Login | Register

আল বিদায়া ওয়ান্নিহায়া - খন্ড ৩ : পৃষ্ঠা ৫৩৮

আল বিদায়া ওয়ান্নিহায়া খন্ড ৩: পৃষ্ঠা - ৫৩৮


,
আমি তো সুহায়লকে বন্দী করেছি ৷ তাকে বাদ দিয়ে দলের অন্য কাউকে বন্দী করতে আমি
চাইনি ৷

খুনদুফ গোত্র এ বিষয়ে অবগত আছে যে, যখন তারা অত্যাচারিত হয় তখন মুকাবিলার
জন্যে একমাত্র সুহায়লই বীর পুরুষ হিসেবে অবির্ভুত হয় ৷

আমি ঠোটওয়ালা ( ঠোটকাটা)-কে আঘাত করলে সে নত হয়ে পড়ে এবং ঠোটকাটা
চিহ্নধারীর সাথে যুদ্ধ করতে আমি বাধ্য হই ৷

ইবন ইসহড়াক বলেন : সুহায়লের নীচের ঠোট কাটা ছিল ৷ ইবল ইসহাক বলেন : বনু
আমির ইবন লুআই গোত্রের মুহাম্মদ ইবন আমর ইবন আতা আমাকে বলেছেন যে উমর ইবন
খড়াত্তাব (রা) রাসুলুল্লাহ্ (সা)-কে বললেন : আমাকে অনুমতি ঢািা অ্যাম সুহায়লের সামনের
উপর-নীচের দুটো করে চারটা দীত উপড়ে ফেলি ৷ এতে তার জিহ্ব ৷ ঝুলে থাকবে ৷ ফলে আর
কখনও কোথাও দাড়িয়ে আপনার বিরুদ্ধে ভাষণ দিতে পারবে না ৷ রাসুলুল্লাহ্ (সা) বললেন,
আমি তার মুখ বিকৃত করব না ৷ তা হলে আল্লাহ আমার মুখ বিকৃত করে দেবেন ৷ যদিও আমি
নবী হই না কেন ৷

এ হাদীছটি মুরসাল বরং মু’যাল ৷ ১ ইবন ইসহাক বলেন : আমি আর ও জেনেছি, রাসুলুল্লাহ্
(সা) হযরত উমরকে এ প্রসঙ্গে আরও বলেছিলেন যে, ভবিষ্যতে সুহায়ল এমন ভুমিকাও
রাখতে পারে যা নিন্দনীয় হবে না ৷ (আমি ইবন কাহীর) বলি যে ভুমিকা হচ্ছে রাসুলুল্লাহ্
(না)-এর ইনতিকালের পর যখন গোটা আরবে বহু লোক মুরতড়াদ হয়ে যায় এবং মুনাফিকরা
মদীনায় সংঘবদ্ধ হয়, ইসলামের এ দুর্কিংকালে সুহায়ল মক্কায় ভাষণ বক্তৃতার মাধ্যমে লোকদের
সঠিক দীনের উপর অবিচল হয়ে থাকার ব্যপাড়ারে মুখ ভুমিকা পালন করেন ৷ এ সম্পর্কে শীঘ্রই
আলোচনা করা হবে ৷

ইবন ইসহড়াক বলেন : মিকরায সুহায়লের ব্যাপারে আলোচনা করে যখন তাদেরকে রাযী
করাল, তখন তারা বলল, ঠিক আছে আমাদের পাওনাটা দিয়ে দাও ৷ মিকরায বলল, তোমরা
তার স্থলে আমাকে বন্দী কর এবং তাকে ছেড়ে দাও ৷ সে গিয়ে তোমাদের মুক্তিপণ পাঠিয়ে
দেবে ৷ তার কথামত তারা সুহায়লকে ছেড়ে দিল এবং মুকরিযকে বন্দী করে রেখে দিল ৷ ইবন
ইসহাক এ স্থানে মুকরিষের একটি কবিতা উল্লেখ করেছেন ৷ কিন্তু ইবন হিশাম তা উল্লেখ
করেননি ৷ ইবন ইসহড়াকআবদুল্লাহ্ ইবন আবু বকর থেকে বর্ণনা করেন : বদর যুদ্ধের বন্দীদের
মধ্যে আমর ইবন আবু সুফিয়ড়ান সাখার ইবন হারবও ছিল ৷ ইবন ইসহাক বলেন তার যা
ছিল উকবা ইবন আবু মুআয়তের কন্যা ৷ কিন্তু ইবন হিশাম বলেছেন, তার মা আবু মুআয়তের
বোন ৷ ইবন হিশাম বলেন, তাকে বন্দী করেছিলেন আলী ইবন আবু তালিব ৷ ইবন ইসহাক



১ মুযাল হচ্ছে ঐ বর্ণনা যে বর্ণনার সনদে একাধিক রাবীর নাম অনুল্লিখিত থাকে ৷



Execution time: 0.02 render + 0.00 s transfer.