Login | Register

আল বিদায়া ওয়ান্নিহায়া - খন্ড ৩

পৃষ্ঠা ৫৮৯ ঠিক করুন


আল্লাহর কসম, আমার অন্তর ততক্ষণ পর্যন্ত চিন্তিত ও উদ্বিগ্ন থাকবে, যতক্ষণ পর্যন্ত
তোমরা খাযরাজ-এর উপর হামলা না করবে ৷
যিরার ইবন খাত্তাবের কবিতা

ইবন ইসহাক তার গ্রন্থে যুপরিকদের রচিত এমন কিছু কবিতা উল্লেখ করেছেন, যা বদর
যুদ্ধে তাদের নিহত ট্লাকদের শোকগাথা হিসেবে পরিচিত ৷ তার মধ্যে বনু মৃহারিব ইবন
ফিহ্রির লোক যিরার ইবন মুত্তালিব ইবন মিরদাস-এর নিম্নোক্ত কবিতাটি এখানে উল্লেখ করা
হল ৷ পরবর্তীতে যিরার ইসলাম গ্রহণ করেন ৷ সৃহায়লী তার রচিত রওযাতৃল উনুফ্ গ্রন্থে এমন
কিছু লোকের কবিতা সম্পর্কে আলোচনা করেছেন, যারা পরবর্তীতে ইসলাম গ্রহণ করেন ৷




;,এে




প্রে স্

অর্থ : আওস গোত্রের অহংকার দেখে আমি অবাক হয়ে যাই ৷ কেননা, আগামীকাল

তাদের উপরও মৃত্যুর চাকা ঘুরে আসবে ৷ আর কাল-পরিত্রুমার মধ্যে থাকে অনেক শিক্ষণীয়
বিষয় ৷

আমার আরও অবাক লাগে বনু নাজ্জারের অহংকার দেখে ৷ তাদের অহংকার এ কারণে যে,
বদর যুদ্ধে একটি জনগোষ্ঠী সম্পুর্ণভাবে বিধ্বস্ত হয়ে যায় ৷ আর তারা সেখানে বহাল তবিয়তে
রয়েছে ৷

আমাদের বংশের নিহত লােকগুলো যদি ধ্বংসপ্রাপ্ত অবস্থায় পড়ে থাকে, তবে তাতে কোন
চিন্তা নেই ৷ কেননা, তাদের পরে আমরা পুরুষরা তাে বেচেই আছি ৷ অচিরেই আমরা ধ্বংসাত্মক
হামলা চালাব ৷



১ ইবন হিশাম এর পরে নিম্নের ছন্দটি উল্লেখ করেছেন :
অর্থ৪ সে দৃ গোত্র আমার তাই তাদের পিতা ছাড়া অন্য কারও দিকে যাদের সম্পর্ক করা হয় না এবং যাদের
প্রতিবেশীরা তাদের প্রতি অপহরণের অভিযোগ দেয় না ৷


পৃষ্ঠা ৫৯০ ঠিক করুন
হে বনু আওস ৷ ক্ষুদ্র কেশর বিশিষ্ট দীর্ঘকায় তেজী ঘোড়া আমাদেরকে নিয়ে তোমাদের
মাঝে ঝাপিয়ে পড়বে এবং আমাদের ব্যথিত হৃদয় শান্তি পাবে ৷

আর সেই ঘোড়ায় চড়ে আমরা বনু নাজ্জারের মধ্যে ঢুকে পড়বাে ৷ এ ঘোড়াগুলো বর্শ৷ ও
বর্মধারীদেরও বহন করবে ৷

আমরা তাদেরকে ধ্রড়াশায়ী করে ফেলে রাখবাে, আর পাখীরা তাদের চার পাশে ঘিরে
থাকবে ৷ তখন মিথ্যা আশা ছাড়া তাদের অন্য কোন সাহায্যকারী থাকবে না ৷

ইয়াছরিব অঞ্চলের মহিলারা তাদের গােকে র্কাদবে ৷ সেখানেই তারা রাত কাটাবে এবং
নিদ্রাহীন অবস্থায় থাকবে ৷

আর ঐ অবস্থা এ জন্যে হবে যে, আমাদের তররারি সর্বদা তাদের রক্ত ঝরাঃত থাকবে,
যাদের সাথে এ তররারি যুদ্ধ করবে ৷

যদি তোমরা বদর যুদ্ধে জয়ী হয়ে থাক, তবে তা এ কারণে যে, আমাদেরই এক লোক
আহমদকে তোমরা পেয়ে থেছ আর তিনি তাে বিজয়ীই হন ৷

আর এমন কিছু লোকজন তার সাথে রয়েছে, যারা সমাজে উত্তম লোক হিসেবে বিবেচিত
এবং তার আপনজন ৷ বিপদ কালে তারা তাকে সাহায্য করেন ৷ কিন্তু মৃত্যু তো সবার জন্যে
অবধারিত ৷

তাদের মধ্যে অন্তর্ভুক্ত রয়েছেন আবু বকর ও হামযা ৷ আর আলীকে ধরা হয় তাদের
মধ্যমণি রুপে যাকে তুমি স্মরণ করতে পার ৷

এদের দ্বারাই বিজয় লাভ করা সম্ভব হয়েছে ৷ বনু আওস ও বনু নাজ্জারের বংশোদ্ভুত
সন্তানদের দ্বারা বিজয় আসেনি যাদের নিয়ে ওরা পর্ব করে ৷

তুমি যখন বনু কাআব ও বনু আমিবের বংশপঞ্জি গণনা করবে, তখন দেখবে তাদের
উর্ধ্বতন পুরুষ হলেন লুয়াই ইবন পালিব ৷

এরা প্রতিটি যুদ্ধে অশ্বারোহীদের প্ৰতি তাক করে বর্শা নিক্ষেপকারী এবং কঠিন দৃর্যোগকালে
সদড়াচরণকারী ও পুণ্য সঞ্চয়কারী ৷

যিরারের উপরোক্ত কবিতার জবাবে কাআব ইবন মালিক যে কাসীদা আবৃত্তি করেন আমরা
কিছু পুর্বে তা উল্লেখ করেছি ৷ যার প্রথম কথা এই :

অর্থ : আমি আল্লাহ্র সিদ্ধান্ত দেখে বিস্মিত ৷ তিনি যা ইচ্ছা করেন তা বান্তবায়নে সক্ষম ৷
আল্লাহ্কে অক্ষম করার শক্তি কারও নেই ৷

ইবন ইসহাক বলেন : বদর যুদ্ধ প্রসঙ্গে আবু বকর শাদদড়াদ ইবন আসওয়াদ ইবন শুউব
নিম্নোক্ত কবিতা আবৃত্তি করেন ৷


পৃষ্ঠা ৫৯১ ঠিক করুন


লেখক বলেন : ইমাম বুখারী উল্লেখ করেছেন যে, আল্লাহ্ মুশরিক নারীকে মুমিন পুরুষের
জন্যে হারাম ঘোষণা করলে হযরত আবু বকর সিদ্দীক তার মুশরিকা ত্রী উম্মে বকরকে তালাক
দেন ৷ তখন শাদ্দাযা ইবন আসওয়াদ উক্ত উম্মে বকরকে বিবাহ করে ৷

(অর্থ ৪) উম্মে বকর তো লহা শান্তিতে জীবন যাপন করছে ৷ কিস্তু আমার স্ব-সম্প্রদায় ধ্বংস
হওয়ার পর আমার জীবনে কি কোন শাস্তি আছে ?

বদরের কুয়োর কাছে গায়িকা ও মদ্যপায়ীদের কী অবস্থাই না হয়েছে ৷

বদরের কুয়োর কাছে আবলুস কাঠের পাত্রে উচু করে ভর্তি করা কুজের গােশতের কী
দশাই না হল !

বদরের পাড় বীধা কুয়োর কাছে কত যে মুক্ত উট ও চতুষ্পদ জন্তুর পাল ছিল !

বদরের পাড় বাধা কুয়োর কাছে কী পরিমাণ দুর্বার শক্তি ও বড় বড় পেয়ালা ছিল !

আর সেখানে সম্রাম্ভ আবু আলীর কত যে সঙ্গী ছিল যারা ছিল তার উৎকৃষ্ট মদের
আসরের বন্ধু-বান্ধব ৷

তুমি যদি দেখতে আবুআকীল ও নিয়াম পর্বতদ্বয়ের মধ্যবর্তী উপত্যকায় অবস্থানকারীদের
তৎপরতা ৷

তবে তুমি সেখানে যাদেরকে পেতে তাদের উপর তুমি যেতে উঠতে ৷ যেভাবে উটের
বাচ্চার যা তার উদ্দেশ্য পুরণের জন্যে যেতে ওঠে ৷

রাসুল আমাদের জানাচ্ছেন যে, অচিরেই আমাদেরকে আবার জীবিত করা হবে ৷ কিন্তু
মৃতদের বিচুর্ণ হাড় ও মাথার খুলি কীভাবে জীবন লাভ করতে পারে ?

ইমাম বুখারী তার সহীহ্ গ্রন্থে এই কাসীদার কিছু অংশ উদ্ধৃত করেছেন যাতে কবির
মানসিকতা প্রকাশ পায় ৷

উমাইয়া ইবন আবুসৃ সালতের কবিতা

ইবন ইসহাক বলেন : বদর যুদ্ধে নিহত কুরায়শদের জন্যে শোক প্রকাশ করে উমাইয়া
ইবন আবুস সালত নিম্নের কাসীদাটি আবৃত্তি করেন :

১া৷

(অর্থ ৪) কেন তুমি র্কাদছো না সস্রান্ত পরিবারের স্ন্তুাম্ভ সন্তানদের জন্যে যারা প্রশংসা
পাওয়ার অধিকারী ৷

যেমন কেদে থাকে কবুতর বৃক্ষের ঝুলন্ত তালে বসে

পুঞ্জীভুত যস্ত্র০া৷য় সে কাদতে থাকে এবং সন্ধ্যাকালে অন্যান্য প্রত্যাবর্তাজ্বকারীদের সাথে
সেও প্রত্যাবর্তন করে ৷



Execution time: 0.03 render + 0.00 s transfer.