Login | Register

নুয়াইম বিন হাম্মাদের: আল ফিতান

মাহদির পর হিমস নগরীতে কাহতানীর রাজত্বকালীন ঘটনা প্রসঙ্গে

   

মাহদির পর হিমস নগরীতে কাহতানীর রাজত্বকালীন ঘটনা প্রসঙ্গে

Double clicking on an arabic word shows its dictionary entry
হযরত কা’ব রাযিঃ থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, কাহতানীর রাজত্বকালীন হিমইয়ার ও হিম্স নগরীতে তীব্র যুদ্ধ সংগঠিত হবে। তখন হিম্্স এলাকার গভর্নর থাকবে কিন্দাহ এলাকার একজন লোক। তাকে কুজাআহ নামক একলোক হত্যা করবে এবং তার কর্তিত মাথাটি মসজিদের পার্শ্বে একটি গাছের সাথে লটকিয়ে রাখা হবে। এ কাজটি দেখে হিমইয়ারবাসীরা খুবই রাগান্বীত হবে এবং তাদের মাঝে এত মারাত্মক যুদ্ধ হবে যার কারণে প্রত্যেকে মসজিদের পার্শ্বে থাকা ঘরের দেয়াল ভেঙ্গে ফেলবে, যাতে করে যুদ্ধের কাতার প্রসস্থ করা যায়। ঐ সময় পশ্চিমাদের জন্য ধ্বংস ডেকে আনবে। তখনই তারা হিম্স নগরীতে গিয়ে পৌছঁবে। অতঃপর ইয়ামানের নিকৃষ্টতম গোত্রের মাঝে আশ্বস্থতা নেমে আসবে, কেননা তারা হবে এদের প্রতিবেশি।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১২৪০ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ١٢٤٠
حدثنا ابو المغيرة عن ابن عياش قال حدثني المشيخة
عن
كعب قال في ولاية القحطاني تقتتل قضاعة
بحمص
وحمير وعليها يومئذ
رجل من كنده
فتقتله
قضاعة وتعلق رأسه في شجرة في المسجد فتغضب له حمير فيقتتلون بينهم قتالا شديدا حتى
تهدم كل دار عند المسجد كي تتسع صفوفهم للقتال فعند ذلك يكون الويل للشرقي من
الغربي وعند ذلك بحمص فتكون أشقى قبائل اليمن بهم السكون لأنهم جيرانهم
হযরত কা’ব রহঃ থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, হিম্স নগরীতে কুজাআ এবং হিমইয়ারবাসিদের মাঝে তীব্র যুদ্ধ সংগঠিত হবে। উক্ত যুদ্ধ হবে মূলতঃ ধূসর বর্ণের একটি খচ্চরকে নিয়ে। এক পর্যায়ে কুজাআ বংশের লোকজন ফুরাত নদীর পার্শ্বে হিমইয়ারবাসির উপর হামলা করবে। অতঃপর রুস্তুনের বাজারে উভয় দল যুদ্ধে লিপ্ত হয়ে যাবে। দুটি ঘোড়া বাজারের দুই দিক থেকে এগিয়ে আসলেও কেউ কাউকে দেখবেনা, এটা অবশ্যই ঘরবাড়ি এবং দেয়াল ইত্যাদি স্থাপনের পূর্বে। আমরা খুবই আশ্চর্য্য হয়েছি, এটা কীভাবে হতে পারে যে, একজন অন্য জনকে দেখা ব্যতীত বাজারের দিকে দুইটি ঘোড়া এগিয়ে আসবে। অথচ তখন সেখানে কোনো ধরনের দেয়াল ছিলনা। এক পর্যায়ে সেখানে ঘরবাড়ি-দেয়াল ইত্যাদি বানানো হয়েছে। অতঃপর আমরা জানতে পারি যে, সেটা ছিল যে হাদীসের ব্যাখ্যা যা আমরা এতদিন পর্যন্ত শুনে আসছিলাম । তার বাস্তবতা হচ্ছে, দুই দল অশ্বারোহীর মাঝে তীব্র যুদ্ধ সংগঠিত হবে, অতঃপর কুতুনের গলি থেকে একজন সুলতান বের হয়ে আসবে। অন্যদিকে সাফওয়ানের ভাষ্যমতে তিনি একটি ধূসর বর্ণের উন্নতজাতের ঘোড়ার উপর আরোহন করে এগিয়ে আসবে, অতঃপর খচ্চরের দখল নেয়ার জন্য লটারীর ব্যবস্থা করবে। এরপর উভয়দল লজ্জিত হয়ে ফিরে যাবে। ধ্বংস হোক আদ গোত্রের জন্য, যারা আইম থেকে এগিয়ে আসবে, এবং আইম গোত্রের জন্য ও ধ্বংস যারা আদ এলাকা থেকে এগিয়ে আসবে। আদ গোত্র হচ্ছে, হিময়ারের অন্তর্ভুক্ত এবং আইম গোত্র কুজাআর একটা অংশ। সাফওয়ানের হাদীসে এসেছে, ঐ সময়ই কুজাআ ধ্বংস হয়ে যাবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১২৪১ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ١٢٤١
حدثنا أبو المغيرة عن صفوان عن شريح بن عبيد عن كعب
وبقية عن أبي بكر بن مريم
عن أبي الزاهرية عن جبير بن نفير
عن كعب الأحبار قال تقتتل حمير وقضاعة بحمص في
بغل أشهب فتجلب قضاعة على حمير ما بينهم وبين الفرات فيقتتلون في سوق الرستن فتسير
الخيلان في السوقين لا ترى إحديهما الأخرى وذلك قبل بنيان الحوانيت فكنا نعجب كيف
تسير الخيلان لا ترى إحديهما الأخرى والسوق فضاء حتى بنيت الحوانيت فعلمنا أن ذلك
تأويل الحديث الذي كنا نسمع وتصديقه فتقتتل الخيلان قتالا شديدا ثم يخرج عليهم ملك
من زقاق القطن وفي حديث صفوان زقاق العطر على برذون أشهب
فيقرع بينهم
فينصرف الفريقان وهم قليل نادمون فويل لعاد من أيم وويل لأيم من عاد وعاد حمير من
أيم وعاد أهل اليمن وأيم قضاعة
وفي حديث صفوان فهنالك تهلك القصيعة
হযরত হারিজ ইবনে উসমান রহঃ থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, হিমইয়ার এবং কুজাআ গোত্রের মাঝে হিম্্স নগরীতে তীব্র যুদ্ধ সংগঠিত হবে। সেটা হবে রুস্তন এবং কুব্বা এলাকার মাঝামাঝি স্থানে। তাদের মধ্যে ভয়াবহ যুদ্ধ হবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১২৪২ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ١٢٤٢
حدثنا الوليد عن حريز بن عثمان قال
تقتتل قضاعة وحمير بحمص فيما بين باب الرستن
إلى القبة فتكون بينهم مقتلة عظيمة
হজরত তাবী রহঃ থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, হিম্্স নগরীতে ভয়াবহ যুদ্ধ সংগঠিত হবে, এমনকি বাজারের দেয়াল ইত্যাদি ভেঙ্গেঁ পড়বে। ফুরাত এলাকা থেকে কুজাআদের জন্য সাহায্য এসে পৌঁছবে। এক পর্যায়ে তারা পলায়ন পূর্বক পৃষ্টপ্রদর্শন করবে। ঐ সময় যুদ্ধটি মূলতঃ হিমসের কুব্বার পিছনে হবে। হাদীসের বর্ণনাকারী আব্দুস সালাম, বিশিষ্ট হাদীস বিশারদ হযরত কা’ব রহঃ থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, হিম্স নগরীতে কুজাআ এবং হিমইয়ার এলাকার বাসিন্দাদের মাঝে তীব্র যুদ্ধ সংগঠিত হবে। এক পর্যায়ে যুদ্ধের কাতারের প্রশস্ততার জন্য তারা তাদের বাজারের দেয়াল ভেঙ্গেঁ ফেলবে। অন্যদিকে ইয়ামানবাসীরা তাদের মাঝে থাকা দেয়াল ও অন্যান্য বস্তু ভেঙ্গেঁ ফেলবে, যেন যুদ্ধের জন্য উম্মুক্ত জায়গার ব্যবস্থা হয়ে যায়। অতঃপর হিমইয়ারের প্রত্যেক গোত্রের লোকজন বসে যাবে। তারা পূর্ব-পশ্চিমের পক্ষ থেকে বিভিন্ন ঝান্ডা হাতে নিয়ে এগিয়ে আসবে। অতঃপর বাজারের উম্মুক্ত মাঠে উভয়দল যুদ্ধের জন্য প্রস্তুত হয়ে হিম্্স নগরীতে ভয়াবহ যুদ্ধ হবে। উক্ত যুদ্ধে অনেক রক্তপাত হবে। এমনকি ঘোড়ার ক্ষুর পর্যন্ত রক্তে রঞ্জিত হয়ে যাবে। বাজারে অলিগলিগুলো রক্তে সয়লাব হয়ে যাবে। মোট কথা সেখানে ভয়াবহ যুদ্ধ সংগঠিত হবে। তোমাদের কেউ সেই এলাকায় উপস্থিত হয়ে গেলে সে যেন সেখান থেকে বের হওয়ার সাধ্যমত চেষ্টা করে। সুসংবাদ সেদিন যারা গ্রামে বসবাস করে অথবা হিমসের কিবলার দিকে অবস্থান করে। অতঃপর হিমইয়ারবাসিরা কুজাআর উপর আক্রমণ করে তাদেরকে সেখান থেকে রুস্তনের গেইট দিয়ে বের করে দিবে। যুদ্ধ তীব্র আকার ধারন করলে জনৈক বাদশাহ ঘোড়ার উপর সওয়ার হয়ে এগিয়ে আসবে, লোকজন তাকে দেখতে পাবে। তখন তারা বিভিন্ন দলে বিভক্ত হয়ে যাওয়ার চেষ্টা করবে, কিন্তু সেই বাদশাহ তাদের মাঝে বাধা হয়ে দাড়াবেন,এদিকে কুজাআবাসিরা উপস্থিত হিমইয়ারের উপর তীব্র আক্রমন করবে। ঐ সময় কুজাআ গোত্রের পার্শ্বে ফুরাত নদী থাকবে। অতঃপর তারা বিশাল এক বাহিনী নিয়ে এগিয়ে আসবে এবং শাম নগরীতে যুদ্ধ-বিগ্রহ এবং বিশৃঙ্খলা তীব্র আকার ধারন করবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১২৪৩ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ١٢٤٣
قال الوليد فأخبرني عبد السلام بن
مروان عمن حدثه
عن تبيع قال فيشتد القتال بحمص حتى يهدم ما بين أسواقها وحتى
يأتي قضاعة مددها من بين الفرات فما دونه ثم تكون الدبرة عليهم إذا اقتتلوا تحت قبة
حمص
قال عبد السلام وقال كعب تقتتل حمير وقضاعة في حمص حتى تهدم قضاعة ما حول
سوقها من الدور إلى باب الرستن ليوسعوه لصف القتال ويهدم أهل اليمن ما بينهم من
الدور عند الأسواق فيوسعوه لصف القتال ثم تقعد كل قبيلة من حمير براية غربي حمص
وشرقيها فيجتمعون عند مجتمع الأسواق ويشتد القتال في حمص ويكثر فيها سفك الدماء حتى
تلصق حوافز الخيل على الصفا في الأسواق من الدماء حتى تسيل الدماء في مجامع الأسواق
فيكون فيها مقتلة عظيمة فمن حضر ذلك فقدر أن يخرج من حمص فليفعل فطوبى لمن كان يسكن
يومئذ في قرية أو يسكن نحو القبلة من حمص ثم تشتد حمير على قضاعة حتى يخرجونهم
من باب الرستن ويشتد قتالهم حتى يجيء ملك على فرس يراه الناس وقد كادوا
يتفانون فيحجز بينهم وتشتد قضاعة على حمير أهل الحاضرين وما حول الفرات من قضاعة
فيقبلون بجيش عظيم فتكثر
الفتن
والقتال بالشام
হারিয ইব্্নে উসমান রহঃ বলেন আমি ইয়াযিদ ইবনে আব্দুল মালিকে রাজত্বকালীন শুনেছি, স্বজনপ্রীতির কারনে হিম্স নগরীতে কুজাআ গোত্র এবং ইয়ামানবাসিদের মাঝে তীব্র এক যুদ্ধ সংগঠিত হবে। এক পর্যায়ে যুদ্ধ করার সুবিধার্থে উভয়দল বাজারের মাঝখানে থাকা দেয়াল ভেঙ্গেঁ ফেলবে। তখন হিম্সের বাজারের মাঝখানে তেমন কোনো দোকানপাট ছিলনা। তবে হিশাম ক্ষমতাশীল হওয়ার পর সেখানে যথেষ্ট ঘরবাড়ি ও দোকানপাট করা হয়েছে। সে দোকানগুলো সেদিন ধ্বংস করে ফেলা হবে। হাদীস বর্ণনাকারী হারীয রহঃ বলেন, আমরা শুনতাম যখন হিম্স নগরীতে চারটি বড় বড় মসজিদ প্রতিষ্ঠা করা হয়েছে, সে মসজিদ এবং মুসা ইব্নে সুলায়মান যে মসজিদটি স্থাপন করেছেন সেটা হচ্ছে সেই চার মসজিদের তিন নাম্বার মসজিদ।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১২৪৪ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ١٢٤٤
قال الوليد وقال حريز بن عثمان
سمعت في ولاية يزيد
بن عبد الملك أنه ستقتتل قضاعة واليمن بحمص عصبية حتى يهدم الفريقان جميعا ما بين
السوقين بين باب الرستن ليتسع لهم القتال وليس يومئذ عند سوق حمص حوانيت ثم بناها
بعد هشام فقلنا هذه التي تهدم يومئذ
قال حريز فكنا نسمع إذا بنى بحمص أربعة
مساجد كان ذلك وهذا المسجد الذي بناه موسى بن سليمان صاحب خراج حمص المسجد الثالث
হযরত কা’ব আহবার রহঃ থেকে বর্ণিত তিনি বলেন, হিম্স নগরীতে মোট তিনটি মসজিদ হবে। তার মধ্যে একটি মসজিদ হচ্ছে শয়তানের , তার মুসল্লিরগণও হবেন শয়তানের, আরেকটি হচ্ছে, আল্লাহর জন্য, তবে তার প্রতিবেশিরা শয়তানের জন্য। অন্য আরেকটি মসজিদ আল্লাহর জন্য, তার প্রতিবেশিরাও আল্লাহর জন্য। যে মসজিদ শয়তানের জন্য এবং তার শয়তানের জন্য সেটা হচ্ছে, হযরত মারইয়াম আঃ এর এবাদতগাহ। আর যে মসজিদ আল্লাহর জন্য এবং তার আহল শয়তানের জন্য, সেটা হচ্ছে, আমাদের মসজিদ, তার প্রতিবেশিদের মাঝে বিভিন্ন ধরনের লোকজন রয়েছে। আর যে মসজিদটি আল্লাহর জন্য এবং তার আহলও আল্লাহর জন্য, সেটা হচ্ছে হযরত যাকারিয়া আঃ এর মসজিদ। তার প্রতিবেশি হবে হিমইয়ার এলাকার বাসিন্দাগন সেখানে অবশ্যই আহলুল ইয়ামানও জমা হবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১২৪৫ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ١٢٤٥
حدثنا بقية وغيره عن حريز بن عثمان عن الأشياخ
عن كعب قال
في حمص
ثلاثة مساجد مسجد للشيطان
وأهله يعني للشيطان ومسجد لله وأهله للشيطان ومسجد لله
وأهله لله فالمسجد الذي للشيطان وأهله للشيطان
فكنيسة مريم
وأهله والمسجد الذي لله
وأهله للشيطان فمسجدنا وأهله أخلاط من الناس والمسجد الذي لله وأهله لله
فمسجد
كنيسة زكريا
وأهله حمير وأهل اليمن يجمعون فيه
হযরত আবুয্্যাহিরিয়্যাহ রহঃ থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, আব্বাছের ঘরে তোমরা পানি প্রবাহিত করোনা, কেননা সেটাকে অল্প সময়ের মধ্যে মসজিদে রূপান্তর করা হবে। এটিই হবে মূলতঃ তোমাদের মসজিদ। বিভিন্ন এলাকা থেকে লোকজন এ এলাকায় আসতে থাকবে এবং এটাকে মসজিদ বানানো হবে সুতরাং, তোমরা সে স্থানে প্রশ্রাব করোনা।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১২৪৬ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ١٢٤٦
حدثنا أبو المغيرة عن
ابن عياش قال سمعت المشيخة يذكرون
عن أبي الزاهرية كان يقول لا تهريقوا الماء
في دار العباس فإنها تتخذ مسجدا عن قريب يقع مسجدكم هذا فتنتقلون إليها وتتخذون بها
مسجدا فلا تبولوا فيها
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১২৪৭ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ١٢٤٧
حدثنا بقية عن صفوان بن عمرو عن أبي الصلت شريح
بن عبيد
عن كعب قال ويل لعاد من أيم إذا كبرت كلب بحمص والأنبا
হযরত সাদ ইব্নে সিনান কতিপয় শেখ থেকে বর্ণনা করেন, তারা বলেন, হিম্্সনগরীর বিকট একটি আওয়াজ শুনা যাবে। তখন প্রত্যেকে যেন ঘরের ভিতরে অবস্থান করে। এবং তিন ঘন্টা পর্যন্ত নিজেদের ঘরের ভিতরে অবস্থান করতে থাকবে, ঘর থেকে বের হবেনা।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১২৪৮ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ١٢٤٨
حدثنا الحكم بن نافع عن سعيد بن سنان
عن الأشياخ قال
تكون بحمص صيحة
فليلبث
أحدكم في بيته فلا يخرج ثلاث ساعات
হযরত আবু আব্দুল্লাহ নুআইস রহঃ থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, আমি বাকিয়্যাহকে বলতে শুনেছি, তিনি এরশাদ করেন, আমি রাসূলুল্লাহ সাঃ কে একবার কোমর বেঁধে ঘুমাতে দেখে জিজ্ঞাসা করলাম, ইয়া রাসূলুল্লাহ! কি ব্যাপার আপনাকে কোমর বাধা অবস্থায় দেখা যাচ্ছে?

জবাবে রাসূলুল্লাহ সাঃ বললেন, তোমরা সকলে ঈসা ইবনে মারইয়ামের সহযোগিতা করার প্রস্তুতি গ্রহণ কর।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১২৪৯ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ١٢٤٩
قال أبو عبد الله نعيم
سمعت بقية
يقول رأيت رسول الله صلى الله عليه وسلم في النوم متشمرا قال
فقلت يا رسول الله
مالي أراك متشمرا
قال استعدوا لنزول عيسى بن مريم عليه السلام

Execution time: 0.15 render + 0.00 s transfer.