Login | Register

আল বিদায়া ওয়ান্নিহায়া - খন্ড ৯

পৃষ্ঠা ১৪০ ঠিক করুন


বর্ণনকােরী বলেন, তখন তার জ্যনৃব্র একলাখ মুদ্রা প্রদান করা হল ৷ আল্লামা ইবন কাসীর
(র) বলেন, এ কবিতাণ্ডালাকে হযরত খালিদ ইবন আল ওয়ালীদ (রা) এর ক্ষেত্রেও পাঠ
করতে প্রত্যক্ষ করেছি ৷ যখন জিজ্ঞেস করা হল, তোমাদের প্রভু কে ? তারা বলল, খালিদ ইবন
আল-ওয়ালীদ (বা) ৷ মহান আল্লাহ্ অধিক পরিজ্ঞাত ৷

খালিদ ইবন ইয়াষীদ হিমসের আমীর ছিলেন ৷ তিনি হিমসের জামে মসজিদ তৈরী
করেন ৷ সেখানে তার চারশত গোলাম কাজ করত ৷ যখন তারা মসজিদের কাজ সমাধা করল
তখন তিনি তাদেরকে মুক্ত করে দিলেন ৷ খালিদ হাজ্জাজের সাথে শত্রুতা পোষণ করতেন ৷
হাজ্জাজ যখন বিন্ত জাফরকে বিয়ে করেন, তখন খালিদ আবদুল মালিককে ইংগিত
করেছিলেন যেন তার কাছে লোক পাঠানো হয় এবং সে তাকে তালাক দেয় ৷ তাই করা হল ৷
যখন তিনি মারা যান আল-ওয়ালীদ তার জানাযা পড়ান ও জানাযার সাথে গমন করেন ৷
খালিদের প্রতি পুনরায় দুর্বলতা দেখা দিলে আবদুল মালিক তাকে এসম্বন্ধে প্রশ্ন করেন ৷ কিন্তু
তিনি তাকে এ ব্যাপারে কোন সংবাদ দিলেন না ৷ পরবর্তীতে তিনি সংবাদ দেন যে, মুসআব
ইবন আয-যুবায়রের বোন রাযলাহ্র প্রেমে সে মুহ্যমান ৷ আবদুল মালিক খালিদের জন্যে তার
কাছে বিয়ের পয়পাম প্রেরণ করেন ৷ রামলাহ বলে, সে তাকে বিয়ে করবে না যতক্ষণ না সে
তার অন্যান্য ব্রীদের তালাক দেয় ৷ সে তাদেরকে তালাক দিল এবং রামলাহকে বিয়ে করল ও
তার সম্বন্ধে কবিতা পাঠ করল ৷

এ বছরেই তিনি ইন তিকাল করেন ৷ আবার কেউ কেউ বলেন, ৮৪ হিজয়ীতে তিনি
ইন্তিকাল করেন ৷ সেখানেও এরুপ মতভেদের কথা উল্লেখ করা হয়েছে ৷ প্রথম অভিমতটি
শুদ্ধ ৷

আবদুল্লাহ ইবন আয-যুৰায়র

তার পুর্ণ বাম ছিল আবুকাহীর আবদুল্লাহ ইবন আয-যুবায়র ইবন সুলায়ম আল আসাদী ৷
তিনি একজন কবি ছিলেন ৷ কেউ কেউ বলেন, “তার কুনিয়ত-আবু সাঈদ বলে প্রসিদ্ধ ছিল ৷
তিনি খলীফা আবদুল্লাহ ইবন আয-যুবায়র (রা)-এর কাছে প্রতিনিধি হিসেবে এসেছিলেন এবং
তার প্রশংসা করেছিলেন ৷ কিভু তিনি তাকে কোন বখৃশীশ ণ্দননি ৷ তাই সে বলেছিল, মহান
আল্পাহ্ এ উটটির উপর লানত করুন, যা আমাংক তোমার কাছে বহন করে নিয়ে এসেছে ৷
আবদুল্লাহ্ ইবন আয-যুবাইর (রা) বলেন, তার মালিকের উপরও (লানত) ৷ কথিত আছে যে,
তিনি হাজ্জাজের শাসনকালে মারা যান ৷

৯১ হিজরীর প্রারম্ভ

ষ্ এ বছরেই মাসলামড়াহ্ ইবন আবদুল মালিক ও তার ভাতিজা আবদুল আযীয ইবন আল
ওয়ালীদ আস-সাইফার যুদ্ধে অশেগ্রহণ করেন ৷ এ বছরেই মাসলামড়াহ্ তুর্কী শহরগুলােতে যুদ্ধ
করেন এবং আযারৰায়জান এলাকায় আল-বাব বা দরযা পর্যন্ত পৌছে যান ৷ তারপর তিনি বহু
শহর ও দুর্গ জয়লাভ করেন ৷ আল-ওয়ালীদ তার চাচা মুহাম্মদ ইবন মারওয়ানকে আলজেরিয়া
ও আযারৰায়জান থেকে বরখাস্ত করেন এবং এ দুই জায়গায় তার ভাই মাসলামড়াহ্ ইবন
আবদুল মালিককে আমীর নিযুক্ত করেন ৷

এ বছরেই মুসা ইবন নুসায়র পশ্চিমাঞ্চলীয় শহরগুলােতে যুদ্ধ করেন ৷ অনেক শহর তিনি
জয়লাভ করেন এবং এগুলোতে প্রবেশ করেন ৷ এমনকি অবশিষ্ট দুরবর্তী স্থানগুলোতে প্রবেশ



Execution time: 0.02 render + 0.00 s transfer.