Login | Register

নুয়াইম বিন হাম্মাদের: আল ফিতান

ঈসা আ: এর নেমে আসা আর উনার চেহারা

   

ঈসা আ: এর নেমে আসা আর উনার চেহারা

Double clicking on an arabic word shows its dictionary entry
হযরত আবু উমামা বাহেলী রাযিয়াল্লাহু আনহু হতে বর্ণিত যে, তিনি বলেন রাসূল সল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম দাজ্জাল সম্পর্কে আলোচনা করলেন। অতপর উম্মে শারীক রাযিয়াল্লাহু আনহা বললেন ইয়া রাসূল সল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম! সেদিন মুসলমানগণ কোথায় থাকবে। তিনি বললেন বাইতুল মুকাদ্দাসে। সে বাহির হবে এমনকি তাদেরকে ঘিরে ধরবে। আর সেদিন মুসলমানদের নেতা হবে একজন ন্যায়পরায়ণ ব্যক্তি। অতপর বলা হল ফজরের নামাজ আদায় করবে। অতপর যখন তাকবীর দিবে ও তাতে প্রবেশ করবে তখন ঈসা ইবনে মারিয়াম আলাইহস সালাম অবতরণ করবেন। যখন ঐ ব্যক্তি তাকে দেখবে তাকে চিনবে। তখন সে পিছনে ফিরে আসবে। অতপর ঈনা আলাইহিস সালাম অগ্রসর হবেন। অতপর তিনি তার হাত তার কাধে রাখবেন এবং বলবেন আপনি নামাজ পড়ান। কেননা আপনার জন্যই নামাজ প্রস্তুত করা হয়েছে। অতপর ঈসা আলাইহিস সালাম তার পিছনে নামাজ আদায় করবেন। অতপর বলবেন, দরজা খুলে দাও। ফলে তার দরজা খুলে দিবে। আর সেদিন দাজ্জালের সাথে সত্তর হাজার ইহুদি থাকবে। তারা প্রত্যেকেই থাকবে অস্ত্রে সস্ত্রে সজ্জিত। অতপর যখন সে ঈসা আলাইহিস সলামকে দেখবে তখন সে চুপসে যাবে যেমন নাকি সীসা চুপসে যায় এবং পানিতে লবন বিলীন হয়ে যায়। অতপর সে পালিয়ে বাহির হয়ে যাবে। তখন ঈসা আলাইহিস সালাম বলবেন নিশ্চই তোমার মাধ্যে আমার জন্য মার আছে। আমাকে তা থেকে বিরত করিও না। অতপর তিনি তাকে পাবেন ও হত্যা করে দিবেন। এরপর পৃথীবিতে আর এমন কিছুই অবশিষ্ট থাকবে না, যার দ্বারা ইহুদিরা আত্মগোপন করবে। বরং তাদের ব্যাপারে আল্লাহ তা’আলা বলে দিবেন। প্রত্যেক পাথর, প্রত্যেক গাছ, প্রত্যেক প্রাণীই বলবে হে আল্লাহর বান্দা মুসলিম! এইযে ইহুদি। তাকে হত্যা কর। তবে ঝাউ গাছ ব্যতীত। কেননা সেটা তাদের গাছ। সুতরাং সেটা কোন কথা বলবে না। আর ঈসা হবে আমার উম্মতের মধ্যে বিচারক, ন্যায়পরায়ণ, ন্যায় পরায়ণ ইমাম। তিনি ক্রুশকে চূর্ণবিচূর্ণ করবেন। শুকর হত্যা করবেন। (গাইরে মুসলিমদের উপর) জিযিয়া ধার্য্য করবেন। তিনি সদকা গ্রহণ করবেন না। ছাগলের উপর ধাবিত হবেন না। শত্রুতা, ক্রোধ উঠিয়ে নেয়া হবে। প্রত্যেক প্রাণীর উষ্ণতা উঠিয়ে নেয়া হবে। এমনকি ছোট বাচ্চা তার হাত বিষধর (প্রাণীর গুহায়) ঢুকিয়ে  দিবে, কিন্ত তাকে তা দংশন করবে না। আর ছোট শিশুর সাথে সিংহের দেখা হবে কিন্তু সিংহ তাকে কোন ক্ষতি করবে না। আর কেমন যেন গরুর পালে সিংহ পালের কুকুর। এমনিভাবে সাপ ছাগলের পালের ভিতর কেমন যেন ছাগলের পালের কুকুর। আর সমস্ত দুনিয়ায় ইসলাম ভরে যাবে। আর কাফেরদের থেকে তাদের রাজ্য ছিনিয়ে নেয়া হবে। ফলে পৃথীবিতে ইসলামের রাজ্য ব্যতীত অন্য কোন রাজ্য থাকবে না। আর যমিনের রৌপ্যের জাগরণ হবে। ফলে যমিনে তার ফসল ফলাবে যেমন নাকি হযরত আদম আলাইহিস সালামের সময় ছিল। দলে দলে মানুষ একটি আঙ্গুরের থোকার নিকট জমায়েত হবে। আর তা থেকেই সবাই খেয়ে পরিতৃপ্ত হয়ে খাবে। এমনি ভাবে দলে দলে মানুষ একটি আনারের নিকট জমায়েত হবে। আর তা থেকে সকলেই খেয়ে পরিতৃপ্ত হয়ে যাবে। এমনি ভাবে অন্যান্য মাল সম্পদে জাগরণ ঘটবে। আর খুব কম মূল্যে ঘোড়া পাওয়া যাবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৫৮৯ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ١٥٨٩
حدثنا ضمرة بن ربيعة عن يحيى بن ابي عمرو السيباني عن عمرو بن
عبد الله الحضرمي
عن أبي أمامة الباهلي رضى الله عنه قال ذكر رسول الله صلى
الله عليه وسلم الدجال
فقالت أم شريك فأين المسلمون يومئذ يا رسول الله
قال
ببيت المقدس يخرج حتى يحاصرهم وإمام الناس يومئذ رجل صالح فيقال صلي الصبح فإذا كبر
ودخل فيها نزل عيسى ابن مريم عليه السلام فإذا رآه ذلك الرجل عرفه فرجع يمشي
القهقري فيتقدم عيسى فيضع يده بين كتفيه ثم يقول صلي فإنما أقيمت لك [ الصلاة
]
فيصلي عيسى وراءه ثم يقول افتحوا الباب فيفتحون الباب ومع الدجال يومئذ سبعون ألفا
يهود كلهم ذو ساج وسيف محلى فإذا نظر إلى عيسى ذاب كما يذوب الرصاص وكما يذوب الملح
في الماء ثم يخرج هاربا فيقول عيسى إن لي فيك ضربة لن تفوتني بها فيدركه فيقتله فلا
يبقى شيء مما خلق الله تعالى يتوارى به يهودي إلا أنطقه الله لا حجر ولا شجر ولا
دابة إلا قال يا عبد الله المسلم هذا يهودي فاقتله إلا الغرقد فإنها من شجرهم فلا
تنطق ويكون عيسى في أمتي حكما عدلا وإماما مقسطا يدق الصليب ويقتل الخنزير ويضع
الجزية ويترك الصدقة ولا يسعى على شاة وترفع الشحناء والتباغض وتنزع حمة
كل
دابة حتى يدخل الوليد يده في الحنش فلا يضره وتلقى الوليدة الأسد فلا يضرها ويكون
في الإبل كأنه كلبها والذئب في الغنم كأنه كلبها وتملأ الأرض من الإسلام ويسلب
الكفار ملكهم فلا يكون ملك إلا الإسلام وتكون الأرض كفا ثورة الفضة فتنبت نباتها
كما كانت على عهد آدم عليه السلام يجتمع النفر على القطف فيشبعهم ويجتمع النفر على
الرمانة [ فتشبعهم ] ويكون الثور بكذا وكذا من المال وتكون الفرس بالدريهمات
হযরত কা’ব রাযিয়াল্লাহু আনহু হতে বর্ণিত যে, তিনি বলেন মাসীহ ঈসা ইবনে মারিয়াম আলাইহিস সালাম পশ্চির্ম দামেস্কের সাদা ব্রিজের উপর গাছের দিকে অবতরণ করবেন। তাকে একটি ঘোড়া বহণ করে আনবে। তার হাত দুটি দুইজন ফেরেশতার কাধে থাকবে। তার উপর দুটি চাদর থাকবে। তন্মধ্যে একটি হবে দেহের নিম্নাংশে পরিহিত আরকেটি হবে দেহের উপর পরিহিত। যখন তিনি মাথা নিচু করবেন তখন তার মাথা হতে মুক্তার মতো টপ টপ করে পড়বে। অতপর তার নিকট ইহুদিগণ আসবে এবং তারা বলবে আমরা আপনার সাথী। তখন তিনি বলবেন তোমরা মিথ্যা বলছো। অতপর তার নিকটে নাসারাগণ আসবে এবং বলবে আমরা আপনার সাথী। তখন তিনি বলবেন তোমরা মিথ্যা বলছো। বরং আামর সাথী হল যুদ্ধের অবশিষ্ট সাথীগণ। অতপর তার নিকট সকল মুসলমানগণ আসবে। এমনকি চিন্তিত হবে। অতপর তারা তাদের খলীফাকে পাবে। সে তাদের নিয়ে নামাজ আদায় করবে। অতপর সে (খলিফা) যখন মাসীহকে দেখবেন তখন তার জন্য অপেক্ষা করবেন। অতপর বলবেন হে আল্লাহর মাসীহ! আমাদেরকে নিয়ে নামাজ আদায় করুন। তখন তিনি বলবেন, বরং আপনি আপনার সাথীদের নিয়ে নামাজ আদায় করুন। আর আল্লাহ তা’আলা আপনার থেকে রাজি আছেন। আর আমি উজির হিসাবে প্রেরিত হয়েছি। আমি আমির হিসাবে প্রেরিত হই নাই। অতপর তাদের নিয়ে মুহাজিরদের খলিফা এক বার দুই রাকাত নামাজ আদায় করবেন। আর ইবনে মারিয়াম আলাইহিস সালাম তাদের মাঝে থাকবেন। অতপর মাসীহ আলাইহিস সালাম তার পরে তাদের জন্য নামাজ আদায় করবেন। এবং তাদের খলিফাকে অপসারণ করবেন।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৫৯০ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ١٥٩٠
حدثنا بقية بن الوليد عن صفوان بن عمرو عن شريح ابن عبيد
عن كعب قال
يهبط المسيح عيسى بن مريم عليه السلام عند القنطرة البيضاء على باب دمشق الشرقي إلى
طرف الشجر تحمله غمامة واضع يديه على منكب ملكين عليه ريطتان مؤتزر بإحديهما مرتدى
بالأخرى إذا أكب رأسه قطر منه كالجمان فيأتيه اليهود
فيقولون نحن أصحابك
فيقول كذبتم ثم يأتيه النصارى
فيقولون نحن أصحابك
فيقول كذبتم بل
اصحابي المهاجرون بقية أصحاب الملحمة فيأتي مجمع المسلمين حيث هم فيجد خليفتهم يصلي
بهم فيتأخر للمسيح حين يراه
فيقول يا مسيح الله صلي لنا
فيقول بل أنت
فصل لأصحابك فقد رضى الله عنك فإنما بعثت وزيرا ولم أبعث أميرا فيصلي لهم خليفة
المهاجرين ركعتين مرة واحدة وابن مريم فيهم ثم يصلي لهم المسيح بعده وينزع خليفتهم
হযরত হুযাইফা ইবনে ইয়ামান রাযিয়াল্লাহু আনহু তে বর্ণিত যে, তিনি বলেন রাসূল সল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেন যারা দাজ্জালের সাথে থাকবে তাদের মাঝে শয়তান থাকবে। যারা কিছু বনী আদম দাজ্জালের অনুসরণে লেগে থাকবে। অতপর তার নিকটে আসবে যে আসবে। এবং তাদের কতিপয় তাকে বলবে তোমরা হলে শয়তান। আর নিশ্চই আল্লাহ তা’আলা অচিরেই হযরত ঈসা ইবনে মারিয়াম আলাইহিস সালামকে ইলয়িা নামক এলাকায় পরিচালিত করবেন। অতপর তিনি তাকে হত্যা করবেন। আর সেখানে মুসলমানদের দল ও তাদের খলিফা থাকবে। আর মুয়াযযিনের ফজরের আযান দেয়ার পর মুয়াযযিন মানুষের আওয়াজ শুনবে আর তা হল ঈসা ইবনে মারিয়াম আলাইহিস সালাম। তখন ঈসা আলাইহিস সালাম নেমে আসবেন। অতপর লোকজন তাকে স্বাগত জানাবে। আর মানুষ তার আগমনের এবং রাসূল সল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম এর ভবিষ্যৎ বাণী সত্য হওয়ার কারণে আনন্দিত হবে। অতপর তিনি মুয়াযযিনকে নামাজ পড়াতে বলবেন। অতপর লোকজন ঈসা আলাইহিস সালামকে বলবে আমাদের নামজ পড়ান। অতপর তিনি বলবেন তোমরা তোমাদের ইমামের নিকট যাও। সে তোমাদের নিয়ে নামাজ আদায় করবে। কারণ সে কতইনা উত্তম ইমাম। অতপর তাদের ইমাম তাদেরকে নিয়ে নামাজ আদায় করবে। আর ঈসা আলাইহিস সালাম তাদের সাথে নামাজ আদায় করবেন। অতপর ইমাম ফিরে আসবেন এবং ঈসা আলাইহিস সালামের আনুগত্য স্বীকার করবেন। অতপর তিনি মানুষদের নিয়ে সফর করবেন। এমনকি যখন তিনি দাজ্জালকে দেখবেন যে. সে দ্রবীভূত হয়ে যাচ্ছে যেমন নাকি আলকাতরা দ্রবীভূত হয়। তখন তিনি তার দিকে যাবেন এবং আল্লাহ তা’আলার ইচ্ছায় তাকে হত্যা করবেন। এবং তার সাথে যাকে আল্লাহ তা’আলা চাইবেন তাকেও হত্যা করবেন। অতপর তারা পৃথক হয়ে যাবে এবং প্রত্যেক গাছ ও পাথরের নিচে তারা নিঃশেষ হতে থাকবে। তখন গাছ বলবে হে আল্লাহর বান্দা, হে মুসলিম, এই যে আমার নিচে ইহুদি তাকে হত্যা কর। এভাবে পাথরও ডাকতে থাকবে। তবে গারকাদ তথা ঝাউ গাছ বলবে না। কারণ সেটা ইহুদিদের গাছ। উক্ত গাছগুলো তার দিকে কাউকে ডাকবে না, যারা তার নিকটে থাকবে। অতপর রাসূল সল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বললেন আমি তোমাদের নিকট এসব আলোচনা করতেছি যাতে তোমরা ভালভাবে উপলব্ধি করতে, বুঝতে ও স্বরণ রাখতে পার এবং াতর ব্যপারে জানতে পার। আর তোমরা তার ব্যপারে তোমাদের পরে যারা আসবে তাদের নিকট আলোচনা করিও। এভাবে একে অপরের কাছে আলোচনা করবে। কেননা নিশ্চই তার ফিতনা হল সব চেয়ে বড় ফিতনা। অতপর তোমরা ঈসা আলাইহিস সালামের সাথে জীবন যাপন করবে যেভাবে আল্লাহ তা’আলা চান।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৫৯১ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ١٥٩١
حدثنا سويد بن عبد العزيز عن إسحاق بن أبي فروة وابن سابور جميعا
عن
مكحول
عن حذيفة بن اليمان رضى الله عنه قال قال رسول الله صلى الله عليه وسلم
بينما الشياطين [ الذين ] مع الدجال يزاولون بعض بني آدم على متابعة الدجال فيأتي
عليه من يأتي ويقول له بعضهم إنكم شياطين وإن الله تعالى سيسوق إليه عيسى ابن مريم
بإيلياء فيقتله فبينما أنتم على ذلك حتى ينزل عيسى ابن مريم بإيلياء وفيها جماعة من
المسلمين وخليفتهم بعدما يؤذن المؤذن لصلاة الصبح فيسمع المؤذن للناس عصعصة فإذا هو
عيسى ابن مريم فيهبط عيسى فيرحب به الناس ويفرحون بنزوله ولتصديق حديث رسول الله
صلى الله عليه وسلم
ثم يقول للمؤذن أقم الصلاة
ثم يقول له الناس صلي لنا
فيقول انطلقوا إلى إمامكم فيصلي لكم فإنه نعم الإمام فيصلي بهم إمامهم ويصلي
عيسى معهم ثم ينصرف الإمام ويعطي عيسى الطاعة فيسير بالناس حتى إذا رآه الدجال ماع
كما يميع القير فيمشي إليه عيسى فيقتله بإذن الله تعالى ويقتل معه من شاء الله ثم
يفترقون ويختبئون تحت كل شجر وحجر
حتى يقول الشجر يا عبد الله يا مسلم تعال
هذا يهودي ورائي فاقتله ويدعو الحجر مثل ذلك غير شجرة الغرقدة شجرة اليهود لا تدعو
إليهم أحدا يكون عندها
ثم قال رسول الله صلى الله عليه وسلم إنما أحدثكم هذا
لتعقلوه وتفهموه وتعوه واعملوا عليه وحدثوا به من خلفكم وليحدث الآخر الآخر وإن
فتنته أشد
الفتن
ثم تعيشوا بعد ذلك
ما شاء الله تعالى مع عيسى ابن مريم
হযরত কা’ব রাযিয়াল্লাহু আনহু হতে বর্ণিত যে, তিনি বলেন যখন ঈসা ইবনে মারিয়াম আলাইহিস সালাম দালান অট্টলিকা ভেঙ্গে পড়বে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৫৯২ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ١٥٩٢
حدثنا بقية عن صفوان عن شريح بن
عبيد
عن كعب قال إذا خرج عيسى ابن مريم انقطعت الإمارة
হযরত আবু হুরাইরা রাযিয়াল্লাহু আনহু রাসূল সল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম হতে বর্ণনা করেন যে, রাসূল সল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেন ঈসা আলাইহিস সালামের এই শেষ বারের জীবনটা তার পূর্বের জীবনের মত হবে না। কারণ তার শেষ জীবনে তার উপর মৃত্যুর ভয় দেয়া হবে। তিনি মানুষের চেহারা স্পর্শ করবেন আর তাদের জান্নাতের সুসংবাদ দিবেন।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৫৯৩ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ١٥٩٣
حدثنا بقية
بن الوليد وأبو المغيرة عن صفوان عمن حدثه
عن أبي هريرة رضى الله عنه عن النبي
صلى الله عليه وسلم قال حياة عيسى هذه الآخرة ليست كحياته الأولى يلقى عليه مهابة
الموت يمسح وجوه رجال ويبشرهم بدرجات الجنة
হযরত আবু হুরাইরা রাযিয়াল্লাহু আনহু হতে বর্ণিত যে, তিনি বলেন তোমাদের মধ্যে যে জীবিত থাকবে সে অচিরেই দেখবে যে, ঈসা আলাইহিস সালামকে দেখবে ইমাম রূপে, সঠিক পথের দিশারী হিসাবে, এবং ন্যায় পরায়ন বিচারক হিসাবে। তিনি ক্রুশ ধ্বংস করবেন। শুকর হত্যা করবেন। জিযিয়া ধার্য্য করবেন এবং যুদ্ধ তার অস্ত্র রেখে দিবে। মুহাম্মাদ বলেন আমি হযরত আবু হুরাইরা রাযিয়াল্লাহু আনহু হতে এতটুকুই জানি যে, তিনি বলেন হযরত ঈসা আলাইহিস সালাম দুই আজানের মাঝে অবতরণ করবেন। তার পরনের কাপড় থেকে পানি ঝরবে। আর তার উপর দুটি কাপড় থাকবে যা জড়ানো থাকবে বা পরিহিত অবস্থায় থাকবে। মুহাম্মাদ বলেন আমি ধারণা করি যে, তারা উক্ত কথাগুলো কোন কিতাবে পেয়েছে। যা তারা জানেনা যে, তার রং কি? অতপর ঈসা আলাইহিস সালাম এই উম্মতের এক ব্যক্তির পিছনে নামাজ আদায় করবেন।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৫৯৪ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ١٥٩٤
حدثنا عبد الوهاب بن عبد
المجيد عن أيوب عن محمد بن سيرين
عن أبي هريرة قال يوشك من عاش منكم أن يرى
عيسى بن مريم إماما مهديا وحكما عادلا فيكسر الصليب ويقتل الخنزير وتوضع الجزية
وتضع الحرب أوزارها
قال محمد ولا أعلمه إلا عن أبي هريرة قال ينزل بين أذانين يقطر ثوبه ماء عليه
ثوبان ممصران أو بردان
قال محمد فظننت أنهم وجدوه في
كتاب
فلم يدروا مالونه فيصلي عيسى وراء رجل من هذه الأمة
হযরত আব্দুল্লাহ ইবনে আমর ইবনুল আস রা. হতে বর্ণিত যে, তিনি বলেন, যারা কুস্তুনতুনিয়া বিজয় করবে, তাদের নিকট দাজ্জালের অভির্ভাবের খবর পৌছবে। অতপর তারা সামনে অগ্রসর হবে। এমনকি তারা দাজ্জালের সাথে বাইতুল মাকদাসে মিলিত হবে। আর সেখানে আট হাজার মহিলা ও বার হাজার যোদ্ধাকে আটকে রাখা হয়েছে। তারা অবশিষ্টদের মাঝে উত্তম ও অতিবাহিতদের মাঝে সৎ জনের ন্যায়। অতপর তারা মেঘের কুয়াশার মধ্যে থাকবে, আর তখনই সকাল হওয়ার সাথে সাথে কুয়াশা দূর হয়ে যাবে। আর তখন ঈসা ইবনে মারিয়াম আ.তাদের মাঝে আসবেন। তখন তাদের ইমাম হযরত ঈসা ইবনে মারিয়াম আ. কে তাদের নিয়ে নামাজ আদায়ের জন্য দায়িত্ব দিবেন। তখন হযরত ঈসা ইবনে মারিয়াম আ. আসবেন এমনকি উক্ত দলের সম্মানার্থে তাদের ইমাম নামাজ আদায় করবেন। অতপর তারা দাজ্জালের শেষ সময়ে দাজ্জালের দিকে অগ্রসর হয়ে তাকে আঘাত করবে ও হত্যা করবে। আর তখনই যমিন চিৎকার করবে, কোন পাহাড়, গাছ বা জিনিস অবশিষ্ট থাকবে না, বরং প্রত্যেকেই বলবে- হে মুসলিম! এখানে আমার পিছনে ইহুদি, সুতরাং তাকে হত্যা কর। তবে গারক্বাদ (এক প্রকার গাছ বিশেষ) ব্যতিত। কেননা এটা ইহুদি গাছ। অতপর একজন ন্যয় বিচারক অবতরণ করবেন এবং ক্রুশ ধ্বংস করবেন, শুকর হত্যা করবেন, জিযিয়া ধার্য করবেন। অতপর কুরাইশরা আমীরের পদ বলপূর্বক নিয়ে নিবে। যুদ্ধ শেষ হয়ে যাবে। আর তখন পৃথীবি রৌপ্যের কাচের বোতলের ন্যায় হবে। শত্রুতা, হিংসা ও বিদ্ধেষ এবং প্রত্যেক কাঁটাওয়ালা বস্তু বা রোগজীবানু উঠিয়ে নেয়া হবে। যেমনিভাবে পাত্র পানিতে ভরে গিয়ে পাত্রের পার্শ্ব দিয়ে পানি উবলে পড়তে থাকে ঠিক তেমনিভাবে পৃথীবিও শান্তিতে ভরে যাবে। এমনকি ছোট কিশোরী সিংহের মাথার উপর যাবে। সিংহ গরুর (পালের) ভিতর প্রবেশ করবে। আর বাঘ ছাগলের (পালের) ভিতর প্রবেশ করবে। এবং বিশ দিরহামের বিনিময়ে একটি ঘোড়া বিক্রি হবে। একটি ষাড় অনেক মুল্যবান হবে। মানুষ সৎ হয়ে যাবে। তখন (মানুষ) আকাশকে আদেশ করবে ফলে আকাশ বৃষ্টি বর্ষণ করবে। (তারা যমিনকে আদেশ করবে, ফলে) যমিন ফসল উৎপন্ন করবে। এমনকি তাদের সময় হযরত আদম আ. এর সময়ের মতো হয়ে যাবে। এমনকি তারা একটি বেদানা ফল থেকে অনেক মানুষ খাবে। এবং এক গুচ্ছ হতে অনেক দল খাবে। তারা বলবে, হায়! আমাদের পূর্বপুরুষগণ যদি এ আরাম আয়েশ পেত!!
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৫৯৫ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ١٥٩٥
حدثنا عبد الله بن وهب عن ابن لهيعة وليث بن سعد عن خالد بن يزيد عن
سعيد بن ابي هلال عن أبي سلمة
عن عبد الله بن عمرو بن العاص قال يبلغ الذين
فتحوا القسطنطينية خروج الدجال فيقبلون حتى يلقوه ببيت المقدس قد حصر هنالك ثمانية
آلاف امرأة واثنا عشر ألف مقاتل هم خير من بقي وكصالح من مضى فبيناهم تحت ضبابة من
غمام إذ تكشف عنهم الضبابة مع الصبح فإذا بعيسى ابن مريم بين ظهرانيهم فيتنكب
إمامهم عنه ليصلي بهم فيأبى عيسى ابن مريم حتى يصلي إمامهم تكرمة لتلك العصابة ثم
يمشي الى الدجال وهو في آخر رمق فيضربه فيقتله فعند ذلك صاحت الأرض فلم يبق حجر ولا
شجر ولا شيء إلا قال يا مسلم هذا يهودي ورائي فاقتله إلا الغرقدة فإنها شجرة يهودية
فينزل حكما عادلا فيكسر الصليب ويقتل الخنزير ويضع الجزية وتبتز قريش الإمارة وتضع
الحرب أوزارها وتكون الأرض كفاثورة الفضة وترفع العداوة والشحناء والبغضاء وحمة كل
ذات حمة وتملأ الأرض سلما كما يملأ الإناء
من الماء فيندفق من نواحيه حتى
تطأ الجارية على رأس الأسد ويدخل الأسد في البقر والذئب في الغنم وتباع الفرس
بعشرين درهما ويبلغ الثور الثمن الكثير ويكون الناس صالحين فيأمر السماء فتمطر
والأرض فتنبت حتى تكون على عهدها حين نزلها آدم عليه السلام حتى يأكل من الرمان
الواحدة الناس الكثير ويأكل العنقود النفر الكثير وحتى يقول الناس لو أن آباءنا
أدركو هذا العيش
হযরত হানযালা রা. হতে বর্ণিত যে, তিনি সালেম রা. কে বলতে শুনেছেন যে, আমি হযরত ইবনে উমর রা. কে বলতে শুনেছি যে, রাসূল সা. বলেছেন, কা’বা ঘরের নিকটে যেখানে মাকাম অবস্থিত সেখানে আমি একজন লোক যার মাথার চুল অকোঁকড়ানো, দুই হাত তার পায়ের উপর মাথা ঝরানো বা তার মাথা হতে পানি ঝরতেছে। অতপর আমি জিজ্ঞাসা করলাম, এই ব্যক্তি কে? অতপর একজন বলল, ইনি ঈসা ইবনে মারিয়াম আ.
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৫৯৬ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ١٥٩٦
حدثنا ابن وهب عن حنظلة سمع سالما يقول
سمعت ابن
عمر رضى الله عنه يقول قال رسول الله صلى الله عليه وسلم أريت عند الكعبة مما يلي
المقام رجلا آدم سبط الرأس واضعا يديه على رجلين يسكب رأسه أو يقطر رأسه ماء فسألت
من هذا فقال قائل هذا عيسى ابن مريم
হযরত আব্দুল্লাহ ইবনে জুবাইর রা. হতে বর্ণিত যে, তিনি বলেন রাসূল সা. বলেছেন, অবশ্যই আমার উম্মতের কিছু লোক হযরত ঈসা ইবনে মারিয়াম আ. কে পাবে। তারা তোমাদের মতোই বা তাদের সৎজনেরা তোমাদের মতো বা ভালো।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৫৯৭ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ١٥٩٧
حدثنا أبو حيوة وأبو أيوب عن أرطاة
عن عبد الرحمن بن جبير قال قال رسول الله صلى الله عليه وسلم
ليدركن ابن
مريم رجال من أمتي هم مثلكم أو خيرهم مثلكم أو خير
হযরত কা’ব রা. হতে বর্ণিত যে, তিনি বলেন, যখন তারা কুস্তুনতুনিয়ার গণীমাত বন্টন করতে থাকবে, তখন তাদের নিকট দাজ্জালের খবর আসবে। তখন তারা তাদের হাতে যা থাকবে তা প্রত্যাখ্যান করে সামনে অগ্রসর হবে। অতপর তারা বাইতুল মাকদাসে মিলিত হবে। অতপর মুসলমানদের আমীরের পিছনে নামাজ আদায় করবে। অতপর আল্লাহ তা’আলা হযরত ঈসা ইবনে মারিয়াম আ. এর উপর ইয়াজুজ মাজুজ এর প্রতি যাওয়ার ব্যাপারে অহী প্রেরণ করবেন। অতপর যমিন দুনিয়ার শুরু থেকে যে গুপ্তধন তার ভিতর গুপ্ত ছিল তা বের করে দিবে। অতপর সাত বছর অবস্থান করবে। অতপর আল্লাহ তা’আলা মুমিনদের রুহ কবজকারী বাতাশ প্রেরণ করবেন।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৫৯৮ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ١٥٩٨
حدثنا أبو أيوب عن
أرطاة عمن حدثه
عن كعب قال بينما هم يقتسمون غنائم القسطنطينية إذ يأتيهم خبر
الدجال فيرفضون ما في أيديهم ثم يقبلون فيلحقون ببيت المقدس فتصلي خلف من يلي أمر
المسلمين ثم يوحي الله تعالى الى عيسى ابن مريم ان يسير إلى يأجوج مأجوج ثم يرجع
إلى بيت المقدس ثم إن الأرض
تخرج زكاتها على ما كانت في أول الدنيا ثم يلبث
سبعا ثم يبعث الله ريحا فتقبض أرواح المؤمنين
হযরত কা’ব রা. হতে বর্ণিত যে, তিনি বলেন, হযরত ঈসা ইবনে মারিয়াম আ. দামেস্কের পূর্ব দিকের গেইটের নিকটে যে মিনার রয়েছে, সেটার নিকটে অবতরণ করবেন। আর তিনি হবেন হলুদ বর্ণের একজন যুবক। তার সাথে দুইজন ফেরেস্তা থাকবে। তিনি তাদের কাঁধের উপর ভর করে থাকবেন। যে কাফের তার নিশ্বাস বা বাতাশ পাবে, সে মারা যাবে। আর এটা একারণে যে, তার নিশ্বাস তার দৃষ্টিশক্তির সীমা পর্যন্ত পৌছবে। অতপর দাজ্জাল তাঁর নিশ্বাস পাবে। অতপর সে মোমবাতির গলার ন্যায় গলে যাবে। (শক্তিহীন হয়ে যাবে) তারপর সে মারা যাবে। হযরত ঈসা ইবনে মারিয়াম আ. বাইতুল মাকদাসে যেসকল মুসলমান রয়েছে তাদের দিকে সফর করবেন। তাদেরকে দাজ্জালের হত্যার সংবাদ দিবেন। এক ওয়াক্ত নামাজ তাদের আমীরের পিছনে আদায় করবেন। অতপর ইবনে মারিয়াম আ. তাদের জন্য নামাজ আদায় করবেন। আর এটাই হল মালহামা বা লড়াই। অতপর অবশিষ্ট খ্রীষ্টান ইসলাম গ্রহণ করবে। ঈসা আ. (তাদের মাঝে) অবস্থান করবেন এবং তাদেরকে জান্নাতের মধ্যে তাদের অবস্থানের ব্যাপারে সুসংবাদ দিবেন।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৫৯৯ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ١٥٩٩
حدثنا الحكم بن نافع عن
جراح عمن حدثه
عن كعب قال ينزل عيسى ابن مريم عليه السلام عند المنارة التي عند
باب دمشق الشرقي وهو شاب أحمر معه ملكان قد لزم مناكبهما لا يجد نفسه ولا ريحه كافر
إلا مات وذلك ان نفسه يبلغ مد بصره فيدرك نفسه الدجال فيذوب ذوبان الشمع فيموت
ويسير ابن مريم إلى من في بيت المقدس من المسلمين فيخبرهم بقتله ويصلي وراء أميرهم
صلاة واحدة ثم يصلي لهم ابن مريم وهي الملحمة ويسلم بقية النصارى ويقيم عيسى
ويبشرهم بدرجاتهم في الجنة
হযরত আবু হুরাইরা রা. হতে বর্ণিত যে, তিনি বলেন, হযরত ঈসা ইবনে মারিয়াম আ. এর অবতরণের জন্য মসজিদ সমূহ সংস্কার করা হবে। ফলে ক্রুশ ধ্বংস করবে, শুকর হত্যা করবে, জিযিয়া ধার্য করবে। অতপর তিনি ঘুরলেন এবং আমাকে নতুন গোত্রের মধ্যে আমাকে দেখলেন। এবং বললেন, হে আমার ভ্রাতুস্পুত্র! যদি তুমি তাকে পাও, তাহলে তাকে আমার পক্ষ থেকে সালাম দিও।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৬০০ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ١٦٠٠
حدثنا أبو معاوية حدثنا الشيباني عن عمار بن
المغيرة
عن أبي هريرة قال تجدد المساجد لنزول عيسى بن مريم فيكسر الصليب ويقتل
الخنزير ويضع الجزية ثم التفت فرآني من أحدث القوم
فقال يا ابن أخي إن أدركته
فأقره مني السلام
হযরত আব্দুল্লাহ রা. রাসূল সা. হতে বর্ণনা করে বলেন যে, যখন দাজ্জাল আফীক নামক ঘাঁটিতে পৌছবে, তখন তার ছায়া মুসলমানদের উপর পড়বে। তখন তারা তাকে হত্যা করার জন্য তাদের ধনুকে তীর সংযোজন করবে। অতপর তারা একটি আওয়াজ শুনবে, হে মানুষ সকল! তোমাদের নিকট সাহায্য এসে গেছে। আর তারা ক্ষুধার কারণে দূর্বল হয়ে গেছে। অতপর তারা বলবে, এটা পরিতৃপ্ত ব্যক্তির কথা। তারা একথাটা তিনবার শুনবে। আর যমিন তার আলো দিয়ে আলোকিত করবে। কা’বার প্রতিপালকের কসম! অতপর হযরত ঈসা ইবনে মারিয়াম আ. অবতরণ করবেন এবং সকলকে ডেকে বলবেন, হে মুসলিম জাতি! তোমরা তোমাদের প্রতিপালকের প্রশংসা কর। তার তাসবীহ পাঠ কর। প্রশংসা ধ্বণি কর। তার নামের তাকবীর দাও। অতপর তারা তাই করবে। অতপর তারা পালানোর জন্য একে দৌড়ে পাল্লা দিবে। এবং তারা তা দ্রুতভাবে করবে। অতপর যখন তারা অর্ধেক সময়ের মধ্যে লুদ দরজায় আসবে, তখন আল্লাহ তা’আলা তাদের উপর যমিন খাটো করে দিবেন। তারা ঈসা ইবনে মারিয়াম আ. এর সমর্থন করবে। আর ঈসা আ. লুদ এর দরজায় অবতরণ করবেন। অতপর যখন সে হযরত ঈসা আ. কে দেখবে তখন সে বলবে, নামাজ কায়েম কর। তখন দাজ্জাল বলবে, হে আল্লাহর নবী! নামাজ কায়েম হয়ে গেছে। তখন হযরত ঈসা আ. বলবেন, হে আল্লাহর শত্রু! তোমার জন্য কায়েম হয়েছে। সুতরাং সামনে আগ্রসর হও ও নামাজ আদায় কর। অতপর যখন সামনে অগ্রসর হয়ে নামাজ আদায় করবে, তখন হযরত ঈসা আা. বলবেন, হে আল্লাহর শত্রু! তুমিতো ধারণা কর যে, তুমি পৃথীবির পালনকর্তা। সুতরাং কেন নামাজ আদায় করলে? অতপর তিনি তার সাথে থাকা মোটা লাঠি দিয়ে দাজ্জালকে আঘাত করে হত্যা করবেন। সুতরাং কোন জিনিসের নিচে বা পিছনে (লুকানো) তার কোন সাহায্যকারা অবশিষ্ট থাকবে না। কেনান প্রত্যেক জিনিসই ডেকে ডেকে বলবে, হে মুমিন! এইযে দাজ্জালি, তাকে হত্যা কর।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৬০১ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ١٦٠١
حدثنا أبو عمر عن ابن لهيعة عن عبد الوهاب بن حسين عن
محمد بن ثابت عن أبيه عن الحارث
عن عبد الله عن النبي صلى الله عليه وسلم قال
إذا بلغ الدجال عقبة أفيق وقع ظله على المسلمين فيوترون قسيهم لقتاله فيسمعون نداء
يا أيها الناس قد اتاكم الغوث وقد صعفوا من الجوع
فيقولون هذا كلام رجل شبعان
يسمعون ذلك النداء ثلاثا
وتشرق الأرض بنورها وينزل عيسى ابن مريم ورب
الكعبة وينادي
يا معشر المسلمين احمدوا ربكم وسبحوه وهللوه وكبروه فيفعلون
فيستبقون يريدون الفرار ويبادرون فيضيق الله عليهم الأرض إذا أتوا باب لد في نصف
ساعة فيوافقون عيسى ابن مريم قد نزل باب لد فإذا نظر إلى عيسى
فيقول اقم الصلاة
يقول الدجال يا نبي الله قد أقيمت الصلاة يقول عيسى يا عدو الله أقيمت لك فتقدم
فصلي فإذا تقدم يصلي
يقول عيسى يا عدو الله زعمت أنك رب العالمين فلم تصلي
فيضربه بمقرعة معه فيقتله فلا يبقى من أنصاره أحد تحت شيء أو خلفه إلا نادى
يا
مؤمن هذا دجالي فاقتله
রাসূল সা. এর কতিপয় সাহাবী রা. রাসূল সা. হতে বর্ণনা করে বলেন যে, সিরিয়ার পাহাড় সমূহের কোন এক পাহাড়ে দাজ্জাল সিরিয়ার মুসলমানদের অবরুদ্ধ করে রাখবে। তারা দাজ্জালকে হত্যা করতে চাইবে। তখন তাদেরকে এমন এক অন্ধকার ঘিরে ধরবে যে, উক্ত অন্ধকারে কোন ব্যক্তি তার হাত দেখতে পারবে না। অতপর ইবনে মারিয়াম আ. অবতরণ করবেন অতপর তাদের থেকে অন্ধকার দুর হয়ে যাবে (আর তারা দেখবে যে,) তাদের মাঝে এমন একজন লোক যার উপর তার বর্ম থাকবে। অতপর তারা বলবে, হে আল্লাহর বান্দা তুমি কে? তখন তিনি বলবেন আমি আল্লাহর বান্দা ও তার রাসূল। তার রূহ ও কালিমা, ঈসা ইবনে মারিয়াম আ.। তোমরা তিনটি বিষয়ের কোন একটি গ্রহণ কর। হয়তো আল্লাহ তা’আলা দাজ্জাল ও তার দলের উপর আকাশ হতে শাস্তি প্রেরণ করবেন বা আল্লাহ তা’আলা তাদেরকে যমিনে দবিয়ে দিবেন বা তাদের বিরুদ্ধে তোমাদের হাতিয়ার চাপিয়ে দেয়া হবে আর তাদের হাতির সংকুচিত করে দেয়া হবে। অতপর তারা বলবে,হে আল্লাহর রাসূল এটিই (তৃতীয়) আমাদের নফস ও আত্মার জন্য বেশি প্রশান্তি কারক। তিনি বলেন, সেদিন অধিক পানাহারকারী, লম্বা, বড় দেহের অধিকারী ইহুদিকে দেখা যাবে যে, সে ভয়ের কারণে তার তরবারী উঠাতে পারবে না। অতপর তারা তাদের দিকে অবতরণ করবে। আর যখন দাজ্জাল হযরত ঈসা ইবনে মারিয়াম আ. কে দেখবে তখন সে সীশা গলে যাওয়ার মতো সে গলে যাবে। (শক্তিহীন হয়ে যাবে।) এমনকি হযরত ঈসা আ. তার নিকট আসবে বা তাকে পাবে এবং তাকে হত্যা করে দিবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৬০২ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ١٦٠٢
حدثنا عبد الرزاق عن معمر عن الزهري أخبرني عمرو
بن ابي سفيان الثقفي أنه أخبره رجل من الأنصار
عن بعض أصحاب رسول الله صلى الله
عليه وسلم عن رسول الله صلى الله عليه وسلم قال بينما المسلمون بالشام قد حاصرهم
الدجال في جبل ممن جبالها يريدون قتل الدجال إذ تأخذهم ظلمة لا يبصر امرؤ فيها كفه
فينزل ابن مريم فيحسر عن أبصارهم وبين أظهرهم رجل عليه لأمته
فيقولن من أنت يا
عبد الله
فيقول أنا عبد الله ورسوله وروحه وكلمته عيسى ابن مريم اختاروا
بين إحدى ثلاث بين أن يبعث الله تعالى على الدجال وعلى جنوده عذابا من السماء أو
يخسف بهم الأرض أو يسلط عليهم سلاحكم ويكف سلاحهم
فيقولون هذه يا رسول الله
أشفى لصدورنا وأنفسنا
قال فيومئذ يرى اليهودي العظيم الطويل الأكول الشروب لا
تقل يده سيفه من الرعدة فينزلون إليهم ويذوب الدجال حين يرى ابن مريم كما يذوب
الرصاص حتى يأتيه أو يدركه عيسى فيقتله
হযরত সালেম তার পিতা হতে, তার পিতা রাসূল সা. হতে বর্ণনা করেন যে, রাসূল সা. বলেন. ইহুদিরা তোমাদের সাথে যুদ্ধ করবে। আর তাতে তোমাদেরকে তাদের উপর চাপিয়ে দেয়া হবে। এমনকি পাথরও বলবে, হে মুসলিম! এখানে আমার পিছনে ইহুদি আছে। তাকে হত্যা কর।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৬০৩ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ١٦٠٣
قال الزهري فأخبرني سالم
عن
أبيه عن النبي صلى الله عليه وسلم قال يقاتلكم اليهود فتسلطون عليهم حتى يقول الحجر
يا مسلم هذا يهودي ورائي فاقتله
হযরত ইবনু মুসাইয়িব রা. হতে বর্ণিত যে, তিনি হযরত আবু হুরাইরা রা. কে বলতে শুনেছেন যে, রাসূল সা. বলেছেন যে, ঐ সত্বার কসম! যার হাতে আমার প্রাণ, অবশ্যই হয়তো, তোমাদের মাঝে হযরত ঈসা ইবনে মারিয়াম আ. একজন ন্যায়পরায়ণ শাসক, সঠিক নেতা, হিসেবে অবতরণ করবে। সে ক্রুশ ধ্বংস করবে, শুকর হত্যা করবে, জিযিয়া ধার্য করবে। এত পরিমানে অধিক সম্পদ হবে যে, মানুষ তা গ্রহণ করবে না।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৬০৪ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ١٦٠٤
قال الزهري عن ابن المسيب
سمع أبا
هريرة رضى الله عنه يقول قال رسول الله صلى الله عليه وسلم والذي نفسي بيده ليوشكن
أن ينزل فيكم ابن مريم حكما عدلا وإماما مقسطا يكسر الصليب ويقتل الخنزير ويضع
الجزية ويفيض المال حتى لا يقبله أحد
হযরত আবু হুরাইরা রা. হতে বর্ণিত যে, তিনি বলেন রাসূল সা. রলেছেন যে, তোমাদের অবস্থা কেমন হবে, যখন হযরত ঈসা ইবনে মারিয়াম আ. তোমাদের মাজে অবতরণ করবে। অথবা তিনি বলেছেন- তোমাদের হতে তোমাদের নেতা।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৬০৫ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ١٦٠٥
قال الزهري عن نافع مولى أبي قتادة
عن أبي هريرة رضى الله عنه قال قال رسول الله صلى الله عليه وسلم كيف بكم إذا
نزل بكم ابن مريم فأمكم أو قال إمامكم منكم
হযরত হানযালা আল আসলামী হতে বর্ণিত যে, তিনি হযরত আবু হুরাইরা রা. কে বলতে শুনেছেন যে, রাসূল সা. বলেছেন, ঐ সত্বার কসম! যার হাতে আমার প্রাণ, হযরত ঈসা ইবনে মারিয়াম আ. হজ্ব বা উমরার সময়ে রাওহার গিরিপথ হতে তাকবীর দিবে অথবা সে উভয় সময়ে পুনরাবৃত্তি করবে। ( হজ্ব ও উমরার সময় তাকবীর দিবে।)
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৬০৬ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ١٦٠٦
قال الزهري عن حنظلة
الأسلمي
سمع أبا هريرة رضي الله عنه يقول قال رسول الله صلى الله عليه وسلم
والذي نفسي بيده ليهلن ابن مريم من فج الروحاء بالحج أو بالعمرة أو ليثنينهما
হযরত ইবনে তাউস তার পিতা হতে বর্ণনা করে বলেন যে, তার পিতা তার নিকট বর্ণনা করে বলেন যে, ইবনে মারিয়াম আ. একজন সঠিক পথপ্রদর্শনকারী নেতা ও ন্যায় নিষ্ঠ হিসেবে অবতরণ করবেন। যখন তিনি অবতরণ করবেন তখন তিনি ক্রুশ ধ্বংস করবেন, শুকর হত্যা করবেন, জিযিয়া ধার্য করবেন। (তখন) সকল জাতি এক হয়ে যাবে। যমিনে শান্তি প্রতিষ্ঠা হবে। এমনকি সিংহ গাভীর সাথে থাকবে আর গাভী সিংহকে নিজেদের গাভী মনে করবে। এমনিভাবে বাঘ ছাগলের সাথে থাকবে আর ছাগল বাঘকে নিজেদের কুকুর মনে করবে। প্রত্যেক কাঁটাদার বা কষ্টদায়ক জিনিস অপসারিত করা হবে। মানুষ সাপের মাথার উপর পাড়াাবে তবুও সাপ তাকে ক্ষতি করবে না। কিশোরী ছোট কুকুরছানা বসানেরা মতো সিংহকে বসাবে। (বাগে আনবে।) আর এক আরবী ঘোড়ার মূল্য হবে বিশ দিরহাম।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৬০৭ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ١٦٠٧
حدثنا عبد الرزاق عن معمر عن ابن طاوس
عن أبيه يرويه قال ينزل ابن
مريم إماما هاديا ومقسطا عادلا فإذا نزل كسر الصليب وقتل الخنزير ووضع الجزية وتكون
الملة واحدة ويوضع الأمن في الأرض حتى إن الأسد ليكون مع البقر تحسبه ثورها ويكون
الذئب مع الغنم تحسبه كلبها وتنزع حمة كل ذا [ ت ] حمة حتى يطأ الرجل على رأس الحنش
فلا يضره وحتى تقر الجارية الأسد كما تقر ولد الكلب الصغير ويكون الفرس العربي
بعشرين درهما
হযরত আবু হুরাইরা রা. হতে বর্ণিত যে, তিনি বলেন, রাসূল সা. বলেছেন, নিশ্চই নবীগণ (সম্পর্কে একে অপরের) বৈপিত্রিয় ভাই। কারণ তাদের দ্বীন এক, তবে মাতা ভিন্ন ভিন্ন। তাদের সন্তান ্ঈসা ইবনে মারিয়াম আমার সাথে। আমার ও তার মাঝে কোন নবী নেই। নিশ্চই তিনি তোমাদের মাঝে অবতরণ করবেন। সুতরাং তোমরা তাকে চিনিও। (সে হবে) মাঝারি গড়নের একজন লোক। (গায়ের রং) সাদা ও রক্তিম বর্ণের দিকে (ধাবিত)। সে শুকর হত্যা করবে, ক্রুশ ধ্বংস করবে, জিযিয়া ধার্য করবে। সে ইসলাম ব্যতীত অন্য কিছু গ্রহণ করবে না। আর তার আহ্বান হবে সমগ্র পৃথীবির প্রতিপালক এক আল্লাহর জন্য। আর তার সময়ে বিষয়গুলি এমন হবে যে, সিংহ গরুর সাথে থাকবে, বাঘ ছাগলের সাথে থাকবে, শিশুরা সাপের সাথে খেলা করবে, একে অপরের কোন ক্ষতি করবে না।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৬০৮ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ١٦٠٨
قال معمر وأخبرنا قتادة
عن أبي هريرة قال قال رسول
الله صلى الله عليه وسلم إن الأنبياء أخوة لعلات دينهم واحد وأمهاتهم شتى أولاهم بي
عيسى بن مريم ليس بيني وبينه رسول وأنه نازل فيكم فاعرفوه رجل مربوع الخلق إلى
البياض والحمرة يقتل الخنزير ويكسر الصليب ويضع الجزية ولا يقبل غير الإسلام وتكون
الدعوة واحدة لله رب العالمين ويبلغ في زمانه الأمر حتى يكون الأسد مع البقر والذئب
مع الغنم ويلعب الصبيان بالحيات لا يضر بعضهم بعضا
হযরত আবু হুরাইরা রা. হতে বর্ণিত যে, তিনি বলেন, ঐসময় পর্যন্ত কিয়ামাত সংগঠিত হবে না, যতক্ষণ পর্যন্ত না হযরত ঈসা ইবনে মারিয়াম আ. নিষ্ঠ নেতা ও ন্যায় বিচারক শাসক হিসেবে অবতির্ণ হন। (এমনিভাবে যতক্ষণ পর্যন্ত না,) কুরাইশরা জোরপূর্বক নেতৃত্ব নেয়, শুকর হত্যা করা হয়, ক্রুশ ধ্বংস করা হয়, জিযিয়া ধার্য করা হয়, সিজদা একমাত্র আল্লাহ তা’আলার জন্য করা হয়, যুদ্ধ বন্ধ হয়, পাত্র পানিতে ভরে যাওয়ার মতো পৃথীবি শান্তিতে ভরে যায়, পৃথীবি সবুজ শ্যামল বিশিষ্ট কাচ পাত্রের মতো হয়, শত্রুতা ঘৃণা বিদ্ধেষ উঠিয়ে নেয়া হয়, বাঘ ছাগলের পালে কুকুরের মতো হয়, সিংহ গরুর (পালের) মধ্যে গরুর বাচ্চার মতো হয়। (এসকল বিষয় হওয়ার পরই কিয়ামাত সংগঠিত হবে।)
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৬০৯ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ١٦٠٩
قال معمر فأخبرنا
زيد بن اسلم
عن أبي هريرة قال ولا تقوم الساعة حتى ينزل عيسى ابن مريم إماما
مقسطا وحكما عادلا وتبتز قريش الإمارة ويقتل الخنزير ويكسر الصليب و توضع الجزية
وتكون السجدة واحدة لله رب العالمين وتضع الحرب أوزارها وتملأ الأرض من السلم كما
يملأ الإناء من الماء وتكون الأرض كفاثورة الورق وترفع الشحناء والعداوة والبغضاء
ويكون الذئب في الغنم كلبها والأسد في الإبل كأنه عجلها
হযরত ইবনে তাউস তার পিতা হতে বর্ণনা করেন যে, তার পিতা তার নিকট বর্ণনা করেছেন, একটি আরবি ঘোড়ার মূল্য বিশ দিরহাম হবে। আর ষাড় এভাবে এভাবে দাড়াবে। আর পৃথিবী তার পূর্বের রুপে হযরত আদম আ. এর সময়ে যেমন ছিল তেমন ফিরে যাবে। একটি আঙ্গুরের থোকা হতে অনেক সংখ্যা বিশিষ্ট দল খাবে। আর একটি বেদানা এমন হবে, যা হতে অনেক সংখ্যা বিশিষ্ট দল খাবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৬১০ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ١٦١٠
قال معمر وقال
ابن طاوس
عن أبيه يرويه قال ويكون الفرس العربي بعشرين درهما ويقوم الثور بكذا
وكذا وتعود الأرض على هيئتها على عهد آدم عليه السلام ويكون القطف يأكل منه النفر
ذو العدد وتكون الرمانة يأكل منها النفر ذو العدد
হযরত হানযালা রা. হতে বর্ণিত, তিনি হযরত সালেম রা, হতে শুনেছেন যে, তিনি হযরত ইবনে উমর রা. কে বলতে শুনেছেন যে, রাসূল সা. বলেছেন, কা’বা ঘরের নিকটে যেখানে মাকাম অবস্থিত সেখানে আমি একজন লোক যার মাথার চুল অকোঁকড়ানো, দুই হাত তার পায়ের উপর মাথা ঝরানো বা তার মাথা হতে পানি ঝরতেছে। অতপর আমি জিজ্ঞাসা করলাম, এই ব্যক্তি কে? অতপর একজন বলল, ইনি ঈসা ইবনে মারিয়াম আ. বা মাসীহ ইবনে মারিয়াম।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৬১০ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ١٦١٠
حدثنا الوليد بن مسلم
عن حنظلة سمع سالما
سمع ابن عمر رضى الله عنهما يقول قال رسول الله صلى الله
عليه وسلم أريت عند الكعبة مما يلي المقام رجلا آدم سبط الرأس واضعا يديه على رجلين
يسكب رأسه أو يقطر ماء فسألت من هذا قالوا عيسى ابن مريم أو المسيح ابن مريم
হযরত আবু হুরাইরা রা. রাসূল সা. হতে বর্ণনা করেন যে, রাসূল সা. বলেছেন, সম্ভবত তোমাদের মাঝে ঈসা ইবনে মারিয়াম একজন ন্যায় শাসক হিসেবে অবতরণ করবে। সে ক্রুশ ধ্বংস করবে, শুকর হত্যা করবে, জিযিয়া ধার্য করা হবে। এত পরিমানে অধিক সম্পদ হবে যে, মানুষ সম্পদ গ্রহণ করবে না।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৬১১ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ١٦١١
حدثنا ابن عيينة عن الزهري عن ابن المسيب
عن أبي هريرة رضى الله عنه
عن النبي صلى الله عليه وسلم يوشك أن ينزل فيكم ابن مريم حكما مقسطا يكسر الصليب
ويقتل الخنزير وتوضع الجزية ويفيض المال حتى لا يقبله أحد
হযরত আব্দুল্লাহ ইবনে আমর রা. হতে বর্ণিত যে, তিনি বলেন, হযরত ঈসা ইবনে মারিয়াম আ. অবতরণ করবেন। যখন দাজ্জাল তাকে দেখবে, তখন সে চর্বি গলার ন্যায় গলে যাবে। অতপর তিনি দাজ্জালকে হত্যা করবেন। আর তিনি দাজ্জাল থেকে ইহুদিদের আলাদা করবেন। এমনকি পাথরও বলবে, হে আল্লাহর বান্দা মুসলিম! এখানে আমার নিকটে ইহুদি, এখানে আসো ও তাকে হত্যা কর।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৬১২ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ١٦١٢
حدثنا أبو
معاوية عن الأعمش عن خيثمة
عن عبد الله بن عمرو قال ينزل عيسى ابن مريم فإذا
رآه الدجال ذاب كما يذوب الشحمة فيقتل الدجال ويفرق عنه اليهود حتى إن الحجر ليقول
يا عبد الله المسلم هذا عندي يهودي فتعال فاقتله
হযরত কা’ব রা. হতে বর্ণিত যে, তিনি বলেন, দাজ্জাল বাইতুল মাকদাসে মুসলমানদের সীমাবদ্ধ করে রাখবে। ফলে তাদের ক্ষুধায় তীব্র কষ্ট হবে। এমনকি তারা ক্ষুধার তাড়নায় তাদের ধনুকের ছিলা খাবে। তাদের ঐ অবস্থায় তারা অন্ধকারের মধ্যে একটি আওয়াজ শুনবে। তখন তারা বলবে নিশ্চই এটা পরিতৃপ্ত ব্যক্তির আওয়াজ। তিনি বলেন, অতপর তারা তাকাবে আর তখনই ঈসা ইবনে মারিয়াম আ. সেখানে থাকবেন। তিনি বলেন, অতপর নামাজ কায়েম করা হবে। অতপর মুসলমানদের ইমামকে মাহদী ফিরিয়ে দিবেন। তারপর ঈসা আ. বলবেন, সামনে অগ্রসর হও। কেননা তোমার জন্য নামাজ কায়েম করা হয়েছে। ফলে উক্ত ব্যক্তি তাদের নিয়ে ঐ নামাজ আদায় করবে। তিনি বলেন, অতপর ঈসা আ. ইমাম হবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৬১৩ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ١٦١٣
حدثنا ضمرة عن يحيى بن
أبي عمرو السيباني
عن كعب قال يحاصر الدجال المؤمنين ببيت المقدس فيصيبهم جوع
شديد حتى يأكلوا أوتار قسيهم من الجوع فبيناهم على ذلك إذ سمعوا صوتا في الغلس
فيقولون إن هذا لصوت رجل شبعان
قال فينظرون فإذا بعيسى ابن مريم
قال
وتقام الصلاة فيرجع إمام المسلمين المهدي
فيقوم عيسى تقدم فلك أقيمت الصلاة
فيصلي بهم ذلك الرجل تلك الصلاة
قال ثم يكون عيسى إماما بعده
قدر بقاء
عيسى ابن مريم عليه السلام بعد نزوله

Execution time: 0.07 render + 0.01 s transfer.