Login | Register

আল বিদায়া ওয়ান্নিহায়া - খন্ড ৯

পৃষ্ঠা ১০১ ঠিক করুন


থেকে একজন আমীর হওয়ার জন্যে প্রথমে দাবী করেছিলেন ৷ তারপর তিনি তার এ অভিমত
প্রত্যাখ্যান করেন ৷ এ বিষয়ে পুর্বে বিস্তারিত বর্ণনা রাখা হয়েছে ৷ কাজেই তারা কেমন করে
অন্য বংশের একজন খলীফার প্রতি মনােযোগী হবেন ৷ মুসলমানগণ কর্তৃক কয়েক বছর আগে
যার খিলাফতের বায়আত গ্রহণ করা হয়েছে এখন তারা তাকে বরখাস্ত করবে অথচ তিনি
কুরায়শ বংশোদ্ভুত ৷ আর কিন্দী গোত্রের এক ব্যক্তিকে খলীফ৷ করার জন্য বায়আত গ্রহণ
করবে ৷ মুসলমানদের মধ্যে যারা গণ্যমান্য তারা কি এ ব্যাপারে একমত হতে পারেন ? যখন
এ ধরনের পদস্থালন ও ত্রুটি দেখা দিল তার কারণেই বিরাট বিপর্যয়ের সৃষ্টি হল এবং তাতে
শত শত লোক নিহত হল ৷ কাত্তুইে আমরা সকলে আল্লাহর জন্যে এবং৩৷ আল্লাহর দিকে
সকলকে প্রতব্রুাবর্তন করতে হবে ৷

আয়ুবে ইবন আল-কিরিয়াহ
আল-কিরিয়াহ্ তার মায়ের নাম ৷ তার পিতার নাম ইয়ড়াযীদ ইবন কায়স ইবন ষুরারাহ
ইবন মুসলিম আন্নামারী আল হিলালী ৷ তিনি একজন বেদুঈন উঘী অথচ বাশ্মীত৷ ৷-বাক পটুতা
ও স্বচ্ছন্দ ভাষী হিসেবে তিনি ছিলেন প্রসিদ্ধ ৷ তিনি হাজ্জাজের সঙ্গী ছিলেন ৷ তিনি আবদুল
মালিকের দরবারে প্রতিনিধি হিসেবে গমন করেছিলেন ৷ তিনি তাকে দুত হিসেবে ইবনুল
আশআছের কাছে প্রেরণ করেছিলেন ৷ তখন ইবনুল আশআছ তাকে বলেছিলেন যদি তুমি
আমার এখানে খভীব হিসেবে অবস্থান না করে৷ এবং হাজ্জাজের সঙ্গ ত্যাগ না কর আমি
তোমাকে মেরে ফেলব ৷ কাজেই সে হ জ্জাজের সঙ্গ ত্যাগ করে ইবনুল আশআছের কাছে
অবস্থান করতে লাগল ৷ যখন হাজ্জাজের কাছে এ কথাটি প্রকাশ পেল তখন হাজ্জাজ তাকে
ডেকে পাঠাল এবং কয়েক দফা তার সাথে বৈঠক হল, কিন্তু শেষ পর্যন্ত হাজ্জাজ তাকে হত্যা
করল ৷ এ হত্যার জন্য সে লজ্জিত হলো কিন্তু তার এ লজ্জিত হওয়া কোন কাজে আসেনি ৷
যেমন বিজ্ঞ লোকেরা বলেন, “ঘনিষ্ঠত৷ রক্ষা করা উত্তম বলে বিবেচিত ৩ হয় যখন আর ঘনিষ্ঠতা
কোন উপকারে আসে না ৷” ,
ইবন আসাকির তার ইতিহাসে এবং ইবন খাল্লিকান তার আ ল ওয়া ৷ফিয়াত নামক কিভাবে
এ সম্পর্কে উল্লেখ করেন এবং আয়ুদ্রব ইবন কিরিয়ার জীবনী সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা
করেন আর তথায় আরো কিছু মুল্যবান তথ্য উল্লেখ করেন ৷ বর্ণনাকা রী বলেন , ’:;,: এর
ব্রব্লে এ যের এবং র্চে এ তাশদীদ দিয়ে পড়তে হবে ৷ তিনি ছিলেন তার দাদী ৷ তার নাম
হলো জামাআত বিনত জাশাম ৷ ইবনুল৷ খ৷ ল্লিকান বলেন০ কেউ কেউ তার অস্তিত্ব ও মাজনুনে
লায়লার অস্তিত্ব অস্বীকা ৷ব করেন ৷ ইবন আবু আকার মহা কাব্যের ধারক ছিলেন ৷ আর তিনিই
ইয়াহ্ইয়া ইবন আবদুল্লাহ ইবন আবুল আকার ৷ মহান আল্লাহ অধিক পরিজ্ঞাত ৷

রাওহ ইবন যাম্বা

তার পুর্ণ নাম আবু যুরআহ রাওহ ইবন যাম্ব৷ ইবন সালড়ামা আল-জুয়ড়ামী আদ-দামাশৃকী ৷
কেউ কেউ বলেন, আবু যুরআহ-এর স্থলে তার কুনিয়া ৷ত ছিল আবু যাম্ব৷ ৷ তার বাসস্থান ছিল
দামেশকে, মহাকাব্যের ধারক ইবন আকার-এর বাসন্থানের কাছে ৷ তিনি ছিলেন একজন উচু
পর্যায়ের তাবিঈ ৷ তিনি তার পিতা হতে হাদীস বর্ণনা করেন ৷ তিনি একজন সাহাবী ৷ অন্যান্য
যাদের থেকে তিনি হাদীস বর্ণনা করেন, তারা হলেনৃং : তামীমুদ্দারী, উবাদাহ ইবনুল সামিত,
মুআবিয়া, কাবুল আহ্বার ও অন্যান্য ৷ তার থেকে একদল আলিম হাদীস বর্ণন৷ করেনা
তাদের মধ্যে একজন হলেন উবাদাহ ইবন নাসী ৷ রাওহ আবদুল মালিকের কাছে একজন মদ্রীর



Execution time: 0.02 render + 0.00 s transfer.