Login | Register

আল বিদায়া ওয়ান্নিহায়া - খন্ড ৩ : পৃষ্ঠা ১৪৭

আল বিদায়া ওয়ান্নিহায়া খন্ড ৩: পৃষ্ঠা - ১৪৭


নিয়ে এসো ৷ নাজাশীর খোজে ওরা বেরিয়ে পড়ে ৷ অবশেষে তাকে খুজে পায় এবং ফিরিয়ে
নিয়ে আসে ৷ রাজমুকুট পরিয়ে তারা তাকে সম্রাটের সিংহাসনে অধিষ্ঠিত করে ৷

ক্রেতা ৷ব্যবসায়ীটি বলল, আপনারা আমার নিকট থেকে যুবককে যখন ফিরিয়ে নিয়ে
গেলেন, তখন আমার মুল্যট৷ ফেরত দিন ৷ লোকজন বলল, না তা দেয়৷ হবে না ৷ সে বলল
তাহলে আল্লাহ্র কসম, আমি নিজে৩ার সাথে কথা বলব ৷ ব্যবসায়ী নিজে নাজাশীর সাথে
সাক্ষাত করে বলল, রাজন! আমি একটি যুবক ক্রয় করেছিলাম ৷ বিক্রেতাদেরকে আমিত
মুল্যও পরিশোধ করে দিয়েছি ৷ পরে তারা এসে আমার নিকট থেকে যুবকটিকে কেড়ে নেয় ৷
কিভু আমার মুল্য ফেরত দেয়নি ৷ নাজাশী সর্বপ্রথম উথাপিত এই মামলায় নিজের দৃঢ়তা
প্রদর্শন করে রায়ে বললেন, “তোমরা হয় ব্যবসায়ীর মুল্য ফেরত দিবে নতুবা :তামাদের
বিক্রীত যুবক৩ তাকে ফিরিয়ে দেবে ৷ ওই যুবককে নিয়ে যেখানে ইচ্ছা যে চলে যাবে ৷ তারা
বলল, আমরা বরং তার মুল্য ফিরিয়ে দেব ৷ তারা মুল্য ফেরত দিয়ে দেয় ৷ এই ঘটনার
প্রেক্ষাপটেই নাজাশী বলেছিলেন, “আমার রাজতৃ আমার নিকট ফিরিয়ে দেয়ার সময় মহান
আল্লাহ্ তাে আমার নিকট থেকে ঘুষ নেননি যে, তার ব্যাপারে আমি ঘুষ নেব, আর আমার
ক্ষেত্রে লোকজন তাে আমার আনুগত্য করেনি যে, আমি তাদের কথা মত চলবাে !”

মুসা ইবন উকবা (রা) বলেন, নাজাশীর পিতা ছিলেন আবিসিনিয়ার রাজা ৰু তার পিতার
যখন মৃত্যু হয়, তখন নাজাশী ছিলেন ছোট শিশু ৷ মৃতুাকালে নিজ ভাইকে তিনি ওসীয়াত
করেছিলেন০ ং “আমার পুত্র সাব৷ লক না হওয়া পর্যন্ত রাজতৃ তোমার হাতে থাকবে ৷ সাবালকতু
প্রাপ্তির পর সেই রাজা হবে ৷” পরব ত ৷ তার ভাই নিজে রাজত্বের জন্য লালাযিত হয়ে পড়ে
এবং জনৈক বাবসায়ীর নিকট নাজাশীকে বিক্রি করে দেয় ৷ ওই রাতেই নাজাশীর চাচার মৃত্যু
হয় ৷ আবিসিনিয়ার জনগণ তখন নাজাশীকে ফিরিয়ে নিয়ে এসে তার মাথায় রাজমুকুট পরিয়ে
দেয় ৷ মুসা ইবন উকবা এভাবে সৎক্ষিপ্তাকারে এ বর্ণনা উদ্ধৃত করেন ৷ ইবন ইসহাকের বর্ণনাটি
অধিকতর বিস্তারিত এবং সুবিন্যস্ত ৷ আল্পাহ্ই ড়াল জানেন ৷

ইবন ইসহাকের বর্ণনায় আছে যে, কুরায়শ প্রতিনিধি হিসেবে নাজাশীর নিকট আমর ইবন
ভাল এবং আবদুল্লাহ্ ইবন আবু রাবীআকে প্রেরণ করা হয়েছিল ৷ পক্ষান্তরে মুসা ইবন উকবা,
উমাবী এবং অন্যান্যদের বর্ণনায় এসেছে যে, তারা আমর ইবন আস এবং আম্মারা ইবন
ওয়া ৷লীদ ইবন মুগীরাকে প্রেরণ করেছিল ৷ কাবা শরীফের সম্মুখে নামায আদায়ের সময় যেদিন
রাসুলুল্লাহ্ (সা) এর পিঠে উটের নাড়িভুড়ি লে দেয়৷ হয়েছিল, সে দািনর ঘটনায় উপস্থিত
কাফিরদের হাসাহাসির প্রেক্ষিতে ৩রাসুলুল্লাহ্ (সা) যে সাতজনের বিরুদ্ধে বদ দু আ করেছিলেন
আম্মারা ইবন ওয়ালীদ ইবন মুগীরা ছিল তাদের একজন ৷ ইতাে ৷পুর্বে আবু মুসা আশআরী ও
ইবন মাসউদ (না)-এর হাদীছে এ ঘটনা আলোচিত হয়েছে ৷ বন্তুত আমর ইবন আস এবং
আম্মারা ইবন ওয়ালীদ ইবন মুগীরা দুজনে যখন মক্কা থেকে বের হয়, তখন আমর ইবন
আসের সাথে তার শ্রী ছিল ৷ আম্মারা ছিল সুদর্শন যুবক ৷ তারা দু’জ্যন একসাথে নৌকায় উঠে ৷
অম্ম৷ ৷রার লোলুপ দৃষ্টি পড়ে আমরের শ্ৰীর উপর ৷ সে আমর ইবন আসকে সমুদ্রে ফেলে দেয়
যাতে সে সাগরে ডুবে মরে যায় ৷ কিভু আমর সা৩ রিয়ে জীবন রক্ষা করে এবং নৌকায় উঠে



Execution time: 0.12 render + 0.00 s transfer.