Login | Register

আল বিদায়া ওয়ান্নিহায়া - খন্ড ৩ : পৃষ্ঠা ১৫০

আল বিদায়া ওয়ান্নিহায়া খন্ড ৩: পৃষ্ঠা - ১৫০


লিখেছেন তার অতিরিক্ত কিছু নন ৷ এতে তারা তার প্রতি সভুষ্ট হয় এবং স্বগৃহে ফিরে যায় ৷ এ
ৎবাদ রাসুলুল্লাহ্ (না)-এর নিকট পৌছে ৷ নাজাশী যখন ইনতিকাল করেন, তখন রাসুলুল্লাহ
(না) তার জানাযার নামায আদায় করেন এবং তার জন্যে ক্ষমা প্রার্থনা করেন ৷

সহীহ্ বুখারী ও সহীহ্ মুসলিমে হযরত আবু হুরায়রা (যা) থেকে বর্ণিত আছে যে, যেদিন
নাজাশীর মৃত্যু হয়, সেদিন রাসুলুল্লাহ্ (না) তার মৃত্যু সংবাদ প্রচার করেন এবং সাহাবায়ে
কিরামকে নিয়ে জানাযার নামায়ের উদ্দেশ্যে ঈদগাহে আসেন ৷ এরপর সবাইকে সারিবদ্ধভাবে
দাড় করিয়ে চার তাকবীরের সাথে জানাযার নামায আদায় করেন ৷

ইমাম বুখারী (র) বলেন, “নাজাশীর ইনতিকাল বিষয়ক অধ্যায় আবু রাবী হযরত
জাবির (যা) থেকে বর্ণিত ৷ তিনি বলেন, নাজাশী যখন ইনতিকাল করেন , তখন রাসুলুল্লাহ্ (সা)
বললেন, আজ একজন নেক্কার লোক ইনতিকাল করেছেন ৷ তোমরা সকলে প্রন্তুত হও,
তোমাদের ভাই আসহামাহ্-এর জন্যে জানাযার নামায পড় ৷ আনাস ইবন মালিক, আবদুল্লাহ
ইবন মাসউদ ও অন্যন্যে অনেক সাহাবী থেকে এটি বর্ণিত হয়েছে ৷ কোন কোন বর্ণনায় আছে
যে , তীর নাম মুসহিমা ৷ তিনি মুলত আসহামাহ্ ইবন আবহুর ৷ তিনি একজন নেক্কার,
বুদ্ধিমান, মেধাবী, ন্যায়পরায়ণ ও বিজ্ঞ লোক ছিলেন ৷ আল্পাহ্ তার প্রতি সত্তুষ্ট হোন এবং তাকে
সত্তুষ্ট করুন ৷
ইবন ইসহাক সুত্রে ইউনুস বলেন, নাজাশীর মুল নাম মাসহড়ামা ৷ বায়হাকী এটির বিশুদ্ধ
রুপ আসহ্াম বলে মন্তব্য করেছেন ৷ অড়াসহড়াম শব্দের অর্থ দান-দক্ষিণা ৷ তিনি এও বলেছেন যে
নাজাশী হল আবিসিনিয়া রাজ্যের উপাধি ৷ যেমন বলা হয় কিসরা, হিরাকল প্রভৃতি ৷
আমি বলি হিরাকল দ্বারা সম্ভবত রোম সম্রাট কায়সারের কথা বুঝানো হয়েছে ৷ কারণ,
রোমান নগরসমুহের দ্বীপণ্ডলোসহ সিরিয়ার রাজাকে বলা হয় কায়সার ৷ পারস্য সম্রাটের উপাধি
কিসরা ৷ সমগ্র মিসরের সম্রাটের উপাধি ফিরআওন ৷ আলেকজাদ্রিয়ার রাজার উপাধি
,মুকাওকিস ৷ ইয়ামান ও শাহারর রাজার উপাধি তুবৃবা’ ৷ আবিসিনিয়ার রাজার উপাধি নাজাশী ৷
গ্রীস এবং কারো কারো মতে ভারতবর্ষের সম্রাটের উপাধি বাতলীমুস এবং তৃর্কদের সম্রাটের
উপহ্ণ্র্দুহ্৷ খাকান ৷
কোন কোন আলিম বলেছেন, যেহেতু নাজাশী তার ঈমান গ্রহণের বিষয়টি গোপন রাখতেন
এবং যেদিন তার ইনতিকাল হয়, সেদিন সেখানে তার জানাযার নামায পড়ার কেউ ছিল না,
যেহেতু রাসুলুল্লাহ্ (সা) মদীনায় তার জানাযার নামায আদায় করেন ৷ এ প্রেক্ষিতেই ফকীহ্গণ
বলেছেন যে, কোন ব্যক্তি যে দেশে মৃত্যুবরণ করে, সে দেশে যদি তার জানাযা পড়া হয়, তবে
যে দেশে সে অনুপস্থিত, সে দেশে তার জানাযা পড়া বৈধ নয় ৷ এজন্যে মদীনা মুনাওয়ারা
ব্যতীত অন্য কোন স্থানে রাসুলুল্লাহ্ (না)-এর জানাযার নামায হয়নি ৷ মক্কাতেও নয়, অন্য কোন
স্থানেও নয় ৷ হযরত আবু বকর (রা) , উমর (রা) , উছমান (রা)-সহ অন্যান্য সাহাবীর ক্ষেত্রেও
এমন কোন বিবরণ পাওয়া যায় না যে, তারা যেখানে ইনতিকাল করেছেন এবং যেখানে র্তাদের
জানাযা হয়েছে, সেখানে ব্যতীত অন্য কোন শহরে ভীদের জানাযা হয়েছে ৷



Execution time: 0.12 render + 0.00 s transfer.