Login | Register

নুয়াইম বিন হাম্মাদের: আল ফিতান

সুফিয়ানীর নাম, বংশ এবং বৈশিষ্ট প্রসঙ্গে

   

সুফিয়ানীর নাম, বংশ এবং বৈশিষ্ট প্রসঙ্গে

Double clicking on an arabic word shows its dictionary entry
আবু উমাইয়া আল-কালবী রহঃ তার এমন এক শেখ থেকে বর্ননা করেন যিনি জাহেলী যুগকে পেয়েছিলেন, তিনি এরশাদ করেন, সুফিয়ানী মূলতঃ শামদেশের পশ্চিম দিকের আন্দারা নামক একটি গ্রাম থেকে সাতজন লোক সহকারে প্রকাশ পাবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ৮০২ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ٨٠٢
عبدة المشجعي عن أبي أمية الكلبي
عن شيخ أدرك الجاهلية قال بدؤالسفياني خروجه
من قرية من غرب الشام يقال لها أندرا في سبعة نفر
আবু জাফর রহঃ থেকে বর্নিত, তিনি বলেন, সুফিয়ানী নামক লোকটি জনৈকা মহিলার গর্ভের সন্তানের সতমূল্য পরিমান সময়ে রাজত্ব করবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ৮০৩ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ٨٠٣
عن جابر عن أبي جعفر قال
يملك السفياني حمل امرأة
হযরত ইবনুল হানাফিয়্যাহ রহঃ থেকে বর্নিত, তিনি বলেন, খোরাসান থেকে কালো ঝান্ডাবাহী দল এবং সুআঈব ইবনে সালেহ ও মাহদী আঃ এর আত্নপ্রকাশ আর মাহদী আঃ এর হাতে ক্ষমতা আসা বাহাত্তর মাসের মধ্যেই সংঘটিত হবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ৮০৪ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ٨٠٤
عبد الله عن عبد الكريم
عن ابن الحنفية قال بين خروج الراية السوداء من خراسان
وشعيب بن صالح وخروج المهدي وبين أن يسلم الأمر للمهدي
اثنان وسبعون شهرا
হযরত আব্দুল্লাহ ইবনে মাসউদ রাযিঃ থেকে বর্নিত, তিনি বলেন, একটি তারকা প্রকাশ পাবে এবং কানা চোখের অধিকারী জনৈক লোকের নিতম্ব নিয়ে নড়াচড়া করতে থাকবে। এরপরই চন্দ্রগ্রহন নিবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ৮০৫ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ٨٠٥
عن ابن مسعود
قال
يتبدى نجم
ويتحرك
بإيليا
رجل أعور
العين ثم يكون
الخسف
بعد [ ذلك ]
হযরত আবু জাফর রহঃ থেকে বর্নিত, তিনি বলেন, সে লোকটি হবে কোটরাগত চোখ বিশিষ্ট।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ৮০৬ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ٨٠٦
هو أخوص العين
সুলাইমান ইবনে ঈসা রহঃ থেকে বর্নিত, তিনি বলেন, আমি জানতে পেরেছি, নিঃসন্দেহে সুফিয়ানী সাড়ে তিন বৎসর পর্যন্ত ক্ষমতায় থাকতে পারবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ৮০৭ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ٨٠٧
يحيى بن سعيد عن سليمان بن عيسى قال
بلغني أن
السفياني يملك ثلاث سنين ونصف
হযরত কা’ব রহঃ থেকে বর্নিত, তিনি এরশাদ করেন, জনৈকা মহিলার একটি সন্তান ভুমিষ্ট হবে, তার নাম হবে আব্দুল্লাহ ইবনে ইয়াযীদ, তিনিই মূলতঃ আযহার কিংবা যুহরী ইবনুল কালবিয়া। সেই নাকি সুফিয়ানী হিসেবে প্রসিদ্ধি লাভ করেছে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ৮০৮ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ٨٠٨
عن كعب قال
المشوه
السفياني
يملك حمل
امرأة
اسمه عبد الله بن يزيد وهو الأزهر ابن الكلبية أو الزهري بن الكلبية
হযরত আরতাত রহঃ থেকে বর্নিত, তিনি বলেন, আজহার ইবনুল কালবিয়্যাহ কুফা নগরীতে প্রবেশ করলে তার শরীরে এক ধরনের ঘা দেখা দিবে। যার কারনে রাস্তাতেই মারা যাবে। অতঃপর আরেক লোক প্রকাশ পাবে তায়েফ-মক্কা কিংবা মক্কা-মদীনার মাঝামাঝি জায়গায় বেতবাক এবং সাজার গোত্রের হিজাজে অবস্থানকারী বৃদ্ধদের ন্যায়। যার চরিত্র হবে নিম্নমানের, উপরের দিকে চওড়া মাথা বিশিষ্ট, শীর্ন গোছার অধিকারী এবং তার চক্ষুদ্বয় হবে কোটরাগত। তার যুগে মূলতঃ বিভিন্ন ঝামেলা দেখা দিবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ৮০৯ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ٨٠٩
يدخل الأزهر بن الكلبية
الكوفة فتصيبه قرحة فيخرج منها فيموت في الطريق
ثم يخرج رجل آخر
منهم بين الطائف
ومكة أو بين مكة والمدينة من شيب وطباق وشجر بالحجاز
مشوه الخلق
مصفح الرأس حمش
الساعدين
غائر العينين
في زمانه تكون
هدة
আরতাত রহঃ থেকে বর্নিত, তিনি বলেন, সুফিয়ানী হচ্ছে, প্রাথমিক অবস্থায় কালো এবং হলুদ ঝান্ডার অধিকারীদের মধ্যে যে যুদ্ধ হবে সেখানে সে মৃত্যু বরন করবে। পশ্চিম বাইছানের মুনুদিরুন নামক স্থানে লাল উটের উপর আরোহন করা অবস্থআয় আত্নপ্রকাশ করবে। তার মাথায় একটি মুকুট থাকবে। বড় বড় দলকে একাধিকবার পরাজিত করবে। অতঃপর নিজেও মারা যাবে। তিনি টেক্স গ্রহন করবে এবং সৈন্যদেরকে বন্দি করবে এবং গর্ভবতী নারীদের পেট চিড়ে বাচ্চা বের করে আনবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ৮১০ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ٨١٠
ارطاة
قال السفياني الذي يموت الذي يقاتل اول شيء [ من ] الرايات السود
والرايات الصفر في سره الشام مخرجه من المندرون شرقي بيسان على جمل أحمر عليه تاج
يهزم الجماعة مرتين ثم يهلك وهو يقبل الجزية ويسبي الذرية ويبقر بطون الحبالى
হযরত কা’ব রহঃ থেকে বর্নিত, তিনি বলেন, সুফিয়ানীর ক্ষমতা থাকবে সাত/নয় মাস। বর্ননাকারী আবু বকর বলেন, জামরা এবং দীনার ইবনে দ্বীনার বলেছেন, তার রাজত্বের বয়স হবে মহিলার গর্ভের সময়ের সমপরিমান।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ৮১১ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ٨١١
عن ضمرة بن حبيب عن أبي هزان عن كعب
قال
ولايته تسعة أو سبعة أشهر
قال أبو بكر وقال ضمرة ودينار بن دينار ولايته
حمل [ امرأة ]
হযরত আলী রাযিঃ থেকে বর্নিত, তিনি বলেন, সুফিয়ানী হবে, খালেদ ইবনে ইয়াযীদ ইবনে আবু সুফিয়ানের বংশধর। তিনি মাথার উপরিভাগে উচ্চতার অধিকারী হবেন, চেহারায় বষন্তের দাগ থাকবে এবং চোখে সাদা একটা দাগ হবে। দিমাশকের কাছে ওয়াদিউল ইয়াবিছ নামক এলাকা থেকে প্রকাশ পাবে। বের হওয়া কালীন তার সাথে সাতজন লোক থকবে, তাদের একজনের কাছে চিহ্নিত ঝান্ডা থাকবে। সেটা দেখে লোকজন চিনতে পারবে এবং দীর্ঘ ত্রিশ মাইল পাড়ি দিয়ে তার প্রতি আসতে থাকবে। যে লোকই উক্ত ঝান্ডার অধিকারীদের মোকাবেলা করবে সেই পরাজিত হবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ৮১২ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ٨١٢
جعفر
عن علي قال السفياني من ولد خالد بن يزيد بن أبي سفيان رجل ضخم الهامة
بوجهه آثار جدري
وبعينه نكتة بياض يخرج من ناحية مدينة دمشق في واد يقال له وادي
اليابس يخرج في سبعة نفر مع رجل منهم لواء معقود يعرفون في لوائه النصر يسير بين
يديه على ثلاثين ميلا لا يرى ذلك العلم أحد يريده إلا انهزم
হযরত আবু বকর থেকে বর্ননা করা হয়েছে, তিনি বলেন, সুফিয়ানী নামক লোকটি, ওয়াদিউল ইয়াবেছ থেকে বের হয়ে আসবে। তাকে দেখে দিমাশকের গভর্নর মোকাবেলা করতে এগিয়ে আসলে তার ঝান্ডা দেখেই পরাজিত হবে। বর্ননা কারীদের একজন আব্দুল কুদ্দুস বলেন, তৎকালীন যুগো দিমাশকের গভর্নর ছিলেন বনুল আব্বাছের দায়িত্ব শীলদের একজন।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ৮১৩ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ٨١٣
بقية وعبد القدوس عن أبي بكر عن الأشياخ قال
يخرج السفياني من الوادي اليابس
يخرج إليه صاحب دمشق ليقاتله فإذا نظر إلى رايته انهزم
قال عبد القدوس والي
دمشق والي لبني العباس يومئذ
হযরত জামরা রহঃ থেকে বর্নিত, তিনি বলেন, সুফিয়ানী হচ্ছে, একজন ফর্সা রংয়ের অধিকারী, কোকড়ানো চুল বিশিষ্ট একজন লোক। এ জগতে কেউ তার সম্পদ গ্রহন করলে কিয়ামতের দিন সেটা গ্রহনকারীর পেটে আগুনে সেক দেয়ার মাধ্যম হবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ৮১৪ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ٨١٤
عن ضمرة قال
السفياني رجل أبيض جعد الشعره ومن قبل من ماله شيئا كان رضفا في بطنه يوم القيامة
হযরত হারেছ ইবনে আব্দল্লাহ রহঃ থেকে বর্নিত, তিনি এরশাদ করেন, ইয়াবেছ জনপদে আবু সুফিয়ানির বংশধর থেকে এক লোক প্রকাশ পাবে। তার হাতে থাকবে লাল ঝান্ডা। তার উভয় পায়ের গোছা হবে শীর্ণ আকৃতির। চোখ হবে লম্বা প্রকৃতির, হলুদ বর্নের, যার মধ্যে এবাদতের চিহ্ন থাকবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ৮১৫ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ٨١٥
أبيه عن الحارث بن عبد الله
يخرج
رجل من ولد أبي سفيان
في الوادي اليابس في
رايات حمر
دقيق الساعدين والساقين طويل العنق شديد الصفرة
به أثر العبادة
হযরত যুবায়ের ইবনে নুফায়ের রহঃ থেকে বর্নিত, তিনি বলেন, ধ্বংস হোক আব্দুর রহমান ইবনে আব্দুল্লাহ এবং আবদুল্লাহ ইবনে আবদুর রহমানের জন্য।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ৮১৬ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ٨١٦
عن جبير بن نفير قال ويل
لعبد الرحمن من عبد الله ويل لعبد الله من عبد الرحمن
বিশিষ্ট সাহাবী আবু উবাইদা ইবনুল জাররাহ রাযিঃ থেকে বর্নিত, তিনি বলেন রাসূলুল্লাহ সাঃ এরশাদ করেছেন, উক্ত দ্বীন সর্বদা ইনসাফের উপর অটল ও স্থীর থাকবে। এক পর্যায়ে উমইয়া বংশের একজন লোক তার উপর কঠিন ভাবে আঘাত করবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ৮১৭ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ٨١٧
عن هشام بن الغاز عن مكحول
عن أبي عبيدة بن الجراح رضى الله عنه قال قال رسول
الله صلى الله عليه وسلم لا يزال هذا الأمر قائما بالقسط حتى يكون أول من يثلمه رجل
من بني أمية
হযরত মুহাম্মদ ইবনে আলী রহঃ বলেন আমার কাছে পৌছেছে, রাসূলুল্লাহ সাঃ এরশাদ করেছেন, আবু সুফিয়ানের বংশের এক লোক ইসলামের উপর এমন ভাবে আঘাত করবে, যার ক্ষতি পূরন করা কখনো আর সম্ভব হবেনা।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ৮১৮ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ٨١٨
محمد بن زيد سمع محمد بن علي يقول
بلغني أن رسول الله صلى الله عليه وسلم قال
ليفتقن رجل من ولد أبي سفيان في الإسلام فتقا لا يسده شيء
হযরত আমরা ইবনে কায়স রহঃ থেকে বর্নিত, তিনি বলেন, বিশিষ্ট সাহাবী হযরত খালেদ ইবনুল ওলীদ রাযিঃ শাম দেশে খুতবা দেয়া কালীন জনৈক লোক দাড়িয়ে বললেন, নিঃসন্দেহে ফেৎনা প্রকাশিত হয়েছে। উত্তরে খালেদ ইবনে ওলীদ রাযি বললেন, অসম্ভব এটা কোনো দিনই হতে পারেনা, যেহেতু হযরত ওমর ইবনুল খাত্তাব রাযিঃ জীবিত আছেন। ফিৎনা তার সমূলে প্রকাশ পাওয়া তখনই সম্ভব যখন লোকজন আমার মত লোকের পিছনে ছুটবে এবং জনৈক লোক এমন থাকবে গোটা পৃথিবীতে তার এমন আলোচনা ছড়িয়ে পড়বে যার সাথে তার কোনো সম্পর্কই থাকবেনা। লোকজন তার দিকে ধাবিত হবে, কিন্তু তাকে আর পাওয়া যাবেনা। আর তখনই ফিৎনা প্রকাশ হবে।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ৮১৯ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ٨١٩
معاوية عن الأعمش عنن أبي وائل عن عزرة ابن قيس قال
قام رجل إلى خالد بن الوليد
رضى الله عنه وهو يخطب بالشام فقال إن
الفتن
قد ظهرت فقال خالد أما وابن الخطاب حي فلا إنما ذلك إذا [ كان ] الناس تذنب لي وذنب لي وجعل الرجل يتذكر الأرض ليس بها مثل الذي يفر إليها
فلا يجده فعند ذلك
الفتن
হযরত কা’ব রহঃ থেকে বর্নিত, তিনি বলেন, সুফিয়ানীর নাম হচ্ছে আব্দুল্লাহ।
[ আল ফিতান: নুয়াইম বিন হাম্মাদ - ৮২০ ]
___________________________________
نعيم بن حماد - ٨٢٠
اسم السفياني عبد الله
بدء خروج السفياني

Execution time: 0.12 render + 0.00 s transfer.