Login | Register

আল বিদায়া ওয়ান্নিহায়া - খন্ড ৯

পৃষ্ঠা ৩৬৭ ঠিক করুন


আমির ইবন শারাহীল আশ্শা’বী১

একটি মত অনুযায়ী তিনি এ বছর ইনতিকাল করেন ৷ শাবী ছিলেন হামাদান অঞ্চলের
অধিবাসী হামাদান গোত্রীয় ৷ তার উপনাম আবু আমর ৷ তিনি কুফার মহাজ্ঞানী অড়ালিম এবং
হাফিযে হাদীস, ইমাম, বহু শাস্ত্র জ্ঞানের অধিকারী ৷ তিনি বেশ কয়েকজন সাহাবীর সাহচর্য
পেয়েছেন এবং তাদের থেকে এবং তাবিঈগণের একটি জামাআত থেকে হাদীস রিওয়ায়াত
করেছেন ৷ এছাড়া তার থেকেও একদ্যা তাবিঈ রিওয়ায়াত করেছেন ৷ আবু মুজলিয বলেন,
আমি ইমাম শাবীর চেয়ে বিজ্ঞ ফকীহদেখিনি ৷ মাকহ্রল বলেন, সুসাব্যস্ত সুন্নাত সম্পর্কে তার
চেয়ে জ্ঞানী কাউকে আমি দেখিনি ৷ দাউদ আলআওদী বলেন, (একবার) শাবী আমাকে
বলেন, আমার সাথে এখানে আস আমি তোমাকে একটি জ্ঞান দান করি ৷ বরং বলা যায় তা
জ্ঞানের শীর্ষ ৷ আমি বললাম, আপনি আমাকে কোন জ্ঞান শেখাবেন ৷ তিনি বলেন, যদি
তোমাকে এমন বিষয় জিজ্ঞাসা করা হয় যা তুমি জান না, তাহলে বল, আল্লাহ সর্বাধিক জ্ঞাত ৷
কেননা, তা উত্তম জ্ঞানের পরিচায়ক ৷ তিনি বলেন, কোন ব্যক্তি যদি ইয়ামানের দুরতম অঞ্চল
থেকে এমন একটি শব্দ ণ্শখার জন্য সফর করে আসে যা ভবিষ্যত জীবনে তার উপকার
করবে, তড়াহলেও আমি তার এই দীর্ঘ সফরকে সার্থক মনে করব ৷ আর যদি সে দুনিয়ার
কামনা-বাসনার প্রিয়বন্তুর সন্ধানে এই মসজিদের বাইরেও বের হয়, তাহলে আমি তার এই
অতি সংক্ষিপ্ত সফরকেও অর্থহীন ও শান্তিস্বরুপ গণ্য করব ৷ তিনি বলেন, জ্ঞানের কথাবাণী
চুলের ন্যায় অসংখ্য ৷ কাজেই, প্রত্যেক বিষয়ের সর্বোত্তম জ্ঞান আহরণ কর ৷

আবু বুরদা ইবন আবু মুসা আলআশ্আেরী২

ইনি তিশাবী (র)-এর পুর্বে কুফার কাযীর দায়িত্ব পালন করেন ৷ আর শাবী (র) উমর ইবন
আবদুল আযীযের খিলাফতকালে কাযীর দায়িত্ব গ্রহণ করেন এবং আমৃত্যু এ দায়িতৃ পালন
করেন ৷

১ আল-ইক্লীল ৮১৪ ৫, আখরারুল কৃসাত ২৪ ১৩, তারীখুল ইসলাম, ৪১৩০, তারীখুল বুখারী ৬৪ ৫০ ,
তারীখুল বুখারী আসৃসাগীর ১২৪৩-২৫৩-২৫৪ , তারীখে বাগদাদ, ১২২২৭, তায্কিরাভুল হুফ্ফায
১৭৪ , তাহযীব ইবন আসাকির ৭১৪ ১ , তাহযীবুল কামাল ৬৪২, আলজারহ ওয়াত তাদীল ১ম অংশ ৩য়
ভলিউম ৩২২, আল-জামৃউ বায়না রিজালুস সহীহায়ন ৩৭৭, আল-হিলইয়া ৪৩১০, খুলাসাভু
তাহযীবুত্-তাহযীব ১৮৪, সিমভুল লাআলী ৭৫১, শাজারাতুর্বৃযাহাব ১১২৬, তাবাকাত ইবন সাদ
৬২৪৬, তাবাকাতুল হুফ্ফায সুয়ুতী ৩৭, তাবাকাতু খালীফা ১১৪৪, তাবাকাতৃশ শাফিঈয়্যা আববাদী ৫৮, ন্

ধ্ তাবাকাতৃল ফুকাহা শীরাযী ৮১, তাবাকাভু ফুকাহাউল ইয়ামান ৭০, তাবাকাতুল মুতাযিলা ১৩০, ১৩৯,
আল-ইবার ১১২৭, পায়াতুন নিহায়া ১৫০০, আললুবাব ২২১, আল মাসারিফ ৪৪৯, আল মা’রিফা
ওয়াত্তারীখ ২৫৯২, মুজামুল বুলদান আনুনুজুম আঘৃযাহিরা ১২৫৩, ৩ফায়াতুল আয়ান ৩১ ৷

২ আল-ইকলীল ১০৪৬, আখবারুলকুয়াত্ত ২৪ :৮, তারীখুল ইসলাম ৪২১৬, তারীখুল বুখারী ৬৪ : ৭,
তারীখুল বুখারী আসসগীর ১২৪৮, তাযকিরাতুল হুফ্ফায ১৮৯, তাহযীবুল কামাল ১৫৭৮,
শাজারাতুয যাহাব ১১২৬, তাবাকাত ইবন সাদ ১২৬৮, তাবাকাতুল হুফ্ফায-সুয়ুতী ৩৬, তাবাকাত
খলীফা ১১৫৩, আল-ইবার ১১২৮, আল-মাআরিফ ৫৮৯, আনৃনুজুম আয্যাহিরা ১২৫২ ৷


পৃষ্ঠা ৩৬৮ ঠিক করুন


আবু বুরদাহ্ কাযী ছিলেন হ ৷জ্জাজ ইবন ইউসুফের শাসনামলে ৷ পরবর্তীতে হাজ্জাজ তাকে
অপসারণ করে তার ভাইকে কাযী নিয়োগ করে ৷ আর আবু বুরদাহ হাফিযে হাদীস এবং বিশিষ্ট
আলিম ও ফকীহ এবং তিনি বহুসংখ্যক হাদীস রিওয়ায়াত করেছেন ৷

আবু কিলাব৷ আলজারমীষ্

আবদুল্লাহ ইবন ইয়াষীদ আন-ব্যসরী ৷ একদল সাহারা এবং অন্যদের থেকে তার
বহুসৎ খ্যক রিওয়ায়াত বিদ্যমান ৷ তিনি শীর্ষ স্থানীয় আলিম ও ফকীহদের অন্যতম ৷ তাকে
কাযী বিচারকের পদ গ্রহণ করতে বলা হলে তিনি তা থেকে আত্মরক্ষা করার জন্য দেশাম্ভরিত
হন ৷ এ সময় তিনি শামে আগমন করেন এবং দারায়্যা নামক স্থানে অবস্থান গ্রহণ করেন এবং
সেখানেই ইনৃতিকাল করেন ৷ মহান আল্পাহ্ তাকে রহম করুন ৷ আবু কিলাবাহ্ বলেন, মহান
আল্লাহ যখন তোমাকে ইল্ম দান করেন তুমি তখন তার (গােকর স্বরুপ) ইবাদতে মশগুল
হও ৷ আর লোকজন কী আলোচনা করল তা যেন তােমাকে পেয়ে না বলে ৷ হতে পারে অন্য
কেউ উপকৃত হবে এবং অভাবমুক্ত হবে আর তুমি অন্ধকারে হোচট খেতে থাকবে ৷ আর আমি
তো মনে করি (প্রচলিত) এইসব মজলিস জ্যাসা বেকার ও নিষ্কর্মাদেৱ আড্ডাখানা ৷ এছাড়া
তিনি বলেন, তোমার কোন মুসলিম ভাইসম্পর্কে যদি তোমার কাছে কোন অপ্রিয় বিষয় পৌছে
তাহলে যথাসম্ভব তার হয়ে অজুহাত খুজে নাও ৷ আর যদি কোন অজুহাত খুজে না পাও, তাহলে
একথা ভাববে যে, হয়ত আমার ভাইয়ের এমন কোন অজুহাত রয়ােছ যা আমি জানি না ৷

১০৫ হিজরীর সুচনা

এ বছরেই জাররাহ ইবন আব্দুল্লাহ আল-হাকামী আল্লান ভুখণ্ডে যুদ্ধাতিযান পরিচালনা
করে ৷ বহুসৎ খ্যক দুর্গ জয় করেন এবং বালানজারের পশ্চাদভাগে বিশাল ব্যাপ্ত দেশসমুহ জয়
করেন ৷ এ সময় তিনি বিপুল পরিমাণ গনীমত লাভ করেন এবং তুর্কী যােদ্ধাদেৱ উল্লেখযোগ্য
ৎখ্যক সত্তান-সন্ততিকে যুদ্ধবন্দী করেন ৷ এছাড়া এ বছরেই মুসলিম ইবন সাঈদ তুফীস্তিানে
যুদ্ধাতিযান পরিচালনা করেন এবং সুগদ অঞ্চলের এক বিশাল নগর অবরোধ করেন ৷ তখন সে
অঞ্চলের শাসক বিপুল পরিমাণ অর্থের বিনিময়ে তার সাথে সন্ধি করে ৷ এ বছরেই সাঈদ ইবন
আবদুল মালিক ইবন মারওয়ান রোম দেশ আক্রমণ করেন ৷ এ সময় তিনি অগ্রবর্তী বাহিনী
রুপে এক হাজার অশ্বারােহী যোদ্ধার এক ঝঢিকা বাহিনী প্রেরণ করেন ৷ আর তারা সকলেই
শত্রুর হাতে নিহত হ্ন ৷
আর এ বছরের শা বাস মাসের পচিশ তারিখ শুক্রবার আমীরুল মুমিনীন ইয়াষীদ ইবন
আবদুল মালিক ইবন মারওয়ান বালকা ভুখণ্ডের আররাদ অঞ্চলে ইনৃতিকাল করেন ৷ এ সময়
তার বয়স হয়েছিল ত্রিশ ও চল্লিশের মাঝামাঝি ৷ নিম্নে তার সংক্ষিপ্ত জীবন চরিত উল্লিখিত
১ তারীখুল ইসলাম ৪২২১ , তারীখুল বুখারী ৫৯২, তারীখু দারায় ব্রু৷ ৬০, তায্কিরাতৃল হুফ্ফায ১৮৮,
তাহযীবু ইবন আসাকির ৭৪২৯, তাহযীবুত্তাহযীব ৫২২৪, তাহযীবুল কামাল ৬৪৫, আলজারহ
ওয়াততা দীল ২য় অ ৎশ ২য়৩ ভলিউম ৫৭, আল হিল্ইয়া ২২৮২, খুলাসাতু তাহষীবুত তাহষীব ১৯৮,
শ্া৷জারাতৃয্ যাহাব ১১২৬, তাবাকাত ইবন স৷ দ ৭১৮৩, তাবাকাতু খালীফা ৷১৭৩০, তাবাকাভুল ফুকাহা

শীৱাযী রচিত ৮৯, আলইবার ১১২৭, আলমা রিফা ওয়াত্তারীখ ২৬৫, আলমাসারিফ্ ৪৪৬, আনৃনুজুম
আঘৃযাহিরা ১২৫৪ ৷



Execution time: 0.02 render + 0.00 s transfer.