Login | Register

নুয়াইম বিন হাম্মাদের: আল ফিতান

মক্কায় মানুষের একত্রিত হওয়া, মাহদীর হাতে বাইয়াত হওয়া এবং ঐ বছরের ঘটনা

   

মক্কায় মানুষের একত্রিত হওয়া, মাহদীর হাতে বাইয়াত হওয়া এবং ঐ বছরের ঘটনা

Double clicking on an arabic word shows its dictionary entry
হযরত আমর ইবনে শুয়াইব তার পিতা হতে এবং তার পিতা তার দাদা হতে বর্ণনা করেন যে, রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বললেন একবার যুল কা’দাহ মাসে গোত্রদের দলভুক্ত করা হবে। আর উক্ত বছর হাজীদের লুট করা হবে। ফলে তখন মিনায় একটি বড় যুদ্ধ হবে। আর সেখানে অনেক হত্যাযজ্ঞ হবে। অনেক রক্ত প্রবাহিত হবে। এমনকি তাদের রক্ত আকাবায়ে জামরাহ পর্যন্ত প্রবহিত হবে। এমনকি তাদের সাথী পালায়ন করবে। অতপর তাকে রুকুন ও মাকামের মাঝখানে নিয়ে আসবে। আর সে (এবিষয় থেকে) বিমুখ হবে।। তাকে বলা হবে যদি তুমি অস্বীকার করতে তহলে আমরা তোমার গর্দানে মারতাম। (মেরে ফেলতাম।) অতপর আহলে বদরের সমপরিমান লোক তার নিকট বাইয়াত গ্রহন করবে। আকাশ বাসী ও পাতাল বাসী সকলেই তার থেকে খুশি থাকবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ৯৮৬ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ٩٨٦
حدثنا أبو
يوسف المقدسي عن عبد الملك بن ابي سليمان عن عمرو بن شعيب عن أبيه
عن جده قال
قال رسول الله صلى الله عليه وسلم في ذي القعدة تحازب القبائل وعامئذ ينتهب الحاج
فتكون ملحمة بمنى فيكثر فيها القتلى وتسفك فيها الدماء حتى تسيل دماؤهم على عقبة
الجمرة حتى يهرب صاحبهم فيؤتى [ به ] بين الركن والمقام فيبايع وهو كارة ويقال له
ان أبيت ضربنا عنقك فيبايعه مثل عدة أهل بدر يرضى عنه ساكن السماء وساكن الأرض
হযরত আব্দুল্লাহ ইবনে আমর রাযিয়াল্লাহু আনহুমা হতে বর্ণিত যে, তিনি বলেন তিনি বলেন মানুষ একসাথে হজ্ব আদায় করবে। তারা একসাথে অন্য ইমামের উপর আরাফায় অবস্থান করবে। এরই মাঝে তারা মিনায় অবস্থান নিবে, আর তখনই তাদেরকে কুকুরের মত ধরবে। তখন তাদের গোত্রগুলি একে অপরের সাথে বিদ্রোহ শুরু করবে। অতপর তারা যুদ্ধ করবে। ফলে আকাবাতে তাদের রক্ত পৌছে যাবে। তখন তারা তাদের মঙ্গলের দিকে ভীতিগ্রস্থ হয়ে পড়বে। অতপর সে তাদের নিকট আসবে। আর তার চেহারা কা’বার দিকে লাগানো বা সংযুক্ত থাকবে। সে কাঁদবে কেমন যেন আমি তাকে ও তার চোখের পানি দেখছি। অতপর তারা বলবে আপনি আসুন। যাতে আমরা আপনাার নিকট বাইয়াত গ্রহন করতে পারি। অতপর সে বলবে, হায় তোমাদের আফসোস! এমন অঙ্গীকারের যা তোমরা ভঙ্গ করেছ। আর কতইনা রক্ত তোমরা ঝরিয়েছ। অতপর অনিচ্ছা সত্বেও তারা তার বাইয়াত গ্রহন করবে। যদি তোমরা তাকে পাও তাহলে তার নিকট বাইয়াত গ্রহন করিও। কেননা সে দুনিয়াতে মাহদী। আখেরাতেও মাহদী।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ৯৮৭ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ٩٨٧
قال أبو يوسف فحدثني محمد بن عبيد الله عن عمرو بن شعيب عن أبيه
عن
عبد الله بن عمرو رضى الله عنهما قال يحج الناس معا ويعرفون معا على غير إمام
فبينما هم نزول بمنى إذ أخذهم كالكلب فثارت القبائل بعضهم إلى بعض فاقتتلوا حتى
تسيل العقبة دما فيفزعون إلى خيرهم فيأتونه وهو ملصق وجهه إلى الكعبة يبكي كأني
أنظر [ إليه و ] إلى دموعه فيقولون هلم فانبايعك فيقول ويحكم من عهد [ قد ] نقضتموه
وكم من دم قد سفكتموه فيبايع كرها فإن أدركتموه فبايعوه فإنه المهدي في الأرض
والمهدي في السماء
হযরত সাঈদ ইবনে মুসাইয়িব রাযিয়াল্লাহু আনহু হতে বর্ণিত যে, তিনি বলেন একবার যিল কা’দাহ মাসে গোত্রগুলি অন্যান্য গোত্রদের সাথে জোটবদ্ধ হবে। আর যিল হাজ্বাহ মাসে হাজীদের লুট করা হবে। হরম এবং যা মুহাররামে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ৯৮৮ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ٩٨٨
حدثنا الوليد عن صدقة بن يزيد عن قتادة
عن سعيد بن
المسيب قال في ذي القعدة تنحاز فيها القبائل إلى قبائلها وذو الحجة ينهب الحاج فيها
والحرم وما المحرم
হযরত শাহর ইবনে হাওসাব রাযিয়াল্লাহু আনহু হতে বর্ণিত যে, তিনি বলেন রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেন একবার যিল কা’দাহ মাসে অনেক গোত্র দলভুক্ত হবে। আর যিল হাজ্বাহ মাসে হাজীদের লুট করা হবে। আর মুহাররামে আকাশ থেকে এক সম্বোধনকারী সম্বোধন করবে। (ডাকবে।)
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ৯৮৯ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ٩٨٩
قال الوليد وأخبرني عنبسة القرشي عن سلمة بن أبي سلمة
عن شهر بن حوشب قال
قال رسول الله صلى الله عليه وسلم في ذي القعدة تحازب
القبائل وفي ذي الحجة ينهب الحاج وفي المحرم ينادي مناد من السماء
হযরত উকবা ইবনে আবু মুঈত রাযিয়াল্লাহু আনহু হতে বর্ণিত যে, তিনি ইবনে আব্বাস রাযিয়াল্লাহু আনহু কে বলতে শুনেছেন যে, আলাøাহ তা’আলা মাহদী আলাইহিস সালামকে পাঠাবেন। ইয়াস তথা হতাশার পর। এমনকি মানুষ বলবে কোন মাহদী নেই। আর তাকে সিরিয়ার জনগণ তাকে সাহায্য করবে। তাদের সংখ্যা হল তিনশত পনের জন পুরুষ। বদর যুদ্ধের সাহাবীদের সম পরিমান। তারা সিরিয়া হতে তার দিকে সফর করবে। এমনকি তারা তাকে মক্কার মাঝ থেকে বের করতে চাইবে। সাফার নিকটবর্তী দরজা হতে। অতপর তারা তার নিকট বাইয়াত গ্রহন করবে অনিচ্ছাসত্বে। অতপর তিনি তাদের নিয়ে মাকামের নিকটে দুই রাকা’আত মুসাফিরের নামাজ আদায় করবেন। অতপর মিম্বরে আরোহন করবেন।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ৯৯০ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ٩٩٠
حدثنا
الوليد بن مسلم عن أبي عبد الله عن الوليد بن هشام المعيطي عن أبان بن الوليد بن
عقبة بن أبي معيط
سمع ابن عباس رضى الله عنه يقول يبعث الله تعالى المهدي بعد
إياس وحتى يقول الناس لا مهدي وأنصاره ناس من أهل الشام عدتهم ثلثمائة وخمسة عشر
رجلا عدة أصحاب بدر يسيرون إليه من الشام حتى يستخرجوه من بطن مكة من دار عند الصفا
فيبايعونه كرها فيصلي بهم ركعتين صلاة المسافر عند المقام ثم يصعد المنبر
হযরত আবু হুরাইরা রাযিয়াল্লাহু আনহু হতে বর্ণিত যে, তিনি বলেন মাহদী আলাইহিস সালাম রুকুন ও মাকামের মাঝামাঝি স্থানে বাইয়াত গ্রহন করবেন। কোন ঘুমন্ত ব্যক্তির ঘুমও ভাঙ্গবে না। কোন রক্তও প্রবাহিত হবে না।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ৯৯১ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ٩٩١
حدثنا أبو يوسف عن فطر بن خليفة عن الحسن بن عبد الرحمن العكلي
عن أبي هريرة
رضى الله عنه قال يبايع المهدي بين الركن والمقام لا يوقظ نائما ولا يهريق دما
হযরত যুহরী র. হতে বর্ণিত যে, তিনি বলেন উক্ত বছর দুই জন সম্বোধনকারী (ডাকনেওয়ালা) সম্বোধন করবে। আকাশ থেকে একজন সম্বোধন করে বলবে তোমরা ভালভাবে জেনে রাখ যে, আমীর বা নেতা হল অমুক। আরেক জন সম্বোধনকারী যমিন থেকে সম্বোধন করে বলবে সে মিথ্যা বলছে। অতপর নিম্ব স্বরের সাহায্যকারীরা যুদ্ধ করবে। এমনকি গাছের গোড়ায় রক্তে রঞ্জিত হয়ে যাবে। হযরত আব্দুল্লাহ ইবনে আমর রাযিয়াল্লাহু আনহু বলেন আর সেদিন একটি দল যে দলের নাম হবে বারাযে’ এর সৈন্য। তারা বারাযে’কে বিদীর্ণ করে দিবে। আর তারা উহাকে উন্মুক্তভাবে গ্রহণ করবে। আর সেদিন উক্ত উচ্চ আওয়াজের বদর যুদ্ধের সাহাবীদের সমপরিমান লোক ব্যতীত আর কোন সাহায্যকারী কেউ থাকবে না। আর তা হল তিনশত ও দশের অধিক ব্যক্তি। অতপর তারা সাহায্য করবে। অতপর তারা তাদের সাথীদের নিকট ফিরে যাবে। আর তখন তারা তাকে তার পিঠ কা’বার দিকে লাগানো অবস্থায় পাবে। তার কাঁধের মাংস আওয়াজ করতে থাকবে। আর সে আল্লাহ তা’আলার কাছে ঐ অনিষ্টতা থেকে আশ্রয় প্রার্থনা করতে থাকবে যা তাকে ঐদিকে ডাকে। অতপর তারা তার নিকট বাইয়াত গ্রহনে অপছন্দ করবে। অতপর নিম্ব স্বরের সাহায্যকারীরা সিরিয়ায় ফিরে যাবে। অতপর তারা বলবে আমরা এমন এক কওম বা জাতির সাথে যুদ্ধ করেছি যাদের মত অন্য কোন কওম বা জাতি আমরা কখনো দেখি নাই । আর তারা হল অল্পসংখ্যাক মানুষ।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ৯৯২ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ٩٩٢
حدثنا الوليد عن شيخ عن الزهري قال
ينادي تلك السنة مناديان مناد
من السماء ألا إن الأمير فلان وينادي مناد من الأرض كذب فيقتتل أنصار الصوت الأسفل
حتى أن أصول الشجر ليخضب دما وذلك اليوم الذي قال عبد الله بن عمرو جيش يسمى جيش
البراذع يشقون البراذع فيتخذونها مجانا قد فيومئذ لا يبقى من أنصار ذلك الصوت
الأعلى [ إلا ] عدة أهل بدر ثلثمائة وبضعة عشر رجلا فينصرون ثم ينصرفون إلى صاحبهم
فيجدونه ملصقا ظهره إلى الكعبة ترعد فرائصه يتعوذ بالله من شر ما يدعونه إليه
فيكرهونه على البيعة ويرجع أنصار الصوت الأسفل إلى الشام فيقولون قاتلنا قوما ما
رأينا مثلهم قط وإنما هم شرذمة قليلة
হযরত আব্দুল্লাহ ইবনে আমর রাযিয়াল্লাহু আনহুমা হতে বর্ণিত যে, তিনি বলেন একবার যুদ্ধ হবে। আর মানুষ একসাথে নামাজ আদায় করবে। তারা একসাথে হজ্ব আদায় করবে। তারা একসাথে আরাফায় অবস্থান করবে। তারা একসাথে কুরবানি করবে। অতপর তাদের মাঝে কুকুরের ন্যায় অশান্ত হয়ে উঠবে। ফলে তারা যুদ্ধে জড়িয়ে পড়বে। এমনকি আকাবাতে তাদের রক্ত পৌছে যাবে। আর নির্দোষ ব্যক্তি দেখবে যে, তার নির্দোষতা তাকে মুক্তি দিতে পারবে না। আর পৃথক হওয়া ব্যািক্ত দেথবে যে, তার পৃথকীটা তাকে কোন উপকার আসবে না। অতপর তারা এক যুবক ব্যক্তিকে অপছন্দ করতে চাইবে। যার পিঠ রুকুনের সাথে ঠেকানো থাকবে। তার কাঁধের গোস্ত আওয়াজ করবে। পৃথীবিতে তাকে মাহদী বলা হবে। আর সে আকাশেও মাহদী। সুতরাং তাকে যে পাবে সে যেন তাকে অনুসরণ করে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ৯৯৩ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ٩٩٣
حدثنا معتمر بن سليمان عن الأخضر بن
عجلان عن عطاء بن زهير بن فزارة العامري عن أبيه
عن عبد الله بن عمرو قال أما
إنها ستكون فتنة والناس يصلون معا ويحجون معا ويعرفون معا ويضحون معا ثم تهيج فيهم
كالكلب فيقتتلون حتى تسيل العقبة دما وحتى يرى البريء أن براءته لن تنجيه ويرى
المعتزل أن إعتزاله لن ينفعه ثم يستكرهون رجلا شابا مسندا ظهره بالركن ترعد فرائصه
يقال له المهدي في الأرض وهو المهدي في السماء فمن أدركه فليتبعه
হযরত কাতাদা রাযিয়াল্লাহু আনহু হতে বর্ণিত যে, তিনি বলেন রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেন সে মদীনা থেকে মক্কার দিকে বের হবে। অতপর তাদের মধ্য থেকে লোকজন তার দিকে বের হতে চাইবে। অতপর তারা কুন ও মাকামের মাঝখানে তার নিকট বাইয়াত গ্রহন করবে। আর সে (এ বিষয় থেকে) বিমুখ হবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ৯৯৪ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ٩٩٤
حدثنا
ابن ثور وعبد الرزاق عن معمر عن قتادة قال
قال رسول الله صلى الله عليه وسلم
إنه يخرج من المدينة إلى مكة فيستخرجونه الناس من بينهم فيبايعونه بين الكن والمقام
وهو كاره
হযরত আবু জালদ হতে বর্ণিত যে, তিনি বলেন তার নিকট তার নেতৃত্ব আনন্দ দায়ক হয়ে তার ঘরে আসবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ৯৯৫ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ٩٩٥
حدثنا عبد الوهاب الثقفي عن أيوب عن ابن سيرين عن أبي الجلد
قال تأتيه إمارته هنيا وهو في بيته
হযরত আলী রাযিয়াল্লাহু আনহু হতে বর্ণিত যে, তিনি বলেন যখন কালো ঝান্ডাবাহী দল সুফইয়ানীর অশ্বারোহী বাহিনীকে পরাজিত করবে যে দলে শুয়াইব ইবনে সালেহ থাকবে। আর মানুষ মাহদী আলাইহিস সালামের আকাংখা করবে। এবং তাকে অনুসন্ধান করবে। ফলে সে মক্কা থেকে বের হবে আর সাথে থাকবে রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম এর ঝান্ডা। অতপর সে দুই রাকা’আত নামাজ আদায় করবে (আর সে বের হবে) যখন মানুষ তার বের হওয়ার ব্যাপারে নিরাশ হয়ে যাবে। আর যখন তাদের উপর বিপদ আপদ দীর্ঘায়িত হবে। অতপর যখন তিনি নামাজ থেকে বিরত হবেন তখন (মানুষের দিকে) ঘুরবেন। অতপর বলবেন হে মানুষ সকল! তোমরা বিপদকে আশ্রয় দাও। হে মুহাম্মাদ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উম্মত! হে মুহাম্মাদ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম এর বিশেষ পরিবারবর্গ। আমাদের বিরোধিতা করেছে। এবং আমাদের সাথে বিদ্রোহ করেছে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ৯৯৬ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ٩٩٦
حدثنا الوليد ورشدين عن ابن لهيعة
عن أبي قبيل عن أبي رومان
عن علي رضى الله عنه قال إذا هزمت الرايات السود خيل
السفياني التي فيها شعيب بن صالح تمني الناس بالمهدي فيطلبونه فيخرج من مكة ومعه
راية النبي صلى الله عليه وسلم فيصلي ركعتين بعد أن يئس الناس من خروجه لما طال
عليهم من البلاء فإذا فرغ من صلاته انصرف فقال أيها الناس ألج البلاء يأمة محمد صلى
الله عليه وسلم ويا أهل بيته خاصة قهرنا وبغي علينا
হযরত আলী ইবনে আবু তালেব রাযিয়াল্লাহু আনহু হতে বর্ণিত যে, তিনি বলেন মক্কার দিকে কুরাইশের তিনটি দল বের হবে। সুফইয়ানীর সৈন্যদল হতে তাদেরকে দেখা যাবে। যখন তাদের নিকট ভূমিধস পৌছবে তখন তারা সকলে মক্কায় বিভিন্ন দেশের উক্ত তিনটি দলের জন্য একত্রিত হবে। অতপর তাদের এক একজন অনিচ্ছা সত্বেও বাইয়াত গ্রহন করবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ৯৯৭ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ٩٩٧
حدثنا الوليد بن مسلم
عن ليث بن سعد عن عياش بن العباس القتباني عمن حدثه
عن علي بن أبي طالب رضى
الله عنه قال يخرج ثلاثة نفر من قريش إلى مكة من جيش السفياني منظور إليهم فإذا
بلغهم الخسف اجتمعوا بمكة لأولئك النفر الثلاثة من البلاد فيبايع أحدهم كرها
হরত যুহরী থেকে বর্ণিত যে, অনিচ্ছা সত্বেও মাহদী মক্কা ও হযরত ফাতেমা রাযিয়াল্লাহু আনহা এর পরিবার থেকে বের হতে চাইবে। অতপর বাইয়াত করবেন।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ৯৯৮ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ٩٩٨
حدثنا عبد الله بن مروان عن سعيد بن يزيد
عن الزهري قال يستخرج
المهدي كارها من مكة من ولد فاطمة فيبايع
হযরত আবু জা’ফর রাযিয়াল্লাহু আনহু হতে বর্র্ণিত যে, তিনি বলেন অতপর ঈসার সময় মক্কায় মাহদী আলাইহিস সালাম বের হবে। আর তার সাথে রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম এর ঝান্ডা. তার জামা ও তার তরবারী থাকবে। (তার সাথে) নিদর্শন সমূহ, নূর বা আলো, বয়ান বা প্রকাশ্য আলামত থাকবে। অতপর যখন তিনি ঈসার নামাজ আদায় করবেন। তখন তার উচ্চ স্বর দ্বারা আওয়াজ করে সম্বোধন করে বলবেন- হে মানুষ সকল! আমি তোমাদের নিকট আল্লাহ তা’আলার আলোচনা করছি। এবং তোমাদের প্রভূর সামনে তোমাদের অবস্থান বর্ণনা করছি। আর তিনি হুজ্জত বা দলীল গ্রহন করেছেন। নবীগণ প্রেরণ করেছেন। কিতান অবতীর্ণ করেছেন। আর তোমদের এমর্মে আদেশ দিয়েছেন যে, তোমরা তার সাথে কোন কিছুর শরীক বা অংশীদারিত্ব করিও না। আর তোমরা তার অনুগত্য তার তার রাসূলের অনুগত্যতা সর্বদা সংরক্ষণ করবে। কুরআন যা জীবিত করেছে তা তোমরা জীবিত করবে। আর কুরআন যা মৃত করেছে তা তোমরা মৃত করবে। আর তোমরা হেদায়াতের সাহায্যকারী হবে। আর তাকওয়া বা খোদা ভীতির সংরক্ষণকারী হবে। কেননা দুনিয়ার পতন ও ধ্বংস অতি নিকটবর্তী। আর পৃথীবিকে বিদায়ের অনুমতি দেওয়া হয়েছে। সুতরাং আমি তোমাদেরকে আল্লাহ তা’আলা ও তার রাসূলের প্রতি, কিতাব অনুযায়ী আমল করার প্রতি. বাতিলকে ধ্বংস করার প্রতি, তার সুন্নাতকে জীবিত করার প্রতি আহবান করছি। অতপর তিনশত তেরো জন পুরুষ প্রকাশ পাবে। যা বদর যুদ্ধের সাহাবীদের পরিমান। অনির্দিষ্ট ভাবে শরৎকালের আওয়াজের ন্যায়। রাতের রুহবান তথা সন্ন্যাসীর ন্যায়। দিনের সিংহের ন্যায়। অতপর আল্লাহ তা’আলা মাহদী আলাইহিস সালামের জন্য হিজাজের ভূমি উন্মুক্ত করে দিবেন। বনি হাশেমের যারা কয়েদখানায় থাকবে তারা বের হতে চাইবে। আর কালো ঝান্ডাবাহী দল কূফায় অবস্থান নিবে। অতপর বাইয়াত গ্রহণের জন্য মাহদী আলাইহিস সালামের নিকট প্রতিনিধি প্রেরণ করবে। এবং মাহদী আলাইহিস সালাম তার সৈন্য দলকে দিকে দিকে পাঠাবেন। অন্যায় তার পরিবার সহ মারা যাবে। তার জন্য বাগান সোজা হয়ে দাড়ােেব। (শান্তি ফিরে আসবে।) আর আল্লাহা তা’আলা তার হাতে কুসতুনতুনিয়ার বিজয় দান করবেন।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ৯৯৯ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ٩٩٩
حدثنا سعيد أبو عثمان عن جابر
عن أبي جعفر قال ثم يظهر المهدي بمكة عند العشاء ومعه راية رسول الله صلى الله
عليه وسلم وقميصه وسيفه وعلامات ونور وبيان فإذا صلى العشاء نادى بأعلى صوته يقول
أذكركم الله أيها الناس ومقامكم بين يدي ربكم فقد اتخذ الحجة وبعث الأنبياء وأنزل
ال
كتاب
وأمركم أن لا تشركوا به
شيئا وأن تحافظوا على طاعته وطاعة رسوله وأن تحيوا ما أحيا القرآن وتميتوا ما أمات
وتكونوا أعوانا على الهدى ووزرا على التقوى فإن الدنيا قد دنا فناؤها وزوالها وأذنت
بالوداع فإني أدعوكم إلى الله وإلى رسوله والعمل ب
كتاب
ه وإماتة الباطل وإحياء سنته فيظهر في ثلثمائة وثلاثة عشر
رجلا عدة أهل بدر على غير ميعاد قرعا كقرع الخريف رهبان بالليل أسد بالنهار فيفتح
الله للمهدي أرض الحجاز ويستخرج من كان في السجن من بني هاشم وتنزل الرايات السود
الكوفة فيبعث بالبيعة إلى المهدي ويبعث المهدي جنوده في الآفاق ويميت الجور وأهله
وتستقيم له البلدان ويفتح الله على يديه القسطنطينية
হযরত আব্দুল্লাহ ইবনে মাসউদ রাযিয়াল্লাহু আনহু হতে বর্ণিত যে, তিনি বলেন যখন ব্যবসা বাণিজ্য ও পথ ঘাট বন্ধ হয়ে যাবে। আর অনেক যুদ্ধ বিগ্রহ হবে। তখন বিভিন্ন দিকের উলামাদের থেকে সাত জন পুরুষ অনির্দিষ্ট ভাবে বের হবে। তাদের প্রত্যেকেই তিনশত দশোধিক লোককে বাইয়াত করবে। এমনকি তারা সকলেই মক্কায় একত্রিত হবে। অতপর সাতজন মিলিত হবে। অতপর তাদের কতিপয় একে অন্যকে জিজ্ঞাসা করবে যে, তোমাদের কে নিয়ে এসেছে? অতপর তারা উত্তরে বলবে আমরা ঐ ব্যক্তির অনুসন্ধানে এসেছি যার তার হাত দ্বারা এই যুদ্ধকে ধ্বংস করে দিবেন। যার মাধ্যমে কুসতুনতুনিয়া বিজিত হবে। আমরা তাকে তার নাম দ্বারা, তার পিতার নাম দ্বারা, তার মাতার নাম দ্বারা, এবং তার চেহার আকৃতি দ্বারা চিনবো। অতপর উক্ত সাতজন উক্ত ব্যাপারে একমত পোষণ করবে। অতপর তারা তাকে অনুসন্ধান করবে। অতপর তারা তার নিকট মক্কায় পৌছবে। অতপর তারা তাকে উদ্দেশ্য করে বলবে আপনি তো অমুকের পুত্র অমুক। উত্তরে সে বলবে, না। বরং আমি আনসারীদের একজন পুরুষ। এমনকি তাদের থেকে পালিয়ে যাবে। অতপর জ্ঞানী ও আহলে মা’রেফা তথা পন্ডিতের নিকট তার ব্যাপারে স্পষ্ট হয়ে যাবে। অতপর বলা হবে, সে তোমাদের ঐ সাথী যাকে তোমরা অনুসন্ধান করছ। অতপর মদীনায় মিলিত হবে। অতপর তারা মদীনায় তাকে অনুসন্ধান করবে। পরে তারা মক্কার দিকে তারা একে অপরে বিরোধীতা করবে। অতপর তারা তাকে মক্কায় অনুসন্ধান করবে। অতপর তারা তার নিকটে পৌছবে। অতপর তারা তাকে বলবে- আপনি তো অমুকের পুত্র অমুক। আপনার মাতা অমুকের মেয়ে অমুক। আর আপনার মাঝে এমন এমন নিদর্শন রয়েছে। আর আপনি আমাদের থেকে একবার পালিয়ে গেছেন। সুতরাং আপনি আপনার হাত প্রসারিত করুন। আমরা আপনার হতে বাইয়াত গ্রহণ করবো। তখন সে বলবে- আমি তোমাদের সাথী নই। আমি অমুক আনসারীর পুত্র অমুক। আমার সাথে আস। আমি তোমাদের সাথীর খবর দিচ্ছি। এমনকি সে তাদের থেকে পালিয়ে যাবে। অতপর তারা তকে মদীনায় অনুসন্ধান করবে। অতপর তারা পরস্পরে মক্কার দিকে বিরোধীতা করবে। অতপর তারা মক্কায় রুকুনের কাছে তার নিকট পৌছবে। অতপর তারা বলবে যদি আপনি আপনার হাত প্রসারিত না করেন যাতে আমরা বাইয়াত গ্রহণ করতে পারি তাহলে আমাদের গুনাহ আপনার উপর ও আমাদের রক্ত আপনার গর্দানে। এ হল আসকার সুফইয়ানী। যে আমাদের অনুসন্ধানে সম্মুখে হয়েছিল। তাদের উপরে (নেতৃত্বে) জারম হতে একজন লোক থাকবে। অতপর সে রুকুন ও মাকামের মাঝামাঝি স্থানে বসবে। অতপর তার হাত প্রসারিত করবে। অতপর তারা তার জন্য বাইয়াত গ্রহণ করবে। অতপর আল্লাহ তা’আলা মানুষের অন্তরে তার মুহাব্বাত বা ভালবাসা ঢেলে দিবেন। অতপর সে এমন এক জাতির সাথে সফর করবে যারা দিনের বেলায় সিংহের মত। আর রাতের বেলায় সন্ন্যাসী।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১০০০ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ١٠٠٠
حدثنا أبو عمر عن
ابن لهيعة عن عبد الوهاب بن حسين عن محمد بن ثابت عن أبيه عن الحارث
عن عبد
الله بن مسعود رضى الله عنه قال إذا انقطعت التجارات والطرق وكثرت
الفتن
خرج سبعة رجال علماء من أفق شتى
على غير ميعاد يبايع لكل رجل منهم ثلثمائة وبضعة عشر رجلا حتى يجتمعوا
بمكة
فيلتقي السبعة
فيقول بعضهم لبعض ما جاء بكم
فيقولون جئنا في طلب هذا الرجل
الذي ينبغي أن تهدأ على يديه هذه
الفتن
وتفتح له القسطنطية قد عرفناه باسمه واسم أبيه وأمه
وحليته فيتفق السبعة على ذلك فيطلبونه فيصيبونه بمكة
فيقولون له أنت فلان بن
فلان
فيقول لا بل أنا رجل من الأنصار حتى يفلت منهم فيصفونه لأهل الخبرة
والمعرفة به
فيقال هو صاحبكم الذي تطلبونه وقد لحق بالمدينة فيطلبونه بالمدينة
فيخالفهم إلى مكة فيطلبونه بمكة فيصيبونه
فيقولون أنت فلان بن فلان وأمك فلانة
بنت فلان وفيك آية كذا وكذا وقد أفلت منا مرة فمد يدك نبايعك
فيقول لست بصاحبكم
أنا فلان بن فلان الأنصاري مروا بنا أدلكم على صاحبكم حتى يفلت منهم فيطلبونه
بالمدينة فيخالفهم إلى مكة فيصيبونه بمكة عند الركن
فيقولون إثمنا عليك ودماؤنا
في عنقك إن لم متمد يدك نبايعك هذا عسكر السفياني قد توجه في طلبنا عليهم رجل من
جرم فيجلس بين الركن والمقام فيمد يده فيبايع له ويلقي الله محبته في صدور الناس
فيسير مع قوم أسد بالنهار رهبان بالليل
হযরত কাতাদা রাযিয়াল্লাহু আনহু হতে বর্ণিত যে, রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেন তার নিকট ইরাকের মানুষের দল ও সিরিয়ার সূফী-সাধকরা আসবে। অতপর তারা তার নিকট রুকুন ও মাকামের মাঝামাঝি স্থানে বাইয়াত গ্রহণ করবে। অতপর ইসলাম তার উটের ঘাড়ের সম্মুখভাগে সাক্ষাত করবে।

[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ১০০১ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ١٠٠١
حدثنا أبو ثور وعبد الرزاق وابن معاذ عن معمر
عن قتادة قال قال
رسول الله صلى الله عليه وسلم يأتيه عصاب العراق وأبدال الشام فيبايعونه بين الركن
والمقام فيلقي الإسلام بجرانه
خروج المهدي من مكة إلى بيت المقدس والشام
بعدما يبايع له وما يكون في مسيره بينه وبين السفياني وأصحابه

Execution time: 0.20 render + 0.01 s transfer.