক্ষণ অবস্থান করবে। এমনকি তাদের নিকট একজন ব্যক্তি জাওয়ারিন এর দিক হতে এসে বলবে, গতকাল রাত্রে সিন্নীর আমাদের পাশ দিয়ে অতিবাহিত হয়েছে। আর আমরা জানিনা সে কোথায় গিয়েছে। (তখন) বলা হবে, সে হল জাহান্নামের খুটি সমূহের মধ্যে হতে একটি খুটি।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৭৯০ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ١٧٩٠
حدثنا بقية
عن صفوان وأبو المغيرة قال حدثني الفرج الكلاعي سمع أبا ضمرة الكلاعي يقول
ليبيتن أهل هذه المدينة ثم ليصبحن يعني حمص فيخرج خارج من باب الشرقي فلا يرى
سنير فيكذب نفسه فيؤذن أهلها فيخرجون فينظرون إلى ما نظر إليه فإذا هم بلبنان مكانه
وإذا سنير قد زال عن مكانه فيمكثون ما شاء الله يومهم ذلك حتى يأتيهم آت من قبل
جوارين فيقول مر بنا سنير أمس سائرا منطلقا به ما ندري أين سلك به ويقال إنه وتد من
أوتاد جهنم
হযরত ওহাব ইবনে মানবাহ হতে বর্ণিত যে, তিনি বলেন সপ্তম পশুর পর আল্লাহ তা’আলা বালাকের সৈন্যদের উপর ফেরেশতা প্রেরণ করবেন। তারা আসমান ও যমিনের মাঝখানে উড়তে থাকবে। যমিন ও তার মধ্যে ও উপরে অবস্থিত যা থাকবে তা বাকী বা অবশিষ্ট থাকবে। আর অষ্টম আলামত বা নিদর্শন হল, যমিনের উপর কোন গাছ বাকী থাকবে না। বরং তা রক্তের কারণে কাঁদবে। আর নবম আলামত হল, যমিনের উপর কোন শিলা অবশিষ্ট থাকবে না। বরং তা মহিলাদের আওয়াজের ন্যায় আওয়াজ করবে। আর দশম আলামত হল, পৃথীবির পশ্চিম দিক হতে সূর্য্যদয় হওয়া।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৭৯১ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ١٧٩١
حدثنا أبو المغيرة عن ابن عياش عن شيخ له عن وهب ابن
منبه قال
بعد الدابة السابعة أن يبعث الله ملائكة على خيل بلق تطير بين السماء
والأرض تبقى الأرض ومن عليها ومن فيها
والآية الثامنة أنه لايبقى على الأرض
شجرة إلا بكت دما
والتاسعة أنه لا يبقى على الأرض صخرة إلا رنت رنين النساء
والعاشرة طلوع الشمس من مغربها
হযরত ইরয়ান ইবনে হাইসাম হতে বর্ণিত যে, তিনি বলেন আমি আমার পিতার সাথে হযরত ইয়াযিদ ইবনে মুয়াবিয়া এর নিকট আসলাম। অতপর আমি আব্দুল্লাহ ইবনে আমর রাযিয়াল্লাহু আনহু (এর আওয়াজ) শুনলাম। এবং আমি তাকে বললাম, তারা ধারণা করে যে, সত্তর জন ব্যক্তির উপর কিয়ামাত অনুষ্ঠিত হবে। অতপর তিনি আমাকে বললেন তারা আমার উপর মিথ্যা আরোপ করে। আমি এরূপ বলিনি। বরং আমি বলেছি যে, সত্তর জন হবে না। উহার নিকট বর্তী (সময়ে) অনেক কঠিন ও অনেক বড় বড় বিষয় সংগঠিত হবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৭৯২ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ١٧٩٢
حدثنا عبد الصمد بن عبد الوارث عن
حماد بن سلمة عن علي بن زيد عن العريان بن الهيثم قال
وفدت مع أبي إلى يزيد بن
معاوية فسمعت عبد الله بن عمرو
فقلت له تزعم أنه تقوم الساعة على رأس السبعين
فقال إنهم يكذبون علي ليس هكذا قلت ولكني قلت لا تكون السبعين إلا كان عندها
شدائد وأمور عظام
হযরত আনাস ইবনে মালেক রাযিয়াল্লাহু আনহু রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম হতে বর্ণনা করেন যে, রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেন ঐসময় পর্যন্ত কিয়ামাত সংগঠিত হবে না, যতক্ষণ পর্যন্ত না একটি বছর একটি মাসের সমান হবে। একটি মাস একটি সপ্তাহের সমান হবে। একটি সপ্তাহ হবে একটি দিনের সমান। আর একটি দিন হবে আগুনের শিখার সমান (আগুনের শিখার পরিমানের সময়ের সমান)।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৭৯৩ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ١٧٩٣
حدثنا ابن وهب عن عبد الله بن عمر عن سعد بن سعيد
الأنصاري
عن أنس بن مالك رضى الله عنه عن النبي صلى الله عليه وسلم قال لا تقوم
الساعة حتى تكون السنة كالشهر والشهر كالجمعة والجمعة كاليوم واليوم كاضطرام النار
হযরত আবু হুরাইরা রাযিয়াল্লাহু আনহু হতে বর্ণিত যে, তিনি বলেন ঐসময় পর্যন্ত কিয়ামাত সংগঠিত হবে না যতক্ষণ পর্যন্ত না মানুষ রাস্তায় বা পথে যৌনকর্ম করবে করবে। যেমন নাকি চতুস্পদ জন্তু যৌনকর্ম করে। তখন পুরুষেরা পুরুষের থেকে, মহিলারা মহিলাদের থেকে অমুক্ষাপেক্ষী হবে। তোমরা কি মনে কর, অভিভূত কি? তারা বলবে (জানি) না। নারীরা নারীদের আরোপ করবে। অতপর সে উহার হকদার হবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৭৯৪ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ١٧٩٤
حدثنا ابن وهب عن عمرو بن الحارث عن سعيد بن أبي هلال عن عياش بن عبد
الله بن معبد عن أبي معبد مولى ابن عباس
عن أبي هريرة قال لا تقوم الساعة
حتى يتسافد الناس في الطرق كما يتسافد الدواب يستغني الرجال بالرجال والنساء
بالنساء أتدرون ما التساحق
قالوا لا
قال تركب المرأة المرأة ثم تسحقها
হযরত সাঈদ ইবনে মাসরুক রাযিয়াল্লাহু আনহু হতে বর্ণিত যে, তিনি বলেন রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেন পৃথীবির সমস্ত পানি গর্তে চলে যাবে। অতপর আরদান নদী ও মিসরের নীল নদ ব্যতীত পুনরায় সমস্ত নদীর পানি তার স্থানে ফিরে আসবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৭৯৫ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ١٧٩٥
حدثنا ابن وهب عن يحيى بن أيوب عن أبي الحارث الكوفي
عن سعيد بن
مسروق قال قال رسول الله صلى الله عليه وسلم تغور المياه كلها وترجع إلى أماكنها
إلا نهر الأردن ونيل مصر
হযরত মাকহুল রাযিয়াল্লাহু আনহু হতে বর্ণিত যে, তিনি বলেন একবার এক গ্রাম্য ব্যক্তি রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম কে জিজ্ঞাসা করল যে, কিয়ামাত কখন অনুষ্ঠিত হবে? তখন রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উত্তরে বললেন কিয়ামাত সম্পর্কে প্রশ্নকারীর থেকে জিজ্ঞাসিত ব্যক্তি বেশী জানে না। তবে উহার আলামত হল, বাজার, বৃষ্টি নিকটবর্তী হওয়া। (অতি বৃষ্টি।) শস্য উৎপাদন না হওয়া। গীবতের প্রকাশ্যতা। (পথ) ভ্রষ্ট সন্তানদের প্রকাশ্যতা। সম্পদের মালিকের সম্মান। মসজিদে ফাসেক ব্যক্তির উচ্চ আওয়াজ। সৎকাজকারীদের উপর মন্দ কাজকারীদের প্রকাশ্যতা। (মন্দ লোকের নেতৃত্ব)। অতএব যে ব্যক্তি উক্ত যমানা পাবে, সে যেন তার দ্বীন নিয়ে নিভৃতে থাকে। আর সে যেন ঘরের মোটা চাদর হয়ে থাকে। (ঘরে অবস্থান করে।)
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৭৯৬ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ١٧٩٦
حدثنا يحيى بن سليم الطائفي عن الحجاج بن
فرافصة عن مكحول قال
قال أعرابي يا رسول الله متى الساعة
فقال رسول الله
صلى الله عليه وسلم ما المسئول عنها بأعلم من السائل ولكن أشراطها تقارب الأسواق
ومطر ولا نبات وظهور الغيبة وظهور أولاد الغية والتعظيم لرب المال وعلو أصوات
الفساق في المساجد وظهور أهل المنكر على أهل المعروف فمن أدرك ذلك الزمان فليرغ
بدينه وليكن حلسا من أحلاس بيته
হযরত আব্দুল্লাহ ইবনে মাসউদ রাযিয়াল্লাহু আনহু হতে বর্ণিত যে, তিনি বলেন যখন তুমি দেখবে যে, মানুষ নামাজ ছেড়ে দিবে, আমানতকে নষ্ট করবে, মিথ্যাকে হালাল মনে করবে, তারা অধিক হারে অঙ্গিকার করবে. অধিক হারে সুদ খাবে, ঘুষ গ্রহণ করবে, (বড় বড়) ঘর বাড়ী নির্মাণ করবে, মন প্রবৃত্তির অনুসরণ করবে, দ্বীন ধর্মকে দুনিয়ার পরিবর্তে বিক্রয় করবে, তখনই নিস্কৃতি তারপর নিস্কৃতি। তোমার মা তোমাকে বোঝা মনে করবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৭৯৭ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ١٧٩٧
حدثنا مروان الفزاري عن زياد بن المنذر
الثقفي حدثني نافع الهمداني عن الحارث الأعور قال
قال عبد الله بن مسعود إذا
رأيت الناس قد أماتوا الصلاة وأضاعوا الأمانة واستحلوا الكذب وأكثروا الحلف وأكلوا
الربا وأخذوا الرشى
وشيدوا البناء واتبعوا الهوى وباعوا الدين بالدنيا فالنجا
ثم النجا ثكلتك أمك
হযরত আয়েশা রাযিয়াল্লাহু আনহা হতে বর্ণিত যে, তিনি বলেন যখন প্রাথমিক নিদর্শনাবলী বের হবে তখন কলম প্রত্যাখিত হবে। সংরক্ষণতা বন্ধ হয়ে যাবে। শরীর সমূহ আমলের উপর শহীদ হবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৭৯৮ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ١٧٩٨
حدثنا عبد الرزاق عن سفيان عن منصور عن عامر
عن عائشة قالت إذا خرجت أول الآيات طرحت الأقلام وحبست الحفظة وشهدت الأجساد
على الأعمال
হযরত আবু উমামা ইবনে সাহল হতে বর্ণিত যে, তিনি বলেন আমি হযরত আব্দুল্লাহ ইবনে আমর রাযিয়াল্লাহু আনহু কে বলতে শুনেছি যে, তিনি বলেন ঐসময় পর্যন্ত কিয়ামাত অনুষ্ঠিত হবে না যতক্ষণ পর্যন্ত না মানুষ রাস্তা ঘাটে গাধার যৌনকর্মের ন্যায় রাস্তায় যৌনকর্ম করবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৭৯৯ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ١٧٩٩
حدثنا عبدة بن سليمان عن عثمان بن حكيم عن أبي أمامة بن سهل
قال
سمعت عبد الله بن عمرو يقول لا تقوم الساعة حتى يتسافد الناس في الطرق
تسافد الحمير
হযরত আবু হারুন আবদী হতে বর্র্ণিত যে, তিনি বলেন নওফকে বলা হল নিশ্চই আব্দুল্লাহ ইবনে আমর রাযিয়াল্লাহু আনহু বলেন নব্বই এর পরে অল্প সংখ্যাক মানুষ বসবাস করবে। অতপর নওফ বললেন আমি নিশ্চই তাদের পেয়েছি তারা উহার পর দীর্ঘ সময় জীবন যাপন করেছে। তবে অধিকাংশ জীবনাপোকরণ হবে সিরিয়ায়।তখন  বলা হল কূফা ও বসরায়। তিনি বললেন উহা নতুন উদ্ভাবিত।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৮০০ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ١٨٠٠
حدثنا ابن عبد الوارث عن حماد بن سلمة عن أبي هارون العبدي
قال
قيل لنوف إن عبد الله بن عمرو يقول لا يلبث الناس بعد التسعين إلا قليلا
فقال نوف إني لأجدهم يعيشون بعد ذلك زمانا طويلا ولكن عامة المعيشة تكون بالشام
قيل الكوفة والبصرة
قال هي محدثة
হযরত শাহর ইবনে হাওসাব রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম হতে বর্ণনা করেন যে, (রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেন) একজন লোক তার ঘর থেকে বের হবে, তখন তার লাঠি ও চাবুক তাকে তার পরিবারের লোকজন তার ঘরে যা কিছু করেছে তার ব্যাপারে তাকে খবর দিবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৮০১ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ١٨٠١
قال حماد عن حجاج الأسود عن شهر بن حوشب
عن النبي صلى الله عليه
وسلم يوشك أن يخرج الرجل من بيته فتخبره عصاه وسوطه بما أحدث أهله في بيته
হযরত আরিয়ান ইবনে হাইসাম হতে বর্ণিত যে, তিনি বলেন আমি আব্দুল্লাহ ইবনে আমর রাযিয়াল্লাহু আনহুকে বলতে শুনেছি যে, একশত বিশ বছর (পর) ভালোর পর অমঙ্গল হবে। আর কেউ জানেনা যে, উহার শুরু হবে কখন।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৮০২ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ١٨٠٢
حدثنا عيسى بن يونس عن الأعمش عن عبد الرحمن بن ثروان عن العريان بن
الهيثم قال
سمعت عبد الله بن عمرو يقول إن الأشرار بعد الأخيار عشرين ومئة سنة
لا يدري أحد من الناس متى أولها
হযরত মুজাহিদ রাযিয়াল্লাহু আনহু হতে বর্ণিত যে, তিনি বলেন রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেন লা ইলাহা ইল্লাল্লাহ বলনে ওয়ালার উপর কিয়ামাত সংগঠিত হবে না। আর ফেরেশতা সিঙ্গায় ফুঁক দেয়ার ইচ্ছা করবে। আর তখনই একজনকে লা ইলাহা ইল্লাল্ল্হা বলতে শুনবে। ফলে সে সিঙ্গায় ফুঁক দেয়াকে সত্তর শরৎকাল পিছিয়ে দিবে (সত্তর বছর পিছিয়ে দিবে)।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৮০৩ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ١٨٠٣
حدثنا المعتمر بن سليمان عن ليث عن
مجاهد قال
قال رسول الله صلى الله عليه وسلم لا تقوم الساعة على من يقول لا إله
إلا الله وإن الملك يريد أن ينفخ في الصور فإذا سمع أحدا يقول لا إله إلا الله
أخرها سبعين خريفا
হযরত আনাস রাযিয়াল্লাহু আনহু রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম হতে বর্ণনা করেন যে, আল্লাহ আল্লাহ বলনে ওয়ালা ব্যক্তির উপর কিয়ামাত সংগঠিত হবে না।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৮০৪ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ١٨٠٤
حدثنا عبد الرزاق عن معمر عن ثابت
عن انس عن
النبي صلى الله عليه وسلم لا تقوم الساعة على أحد يقول الله الله
হযরত আলী রাযিয়াল্লাহু আনহু হতে বর্ণিত যে, তিনি বলেন নিশ্চই নিকৃষ্ট বা নিকৃষ্ট মানব হল ঐসমস্ত লোক যাদের জীবিত অবস্থায় কিয়ামাত তাদেরকে পেল।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৮০৫ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ١٨٠٥
حدثنا
عبد الرزاق عن معمر عن أبي إسحاق
عن علي قال إن شرار أو من شرار الناس من
تدركهم الساعة وهم أحياء
হযরত যায়েদ ইবনে আসলাম রাযিয়াল্লাহু আনহু হতে বর্ণিত যে, রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেন আমার ও কিয়ামাতের উদাহরণ হল ঐ কওম বা জাতির উদাহরণের ন্যায়, যারা গুপ্তচর প্রেরণ করবে। আর গুপ্তচররা শত্রুদের দেখবে। ফলে তারা ভয় পাবে যে, তাদের পূর্বে উক্ত শত্রুদল তাদের সাথীদের নিকট পৌছে যাবে। ফলে সে তার তরবারীকে ঝলকাবে। কিয়ামাতের পূর্বক্ষণে তোমাদেরকে আনা হয়েছে এবং আমি প্রেরিত হয়ে এসেছি।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৮০৬ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ١٨٠٦
قال معمر وأخبرنا زيد بن أسلم
أن رسول الله
صلى الله عليه وسلم قال مثلي ومثل الساعة كمثل قوم بعثوا عينا فبصر بالعدو فخاف أن
يسبقه العدو إلى أصحابه فألاح بسيفه أتيتم وإني جئت مبعوثا بين يدي الساعة
হযরত আব্দুল্লাহ ইবনে আমর রাযিয়াল্লাহু আনহু হতে বর্ণিত যে, তিনি বলেন সমুদ্রের ভিতর অনে শয়তান বন্দি অবস্থায় আছে। আর সম্ভাবনা আছে যে, উক্ত শয়তানগুলি মানুষের মধ্যে বের হবে এবং মানুষের নিকট কুরআন তেলাওয়াত করবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৮০৭ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ١٨٠٧
حدثنا عبد الرزاق عن معمر عن ابن طاوس عن أبيه
عن عبد الله بن عمرو قال إن في
البحر شياطين مسجونة يوشك أن تخرج فتقرأ على الناس قرآنا
হযরত আরইয়ান ইবনে হাইসামা হতে বর্ণিত যে, তিনি বলেন আমি একবার হযরত মুয়াবিয়া রাযিয়াল্লাহু আনহু এর নিকট প্রতিনিধি হিসাবে গেলাম। আমি তার সামনে ছিলাম। আর এরই মাঝে একজন লোক তার নিকট আসলো। তার উপর দুটি কাপড় ছিল। হযরত মুয়াবিয়া রাযিয়াল্লাহু আনহু তাকে সাদর সম্ভাষণ জানালেন এবং তার সাথে তার খাটে বসালেন। তখন আমি প্রশ্ন করলাম, হে আমীরুল মুমিনীন! এই ব্যক্তি কে? উত্তরে তিনি বললেন, তুমি কি তাকে চিন না? ইনি হলেন আব্দুল্লাহ ইবনে আমর ইবনে আস রাযিয়াল্লাহু আনহু। (বর্ণনাকারী) বলেন আমি বললাম, এই সেই ব্যক্তি যিনি একথা বলেন যে, একশত বছর পর মানুষ জিবীত থাকবে না। তিনি বলেন তিনি আমার নিকট আসলেন, (এবং বললেন) আমি কি তোমার নিকট এটা বলেছি? নিশ্চই আমরা তাদেরকে পাব, যারা একশত (বছর) পর অনেক লম্বা যুগ জীবন যাপন করবে। কিন্তু এই (বর্তমান) জাতি একশত ত্রিশ বছর আলোকিত করবে (জীবন যাপন করবে)।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৮০৮ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ١٨٠٨
حدثنا عبد
الرزاق عن معمر عن محمد بن شبيب عن العريان بن الهيثم قال
وفدت على معاوية
فبينا أنا عنده إذ جاء رجل عليه حلتان فرحب به معاوية وأجلسه على السرير معه
فقلت من هذا يا أمير المؤمنين
قال أما تعرفه هذا عبد الله بن عمرو بن العاص
قال قلت أهذا الذي يقول لا يعيش الناس بعد مئة سنة
قال فأقبل علي وقلت لك
ذاك إنا لنجدهم يعيشون بعد المئة دهرا طويلا ولكن هذه الأمة أجلت ثلاثين ومئة سنة
হযরত আবু হুরাইরা রাযিয়াল্লাহু আনহু রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম হতে বর্ণনা করেন যে, রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেন কিয়ামাত সংগঠিত হবে এমতবস্থায় যে, দুই জন ব্যক্তি কাপড় ক্রয় বিক্রয় করতে থাকবে। তারা দুই জন উক্ত কাপড় ভাজ করতে পারবে না, এবং ক্রয় বিক্রয় সম্পন্ন করতে পারবে না। এরই মধ্যে কিয়ামাত সংগঠিত হয়ে যাবে। এক ব্যক্তি দুধ দোহন করবে আর সে উহার মুখে পাত্র রাখতে পারবে না। আর এরই মাঝে কিয়ামাত সংগঠিত হয়ে যাবে। এক ব্যক্তি হাউজে নামবে আর সে সেখানে পানি পান করতে পারবে না। কারণ এরই মাঝে কিয়ামাত সংগঠিত হয়ে যাবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৮০৯ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ١٨٠٩
حدثنا ابن عيينة عن أبي الزناد عن الأعرج
عن أبي هريرة رضى الله عنه
عن النبي صلى الله عليه وسلم قال تقوم الساعة والرجلان يتبايعان الثوب ولا يطويانه
ولا يتبايعانه حتى تقوم الساعة والرجل يحلب فلا يضع الإناء على فيه حتى تقوم الساعة
والرجل يلط الحوض فلا يسقي فيه حتى تقوم الساعة
হযরত আবু ফিরাস আসলাম গোত্রের এক ব্যক্তি হতে বর্ণনা করেন যে, তিনি বলেন এক ব্যক্তি রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম কে প্রশ্ন করলো, হে আল্লাহর রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম কিয়ামাত কখন সংগঠিত হবে? উত্তরে তিনি বললেন (কিয়ামাত সম্পর্কে) প্রশ্নকারী অপেক্ষা প্রশ্নকৃত ব্যক্তি বেশী জানে না। তাবে কিয়াামতের অনেক আলামত বা নিদর্শন রয়েছে। আর তা হল যখন রাখালেরা বড় বড় দালান কোঠা নিয়ে পরস্পরে গর্ব করবে। এবং যখন কালের নাঙ্গা পা, নাঙ্গা শরীর দরিদ্র ব্যক্তি বাদশা হবে। আর তারা হল আরীব।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৮১০ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ١٨١٠
حدثنا أبو عبد الصمد عن
أبي عمران الجوني عن أبي فراس رجل من أسلم قال
قال رجل يا رسول الله متى الساعة
قال ما المسئول عنها بأعلم من السائل ولكن لها أعلام إذا رعاء الشاء تطاولوا في
البنيان وإذا الحفاة العراة كانوا ملوكا وهم العريب
হযরত ইবনে মাসউদ রাযিয়াল্লাহু আনহু হতে বর্ণিত যে, তিনি বলেন নিশ্চই কিয়ামাতের অনেক নির্দশন রয়েছে। আর তার নির্দশন আসা ব্যতিত কখনোই কিয়ামাত সংগঠিত হবে না।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৮১১ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ١٨١١
حدثنا عبد الوهاب عن
يونس عن الحسن
عن ابن مسعود قال إن للساعة أشراطا ولن تقوم الساعة حتى يجيء
أشراطها
হযরত আবু হুরাইরা রাযিয়াল্লাহু আনহু রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম হতে বর্ণনা করেন যে, রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেন ততক্ষন পর্যন্ত কিয়ামাত সংগঠিত হবে না, যতক্ষন পর্যন্ত না মানুষের উপর প্রচন্ড বৃষ্টি বর্ষন হবে। যে বৃষ্টি জনবসতির প্রত্যেকটি মাটির ঘরে পৌছবে। তবে পশমের ঘরে পৌছবে না। হযরত সুহাইল রাযিয়াল্লাহু আনহু বলেন আল্লাহ তা’আলার সাথে সাক্ষাতের পূর্ব পর্যন্ত (মৃত্যুর পূর্ব পর্যন্ত) আমার পিতা পশমের ঘরের ব্যপারে পৃথক করেন নাই।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৮১২ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ١٨١٢
حدثنا الدراوردي عن سهيل بن أبي صالح عن أبيه
عن أبي
هريرة رضى الله عنه عن النبي صلى الله عليه وسلم قال لاتقوم الساعة حتى يمطر الناس
مطرا لا يكن منه بيوت المدر لا يكن منه إلا بيوت الشعر
قال سهيل فما فارق أبي
بيت شعر حتى لقي الله تعالى
হযরত সাহল ইবনে আবু সাঈদ রাযিয়াল্লাহু আনহু রাসূূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম হতে বর্ণনা করেন যে, রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেন আমি ও কিয়ামাত এভাবে প্রেরিত হয়েছি। একথা বলে রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বৃদ্ধা ও মধ্যমা আঙ্গুলি এর সাথে মিলিত দুটি আঙ্গুল দিয়ে ইশারা করেন এবং ঐ দুটির মাঝে পৃথক করলেন।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৮১৩ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ١٨١٣
حدثنا ابن ابي حازم عن أبيه
عن سهل بن
سعد رضى الله عنه عن النبي صلى الله عليه وسلم قال بعثت أنا والساعة هكذا وأشار
بأصبعيه التي تلي الإبهام والوسطى وفرق بينهما
হযরত আবু হুযাইল রাযিয়াল্লাহু আনহু হতে বর্ণিত যে, তিনি বলেন যদি তোমাদের কেউ প্রশাব করে, সে যেন মাটি দিয়ে তায়াম্মুম করে নেয়। একথা ভয় করে যে, কিয়ামাত তাকে ধরে ফেলবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৮১৪ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ١٨١٤
حدثنا وكيع عن سفيان عن
ضرار بن مرة عن ابن أبي الهذيل قال
إن كان أحدهم ليبول فيتيمم بالتراب مخافة أن
تدركه الساعة
হযরত হানাস ইবনে হারেস তার পিতা হতে বর্ণনা করে বলেন যে, তার পিতা বলেন আমরা কাদেসিয়াতে আসলাম। আর আমাদের একজন সাথীর রাতের বেলায় ঘোড়ার বাচ্চা হবে। অতপর যখন সকাল হবে তখন সে তার ঘোড়ার বাচ্চাকে যবাহ করে দিবে। অতপর এখবর হযরত ওমর ফারুক রাযিয়াল্লাহু আনহু এর নিকটে পৌছল। অতপর আমাদের নিকট হযরত ওমর রাযিয়াল্লাহু আনহু এর পত্র আসলো। তাতে লিখা ছিল, আল্লাহ তা’আলা তোমাদেরকে যে রিযিক দিয়েছেন তার দিকে সংশোধিত হও। নিশ্চই উক্ত বিষয়ে একটি নফস রয়েছে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৮১৫ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ١٨١٥
حدثنا وكيع عن حنش بن الحارث عن أبيه قال
قدمنا
القادسية وكان أحدنا ينتج مهره من الليل فإذا أصبح نحر مهره فبلغ ذلك عمر فأتانا
كتاب
ه
أن أصلحوا إلى ما رزقكم
الله فإن في الأمر نفسا
হযরত আবু সাঈদ খুদরী রাযিয়াল্লাহু আনহু হতে বর্ণিত যে, তিনি বলেন ততক্ষণ পর্যন্ত কিয়ামাত সংগঠিত হবে না, যতক্ষণ পর্যন্ত না বাইতুল্লাহ এর হজ্ব করা হবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৮১৬ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ١٨١٦
حدثنا وكيع عن شعبة عن قتادة عن عبد الله بن
عتبة
عن أبي سعيد الخدري قال لا تقوم الساعة حتى لا يحج البيت
আমাদের নিকট একজন গল্প বর্ণনাকারী বর্ণনা করেছেন যিনি মদীনায় তার পিতা হতে জামা’য়াত সম্পর্কে গল্প বলতেন। তিনি বলেন আমি হযরত আনাস ইবনে মালেক রাযিয়াল্লাহু আনহু কে বলতে শুনেছি যে, কিয়ামাত নিকটবর্তী হওয়ার আলামত হল, গুপ্তধন সমূহের প্রকাশ পাওয়া, অতিবৃষ্টি, শস্যাদির উৎপন্ন কম হওয়া অর্থাৎ দূভিক্ষ। একজন ব্যক্তি একজন বা দুইজন প্রতিরক্ষা নিয়ে হাটবে। তার সম্মুখে আসার মত কাউকে সে পাবে না। এমনকি প্রত্যেক ব্যক্তিই অমুক্ষাপেক্ষী হয়ে যাবে। আর তারা সেদিন তাদের পার্শ্ববর্তীদের উপর প্রতিদ্বন্দ্বিতায় কঠিন হবে। আর এগুলোই হল আয়াত বা নিদর্শন যা প্রকাশ পাবে। অতপর ধনীরা গরীবদের থেকে ভয় পাবে। অতপর বলবে আমি এগুলো দ্বারা কি করবো? আর এই হল কিয়ামাত। যা অনুষ্ঠিত হবে এমনকি কোন এক ব্যক্তি দল নিয়ে বের হবে। যার মালিক সে ব্যতীত অন্য কেউ হবে না। সে উহা নিয়ে সফর করবে। সুতরাং এমন কোন লোক পাওয়া যাবে না, যে উহা গ্রহণ করবে। আর এটা ঘটবে এমন দিনে যে দিনে এমন ব্যক্তির ঈমান তাকে কোন কাজ দিবেনা, যে ব্যক্তি ইহার পূর্বে ঈমান আনায়ন করে নাই। অথবা তার ঈমানের মধ্যে সে কোন মঙ্গল অর্জন করে নাই। (আনআম)।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৮১৭ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ١٨١٧
حدثنا
قاص كان بالمدينة يقص قصص الجماعة عن أبيه قال
سمعت أنس بن مالك يقول من
اقتراب الساعة ظهور المعادن وكثرة المطر وقلة النبات ويمشي الرجل بالوقية والوقيتين
لا يجد أحدا يقبله حتى يستغني كل أحد وهم يومئذ أشد ما كانوا تنافسا على دنياهم
وذلك لآيات تظهر فيفزغ الغني إلى الفقير
فيقول ما أصنع بهذا وهذه الساعة تقوم
حتى إن الرجل ليذهب بالرغيف ما يملك غيره يجول به فلا يجد من يأخذه وذلك يوم لا
ينفع نفسا إيمانها لم تكن آمنت من قبل أو كسبت في إيمانها خيرا [ االأنعام
]
হযরত রজা’ ইবনে হাইওয়া কিনদি হতে বর্ণিত যে, তিনি বলেন মানুষের উপর এমন এক যমানা আসবে, যখন খেজুর গাছ খেজুর ব্যতীত অন্য কিছু বহন করবে না।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৮১৮ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ١٨١٨
حدثنا وكيع عن سفيان عن أبي إسحاق عن رجاء بن حيوة الكندي
قال يأتي
على الناس زمان لا تحمل النخلة فيه إلا تمرة
হযরত আয়েশা রাযিয়াল্লাহু আনহা হতে বর্ণিত যে, তিনি বলেন যখন কিয়ামাতের প্রথম আলামত বা নিদর্শণের অবির্ভাব হবে তখন কলম সমূহ প্রত্যাখ্যান করবে, হিফয তথা মুখস্ততা আটকে যাবে, শরীর সমূহ আমলের উপর সাক্ষি দিবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৮১৯ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ١٨١٩
حدثنا وكيع عن سفيان عن
منصور عن عامر
عن عائشة قالت إذا خرجت أول الآيات طرحت الأقلام وحبست الحفظة
وشهدت الأجساد على الأعمال
হযরত আনাস ইবনে মালিক রাযিয়াল্লাহু আনহু রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম হতে বর্ণনা করেন যে, রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেন একবার হযরত জীবরাঈল আলাইহিস সালাম আমার নিকট একটি সাদা আয়না নিয়ে আসলেন। যার ভিতর একটি কালো রংয়ের ফোঁটা ছিল। অতপর আমি হযরত জীবরাঈল আলাইহিস সালামকে জিজ্ঞাসা করলাম, এটা কি? উত্তরে তিনি বললেন এটা হল জুমআ’। অতপর আমি বললাম এই কালো ফোঁটাটা কি? উত্তরে তিনি বললেন সেখানে কিয়ামাত সংগঠিত হবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৮২০ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ١٨٢٠
حدثنا وكيع عن الأعمش عن يزيد الرقاشي
عن
أنس بن مالك رضى الله عنه عن النبي صلى الله عليه وسلم قال جاءني جبريل عليه السلام
بمرآة بيضاء فيها نكتة سوداء
فقلت ما هذه
قال هذه الجمعة
قلت فما هذه
النكتة السوداء
قال فيها تقوم الساعة
হযরত আবু সাঈদ খুদরী রাযিয়াল্লাহু আনহু হতে বর্ণিত যে, তিনি বলেন যখন যমানা (কিয়ামাত) নিকটবর্তী হবে তখন বজ্রপাত বেশি হবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৮২১ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ١٨٢١
حدثنا أبو روح الجرمي عن
عمارة بن أبي حفصة عن عمارة المعولي عن أبي نضرة
عن أبي سعيد الخدري قال إذا
اقترب الزمان كثرت الصواعق
হযরত শা’বী হতে বর্ণিত যে, হযরত আয়েশা রাযিয়াল্লাহু আনহা বলেন যে, যখন অবির্ভাব হবে, অথবা কিয়ামাতের নিদর্শন হল, কলম সমূহ প্রত্যাখিত হবে, হিফয তথা মুখস্ততা আটকে যাবে, আর শরীর সমূহ আমলের উপর সাক্ষি দিবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৮২২ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ١٨٢٢
حدثنا جرير بن عبد الحميد عن منصور عن الشعبي
قال
قالت عائشة إذا خرج أو الآيات طرحت الأقلام وحبست الحفظة وشهدت الأجساد على
الأعمال
হযরত কায়েস অন্য এক ব্যক্তি হতে তিনি রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম হতে বর্ণনা করেন যে, আমি রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম কে বলতে শুনেছি যে, আমি ও কিয়ামাত এইভাবে অবতীর্ণ হয়েছি। অর্থাৎ তার আঙ্গুলের ন্যায়।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৮২৩ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ١٨٢٣
حدثنا ابن علية عن إسماعيل عن قيس عن آخر
عن النبي صلى الله
عليه وسلم سمعه بعثت أنا والساعة كهذه من هذه يعني إصبعه

Execution time: 0.22 render + 0.01 s transfer.