Login | Register

আল বিদায়া ওয়ান্নিহায়া - খন্ড ৯

পৃষ্ঠা ৩৭ ঠিক করুন


ষুহায়র ইবন কায়স রালাবী (বা)

৭৬ সনে ওফাতপ্রাপ্তদের একজন হলেন যুহাযর ইবন কায়স বালাবী (রা) ৷ তিনি মিসর
বিজয়ে অংশ শনিয়েছিলেন এবং সেখানে বসতি স্থাপন করেছিলেন ৷ তিনি রাসুলুল্লাহ্ (না) এর
সাহচর্য পেয়েছিলেন ৷ আফ্রিকার (লিবিয়ার) শহর বারকা তে রোমানগণ তাকে হত্যা করে ৷
মিসরের শাসনকর্তা আবদুল আযীয ইবন মারওয়ানের নিকট সংবাদ আসে যে, রোমানগণ
বারকা অঞ্চলে অবস্থান নিয়েছে ৷ শাসনকর্তা আবদুল আযীয যুহায়রা (রা)ণ্ক ওদের বিরুদ্ধে
অভিযান পরিচালনা করতে নির্দেশ দিলেন ৷ যুহায়র (বা) অগ্রসর হলেন ৷ তার সাথে মাত্র ৪০
জন সৈনিক ৷ তিনি সেখানে রোমানদের অবস্থানরত পেলেন ৷ তার মুল সেনাদল যুদ্ধক্ষেত্রে
পৌছার পুর্ব পর্যন্ত তিনি যুদ্ধ থেকে বিরত থাকতে চেয়েছিলেন ৷ কিন্তু তার সাথিগণ পীড়াপীড়ি
করে বলল, আপনি বরং আমাদেরকে সাথে নিয়ে ওদের উপর আক্রমণ করুন ৷ তারা আক্রমণ
করলেন ৷ পরিণামে তারা সকলেই নিহত হলেন ৷

মুনযির ইবন জারুদ (র)

মুনযির ইবন জারুদ এই ৭৬ সনে ইনতিকাল করেন ৷ তিনি এক সময় সরকারী ণ্কাষাগার
বা বায়তুল মালের তত্ত্বাবধায়ক ছিলেন ৷ প্রতিনিধি দলের সদস্য হয়ে তিনি আমীর মুআবিয়া
(রা) এর দরবারে গিয়েছিলেন ৷

৭ ৭ হিজরী সন

এই সনে শাসনকর্তা হাজ্জাজ কুফার নাগরিকদের সমন্বয়ে একটি বিশাল যোদ্ধা দল গঠন
করে ৷ এই দলে সৈন্য সংখ্যা ছিল ৪০,০০০ ৷ পরবর্তীতে তার সাথে আরো ১০,০০০ হাজার
সৈন্য যোগ করে ৷ ফলে সৈন্য সংখ্যা পঞ্চাশ হাজারে উন্নীত হয় ৷ আত্তাব ইবন ওয়ারাকা
সেনাপতি নিযুক্ত হন ৷ শাবীবকে খুজে বের করে পাকড়াও করতে ,র্তাকে নির্দেশ দেয়া হয় ৷
তাকে হত্যা করার দৃঢ় সংকর নিয়ে এগিয়ে যেতে বলা হয় ৷ হাজ্জাজ এও বলে দেয় যে,
ইতোপুর্বে পরাজয় বরণ ও পালিয়ে গিয়ে যে অপকর্ম করেছে এবার যেন তার পুনরাবৃত্তি না
হয় ৷ তখন শাবীবের সাথে ছিল মাত্র ১০০০ অনুসারী ৷ শ্া৷বীবের নিকট হাজ্জাজের বিশাল
সেনাবহর এগিয়ে আমার সংবাদ আসে ৷ তাতে সে মোটেও বিচলিত হয়নি ৷ সে তার
অনুসারীরুব্ব উদ্দেশ্যে ভাষণ দিতে দীড়ায় ৷ সে তাদেরক ওয়ায-নসীহত করে, উপদেশ দেয় ৷
এবং যুদ্ধের সময় ধৈর্য ধারণ ও শত্রুর উপর কুশলী আক্রমণ পরিচালনায় উৎসাহ প্রদান করে ৷
এরপর অনুসারীদেরকে সাথে নিয়ে শাবীর আত্তাব ইবন ওয়ারকা-এর উদ্দেশ্যে অগ্রসর হন ৷
দিনের শেষ বেলায় সুর্যাস্তের সময় উভয় পক্ষ মুখোমুখি হয় ৷ শাবীর তীর মুআযযিন সালাম
ইবন ইয়াসারকে মাগরিবের আমার দিতে বলে ৷ সেন্ আমান দেয় ৷ সাথীদেরকে নিয়ে শাবীর
ধীরস্থিরভাবে পুর্ণাঙ্গ রুকু সিজদা করে মাগরিবের নামায আদায় করল ৷ আত্ত৷ ব তার ভৈসনিকদের
সারিবদ্ধ করলেন ৷ শাবীর মাগরিবের নামায ণ্;শষে নিরুদ্বিগ্ন বসে থাকল ৷ অপেক্ষায় থাকল
চীদ উঠার ৷ চাদ উঠল আকাশে ৷ চারিদিকে আলোকময় হয়ে পড়ল ৷ এরপর সে তার ডান
দিৰেল্ম সৈন্য এবং বাম দিকের সৈন্যদের প্রতি দৃষ্টি দিন এবং সেগুলোকে বিন্যস্ত করল ৷
ষ্ারপর আত্তাবেৱ পতাকাবাহী সৈন্যদের উপর আক্রমণ চালায় ৷ শাবীর বলছিল “আমি হলাম
ষ্বুমুদ্দিল্লাহ্ আল্পাহ্ ব্যতীত কারো কোন ফায়সালা চলবে না ৷ ”শাবীর ওদের উপর আক্রমণ
না ৷ ওদের সেনাপতি কাবীস৷ ইবন ওয়ালিকসহ অনেক সেনাপতিকে সে হত্যা করল ৷
মোঃ হামলা চালাল ওদের লেনাদলেন্নু ডান এবং বাম ইউনিটের উপর ৷ উভয় বাহুর



Execution time: 0.02 render + 0.00 s transfer.