Login | Register

নুয়াইম বিন হাম্মাদের: আল ফিতান

দাজ্জাল থেকে প্রতিরক্ষা

   

দাজ্জাল থেকে প্রতিরক্ষা

Double clicking on an arabic word shows its dictionary entry
হযরত আবু উমামা বাহেলী রাযিয়াল্লাহু আনহু হতে বর্ণিত যে, তিনি বলেন রাসূল সল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেন দাজ্জাল দুনিয়ায় কিছুই অবশিষ্ট রাখবে না। সবকিছুই সে শেষ করে দিবে। আর সে মক্কা মদীনা ব্যতীত সকল এলাকার উপর বিজয় লাভ করবে। কেননা সে মক্কা মদীনার ছিদ্র বা পথ সমূহ থেকে কোন ছিদ্র বা পথে আসতে পারবে না। যেই ছিদ্র বা পথ দিয়ে সে আসতে চাইবে সেখানেই তার সাথে স্বীয় তরবারী নিয়ে প্রস্তুত থাকা ফেরেশতার সাথে সাক্ষাত হবে। এমনকি দাজ্জাল তরীবে আহমারের নিকট এবং অনাবাদী যমিন শেষ প্রান্তে এবং সিউলের সমষ্টির স্থানে অবস্থান নিবে। অতপর মদীনা তার অধিবাসীদের নিয়ে তিন বার ঝাঁকি দিবে। যার ফলে কোন পুরুষ মুনাফেক এবং কোন মহিলা মুনাফেক মদীনায় অবশিষ্ট থাকতে পারবে না। সকলেই তার দিকে বাহির হয়ে যাবে। আর সেদিন মদীনা তার থেকে নাপাকি বা খারাবি শেষ করবে যেমনিভাবে কিবর (এক ধরনের গাছ) লোহার খারাবি দূর বরে। অতপর উম্মে শারীক বললেন ঐসময় মুসলমানগণ কোথায় থাকবে? তিনি বললেন বাইতুল মুকাদ্দাসে। দাজ্জাল বাহির হবে অতপর তাদেরকে আটকাবে। এমনকি তার নিকট ঈসা আলাইহিস সালামের অবতরণের খবর আসবে। তখন সে পালায়ন করবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৫৭২ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ١٥٧٢
حدثنا ضمرة حدثنا يحيى بن أبي
عمرو السيباني عن عمرو بن عبد الله الحضرمي
عن أبي أمامة الباهلي رضى الله عنه
قال قال رسول الله صلىالله عليه وسلم الدجال لا يبقى من الأرض شيء إلا وطئه وغلب
عليه إلا مكة والمدينة فإنه لا يأتيها من نقب من أنقابها إلا لقيه ملك مصلتا بسيفه
حتى ينزل عند الطريب الأحمر عند منقطع السبخة عند مجتمع السيول ثم ترجف المدينة
بأهلها ثلاث رجفات لا يبقى منافق ولا منافقة إلا خرج إليه فتنفي المدينة يومئذ
الخبث منها كما ينفي الكبر خبث الحديد وذلك اليوم الذي يدعى يوم الخلاص
فقالت
أم شريك فأين المسلمون يومئذ
قال ببيت المقدس يخرج فيحاصرهم حتى يبلغه نزول
عيسى فيهرب
হযরত ইবনে উমর রাযিয়াল্লাহু আনহুমা হতে বর্ণিত যে, তিনি বলেন রাসূল সল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেন সংরক্ষিত এলাকা হল মক্কা, মদীনা, ইলয়া, এবং নাজরান। এক রাত্রে নাজরানে সত্তর হাজার ফেরেশতা অবতরণ করে। এবং পরিখা বাসীদের উপর সালাম বর্ষণ করে। এবং তারা ফিরে যায় আর কখনো ফিরে আসে না।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৫৭৩ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ١٥٧٣
حدثنا محمد بن الحارث عن محمد بن عبد الرحمن بن البيلماني عن
أبيه
عن ابن عمر رضى الله عنهما قال قال رسول الله صلى الله عليه وسلم القرى
المحفوظة مكة والمدينة وإيلياء ونجران وما من ليلة إلا وينزل بنجران سبعون ألف ملك
يسلمون على أهل الأخدود ثم لا يعودون إليها أبدا
হযরত কা’ব রাযিয়াল্লাহু আনহু হতে বর্ণিত যে, তিনি বলেন দাজ্জাল থেকে দূর্গ হল ইবনে ফাতরাস নদী।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৫৭৪ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ١٥٧٤
حدثنا بقية قال قال
صفوان وحدثني أبو الزاهرية عن شريح بن عبيد
عن كعب قال المعقل من الدجال نهر
ابن فطرس
হযরত কা’ব রাযিয়াল্লাহু আনহু হতে বর্ণিত যে, তিনি বলেন যখন দাজ্জাল বাহির হবে তখন মুসলমানদের দূর্গ হবে বাইতুল মুকাদ্দাস।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৫৭৫ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ١٥٧٥
حدثنا ابن وهب عن معاوية بن صالح عن يحيى بن جابر وحدير بن
كريب
عن كعب قال المعقل من الدجال نهر ابن فطرس
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৫৭৬ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ١٥٧٦
حدثنا أبو أيوب عن
أرطاة عمن حدثه
عن كعب قال معقل المسلمين إذا خرج الدجال بيت المقدس
হযরত কা’ব রাযিয়াল্লাহু আনহু হতে বর্ণিত যে, তিনি বলেন বাইতুল মুকাদ্দাসের রিদা নামক এলাকা দাজ্জালের সময়ে সারা দুনিয়া এবং তার ভিতর যা আছে সব কিছুর থেকে বেশী দামি হবে। রাসূল সল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম এর এই কথার কারণে দাজ্জাল থেকে মুসলমানদের দূর্গ হল বাইতুল মুকাদ্দাস। তারা বাহির হবে না এবং পরাজিতও হবে না।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৫৭৭ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ١٥٧٧
حدثنا الحكم بن نافع عن جراح عمن حدثه
عن كعب قال موضع رداء ببيت المقدس أيام
الدجال خير من الدنيا وما فيها لقول رسول الله صلى الله عليه وسلم معقل المسلمين من
الدجال بيت المقدس لا يخرجون ولا يغلبون
হযরত জুনাদা ইবনে আব উমাইয়া থেকে বর্ণিত যে, তিনি রাসূল সল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম এর এক সাহাবী থেকে শুনেছেন যে, তিনি বলেছেন রাসূল সল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম আমাদের মাঝে খুতবা দেয়ার জন্য দাড়ালেন এবং বললেন, নিশ্চই দাজ্জাল প্রত্যেক পানি পানের স্থানে বা ঘাটে যাবে তবে চারটি মসজিদ ব্যতীত। আর উক্ত মসজিদগুলো হল মসজিদুল হারাম, মদীনার মসজিদ, তূরে সাইনা এর মসজিদ, এবং মসজিদে আকসা।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৫৭৮ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ١٥٧٨
حدثنا جرير بن عبد الحميد عن
منصور عن مجاهد عن جنادة بن أبي أمية الدوسي
سمع رجلا من أصحاب النبي صلى الله
عليه وسلم يقول أقام رسول الله صلى الله عليه وسلم فقال إن الدجال يبلغ كل منهل إلا
أربعة مساجد مسجد الحرام ومسجد المدينة ومسجد طور سيناء ومسجد الأقصى
হযরত আবু সাঈদ খুদরী রাযিয়াল্লাহু আনহু হতে বর্ণিত যে, তিনি বলেন যে ব্যক্তি সূরা কাহাফ যেভাবে নাযিল হয়েছে সেভাবে তেলাওয়াত করবে, তা তার মাঝে ও মক্কার মাঝে যা তা আলোকিত করে দিবে। আর যে ব্যক্তি সূরা কাহাফের শেষাংশ তেলাওয়াত করবে অতপর দাজ্জালকে পাবে, তার উপর দাজ্জাল কোন প্রভাব ফেলতে পারবে না।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৫৭৯ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ١٥٧٩
حدثنا وكيع عن سفيان عن أبي هاشم عن أبي مجلز عن قيس بن عباد
عن أبي سعيد
الخدري رضى الله عنه قال من قرأ سورة الكهف كما أنزلت أضاء له ما بينه وبين مكة ومن
قرأ آخرها ثم أدرك الدجال لم يسلط عليه
হযরত আব্দুল্লাহ ইবনে সালাম রাযিয়াল্লাহু আনহু হতে বর্ণিত যে, তিনি বলেন নিশ্চই আল্লাহ তা’আলার ফেরেশতাগণ মদীনাকে প্রত্যেক দিক হতে ঘিরে রেখেছে। মদীনায় এমন কোন ছিদ্র পথ নেই যেখানে কোন ফেলেশতা তার তরবারী প্রসারিত করে উপস্থিত নেই। অর্থাৎ প্রত্যেক পথেই ফেরেশতা নিয়োজিত আছে। সুতরাং তোমরা আল্লাহ তা’আলার ঐসমস্ত ফেরেশতাদের ভাগিয়ে দিও না, যারা তোমাদের ঘিরে আছে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৫৮০ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ١٥٨٠
حدثنا بقية عن صفوان عن عمرو عن
شريح بن عبيد
عن عبد الله بن سلام قال إن ملائكة الله تعالى يحرسون المدينة من
كل ناحية ما من نقاب المدينة من نقب إلا وعليه ملك سال سيفه فلا تنفروا ملائكة الله
الذين يحرسونكم
হযরত আসমা বিনতে ইয়াযিদ সিকন আনসারী রাযিয়াল্লাহু আনহা বলেন আমি রাসূল সল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম কে বলতে শুনেছি যে, দাজ্জাল প্রত্যেক পানি পানের স্থান বা ঘাট চাইবে। অর্থাৎ প্রত্যেক স্থানেই যাবে। তবে দুটি মসজিদ ব্যতীত।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৫৮১ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ١٥٨١
حدثنا يحيى بن سليم عن عبد الله بن عثمان بن خثيم
المكي عن شهر بن حوشب
عن أسماء ابنة يزيد بن السكن الأنصارية رضى الله عنها
قالت سمعت رسول الله صلى الله عليه وسلم يقول الدجال يرد كل منهل إلا المسجدين
হযরত আবু সাঈদ খুদরী রাযিয়াল্লাহু আনহু বলেন যে ব্যক্তি সূরা কাহাফ যেভাবে নাযিল হয়েছে সেভাবে তেলাওয়াত করবে অতপর দাজ্জালের জন্য বাহির হবে তার উপর দাজ্জাল কোন প্রভাব ফেলতে পারবে না। আর তার উপর দাজ্জালের (তার উপর প্রভাব ফেলার) কোন পথও থাকবে না।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৫৮২ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ١٥٨٢
حدثنا ابن مهدي عن سفيان عن أبي هاشم عن أبي مجلز عن قيس بن عباد
عن
أبي سعيد الخدري قال من قرأ سورة الكهف كما أنزلت ثم خرج للدجال لم يسلط عليه ولم
يكن له عليه سبيل
আব্দুল্ল্হা ইবনে আব্দুল্লাহ ইবনে উতবা থেকে বর্ণিত যে, আবু সাঈদ খুদরী রাযিয়াল্লাহু আনহু বলেন দাজ্জালের উপর হারাম হল যে সে মদীনার কোন ছিদ্রপথে প্রবেশ করবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৫৮৩ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ١٥٨٣
حدثنا عبد الرزاق عن معمر عن الزهري أخبرني عبيد الله
بن عبد الله بن عتبة
أن أبا سعيد الخدري قال محرم على الدجال أن يدخل نقاب
المدينة
হযরত আবু বাকরা রাযিয়াল্লাহু আনহু হতে বর্ণিত যে, তিনি রাসূল সল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম হতে বর্ণনা করেন যে, রাসূল সা, বলেন পৃথীবিতে এমন কোন গ্রাম নেই, যেখানে দাজ্জাল পৌছবে না এবং ভীতি সন্ত্রস্ত করবে না। তবে সে মদীনায় প্রবেশ করতে পারবে না, এবং ভীতি সন্ত্রস্ত করতে পারবে না। কারণ মদীনার প্রত্যেক ছিদ্র পথে দুইজন ফেরেশতা থাকবে। সেখান থেকে তারা মাসীহের ভীতি দূর করবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৫৮৪ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ١٥٨٤
قال الزهري عن طلحة بن عبد الله بن عوف
عن أبي بكرة عن
النبي صلى الله عليه وسلم قال ليس من بلدة إلا يبلغها رعب الدجال إلا المدينة على
كل نقب من نقابها ملكان يذبان عنها رعب المسيح
হযরত আমর ইবনে সুফিয়ান সাকাফী জনৈক এক আনসারী সাহাবী থেকে বর্ণনা করেন। তিনি রাসূল সল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম এর কতিপয় সাহাবী রাসূল সল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম থেকে বর্ণনা করেন যে, রাসূল সল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেন দাজ্জাল মদীনার ছিদ্র পথে আসবে অথচ তার মদীনার কোন ছিদ্র পথ দিয়ে প্রবেশ করা হারাম। অতপর দাজ্জালের দিকে মদীনার প্রত্যেক পুরুষ মুনাফেক ও মহিলা মুনাফেক বাহির হয়ে যাবে। অতপর তারা সিরিয়ারর দিকে পালায়ন করবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৫৮৫ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ١٥٨٥
قال الزهري وأخبرني عمرو
بن أبي سفيان الثقفي عن رجل من الأنصار
عن بعض أصحاب النبي صلى الله عليه وسلم
[
عن النبي صلى الله عليه وسلم ] قال يأتي الدجال سباخ المدينة ومحرم عليه أن يدخل
نقابها فيخرج إليه كل منافق ومنافقة ثم يولي قبل الشام
হযরত আসমা বিনতে ইয়াযিদ আনসারী রাযিয়াল্লাহু আনহা থেকে বর্ণিত তিনি বলেন আমি রাসূল সল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম কে বলতে শুনেছি যে, সেদিন ক্ষুদা নিবারণের জন্য মুমিনগণ খাদ্য গ্রহণ করবে যা আকাশবাসীরা গ্রহণ করে তাসবীহ ও তাকদীস দ্বারা। অর্থাৎ আল্লাহ তা’আলার যিকির ও তার পবিত্রতা বর্ণনা করার দ্বারা।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৫৮৬ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ١٥٨٦
قال معمر عن
قتادة عن شهر بن حوشب
عن أسماء ابنة يزيد الأنصارية سمعت النبي صلى الله عليه
وسلم يقول يجزيء المؤمنين يومئذ من الجوع ما يجزيء أهل السماء من التسبيح والتقديس
হযরত হাসান রাযিয়াল্লাহু আনহু হতে বর্ণিত যে, রাসূল সল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেন সেদিন মুমিনদের খাদ্য হবে তাসবীহ তথা আল্লাহ তা’আলার যিকির, তাহমীদ তথা আল্লাহ তা’আলার প্রশংসা, তাহলীল তথা আল্লাহ তা’আলার একত্বতা, তাকদীস তথা আল্লাহ তা’আলার মহানত্ব, এবং তাকবীর তথা আল্লাহ তা’আলার বড়ত্ব।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৫৮৭ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ١٥٨٧
حدثنا محمد بن فضيل عن أبي سفيان عن الحسن قال
قال رسول الله صلى
الله عليه وسلم طعام المؤمنين يومئذ التسبيح والتحميد والتهليل والتقديس والتكبير
হযরত ইবনে উমর রাযিয়াল্লাহু আনহুমা রাসূল সল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম থেকে বর্ণনা করেন যে, তিনি বলেন দাজ্জালের সময়ে মুসলমানদের খাদ্য কি হবে? রাসূল সল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেন ফেরেশতাদের খাদ্য। তারা বললেন ফেরেশতারা কি খায়? রাসূল সল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বললেন তাদের খাদ্য হল তাদের তাসবীহ ও তাকদীস দ্বারা কথা বলা। অর্থাৎ যিকির আযকার করা। সুতরাং ঐদিন যাদের কথন হবে তাসবীহ ও তাকদীস দ্বারা আল্লাহ তা’আলা তাদের থেকে তাদের ক্ষুধা নিবারণ করে দিবেন। তার আর ক্ষুধার ভয় পাবে না।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১৫৮৮ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ١٥٨٨
حدثنا الحكم بن نافع عن سعيد بن سنان عن أبي الزاهرية عن كثير بن مرة
عن ابن عمر رضى الله عنهما عن النبي صلى الله عليه وسلم أنه قال
المسلمون
فما طعام المؤمنين في زمان الدجال
قال طعام الملائكة
قالوا أو تطعم
الملائكة
قال طعامهم منطقهم بالتسبيح والتقديس فمن كان منطقه يومئذ التسبيح
والتقديس أذهب الله عنه الجوع فلم يخش جوعا
نزول عيسى ابن مريم عليه السلام
وسيرته

Execution time: 0.04 render + 0.00 s transfer.