Login | Register

আল বিদায়া ওয়ান্নিহায়া - খন্ড ৯

পৃষ্ঠা ৪৫ ঠিক করুন

৭৮ সনে ওফ্াতপ্রাপ্ত বিপ্টি ব্যক্তিবর্গ

আবির ইবন আবদুল্লাহ ইব্র্ল আমব (বা)
৭৮ হিজরী সনে যারা ইনৃতিকাল করেন তাদের অন্যতম হলেন জা ৷বির ইবন আবদুল্লাহ

(রা) ৷ তার উপনাম আবু আরদুল্লাহ্ আনসারী সুলামী, তিনি রাসুলুল্লাহ্ (না)-এর সাথে সাথে
থাকতেন ৷ তিনি বহু হাদীস বর্ণনা করেছেন ৷ তিনি আকবার শপথ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন ৷

বদরের যুদ্ধে যেতে চেয়েছিলেন ৷ কিত্তু পরিবারিক কারণে তার পিতা তাকে যুদ্ধে যেতে ধারণ
করেন ৷ তার পিতা নিজে যুদ্ধে গিয়েছি₹লনএ৷ পিতা যুদ্ধে যাবার কালে হযরত জাবির (রা)-কে
তার ভই-ণ্বানদেরকে দেখাশোনা করার জন্যে বাড়ী রেখে গিয়েছিলেন ৷ তারা ভাইবোন মিলে
নয়জন ছিলেন ৷ কেউ কেউ বলেছেন যে, মৃত্যুর পুর্বে হযরত জাবির (রা)-এর দৃষ্টি শক্তি সোপ
পেয়েছিল ৷

হযরত জব্যিরর (রা) ওফাত হয় মদীনায় ৷ তখন তার বয়স ৯৪ বছর ৷ তার বরাতে প্রায়

১ ৫৪ :টি হাদীস বর্গিত হয়েছে ৷

শুরা য়হইবন হারিছ (র)
৭৮ সনে যাদের ওফাত হয় তাদের একজন হলেন শুরায়হ ইবন হারিছ ইবন কায়স, আবু
উমইিয়া কিন্দী, তিনি কুফাৱ কাযী ও বিচারক ছিলেন ৷ হযরত উমার (,রা) উছমান ও আলী
(রা) এর শাসনামলে তিনি বিচারক পদে অধিষ্ঠিত ছিলেন ৷ এক পর্যায়ে হযরত আলী (রা)
তাকে বিচারকের পদ থেকে অব্যাহতি দেন ৷ এরপর আমীর মুআবিয়৷ (রা) এর শাসনামলে
তাকে পুনরায় বিচারক পদে নিয়োগ ৫দয়া হয়, সেই থেকে এই সনে মৃত্যুর সময় পর্যন্ত তিনি
বিচারকের পদে কাজ করে গিয়ে ন্থড্ডা ৷ বিচারকের দায়িত্ব পালনের, প্রেক্ষিতে তিনি মাসিক
একশত দিরহাম করে ভাতা প্রেতেন ৷ কেউ বলেছেন ৫০০ (পাচশত) দিরহাম ৷
তার এই নিয়ম ছিল যে, বিচার কার্যের জন্যে বের হবার সময় তিনি একথা বলতেন যে,
অন্যায়কারী অবিলম্বে জানতে পারবে সে ক্ষতিগ্রস্তের কী পরিমাণ হক নষ্ট করেছে ৷ কেউ কেউ
বলেছেন যে, বিচারকের এজল্াসে বসার সময় তিনি এই আয়াত তিলাওয়াত করতেন-া ৷

fl × : :

ণ্হ দাউদ! আমি তোমাকে পৃথিবীতে প্রতিনিধি করেছি ৷ অতএব তুমি লোক্যদ্যা মধ্যে সুবিচার
বল্ম, এবং খেয়াল খুশীর অনুসরণ করে৷ না ৷ ( সাদ ৩৮৪ ২৬) ৷

তিনি প্রায়ই বলতেন যে, যালিম ও অন্যায়াচারী ব্যক্তি শাস্তির আপেক্ষায় থাকে আর
ন্ মাযলুম ও নির্যাতিত ব্যক্তি সাহায্যের প্রতীক্ষায় থাকে ৷ বলা হয়ে থাকে যে, তিনি প্রায় ৭০
বছর বিচারকের দায়িত্ব পালন করেছেন, কেউ কেউ বলেন যে, মৃত্যুর এক বছর পুর্বে৩ তিনি
বিচারকের পদ থেকে ইস্তফা দিয়েছিলেন, আল্পাহ্ই ভাল জানেন ৷
তীর পুর্ব পুরুষ ছিল ইয়ামানে বসবাসকারী পারসিক জাতিভৃক্ত ৷ রাসুলুল্পাহ্ (না)-এর
ইনৃতিকালের পর শুরায়হ (র) মদীনা শরীফে আগমন করেন ৷ তার ওফাত হয় কুফাংত ৷ তখন
তার বয়স ১০৮ বছর ৷

তাবারানী উল্লেখ করেছেন যে, আলী ইবন আবদুল আযীয ইব্রাহীম তায়মী থেকে বর্ণনা
করেন যে, তিনি বলেছেন, বিচারপতি শুরায়হ প্রায়ই বলতেন, যালিম ও অন্যায়াচারী অবিলম্বে



Execution time: 0.02 render + 0.00 s transfer.