Login | Register

আল বিদায়া ওয়ান্নিহায়া - খন্ড ৪

পৃষ্ঠা ২৪৭ ঠিক করুন


তারা ক্রয় করে নিয়েছে চিরন্তন জড়া ন্নড়াণ্ডে র পরিবর্তে এই দুনিয় জীবনকে ৷ কতই না চমৎকার
নেক্কারদের প্রত্যাবর্তন স্থল, যখন একদিন তাদেরকে ডাকা হবে আল্লাহ্র দিকে মর্যাদার সাথে ৷

খন্দক ও বনু কুরায়যার যুদ্ধ সংক্রান্ত কবিতাগুচ্ছ
ইমাম বুথারী (র) হাজ্জা জ ইবন মিনহাল বারা ই বন আঙিব সুত্রে বর্ণনা করেন যে,
তিনি রাসুলে করীমকে হযরত হাসৃসানকে লক্ষ্য করে একথা বলতে শুনেছেন :

তুমি তাদের নিন্দা কর, জিব্রাঈলও এ ব্যাপারে ভোধার সঙ্গে আছেন ৷ বুখারী বলেন,
ইব্রাহীম ইবন৩ নতাহমান বারা ইবন আযিব সুত্রে বর্ণন করেন, বনুকুরায়যার যুদ্ধের দিন
নবী করীম (স ) হাসৃসান ইবন ছাবিতকে বলেন : তুমি মুশরিক :দর নিন্দা কর ৷ কারণ , জিবৃর ঈল
(আ) এ ব্যাপারে তোমার সঙ্গে আছেন ৷ বুখারী, মুসলিম এবহ নাসাঈ বিভিন্ন সুত্রে কোন রকম
বৃদ্ধি করা ছাড়া হাদীছটি বর্ণনা করেছেন, ইবন ইসহাক (র) বলেন, বনু মুহারিব ইবন ফিহ্র
গোত্রীয় যিরার ইবনুল খাত্তাব ইবন মিরদাস খন্দক যুদ্ধ প্ৰ:ন্ন্সে বলেন, আমার মতে তখনো তিনি
ইসলাম গ্রহণ করেননি ৷ তিনি কবিতার ছন্দে বলেন :

ণ্দ্বুট্র
া১া
এেষ্গ্র
ঢুৰু,)া,;,; ৰুএ্যা১,১ ৷ৰুধু
এেৰু ,শ্রা প্রু গ্রান্

এ্যাএ
এেৰুগ্র১ ব্লু,!ও
দুন্, ; ৷ মোঃ ন্১১গু
১৩



পৃষ্ঠা ২৪৮ ঠিক করুন
২৪৮ আল-যিদায়া ওয়ান নিহায়া

মর্মার্থ : অনেক দয়ালু আছেন, যারা আমাদের ব্যাপারে নানা ধারণা পোষণ করেন, আমরা
নেতৃত্ব দিয়েছি দর্প চুর্ণকাবী বাহিনীকে ৷

দর্শকদের সম্মুখে তার সদস্যরা উপ ত হলে তাদেরকে উহুদ পাহাড়সম মনে হতো ৷

তুমি৩া ৩াদের দেহগুলোকে বর্ম আচ্ছাদিত দেখতে পাবে, মযবুত বর্মা আ র উত্তম অশ্ব ও তীর-
ধনুকে সজ্জিত ৷ আমরা তাদের সঙ্গে এরুপ আচরণ করি যেন৩ারা বিভ্রাম্ভ অপরাধী ৷

যখন তারা হামলা চালায় আর আমরাও হামলা চাল ই, তখন তারাযেন পরিখার স্থানে
আমাদের সঙ্গে মুকাবিলা করছিল ৷ তারা এমন মানুষ যাদের মধ্যে আমরা একজন ও সদ্বুদ্ধি
পরিচালিত ব্যক্তি দেখতে পাইা না ৷ অথচ তারা বলে থাকে, আমরাক (নক্কার নই ? আমরা
এক মাস তাদেরকে অবরোধ করে রাখি, আ র আমরা ছিলাম তাদের উপর পাতাপশালী ৷

প্রতিদিন সকাল সন্ধ্যা আমরা তাদের উপর হামলা চালাতাম তা স্ত্র সজ্জিত হয়ে অবিরাম
ধারায় ৷ আমাদের হাতে থাকতো ভীক্ষ্ণা ধারালো ৩রবারি ৷ এ গুলো ৰ্ দ্বারা আমরা কর্ভন করতাম
তাদের সিথিস্থল আর মাথার খুলিসমুহ ৷ নাঙ্গা ৩রবারি যখন রাত্রিকালে ণ্ালসে উঠে৩া ছিল যেন
৫কাষমুক্ত তলােওয়ারের চাকচিক্যসম ৷ তাতে তুমি আাকীক পাথরের উজ্জ্বলতা দেখতে পাবে ৷

পরিখা যদি না থাকতো এবং তারা সেখানে না থাকতো তবে আমরা তাদেরকে সম্পুর্ণ বিধ্বস্ত
করে দিতাম ৷

কিন্তু৩ তাদের মধ্যন্থলে অন্তরায় হয় পরিখা এবং তারা আমাদের ভয়ে তার আশ্রয় নিত

আমরা বিদায় নিলে তাতে কি ? আমরা তোমাদের গৃহের নিকট সা দকে রেখে এসেছি
রন্ধক’ হিসাবে ৷

আধার ঘনীভুত হলে তুমি বিলাালপকারিণীদেরকে সাদের জন্য বিলাপ করছে, শুনতে পাবে ৷
অচিরেই আমরা আবা র ফিরে আসবো যেমন আমরা আমাদের কাছে এসেছিলাম পরস্পরের

সহযোা৩গিা নিয়ে, আমরা আসবাে বনুকিনানার একদল সশস্ত্র সৈন্য নিয়ে বনের সিংহের মতো যে
নিজের বিচরণস্থুল সংরক্ষণ করে থাকে ৷

ইবন ইসহাক বলেন, বনুসালিমা গোত্রীয় কাব ইবন মালিক (বা) তার জবাবে বলেন :

গ্রাপ্রু;শু

ঞ্চিগু^-^-ক্ত হুএে ১এশ্এে এে এএষ্-^শঃশু১ এ ধ্ণ্৮^এ এ ;;র্তষ্প্

প্রু;া ওএ্




পৃষ্ঠা ২৪৯ ঠিক করুন

৷ ৰু,া নৃ
এে


অনেক নারী জানতে চায়, কী বিপদ পতিত হয়েছে তামাদের উপর ৷ তুমি উপস্থিত হলে
সেসব বিপদে আমাদেরকে ধৈর্যশীল দেখতে পেতে ৷ আল্লাহর উপর নির্ভর করে আমরা সবর
করেছি আমাদের উপর আপতিত বিপদে ৷ কারণ, আমরা তো দেখি না আল্লাহর কোন বিকল্প ৷

নবী ছিলেন আমাদের জন্য সত্যিকার সহায়ক ৷ ভীকে কেন্দ্র করেই তো আমরা হয়েছি সকল
সৃষ্টির সেরা ৷

আমরা লড়াই করি এমন সম্প্রদায়ের বিরুদ্ধে যারা যুলুম আর নাফরমানী করে ৷ শত্রুতায়
তারা আমাদেরকে লক্ষ্য বন্তু মনে করে ৷ তারা আমাদের দিকে ছুটে এলে আমরা তাদের সমুচিত
শিক্ষা ৫ইি ৷ আমরা এমন আঘাত হানি, যা তুরাকারী হানাদারদেরকে দ্রুত ঠেলে দেয় মৃত্যুর মুখে ৷
তুমি আমাদেরকে দেখতে পাবে পরিপুর্ণ বর্মসমুহের অভ্যন্তরে যা বিস্তীর্ণ পুকুরের ন্যায় প্রশস্ত ৷

আমাদের দক্ষিণ হস্তে রয়েছে হালকা শুভ্র তলােয়ার, যা দ্বারা আমরা প্রতিবিধান করি
অনিষ্টকারীদের তৎপবতড়ায়, পরিখার মুখে যেন সিংহ দাড়িয়ে আছে ৷

তাদের পানজা সিংহের ৰাসস্থুল সংরক্ষণ করে ৷

আমাদের অশ্বারােহীদল সকাল-সল্যা অত্রে সজ্জিত হয়ে শত্রুদলের উপর হামলা চালায়,

যেন আমরা সাহায্য করি আল্লাহ এবং মুহাম্মাদ (সা) এর যাতে আমরা পরিণত হই আল্লাহর
নিষ্ঠাবান বন্দোয় ৷ মক্কাবাসী এবং শত্রুদল , যারা ঐক্যবদ্ধ দল রুপে বেরিয়ে এসেছে, তারা যাতে
জানতে পারে যে, আল্লাহর কোন শরীক নেই, এবং তিনিই মু’মিনদের অভিভাবক ৷

তোমরা যদি মুর্থতাবশতঃ সাদকে হত্যা করে থাকে৷ ৷ তবে মনে রাখবে যে, আল্লাহ্
সবচেয়ে বেশী শক্তিশালী ৷ (তিনি এর বদলা নেবেন) ৷

অবিলম্বে আল্লাহ তাকে প্রবেশ করাবেন উত্তম উদ্যানে যা হবে পুণ্যবানদের আবাসস্থল ৷

যেমন তিনি তোমাদেরকে ফেরত পাঠিয়েছেন তোমাদের ক্রোধ ব্যর্থতড়াসহ অপদস্থু করে ৷
এমনই অপদস্থ যে, সেখানে কল্যাণ থেকে তোমরা হবে বঞ্চিত ৷ তখন তোমরা ধ্বংসের
নিকটবর্তী হয়ে পড়েছিলে ৷ ঝঞাবাযু দ্বারা যা আপতিত হয় তোমাদের উপর ৷ তোমরা তার নিচে

হয়ে পড়েছিলে দৃষ্টিহীন ৷

৩ ২ —

পৃষ্ঠা ২৫০ ঠিক করুন

ইবন ইসহাক বলেন যে, খন্দকের দিন সম্পর্কে আবদুল্লাহ ইবনুয্ যাবরী আসৃ সাহ্মী বলেন,

(অবশ্য আমি বলি যে, এটা তার ইসলামগ্নহণের পুর্বের রচনা) ৷

শ্রা


থাং এে ণ্ডাই

ধ্ন্া)ওশ্বা
ধ্,াগ্লু১১ ৷

ব্লেষ্

,;
ৰু-ণ্১এশ্ষ্-০ ধুষ্এে
র্গো


মোঃ ;ন্ণ্ম্



মর্মার্থ৪ অভিবাদন জ্ঞাপন কর তুমি সেসব নিবাসকে, কায়ু লের প্রবাহ আর ঘোর আপদ যাব
চিহ্ন মুছে ফেলেছে ৷

যেন ইয়াহুদীরা একেছে৩ তার চিহ্ন আর নকলামালা উবষ্ট্ৰর আবাসস্থল আরও তাবুর খুটি বাদ
দিয়ে ৷

পরিণত করেছে বিরান ময়দানে যেন কখনো তুমি , তাতে আনন্দ বিহার করনি সমবয়সী
বন্ধুদেরকে নিয়ে ৷

বাদ দাও অতীত দিনের স্মৃতির কথা, তাতাে করেছে সে স্থানকে একেবারেই জনমানবশুন্য
বিরান ৷

স্মরণ কর, তুমি সমকালীনদের নিবাসের কথা আর জ্ঞাপন কর৩ তাদের প্ৰতি কৃতজ্ঞতা গ্
কারণ, তারা সকলেই এসেছে তীর্থস্থান থেকে ৷

মক্কাভুমি থেকে তারা ছুটে এসেছে ইয়াছরিব অভিমুখে, গভীর অন্ধকার রজনীতে বিপুল

ৎখ্যক সৈন্য সামন্ত নিয়ে ৷


পৃষ্ঠা ২৫১ ঠিক করুন

পরিচিত পথ বাদ দিয়ে তারা এসেছে চড়াই-উৎবাই অতিক্রম করে ও গিরিপথ ধরে ৷
তাতে রয়েছে উত্তম উৎকৃষ্ট অশ্ব যেগুলােকে চালিত করা হচ্ছিল একই সঙ্গে ৷
এমন সব অশ্ব ক্ষীণ যেগুলোর উদর আর গতি যেগুলোর দ্রুত ৷

এক বাহিনীতে ছুটে চলে উয়ায়না তার পতাকা নিয়ে, আর আবু সুফিয়ান ছিলেন বাহিনী নেতা
রুপে ৷

এরা দুজন যেন দুই পুর্ণ চন্দ্র ৷ এরা দৃজনে পরিণত হয়েছে অভাবী আর পলড়াতকদের আশ্রয়
স্থলে ৷

তারা উপস্থিত হন মদীনায় এবং ব্যবহার করেন পরীক্ষিত ভীক্ষ্ণধার তরবারি ৷

এক মাস দশ দিন পর্যন্ত ওরা দাপট বিস্তার করে (রখেছিলেন মুহস্ফোদের উপরে, আর তার
সাহাবীরা ছিলেন লড়াইয়ের উত্তম সাথী ৷

তড়ারা ঘোষণা দেয় প্ৰস্থানের ঐ ভোরে যখন তোমরা বলেছিলে, আমরা ব্যর্থ লোকদের
কাছাকাছি পাঠিয়ে পৌছে গেছি ৷

পারিখা না হলে তারা সবাই নিহত হতেত্ত্ব, আর ক্ষুধার্ত পাখি নেকড়ের থােরাকে পরিণত
হতো ৷

ইবন ইসহাক বলেন যে, এর জবাবে হড়াসৃসান ইবন ছাবিত বলেন :


ন্ন্এে
ন্ ন্ধ্রুদ্বুন্নু
এেএ-স্রা মৌ
ঙ্এট্রু-শ্খু (১দ্দৌ

ছুহ্র এ্১াএ

ছুণ্প্রুন্নুদ্বু
গুষ্;ন্এ এ এেএ
£$,: £ল্গু ণ্এ্যা৷ র্জপু৷ ণ্শৌ৷ ;£ন্;ন্াএ
এএ-গ্র
ণ্ষ্ণ্ণ্:শ্এ
ণ্ধ্পুএে



পৃষ্ঠা ২৫২ ঠিক করুন

ন্ত্রেণ্শ্শ্ব৷ :ঞ,;হ্র,ব্লুহ্রা৷প্রু১ গ্রাদ্বু ব্রব্রধ্ £ এে থ্রোড্রু ড্রু
এটা কি বিরান প্রান্তারর বিলীয়মান চিহ্ন ? যা দিয়ে যাচ্ছে প্ৰশ্নকারীর জবাব ৷
এমনই বিরান সে প্রাম্ভর যে, মুষলধারার ক্রমাগত বৃষ্টি নিশ্চিহ্ন করে দিয়েছে তার সকল
চিহ্ন ৷
আমি সেখানে দেখতে পেয়েছি উজ্জ্বল চেহারার রমণীদেরকে যাব্র্ধ্বদর বংশ উন্নত, যারা ছিল
আসরের শোভা ৷
ছেড়ে দাও তুমি সেসব ললনাদের আলোচনা, যাদের চেহারা সঘুজ্জ্বন আর যাদের বচন মধুর ৷
দুঃখ-কষ্টের অভিযোগ কর তুমি আল্লাহর নিকট, সেসব ক্রুদ্ধ ব্যক্তির, যারা যুলুম করেছে
রাসুলের উপর ৷
তারা ছুটে যায় তার দিকে সম্মিলিতভাবে এবং জড়ো করে শহরবাসী আর মরুচারী
বেদুঈনদের ৷
তাদের মধ্যে রয়েছে উয়ায়না আর আবু সুফিয়ান ইবন হারবের বাহিনী ৷ ভীষণ ক্রুদ্ধ তারা
সদল বলে ৷
শেষ পর্যন্ত তারা উপস্থিত হয় মদীনায় এবং তারা প্রয়াস পায় রাসুলকে হত্যার এবং গনীমত
লাভের ৷
তারা প্রত্যুষে চড়াও হয় আমাদের উপর; কিভু তাদেরকে পেছন বাম হটিয়ে দেয়া হয় তাদের
ক্ষোভসহ ৷ বিতাড়িত করা হয় তাদেরকে ঝৰুপ্রুহ্ব৷ বায়ু দ্বারা এবং সর্বশক্তিমান আল্লাহর কাহিনী দ্বারা ৷
এবং ছত্রভঙ্গ করে দেয়া হয় তাদের দলকে ৷
মু’মিনদের যুদ্ধের জন্য আল্লাহ্ইতো যথেষ্ট, আর তিনি তাদেরকে দান করেন উত্তম প্রতিদান ৷
তাদের নিরড়াশ হওয়ার পর, তিনি ছিন্ন করে দেন তাদের দলকে ৷

এটা ছিল আমাদের মহান দাতা আল্লাহর সাহায় ৷ আর শীতল করেন তিনি মুহাম্মাদ ও তার
সাহাবীদের চোখ ৷

আর লাঞ্ছিত করেন সকল সত্য প্রত্যাখ্যানকারী সংশয়বাদীকে ৷
যাদের হৃদয়সমুহ চরম বিদ্বেষী ও কৃফরীর সংশয়ে ডুবে রয়েছে ৷
যাদের পরিধেয় নয় পরিচ্ছন্ন ৷ দৃভাগ্য তাদের অম্ভরে আসন গেড়ে বসেছে ৷
কুফরী কালের শেষ প্রবাহ পর্যন্ত এ ধারা অব্যাহত থাকবে ৷
ইবন ইসহাক বলেন, তার ইবন মালিকও তার জবাবে বলেন :

;া১ধ্১শ্ব


পৃষ্ঠা ২৫৩ ঠিক করুন

এেএ্ঠেও
ঠুএ; ঠে-ৰুগুএ
ন্ধ্রুণ্১ “fl
ণ্দ্বু
ঞ ংশুএে মোঃ এও ন্স্ওন্
ষ্ন্ন্১১শ্রা

ও,এে, ফুণ্ন্ন্;ওএ
মোঃ
;,স্পে;ৰু
লোঃ
(এে খোএ
এ দ্বুর্মুাঞর্দু;
র্টন্রু’ও
ত্রৈ)ৰুএ

উক্ত কবিতায় তিনি যুদ্ধের বিশদ বর্ণনা দেওয়ার পর বলেন :
যুদ্ধের ঘটনা আমাদের জন্য অবশিষ্ট ব্লেখেছে আমাদের পালনকর্তা মহান দাতার উত্তম দান ৷

সুউচ্চ প্রাসাদ আর ফলদায়ক ফলের বাগানসমুহ ৷

, আমাদেরকে দেওয়া হয়েছে পালনকর্তার পক্ষ থেকে উপদেশ আর হিদায়াত পুত-পবিত্র

যবান পবিত্র বংশের ব্যক্তির মাধ্যমে ৷

তা আমাদের সম্মুখে উপস্থাপন করা হয় ৷ আর আমরা পসন্দ করি তার চর্চা-আংলাচনা

আহযাবের ঘটনার পর, যা ঘটেছিল ৷

ক্যুঢয়শ আর সম্মিলিত বহিনীর কাফিরদের প্রতি ৷
এমন সব জ্ঞানের কথা, অপরাধীরা যাকে নিজেদের ধারণা মতে অকল্যম্পোকর মনে করে ৷


পৃষ্ঠা ২৫৪ ঠিক করুন


কিন্তু বুদ্ধিমানরা অনুধাবন করেন তার সঠিক মর্ম ৷ কুরায়শরা এসেছে,

আপন প্রতুং৷ উপর বিজয়ী হওয়ার বাসনা নিয়ে; কিভু যে ব্যক্তি বিজয়ীর উপর জয়ী হতে চায় ,

তাকে তো বরণ করতে হয় চরম পরাজয় ৷

ইবন হিশাম বলেন, আস্থাতাজন এক ব্যক্তি আবদুল্লাহ ইবনুয যুবায়র সুত্রে বলেন যে,
এ কবিতাটি শ্রবণ করে রাসুলুল্লাহ্ (সা) বলেন :

হে কাব ! তোমার এ কবিতার জন্য আল্লাহ্ (তামার প্রশংসা করেছেন ৷ আমি বলি, এ
কবিতায় যে কুরায়শদেরকে সাহীনা’ বলে অতি ত করা হয়েছে তার কারণ হচ্ছে আরবরা
তাদেরকে এ নামেই অতি ত করতো ৷ তাদের গরম খাবারের জন্য , ফ সাধারণতঃ অন্যান্য
মরুচারীরা আহার করতে পােতানা ৷ আল্লাহ্ই ভাল জনেন ৷

ইবন ইসহাক বলেন, কাব ইবন মালিক আরো আবৃত্তি করেন :


এ৩-এ্যা ষ্ট্র ট্টহৃ
এ)ট্র গোশ্রন্থে
&;)) পেট্রশ্১
এএ্যা
স্পেণ্
ন্টো
ষ্ন্নুপুপু
এ১-ঠো & )¢“
¢§;”
া১াএ

ধ্ণ্ন্
;১এে প্লু
ৰু৩এট্টণ্গ্রা
৷ দেএেএ্






পৃষ্ঠা ২৫৫ ঠিক করুন



আনন্দ দান করে যে ব্যক্তিকে প্রচণ্ড যুদ্ধের নিনড়াদ, যেন তা পাংত্র আগুন লাগার শব্দ আরকি !
তারা যেন হাযির হয় আমাদের কর্মক্ষেত্রে, যে তার তলেড়ায়ারে শান দেয় মামাম আর
খন্দকের মধ্যবর্তী স্থানে ৷

যারা অভ্যস্ত নামকরা বীর হত্যার, যারা নিজেদের জীবন সমর্পণ করেছে দিগস্তের প্রভুর

উদ্দেশ্যে ৷

আল্লাহ্ সাহায্য করেছেন তার নবীকে এ দল দ্বারা, আর তিনিতাে তীর বন্দোর প্রতি অত্যন্ত

সদয় ৷
আমরা শত্রুর মুখোমুখি হই বিশাল বাহিনী নিয়ে , যা তাড়িয়ে দেয় বিশাল বাহিনীকে প্রাচ্যের
প ত চুড়া জয় করার মতো !

দৃশমনের তবে আমরা প্রস্তুত রাখি দীর্ঘ দেহী অশ্ব, যা গোলাবের মতো লাল; আর সাদা কাল

মিশ্রিত বর্ণের ৷

তা ছুটে নিয়ে যায় অশ্বারােহীকে , উরৈ গতিতে,

কারণ, বীর-বাহাদুর যুদ্ধের দিন ভোর বেলা কুয়াশা জনিত কাদামাটিতে যেন সিংহ আর কি ৷

তারা সত্যিকার বিশ্বস্ত, ধুলোর তলে, বর্শা নিয়ে বীর-বাহাদুর ব্যক্তিদেরকে মৃত্যুর স্বাদ

আস্বাদন করার ৷

যুদ্ধের জন্যে সে সব অশ্বকে আল্লাহ্ ভৈতয়ার রাখার হুকুম করেছেন, আর আল্লাহভাে হলেন

সর্বোত্তম তাওফীক দাতা ৷

যাতে তারা উত্তেজিত করে তোলে দৃশমনকে ,

আর সুরক্ষিত করে নেয় নিজেদের আবাসস্থলাক , ফলে ভেড়ে আসে শক্ত সমর্থ অশ্বরাজি ৷

আর দৃশমনের মুকাবিলা কালে আল্লাহ আমাদের

সাহায্য করেন তীর পক্ষ থেকে প্রদত্ত শক্তি আর ধৈর্য দ্বারা ৷ কারণ, তিনিতাে মহা শক্তিধর ৷

আমরা মান্য করি আমাদের নবীর নির্দেশ আর

সাড়া দেই তীর আহ্বানে, কষ্ট সাধ্য কাজের ভরে ৷ তিনি আহ্বান জানালে আমরা পশ্চাৎপদ

হৃইনা ৷

যুদ্ধকালে তিনি যখন ডাক দেন আমরা তাতে সাড়া দেই, আমরা তুমুল যুদ্ধের সময় ছুটে যাই

সেখানে ৷

নবীর বাণী মেনে চলে যেজন ( সেতো পরম পুণ্যবান) ৷

কারণ, তিনিতাে আমাদের মধ্যে মান্যবর , তিনিই তো নেতা , আর তিনিই তো সত্য !

এভাবে তিনি আমাদের সাহায্য করেন, প্রকাশ করেন আমাদের মান-মর্যাদা,

আর তা অর্জন করায় তিনি দয়া করে আমাদেরকে সাহায্য করেন ৷


পৃষ্ঠা ২৫৬ ঠিক করুন

মারা অস্বীকার করে (নবী) মুহাম্মাদ (না)-কে ;
তারাতাে কুফরী করেছে আর দুরে সরে গেছে মৃত্তাকীদের পথ থেকে ৷
ইবন ইস্হাক কাব ইবন মালিকের আরো কবিতা উল্লেখ করেন :
ব্লুা৷প্রু;
পেএ fl
ম্পোএ <ট্রুা৷ ৷ ষ্ঠাং )“;; ণ্প্পুষ্; প্রুা; ৷১া
মর্মার্থ : শত্রুদলের লোকেরা জানতে পেরেছে যখন তারা আমাদের বিরুদ্ধে একত্র হয়েছে

এবং আমাদের দীনকে লক্ষ্য স্থলে পরিণত করেছে ৷

যা আমরা বিসর্জন দেবাে না ৷ কায়েস ইবন পায়লান এর দল আমাদের বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ
হয়েছে তালি বাজিয়েছে; কিন্তু খন্দক দেখতে পেয়ে কি ঘটতে যাচ্ছে তা তারা ঠাহর করে উঠতে
পারেনি ৷

তারা আমাদেরকে ৰ্বাধা দেয় আমাদের দীন থেকে, আর আমরা তাদেরকে বীধা দেই কৃফ্রী
থেকে; আর দয়াময় আল্লাহভাে দ্ৰষ্টা এবং শ্রোতা ৷

তারা যখন কোন স্থানে আমাদের বিরুদ্ধে উষ্মড়া প্রকাশ করে তখন আল্লাহ্ তার পক্ষ থেকে
আমাদেরকে সাহায্য করেন ৷

আমাদের জন্য এটা আল্লাহ্র হিফাযত ও দয়া আর আল্লাহ্ যাকে হিফাযত করেন না, তার
ৎসভাে অনিবার্য ৷
আল্লাহ্ আমাদেরকে সত্য দীনের প্রতি হিদায়াত করেছেন, এবং তা আমাদের জন্যে মনোনীত
করেছেন ৷
আর আল্লাহতাে হলেন সকল কতার শ্রেষ্ঠ কতা ৷
ইবন হিশাম বলেন, এ পংক্তিগুলো তার একটি দীর্ঘ কাসীদার অন্তর্ভুক্ত ৷ ইবন ইসহাক
বলেন, বনুকুরায়যার যুদ্ধ প্রসঙ্গে হাসৃসান ইবন ছাবিত এ কবিতাগুলো আবৃত্তি করেন :
স্পো৷ ৷ গোব্লে



Execution time: 0.05 render + 0.00 s transfer.