Login | Register

নুয়াইম বিন হাম্মাদের: আল ফিতান

মাহদির দিকে রওনা দেয়া সুফিয়ান বাহিনীর ভুমিধ্বস

   

মাহদির দিকে রওনা দেয়া সুফিয়ান বাহিনীর ভুমিধ্বস

Double clicking on an arabic word shows its dictionary entry
হযরত ইবনে ওহাব রাযিয়াল্লাহু আনহু হতে বর্ণিত যে, তিনি বলেন আমি আবু ফারেস থেকে শুনেছি যে, তিনি বলেন, আমি আব্দুল্লাহ ইবনে আমর রাযিয়াল্লাহু আনহুমাকে বলতে শুনেছি যে, মাহদী আলাইহিস সালামের অবির্ভাবের আলামত বা নিদর্শন হলÑ খোলা প্রান্তর সৈন্য সহকারে ধসে যাওয়া। আর সেটাই মাহদী আলাইহিস সালামের অবির্ভাবের আলামত।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ৯৩৩ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ٩٣٣
المعافري سماه ابن وهب قال سمعت أبا فراس قال
سمعت عبد الله بن عمرو يقول علامة
خروج المهدي خسف يكون بالبيداء بجيش فهو علامة خروجه
হযরত হানাস ইবনে আব্দুল্লাহ হতে বর্ণিত যে, তিনি হযরত ইবনে আব্বাস রাযিয়াল্লাহু আনহু কে বলতে শুনেছেন যে, মদীনার খলীফা মক্কার হাশেমীদের দিকে সৈন্য প্রেরণ করবে। উক্ত সৈন্য দল তাদেরকে পরাজিত করবে। অতপর সিরিয়ার খলীফা এব্যাপারে অবহিত হবে। তখন সে তাদের উদ্দেশ্যে সৈন্য প্রেরণ করবে। যে সৈন্যদলে অভিজ্ঞ ছয়শত সেনা থাকবে। যখন তারা খোলা প্রান্তরে আসবে ও সেখানে চাঁদনী রাতে অবতরণ করবে। কোন এক রাখাল সেখানে আসবে। এবং তাদেরকে দেখবে এবং আর্শ্চায্য বোধ করবে। আর সে বলবে হায় আফসোস!! মক্কা বাসীদৈর উপর কি আসছে। (কি বিপদ আসছে।) অতপর সে তার পশুপালের কাছে যাবে। অতপর আবার ফিরে আসবে। কিন্তু তাদের একজনকেও দেখতে পাবে না। কেননা যমিন তাদের নিয়ে ধসে গেছে। অতপর সে (আর্শ্চায্য হয়ে) বলবে সুবহান আল্লাহ। তারা সকলে এক মুহুর্তে চলে গেল। অতপর সে তাদের আবাসস্থলে আসবে। সেখানে সে মখমল বা এক প্রকার ফুল দেখবে যার কিছু অংশ ধসে গেছে, আর কিছু অংশ যমিনের উপরে আছে। সে উহার চিকিৎসা করবে কিন্তু সে সক্ষম হবে না। অতপর সে বুঝবে যে, যমিন তাদের নিয়ে ধসে গেছে। অতপর সে মক্কার খলীফার নিকটে আসবে। এবং তাকে সুসংবাদ দিবে। উক্ত রাখালের কথা শুনে মক্কার খলীফা বলবে সকল প্রসংসা আল্লাহ তা’আলার জন্য। এটা সেই আলামত যার ব্যাপারে তোমাদেরকে আগে জানানো হয়েছে। অতপর তারা সিরিয়ার দিকে যাবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ৯৩৪ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ٩٣٤
ابن لهيعة عن خالد بن أبي عمران عن حنش بن عبد الله سمع
ابن عباس رضى الله عنه
يقول يبعث صاحب المدينة إلى الهاشميين بمكة جيشا فيهزموهم فيسمع بذلك الخليفة
بالشام فيقعطع إليهم بعثا فيهم ستمائة عريف فإذا أتوا البيداء فنزلوها في ليلة
مقمرة أقبل راعي ينظر إليهم ويعجب ويقول يا ويح أهل مكة ما أصابهم فينصرف إلى غنمه
ثم يرجع فلا يرى أحدا فإذا هم قد خسف بهم فيقول سبحان الله ارتحلوا في ساعة واحدة
فيأتي منزلهم فيجد قطيفة قد خسف ببعضها وبعضها على ظهر الأرض فيعالجها فلا يطيقها
فيعرف أنه قد خسف بهم فينطلق إلى صاحب مكة فيبشره فيقول صاحب مكة الحمد لله هذه
العلامة التي كنتم تخبرون فيسيرون إلى الشام
হযরত তাবে’ হতে বর্ণিত যে, তিনি বলেন আশ্রয়প্রাথী আচিরেই মক্কার নিকট আশ্রয় চাইবে। কিন্তু তাকে হত্যা করে দেওয়া হবে। অতপর মানুষ তাদের যুগের কিছু কাল বসবাস করবে। অতপর আরেকজন আশ্রয় চাইবে। যদি তুমি তাকে পাও তাহলে তোমরা তাকে আক্রমন করিও না। কেননা সে ধসনেওয়ালা সৈন্যদলের একজন সৈন্য।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ৯৩৫ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ٩٣٥
صدقة بن خالد عن عبد الرحمن بن حميد عن مجاهد
عن تبيع قال سيعوذ بمكة عائذ
فيقتل ثم يمكث الناس برهة من دهرهم ثم يعوذ آخر فإن أدركته فلا تغزونه فإنه جيش
الخسف
রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম এর সম্মানিতা স্ত্রী উম্মুল মু’মিনীন হযরত হাফসা রাযিয়াল্লাহু আনহা হতে বর্ণিত যে, তিনি বলেন আমি রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম কে বলতে শুনেছি যে, এই ঘর উদ্দেশ্য করে পশ্চিম দিক হতে এক দল সৈন্য এখানে আগমন করবে। এমনকি যখন তারা খোলা প্রান্তরে থাকবে তখন উক্ত প্রান্তর তাদের নিয়ে ধসে যাবে। অতপর উক্ত সৈন্য দলের ইমাম বা নেতা সেখানে ফিরে যাবে যাতে সে দেখতে পারে যে, তার জাতি কি কাজ করেছে। তখন তাদেরও ঐ পরিনতি ঘটবে যা ইতি পূর্বে তাদের ঘটেছে। আর তাদের পরবর্তীদের তাদের সাথে সাক্ষাৎ ঘটবে। যাতে সে দেখতে পারে যে, তারা কি করেছে। তাদেরও ঐ পরিনতি ঘটবে যা ইতি পূর্বে তাদের ঘটেছে। অতপর যে ব্যক্তি উহাকে পুনারায় করতে চাইবে তার ঐ পরিনতিই হবে যা তাদের হয়েছে। অতপর আল্লাহ ত’আলা তার ইচ্ছা অনুযায়ী সকল বিষয় প্রেরণ করবেন।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ৯৩৬ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ٩٣٦
الرحمن ابن موسى عن عبد الله بن صفوان عن حفصة زوج النبي صلى الله عليه وسلم رضى
الله عنها قالت سمعت رسول الله صلى الله عليه وسلم يقول يأتي جيش من قبل المغرب
يريدون هذا البيت حتى إذا كانوا بالبيداء خسف بهم فيرجع من كان أمامهم لينظر ما
فعلوه القوم فيصيبهم ما أصابهم ويلحق بهم من خلفهم لينظر ما فعلوه فيصيبهم ما
أصابهم فمن كان منهم مستكرها أصابهم ما أصابهم ثم يبعث الله تعالى كل امريء منهم
على نيته
হযরত মুহাম্মাদ ইবনে আলী হতে বর্ণিত যে, তিনি বলেন অচিরেই মক্কার আশ্রয়প্রার্থীর দিকে সত্তর হাজার সৈন্য প্রেরণ করা হবে। তাদের সম্মুখে কইসের এক ব্যক্তি থাকবে। এমনকি যখন তারা ছানিয়া পৌছবে তখন তাদের শেষ ব্যক্তি প্রবেশ করবে। আর সেখান থেকে তাদের প্রথম জন বের হবে না। হযরত জীবরাঈল আলাইহিস সালাম খোলা প্রান্তরকে ডেকে বলবেনÑ হে খোলা প্রান্তর! হে খোলা প্রান্তর!! তার আওয়াজ পূর্বে পশ্চিমে সকলেই শুনবে। তাদেরকে গ্রাস কর। ফলে তাদের কোন মঙ্গল থাকবে না। পাহাড়ে অবস্থানরত একমাত্র ছাগলের রাখাল ব্যতীত তাদের ধ্বংসের কোন প্রকাশ্য আলামত থাকবে না। কেননা যখন তারা মাটিতে দেবে যাবে তখন সে তাদেরকে দেখবে। অতপর সে তাদের ব্যাপারে সকলকে সংবাদ দিবে। যখন আশ্রয়প্রার্থী তাদের ব্যাপারে শুনতে পাবে তখন সে বের হয়ে যাবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ৯৩৭ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ٩٣٧
عن محمد بن علي قال
سيكون عائذ بمكة يبعث إليه سبعون ألفا عليهم رجل من قيس حتى إذا بلغوا الثنية دخل
آخرهم ولم يخرج منها أولهم نادى جبريل بيداء يا بيداء يابيداء يسمع مشارقها
ومغاربها خذيهم فلا خير فيهم فلا يظهر على هلاكهم إلا راعي غنم في الجبل ينظر إليهم
حين ساخوا فيخبر بهم فإذا سمع العائذ بهم خرج
হযরত যু কিরবাত হতে বর্ণিত যে, তিনি বলেন যখন সুফইয়ানী মিসরবাসীদের নিকট পৌছবে তখন সে মক্কাবাসীদের নিকট সৈন্যদল প্রেরণ করবে। উষ্ণতার থেকে বেশী পরিমানে তারা মদীনাকে ধ্বংস করে দিবে। এমনকি যখনতারা খোলা প্রান্তরে পৌছবে তখন উক্ত প্রান্তর তাদের নিয়ে ধসে যাবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ৯৩৮ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ٩٣٨
عن أبي قبيل عن سعيد بن الأسود
عن ذي قربات قال فإذا بلغ السفياني الذي بمصر
بعث جيشا إلى الذي بمكة
فيخربون المدينة
أشد من الحرة حتى إذا بلغوا البيداء خسف
بهم
হযরত কাতাদা রাযিয়াল্লাহু আনহু হতে বর্ণিত যে, তিনি বলেন রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেন সিরিয়া হতে মক্কার দিকে একদল সৈন্য প্রেরণ করা হবে। যখন তারা খোলা প্রান্তরে পৌছবে তখন উক্ত খোলা প্রান্তর তাদের নিয়ে ধসে যাবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ৯৩৯ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ٩٣٩
عليه وسلم يبعث إلى مكة جيش من الشام حتى إذا كانوا بالبيداء خسف بهم
হযরত ইবনে মাসউদর রাযিয়াল্লাহু আনহু হতে বর্ণিথ যে, তিনি বলেন একদল সৈন্য মদীনার উদ্দেশ্যে প্রেরণ করা হবে। দুই জামাও (স্থান) এর মধ্যবর্তী স্থান তাদের নিয়ে ধসে যাবে। নিঃপাপ পবিত্র আত্মাকে হত্যা করা হবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ৯৪০ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ٩٤٠
عن ابن مسعود
قال يبعث جيش إلى المدينة فيسخف بهم بين الجماوين ويقتل النفس الزكية
হযরত আবু জা’ফর রাযিয়াল্লাহু আনহু হতে বর্ণিত যে, তিনি বলেন তাদের নিয়ে ধসে যাবে। (সৈন্যদল নিয়ে যমিন ধসে যাবে।) ফলে বিকারগ্রস্তদের থেকে দুই জন ব্যতীত তাদের কেই বাঁচবে না। তাদের দুই জনের নাম হল, ওবার এবং ওবাইর। তাদের দ্ইু জনের চেহারাকে তাদের পশ্চাতের দিকে ঘুরিয়ে দেওয়া হবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ৯৪১ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ٩٤١
عن أبي جعفر قال يخسف بهم فلا ينجو منهم إلا رجلان
من كلب اسمهما وبر ووبير تقلب وجوههما في أقفيتهما
হযরত আলী রাযিয়াল্লাহু আনহু হতে বর্ণিত যে, তিনি বলেন যখন ঐসমস্ত লোককে অনুসন্ধানের জন্য সৈন্য অবতরণ করবে যারা মক্কার উদ্দেশ্যে বের হয়েছে। তখন তারা (সৈন্যদল) একটি খেঅলা প্রান্তরে অবতরণ করবে (আর তখনই) উক্ত খোলা প্রান্তর তাদের নিয়ে ধসে যাবে। এবং তাদের শেষ করে দিবে। আর আল্লাহ ত’আলার কথা (এই দিকে ইঙ্গিত করে)Ñ যদি তুমি দেখতে যখন তারা ভীত বিহ্বল হয়ে পড়বে। তখন কোন অব্যহতি থাকবে না। আর তাদেরকে নিকটবর্তী স্থান হতে পাকড়াও করা হবে। (সূরা সাবাÑ ৫১)। তাদের পায়ের নীচ থেকে। আর সৈন্যদল থেকে এক ব্যক্তি উটের সন্ধানে বের হবে। অতপর ফিরে আসবে। কিন্তু তাদের একজন কেও পাবে না। তাদের অনুভূতিও পাবে না। (তাদের ঘ্রাণও পাবে না। ) আর এই সেই ব্যক্তি যে মানুষের নিকট তাদের ব্যাপারে সংবাদ দিবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ৯৪২ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ٩٤٢
عن ابن لهيعة عن أبي قبيل عن أبي رومان
عن علي رضى الله عنه قال إذا نزل جيش في
طلب الذين خرجوا إلى مكة فنزلوا البيداء خسف بهم ويباد بهم وهو قوله تعالى ولو ترى
إذ فزعوا فلا فوت وأخذوا من مكان قريب [ سبأ51 ] من تحت أقدامهم ويخرج رجل من الجيش
في طلب ناقة له ثم يرجع إلى الناس فلا يجد منهم أحدا ولا يحس بهم وهو الذي يحدث
الناس بخبرهم
হযরত কা’ব রাযিয়াল্লাহু আনহু হতে বর্ণিত যে, তিনি বলেন বার হাজার সৈন্য বিশিষ্ট একটি সৈন্যদল মদীনার মুখি হবে। অতপর খোলা প্রান্তর তাদের নিয়ে ধসে যাবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ৯৪৩ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ٩٤٣
عن كعب قال
يوجه جيش إلى المدينة [ في ] اثنا عشر ألفا فيخسف بهم بالبيداء
হযরত যুহরী হতে বর্ণিত যে, তিনি বলেন কূফাবাসীদের থেকে দুটি সৈন্য দল পাঠানো হবে একটি সৈন্যদল পাঠানো হবে মারউ’ এর দিকে। আরেকটি পাঠানো হবে হিজাজের দিকে। হেজাজের দিকে প্রেরিত সৈন্যদলের এক তৃতীয়াংশ (যমিনে) ধসে যাবে। আরেক এক তৃতীয়াংশ জন্তুতে পরিনত হবে। তাদের চেহারা হবে তাদের দুই কাধের মাঝে। (চেহারা থাকবে ডান কাধ বরাবর বা বাম কাধ বরাবর। এভাবে যে,) তারা তাদের যেমনিভাবে পশ্চাতভাগ দেখতে পাবে তেমনিভাবে তারা তাদের সম্মুখভ্গাও দেখতে পাবে। তারা তাদের পায়ের গোড়ালি দিয়ে পিছন দিকে হাটবে। যেমনিভাবে তারা পায়ের সামনের ভাগ দিয়ে হাটতো। (সম্পূর্ণ উল্টা হাটবে।) আর তাদের থেকে এক তৃতীয়াংশ বাকী থাকবে। তারা মক্কার দিকে যাবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ৯৪৪ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ٩٤٤
عبد الله بن مروان عن سعيد بن يزيد عن الزهري
قال يبعث من أهل الكوفة بعثين بعث
إلى مرو وبعث إلى الحجاز فيخسف بثلث بعثه إلى الحجاز
و
ثلث يمسخون
يحول وجوههم بين
أكتافهم يرون أدبارهم كما يرون فروجهم يمشون القهقري بأعقابهم كما كانوا يمشون
بصدور أقدامهم ويبقى الثلث فيسيرون إلى مكة
হযরত আবু জা’ফর রাযিয়াল্লাহু আনহু হতে বর্ণিত যে, তিনি বলেন যখন সুফইয়ানী পৌছবে এবং নিঃপাপ লোককে হত্যা করবে। আর সে হল ঐ ব্যক্তি যে তার উপর লিপিবদ্ধ হয়েছে। অতপর সকল মুসলমান রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম এর হারাম তথা মদীনা হতে আল্লাহ তা’আলার হারাম তথা মক্কা নগরীতে ভেগে যাবে। অতপর যখন তার নিকট তাদের পালায়নের খবর পৌছবে তখন সে মদীনার উদ্দেশ্যে এক সৈন্য দল প্রেরণ করবে। যাদের নেতা হবে উন্মাদদের মধে থেকে এক জন। যখন তারা খোলা প্রান্তরে পৌছবে তখন যমিন তাদের নিয়ে ধসে যাবে। আর তাদের নেতা পালিয়ে যাবে। তারা উল্লেখ করেন যে, উক্ত আমীর হবে মাযহাজ থেকে। আবার কতিপয় রাবী বলেন উক্ত নেতা হবে কিলাব থেকে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ৯৪৫ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ٩٤٥
عن أبي جعفر قال
إذا بلغ السفياني
قتل النفس الزكية
وهو الذي كتب عليه فهرب
عامة المسلمين من حرم رسول الله صلى الله عليه وسلم إلى حرم الله تعالى بمكة فإذا
بلغه ذلك بعث جندا إلى المدينة عليهم رجل من كلب حتى إذا بلغوا البيداء خسف بهم
وينفلت أميرهم وذكروا أنه من مذحج وقال بعضهم من كلب
হযরত আবু জা’ফর রাযিয়াল্লাহু আনহু হতে বর্ণিত যে, তিনি বলেন তেদের থেকে কালবী দুই জন ব্যক্তি ব্যাতীত আর কেই বাচতে পারবে না। যে দুই জনের নাম হবে ওবার এবং ওবাইর। তাদের দুইজনের চেহারা তাদের পিছনের দিকে ঘুরে যাবে। ‘
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ৯৪৬ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ٩٤٦
عن جابر
عن أبي جعفر قال لا ينجو منهم إلا رجلان من كلب اسمهما وبر ووبير
تحول
وجوههما في أقفيتهما
হযরত আবু কুবাইল রাযিয়াল্লাহু আনহু হতে বর্র্ণিত যে, তিনি বলেন সুসংবাদ দানকারী ও সতর্ককারী ব্যাতীত তাদের থেকে কেউ বাঁচতে পারবে না। (সুসংবাদ দানকারীর) সুসংবাদ হল যে, মাহদী আলাইহিস সালাম ও তার সাথীরা মক্কায় আসবে। অতপর ঐ ব্যক্তি তাদের সাথে যা ঘটেছে সে ব্যাপারে মানুষকে সংবাদ দিবে। আর তার কথার সত্যতার প্রমান তার চেহারায় থাকবে। আর তা হল তার চেহারা তার পিছনের দিকে ঘুরে যাবে। ফলে মানুষ যখন তার ঘোরানো মাথা দেখবে তখন তার কথা সত্য হিসাবে মেনে নিবে। আর তারা জানবে যে, কওম বা জাতিকে নিয়ে যমিন ধসে গেছে। আর দ্বিতীয়টি হল তার অনুরূপ তার চেহারাও পিছন দিকে ঘোরানো থাকবে। সুফইয়ানী আসবে অতপর সে তার সাথীদের উপর আল্লাহ তা’আলা কি নাযিল করেছেন তা সম্পর্কে সংবাদ দিবে। যখন মানুষ তার মধ্যে আলামত দেখবে তখন তার কথা সত্য হিসাবে মেনে নিবে। আর জানব্ েযে, সে সত্য। আর তার উভয় ব্যাক্তি হবে কালব হতে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ৯৪৭ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ٩٤٧
مسلمة
عن أبي قبيل قال لا يفلت منهم أحد إلا بشير ونذير فأما البشير فإنه يأتي
المهدي بمكة وأصحابه فيخبرهم بما كان من أمرهم ويكون شاهد ذلك في وجهه قد حول وجهه
في قفاه فيصدقونه لما يرون من تحويل وجهه ويعلمون أن القوم قد خسف بهم والثاني مثل
ذلك قد حول وجهه إلى قفاه يأتي السفياني فيخبره بما أنزل بأصحابه فيصدقه ويعلم أنه
حق لما يرى فيه من العلامة وهما رجلان من كلب
হযরত আব্দুল্লাহ রাযিয়াল্লাহু আনহু হতে বর্ণিত যে, তিনি বলেন আল্লাহ তা’আলা বলবেন হে খালি প্রান্তর! তুমি তোমার অধিবাসী সহ ধসে যাও। ফলে উক্ত প্রান্তর তার অধিবাসী সহ ধসে যাবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ৯৪৮ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ٩٤٨
عن الوهاب بن حسين عن محمد بن ثابت عن أبيه عن الحارث
عن عبد الله قال يقول
الله تعالى يا بيداء بيدي بأهلك فتبيد بهم إلا رجل من بجيلة يحول الله وجهه إلى
قفاه ليخبر الناس بأمرهم
হযরত আরতাত রাযিয়াল্লাহু আনহু হতে বর্ণিত যে, তিনি বলেন একজন ব্যক্তি ব্যাতীত আর কেউ তাদের থেকে বেচে থাকবে না। আল্লাহ তা’আলা তার চেহারাকে তার পিছনের দিকে ঘুরিয়ে দিবেন। সে (উল্টা দিকে) হাটবে যেমন সে পূর্বে তার সামনের দিকে সোজা ভাবে হাটতো।** মাহদী ও তার অবির্ভাব সম্পর্কে শেষ অধ্যায়।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ৯৪৯ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ٩٤٩
عن أرطاة قال
لا ينجو منهم أحد إلا رجل واحد يحول الله وجهه إلى قفاه فيمشي كمشيته كان مستويا
بين يديه
باب آخر من علامات المهدي في خروجه

Execution time: 0.13 render + 0.00 s transfer.