Login | Register

আল বিদায়া ওয়ান্নিহায়া - খন্ড ৩ : পৃষ্ঠা ১৩৯

আল বিদায়া ওয়ান্নিহায়া খন্ড ৩: পৃষ্ঠা - ১৩৯


তখন আবিসিনিয়ায় ৷ তারা নাজাশীকে বলল, আমাদের কতক নীচু স্তরের মুর্থ লোক দেশ ছেড়ে
আপনার বাজে এসে আশ্রয় নিয়েছে ৷ আপনি ওদেরকে আমাদের হাতে তুলে দিন ৷ রাজা
বললেন, না, ওদের বক্তব্য না শুনে আমি ওদেরকে তোমাদের হাতে তুলে দেব না ৷” রাজা
আমাদের নিকট লোক পাঠালেন ৷ আমরা তার দরবারে উপস্থিত হলে তিনি বললেন, ওরা এসব
কী বলছে ? আমরা বললাম, ওরা তো এমন এক সম্প্রদায় যারা মুর্তি পুজা করে ৷ এদিকে
আল্লাহ্ তাআলা আমাদের মধ্যে একজন রাসুল প্রেরণ করেছেন ৷ আমরা ওই রাসুলের প্রতি
ঈমান এসেছি এবং তাকে সত্য বলে গ্রহণ করেছি ৷ কুরায়শ প্রতিনিধিদের উদ্দেশ্যে নাজাশী
বললেন, এদের মধ্যে কি তোমাদের কোন দাস-দাসী আছে ? ওরা বলল, না সেই ৷ রজাে
বললেন, এদের কারো কাছে কি ,তোমাদের কোন পাওনা আছে ? ওরা বলল, না, সেই ৷ এবার
রজো বললেন, “তবে ওদের ব্যাপারে নাক গলিয়াে না ৷ ওদেরকে ওদের মত থাকতে দাও ৷ ”

হযরত জাফর (বা) বলেন, আমরা দরবার থেকে বেরিয়ে এলড়াম ৷ এরপর অড়ামর ইবন
আস রাজাকে বলল, এরা ঈসা (আ) সম্পর্কে আপনি যা বলেন তার বিপরীত বলে ৷ রাজা
বললেন, ঈসা (আ) সম্পর্কে আমি যা যদি তারা যদি সেরুপ না বলে, তবে আমি তাদেরকে এক
মুহুর্তও আমার রা জেব্র থাকতে দেব না ৷ রাজা আমাদেরকে পুনরায় ডেকে পাঠালেন ৷
আমাদেরকে দ্বিতীয়বার ডাকা আমাদের নিকট প্রথমবারের চেয়ে গুরুতর মনে হল ৷ তোমাদের
নবী হযরত ঈসা (আ) সম্পর্কে কী বলেন ? রাজা জিজ্ঞেস করলেন ৷ আমরা বললাম, তিনি
বলেন যে, ঈসা (আ) আল্লাহর রুহ এবং ভুড়ার কালেমা, যা তিনি সতী-সাধ্বী কুমারীর মধ্যে
নিক্ষেপ করেছেন ৷ রাজা লোক পাঠিয়ে বললেন, অমুক পাদ্রী এবং অমুক যাজককে ডেকে নিয়ে
আন ৷ কতক যাজক ও পাদ্রী উপস্থিত হল ৷ রাজা বললেন, আপনারা ঈসা (আ) সম্পর্কে কী
বলেন ? তারা বলল, আপনি তো আমাদের মধ্যে সবচাইতে জ্ঞানী ব্যক্তি, আপনি কী বলে ?
নাজাশী ইতোমধ্যে মাটি থেকে কিছু একটা হাতে তুলে নিলেন এবং বললেন : “এরা ঈসা (আ)
সম্পর্কে যা বলছে মুলত ঈসা (আ) তার চাইতে এতটুকুও বেশী নন ৷ এরপর রাজা আমাদের
উদ্দেশ্যে বললেন, তোমাদের কাউকে কি কেউ কোন কষ্ট দেয় ? আমরা বললাম, জী হী৷ তখন
রাজাদেশে জনৈক ঘোষক ঘোষণা দিয়ে বলল: এদের কাউকে যদি কেউ কষ্ট দেয়, তবে চার
দিরহাম জরিমানা দিতে হবে ৷ তারপর আমাদেরকে বললেন, এতে তোমাদের চলবে তো ?
আমরা বললড়াম , জী না ৷ তখন তিনি জরিমানা দ্বিগুণ নির্ধারণ করে দিলেন ৷ হযরত জা’ফর (রা )
বলেন, পরবর্তীতে রাসুলুল্লাহ্ (সা) যখন হিজরত করে মদীনা এলেন এবং সেখানকার কর্তৃতৃ
লাভ করলেন, তখন আমরা রাজাকে বললাম, রাসুলুল্লাহ্ (সা) মদীনায় হিজরত করে সেখানকার
কর্তৃতৃ লাভ করেছেন, আর চুয কাফির নেতাদের কথা আমরা আপনাকে বলেছিলাম ওরা নিহত
হয়েছে ৷ এখন আমরা রাসুলুল্লাহ্ (সা) এর সাথে মিলিত হতে চাই ৷ আপনি আমাদের যাওয়ার
অনুমতি দিন ৷ নাজাশী বললেন : ঠিক আছে, তাই হবে ৷ তিনি আমাদের যানবাহনের ব্যবস্থা
করে দিলেন এবং আমাদেরকে প্রয়োজনীয় সাজ-সরঞ্জাম দিয়ে দিলেন ৷ তারপর বললেন,
“আমি আপনাদের প্ৰতি যে সদ্ব্যবহার করেছি তাকে বলবেন ৷ আর এ লোক আমার প্রতিনিধি
হিসাবে আপনাদের সাথে যাবে ৷ আমি সাক্ষ্য দিচ্ছি যে, আল্লাহ্ ব্যতীত কোন মা’বুদ নেই এবং
তিনি নিশ্চয়ই আল্লাহ্র রাসুল ৷ আপনারা তাকে বলবেন, তিনি যেন আমার জন্যে আল্লাহর



Execution time: 0.03 render + 0.00 s transfer.