Login | Register

ফতোয়া: জাকাত

ফতোয়া নং: ৬৭৯০
তারিখ: ২৭/১০/২০১৭
বিষয়: জাকাত

আমার ফুফু যাকাত গ্রহণের উপযুক্ত। আমার আব্বাও তাদেরকে আর্থিক সহযোগিতা...

প্রশ্ন

আমার ফুফু যাকাত গ্রহণের উপযুক্ত। আমার আব্বাও তাদেরকে আর্থিক সহযোগিতা করে আসছেন। এ বছর আব্বার ইচ্ছা ছিল, আব্বার যাকাতের টাকা তাদেরকে দিবেন। কিন্তু আব্বার এক বন্ধু বললেন, আপন বোনকে তো যাকাত দেওয়া যাবে না। তাই আব্বা আর তাদেরকে যাকাত দেননি। এখন আমার জানার বিষয় হল, ঐ লোকের কথা কি ঠিক? আপন বোনকে কি যাকাত দেওয়া যায় না?

উত্তর

ঐ লোকের কথা ঠিক নয়। আপনার ফুফু যাকাত গ্রহণের উপযুক্ত হলে আপনার আব্বা তাকে যাকাতের টাকা দিতে পারবেন।

যুবাইদ রাহ. বলেন, আমি ইবরাহীম নাখায়ী রাহ.-কে জিজ্ঞাসা করলাম, আপন বোনকে কি যাকাত দেওয়া যায়? তিনি বললেন, হাঁ। -মুসান্নাফ ইবনে আবী শাইবা, হাদীস ১০৬৪০

এ ধরনের আত্মীয়-স্বজন যাকাত গ্রহণের উপযুক্ত হলে তারাই বেশি হকদার এবং তাদেরকে দেওয়া বেশি সওয়াব। তাবেয়ী যাহহাক রাহ. বলেন, যদি তোমার অভাবী আত্মীয়-স্বজন থাকে তবে তারাই তোমার যাকাতের বেশি হকদার।

-প্রাগুক্ত, হাদীস ১০৬৩৯; কিতাবুল আছল ২/১২৪; আলবাহরুর রায়েক ২/২৪৩; ফাতাওয়া হিন্দিয়া ১/১৯০; খুলাসাতুল ফাতাওয়া ১/২৪২

উত্তর দিয়েছেন : মাসিক আল-কাওসার
ফতোয়া নং: ৬৭৮৯
তারিখ: ২৭/১০/২০১৭
বিষয়: জাকাত

জনৈক ব্যক্তির উপর দশ হাজার টাকা যাকাত ওয়াজিব হয়েছে। সে...

প্রশ্ন

জনৈক ব্যক্তির উপর দশ হাজার টাকা যাকাত ওয়াজিব হয়েছে। সে এই টাকা দিয়ে কিতাব ক্রয় করে মাদরাসার কুতুবখানায় ওয়াকফ করতে চায়। এর মাধ্যমে কি তার যাকাত আদায় হবে?

উত্তর

কোনো প্রতিষ্ঠানে যাকাতের নিয়তে কিতাব ক্রয় করে দিলে তা দ্বারা যাকাত আদায় হবে না। কেননা, যাকাত আদায়ের জন্য উপযুক্ত ব্যক্তিকে যাকাতের মালিক বানিয়ে দেওয়া আবশ্যক। তাই ব্যক্তিকে মালিক না বানিয়ে প্রতিষ্ঠানে ওয়াকফ করলে তা দ্বারা যাকাত আদায় হবে না।

প্রকাশ থাকে যে, মাদরাসায় দ্বীনী কিতাবাদি কিনে দেওয়া অনেক বড় সওয়াবে কাজ। এটি সদকা জারিয়ার অন্তর্ভুক্ত। এতে দ্বীন প্রচার-প্রসার করা ও দ্বীনী কাজে সহযোগিতা করার সওয়াব হয়। এসব কাজ যাকাত-ফিতরার মাল ছাড়া নফল দান-সদকা থেকে করতে হয়। সামর্থ্যবান মুসলমানের উপর এসব দ্বীনী কাজে সহায়তা করা কর্তব্য।

-আলমাবসূত, সারাখসী ২/২০২, ১২/১৭; খুলাসাতুল ফাতাওয়া ১/৪৪৩; ফাতাওয়া ওয়ালওয়ালিজিয়া ১/১৮০; বাদায়েউস সানায়ে ২/১৪২, রদ্দুল মুহতার ২/৩৪৪

উত্তর দিয়েছেন : মাসিক আল-কাওসার
ফতোয়া নং: ৬৭৬৪
তারিখ: ২৭/১০/২০১৭
বিষয়: জাকাত

আমার কাছে এক লক্ষ টাকা আছে, যা আমার খোরপোষের বাইরে।...

প্রশ্ন

আমার কাছে এক লক্ষ টাকা আছে, যা আমার খোরপোষের বাইরে। ঐ টাকার উপর কি যাকাত ফরয হবে? আর ফরয হলে কত টাকা আদায় করতে হবে? জানিয়ে উপকৃত করবেন।

উত্তর

হাঁ, এক বছর অতিক্রান্ত হওয়ার পর এ থেকে আপনার মালিকানায় যা থাকবে এবং অন্যান্য যাকাতযোগ্য সম্পদসহ সবগুলোর উপর যাকাত ফরয। আর যাকাত দিতে হবে ২.৫% হিসাবে যেমন,এক লক্ষ টাকায় দুই হাজার পাঁচ শত টাকা।

-আলমুহীতুল বুরহানী ৩/১৫৬; ফাতাওয়া তাতারখানিয়া ৩/১৩৩; খুলাসাতুল ফাতাওয়া ১/২৩৫; ফাতাওয়া খানিয়া ১/২৪৫; আদ্দুররুল মুখতার ২/২৫৯; রদ্দুল মুহতার ২/৩০০

উত্তর দিয়েছেন : মাসিক আল-কাওসার
ফতোয়া নং: ৬৬৯৭
তারিখ: ২৭/১০/২০১৭
বিষয়: জাকাত

ক) যে ব্যক্তির উপার্জন হালাল-হারাম মিশ্রিত হয় আর সে কাউকে...

প্রশ্ন

ক) যে ব্যক্তির উপার্জন হালাল-হারাম মিশ্রিত হয় আর সে কাউকে কোনো কিছু হাদিয়া দেওয়ার সময় আমি এ হাদিয়াটি আমার হালাল উপার্জন হতে দিচ্ছি,Ñ এ কথা উল্লেখ না করে তাহলে কি এ হাদিয়াটি তার হালাল উপার্জন থেকে দিয়েছে এরূপ ধরে তা গ্রহণ করা এবং ব্যবহার করা যাবে?

খ) উপরোক্ত শ্রেণীর ব্যক্তিদের হাদিয়া কেউ কবুল করার পর হাদিয়া গ্রহিতা তা কিছুদিন ব্যবহার করে অথবা ব্যবহার না করেই অন্যকে আবার যদি তা হাদিয়া দিয়ে দেয় তাহলে দ্বিতীয় ব্যক্তির জন্য এই হাদিয়া গ্রহণ করা জায়েয হবে কি?

উত্তর

ক) হারাম মাল থেকে হাদিয়া দিলে তা গ্রহণ করা জায়েয হবে না। আর যার উপার্জন হালাল-হারাম মিশ্রিত সে কোনো কিছু হাদিয়া দিলে তা হালাল মাল থেকে দিয়েছে বলে জানা গেলে তা নেওয়া বৈধ হবে। হারাম মাল থেকে দিয়েছে জানা গেলে তা গ্রহণ করা বৈধ হবে না। আর যদি হাদিয়া কোন মাল থেকে দিয়েছে তা জানা না যায় তাহলে এক্ষেত্রে তার অধিকাংশ উপার্জন হালাল হলে উক্ত হাদিয়া গ্রহণ করা যাবে। আর যদি তার অধিকাংশ উপার্জন হালাল না হয়ে থাকে তাহলে তার হাদিয়া গ্রহণ করা যাবে না। Ñমাবসূত, সারাখসী ১০/১৯৭; খুলাসাতুল ফাতাওয়া ৪/৩৪৮; ফাতাওয়া খানিয়া ৩/৪০০; আলমুহীতুল বুরহানী ৮/৭৩

খ) উপরোক্ত ক্ষেত্রসমূহে যাদের থেকে হাদিয়া গ্রহণ করা হারাম তাদের থেকে কেউ হাদিয়া গ্রহণে করে ফেললে তা নিজে ব্যবহার করতে পারবে না; বরং যাকাত গ্রহণের উপযুক্ত কোনো ব্যক্তিকে সদকা করে দিতে হবে। তা কোনো সামর্থ্যবানকে দেওয়া যাবে না। সামর্থ্যবান কাউকে দিলে সে যদি জানে যে, এটা হারাম তাহলে তার জন্য তা গ্রহণ করা জায়েয হবে না। Ñসূরা তাওবা : ৬০; রদ্দুল মুহতার ৫/৯৮; আলআশবাহ ওয়ান নাযাইর ৪/৫০

উত্তর দিয়েছেন : মাসিক আল-কাওসার
ফতোয়া নং: ৬৬৮৭
তারিখ: ২৭/১০/২০১৭
বিষয়: জাকাত

ঢাকায় তিন কাঠা পরিমাণ আমার একটি জমি আছে। বাড়ি বানানোর...

প্রশ্ন

ঢাকায় তিন কাঠা পরিমাণ আমার একটি জমি আছে। বাড়ি বানানোর জন্য আমি তা কিনেছিলাম পরে আমি তা ডেভেলপার কোম্পানিকে দিয়ে দেই। কোম্পানির সাথে আমার এই মর্মে চুক্তি হয়েছে, কোম্পানি ৭ তলা বিশিষ্ট একটি এপার্টম্যান্ট নির্মাণ করবে। নির্মিত ভবন ও গ্যারেজের ৫০% মালিক হব আমি আর বাকি ৫০% মালিক হবে কোম্পানি। পাশাপাশি কোম্পানি কাঠা প্রতি ৫ লক্ষ টাকা করে মোট ১৫ লক্ষ টাকা সাইনিং মানি দিবে। এই টাকা তিন কিস্তিতে পরিশোধ করবে বলে চুক্তিতে উল্লেখ রয়েছে। ইতিমধ্যে কোম্পানি দুই কিস্তিতে ১০ লক্ষ টাকা পরিশোধ করেছে। আর ৩য় কিস্তি গত ১৫/১২/২০১৩ তারিখে প্রদান করার কথা চুক্তিতে উল্লেখ ছিল। কিন্তু এত দিন অতিবাহিত হওয়া সত্তে¡ও কোম্পানি সেই কিস্তি (৫ লক্ষ টাকা) পরিশোধ করেনি। টাকা পরিশোধের জন্য বারবার অবগত করা হলে কোম্পানির চেয়ারম্যান দেশের চলমান পরিস্থিতি, ব্যবসার মন্দা ইত্যাদি ওযর পেশ করে এবং অতি শীঘ্রই তা পরিশোধের ওয়াদা করে। কিন্তু এখন পর্যন্ত সেই টাকা পরিশোধ করেনি।

আমার জানার বিষয় হল, প্রতি বছর মার্চ মাসে আমার যাকাতবর্ষ শুরু হয়। তখন আমি যাকাতযোগ্য সম্পদের হিসাব করে যাকাত নির্ধারণ করে থাকি। সুতরাং বর্তমানে আমাকে কি উক্ত ৫ লক্ষ টাকারও যাকাত দিতে হবে, যা এখনো আমার হস্তগত হয়নি?

উত্তর

না, ঐ ৫ লক্ষ টাকা হস্তগত করার পূর্বে আপনাকে এর যাকাত দিতে হবে না। বরং ঐ টাকা হস্তগত হওয়ার পর তা আপনার যাকাতযোগ্য সম্পদ বলে বিবেচিত হবে এবং এরপর থেকে এর যাকাত আদায় করতে হবে।

Ñশরহু মুখতাসারিত তাহাবী ২/৩৪১, রদ্দুল মুহতার ২/৩০৬; আততাজরীদ ৩/১১৬৬

উত্তর দিয়েছেন : মাসিক আল-কাওসার
ফতোয়া নং: ৬৬৫৯
তারিখ: ২৭/১০/২০১৭
বিষয়: জাকাত

আমি একজন গৃহিণী। আমার প্রায় বারো ভরি স্বর্ণ আছে। যা...

প্রশ্ন

আমি একজন গৃহিণী। আমার প্রায় বারো ভরি স্বর্ণ আছে। যা আমার বিবাহের মোহরানা ও পিতামাতার কাছ থেকে উপহার স্বরূপ পাওয়া। আর আমার স্বামীর আয় খুবই সীমিত। যা দিয়ে সংসারের খরচাদি ও অন্যান্য প্রয়োজন পূর্ণ করার পরে আয়ের টাকা থেকে কিছুই অবশিষ্ট থাকে না। আর আমাকে হাত খরচ হিসেবে যা দেওয়া হয় তাও প্রয়োজনের অতিরিক্ত নয়। এদিকে আমার স্বামীর উপর বর্তমানে অনেক ঋণ আছে। ইত্যাদি কারণে আমি আমার উল্লেখিত স্বর্ণের যাকাত আদায় করতে অক্ষম।

উল্লেখ্য, এই বারো ভরি স্বর্ণ যার বিবরণ উপরে উল্লেখিত হল তা আমি আমার সন্তানদের মালিক বানিয়ে দেওয়ার নিয়ত করেছি। সন্তানরা এখনো নাবালেগ রয়েছে। তাই প্রশ্ন হল, ৭.৫ ভরি স্বর্ণ আমি নিজের জন্য রেখে বাকি স্বর্ণগুলোকে এই নাবালেগ সন্তানদের মালিক বানিয়ে দিলে যাকাতের হিসাবটা আমি কীভাবে করব? বিস্তারিতভাবে জানালে উপকৃত হব।

উত্তর

যাকাত ইসলামের অন্যতম রোকন। পাঁচ স্তম্ভের একটি। এবং যাকাত সম্পদের হক। কারো কাছে নেসাব পরিমাণ সম্পদ থাকার পরও যাকাত আদায় না করা বা আদায় না করার জন্য হীলা-বাহানা খোঁজ করা অথবা আদায় করতে গড়িমসি করা সবটাই অত্যন্ত গর্হিত কাজ। আপনি যাকাত আদায়ে অসামর্থ্যরে কথা লিখেছেন। কিন্তু শরীয়ত তো সম্পদের অংশ বিশেষ দ্বারাই যাকাত দিতে বলেছে। যেমন আপনার কাছে স্বর্ণ আছে, আপনি তার ২.৫০% যাকাত হিসেবে আদায় করবেন। অন্য কোনো সম্পদ বা টাকা তো আদায় করতে হবে না। হাঁ, আপনি চাইলে সোনার বদলে সমমূল্যের টাকাও দিতে পারেন।

তাই নিজের কাছে ১২ ভরি সোনা থাকার পরও অসামর্থ্যরে প্রশ্ন আসে না।

উল্লেখ্য যে, নাবালেগ সন্তানদের কিছু স্বর্ণ দিয়ে দেওয়ার ইচ্ছা ব্যক্ত করেছেন বাস্তবেই যদি তাদেরকে ঐ পরিমাণ একেবারেই দিয়ে দেন এবং এরপর আপনার কাছে যদি ৭.৫ তোলা স্বর্ণ থাকে তবে তখনও আপনার উপর যাকাত ফরয হবে। তবে যদি ৭.৫ তোলার কম স্বর্ণ থাকে এবং অন্য কোনো যাকাতযোগ্য সম্পদ না থাকে (যার দ্বারা আপনার যাকাতের নেসাব পূর্ণ হতে পারে) তাহলে সেক্ষেত্রে আপনি নেসাবের মালিক না থাকার কারণে আপনার উপর যাকাত ফরয হবে না।

কিন্তু যাকাত থেকে বাঁচার জন্য বাহানা হিসেবে এমনটি করা যাবে না। সন্তানদেরকে বাস্তবেই মালিক বানিয়ে দিলে তারা মালিক হয়ে যাবে। তখন আর তাতে আপনার কোনো অধিকার থাকবে না। কিন্তু শুধু যাকাতের ভয়ে নামেমাত্র মালিকানা দিলে যাকাত মাফ হবে না।

-সুনানে আবু দাউদ, হাদীস ১৫৬৭; কিতাবুল আছল ২/৯১; শরহুল মাজাল্লাহ, মাদ্দাহ : ৮৫১

উত্তর দিয়েছেন : মাসিক আল-কাওসার
ফতোয়া নং: ৬৬৪০
তারিখ: ২৭/১০/২০১৭
বিষয়: জাকাত

আমি একজন ব্যবসায়ী। আমার দোকানে ব্যবসার পণ্য আছে প্রায় দশ...

প্রশ্ন

আমি একজন ব্যবসায়ী। আমার দোকানে ব্যবসার পণ্য আছে প্রায় দশ লক্ষ টাকার। আমি যথাসম্ভব নগদেই বিক্রি করে থাকি। কিন্তু ব্যবসার খাতিরে অনেক সময় বাকিও দিতে হয়। এভাবে মানুষের কাছে আমার প্রায় সত্তর-আশি হাজার টাকা বাকি আছে। আমার প্রশ্ন হল, যাকাতবর্ষ শেষ হলে ঐ বাকি টাকারও কি যাকাত দিতে হবে?

উত্তর

হাঁ, মানুষের নিকট পাওনা টাকাও যাকাতযোগ্য সম্পদ। তবে বকেয়া টাকা হস্তগত হওয়ার পূর্বে তার যাকাত আদায় করা আবশ্যক নয়। তাই আপনি চাইলে টাকাগুলো হস্তগত হওয়ার পরও যাকাত আদায় করতে পারবেন। সেক্ষেত্রে পিছনের বছরগুলোর হিসাব করে সেগুলোর যাকাত দিতে হবে।

-আলমাবসূত, সারাখসী ২/১৯৫; বাদায়েউস সানায়ে ২/৯০; আলবাহরুর রায়েক ২/২০৭-২০৮; আদ্দুররুল মুখতার ২/৩০৫

উত্তর দিয়েছেন : মাসিক আল-কাওসার
ফতোয়া নং: ৬৬৩৯
তারিখ: ২৭/১০/২০১৭
বিষয়: জাকাত

গত মুহাররমের ৭ তারিখে আমার এক আত্মীয় সড়ক দুর্ঘটনায় ইন্তেকাল...

প্রশ্ন

গত মুহাররমের ৭ তারিখে আমার এক আত্মীয় সড়ক দুর্ঘটনায় ইন্তেকাল করেন। তার উপর যাকাত ফরয ছিল। তার যাকাত-বর্ষের তারিখ ছিল ১ মুহাররম। প্রতি বছর তিনি হিসাব করেই যাকাত আদায় করতেন। কিন্তু এবার আর সে সুযোগ তার হয়নি এবং তিনি এ ব্যাপারে কোনো অসিয়ত করেননি।

এখন তার পরিবারের পক্ষ থেকে জানার বিষয় হল, তাদেরকে কি মৃতের রেখে যাওয়া সম্পদ থেকে তার অনাদায়ী যাকাত আদায় করতে হবে, নাকি তার যাকাতের টাকাও অন্যান্য সম্পদের মতো মীরাছ হিসেবে বণ্টিত হবে?

উত্তর

প্রশ্নোক্ত ক্ষেত্রে মৃত ব্যক্তি যেহেতু তার যাকাত আদায়ের অসিয়ত করেননি তাই তার পরিত্যক্ত সম্পদ থেকে যাকাত আদায় করা জায়েয হবে না; বরং তার পরিত্যক্ত পুরো সম্পদই মীরাছ হিসেবে ধর্তব্য হবে। অবশ্য ঐ ব্যক্তির বালেগ ওয়ারিশগণ নিজেদের অংশ থেকে তার অনাদায়ী যাকাত দিয়ে দিলে তারা সওয়াবের অধিকারী হবে এবং মৃত ব্যক্তিও এর দ্বারা উপকৃত হবে ইনশাআল্লাহ। আর এক্ষেত্রে যদি সকল ওয়ারিশ বালেগ হয় এবং তারা প্রত্যেকেই স্বতঃস্ফ‚র্তভাবে কাজটি করতে চায় তাহলে ইজমালি সম্পদ থেকেও কাজটি সমাধা করতে পারবে।

-শরহু মুখতাসারিত তহাবী ২/৩৫৭; বাদায়েউস সানায়ে ২/১৬৮; আদ্দুররুল মুখতার ২/২৯৪; আলমাবসূত, সারাখসী ২/১৮৫, ১৮৬; দুরারুল হুককাম ১/১৭৯

উত্তর দিয়েছেন : মাসিক আল-কাওসার
ফতোয়া নং: ৬৫৮৩
তারিখ: ২৭/১০/২০১৭
বিষয়: জাকাত

আমার কাছে এক লক্ষ টাকা আছে, যা আমার খোরপোষের বাইরে।...

প্রশ্ন

আমার কাছে এক লক্ষ টাকা আছে, যা আমার খোরপোষের বাইরে। এখন আমার উপর কি যাকাত ফরয হবে? আর ফরয হলে কত টাকা আদায় করতে হবে? জানিয়ে উপকৃত করবেন।

উত্তর

হাঁ, এক বছর অতিক্রান্ত হওয়ার পর ঐ এক লক্ষ টাকার উপর যাকাত ফরয হবে। আর যাকাত দিতে হবে ২.৫০% হিসাবে এক লক্ষ টাকায় দুই হাজার পাঁচ শত টাকা।

-আলমুহীতুল বুরহানী ৩/১৫৬; ফাতাওয়া তাতারখানিয়া ৩/১৫৪-১৫৫; খুলাসাতুল ফাতাওয়া ১/২৩৭; ফাতাওয়া খানিয়া ১/২৪৯;

উত্তর দিয়েছেন : মাসিক আল-কাওসার
ফতোয়া নং: ৬৫৬২
তারিখ: ২৭/১০/২০১৭
বিষয়: জাকাত

আমার নিকট নগদ কোনো টাকা নেই। কেবল বিয়ের সময় মহর...

প্রশ্ন

আমার নিকট নগদ কোনো টাকা নেই। কেবল বিয়ের সময় মহর এবং উপঢৌকন হিসেবে পাওয়া তিন ভরি স্বর্ণ আছে। আর আমার ভাইয়ের পক্ষ থেকে দেওয়া একটি পাথর সেট আছে। এটি অনেক দামি পাথর দ্বারা তৈরি, যার মূল্য প্রায় ৪০ হাজার টাকা। এছাড়া যাকাতযোগ্য আর কোনো সম্পদ আমার নেই। হুজুরের নিকট জানতে চাই যে, এ অবস্থায় আমার উপর যাকাত ফরয কি না?

উত্তর

ব্যবহৃত পাথর দামি হলেও তার উপর যাকাত আসে না। তাই আপনার উক্ত পাথর সেটের উপর যাকাত আসবে না। সুতরাং আপনার নিকট যদি বাস্তবেই তিন ভরি স্বর্ণ ছাড়া যাকাতযোগ্য অন্য কোনো সম্পদ (তথা নগদ টাকা, রূপা বা ব্যবসার পণ্য) না থাকে তাহলে শুধু ঐ স্বর্ণের কারণে আপনার উপর যাকাত ফরয হবে না। কেননা শুধু স্বর্ণের উপর যাকাত ফরয হওয়ার জন্য সাড়ে সাত ভরি স্বর্ণের মালিক হতে হবে। এরচেয়ে কম স্বর্ণ থাকলে এবং যাকাতযোগ্য অন্য

কোনো সম্পদ (যেমন, নগদ টাকা, রূপা বা ব্যবসার পণ্য) না থাকলে যাকাত ফরয হবে না।

-মুসান্নাফে ইবনে আবী শাইবা, হাদীস : ৯৯৬৬, ১০১৬৩; আলমুহীতুল বুরহানী ৩/১৫৬; রদ্দুল মুহতার ২/২৯৭; আলবাহরুর রায়েক ২/২২৬, ২/২২৭; ফাতাওয়া তাতারখানিয়া ৩/১৫৪; ফাতাওয়া হিন্দিয়া ১/১৭৮, ১/১৮০; বাদায়েউস সানায়ে ২/১০৫; আদ্দুররুল মুখতার ২/২৭৩; দুরারুল হুককাম ফী শরহি গুরারিল আহকাম ১/১৭৫

উত্তর দিয়েছেন : মাসিক আল-কাওসার
ফতোয়া নং: ৬৫৬১
তারিখ: ২৭/১০/২০১৭
বিষয়: জাকাত

আমি একজন চাকরিজীবী। গত বছরের শুরুর দিকে আমার কাছে যাকাতের...

প্রশ্ন

আমি একজন চাকরিজীবী। গত বছরের শুরুর দিকে আমার কাছে যাকাতের নেসাব পরিমাণ সম্পদ ছিল। দু’তিন মাস পর আমার ছেলে গাড়িতে এক্সিডেন্ট করে। তখন তার চিকিৎসার পিছনে আমার সব টাকা খরচ হয়ে যায়। আরো কিছু টাকা ঋণও করতে হয়। পরবর্তীতে আবার আল্লাহর রহমতে নেসাবের চেয়েও বেশি টাকা-পয়সার মালিক হয়ে যাই।

শুনেছি, যাকাত ফরয হওয়ার জন্য নাকি বছরের শুরু আর শেষে নেসাব পরিমাণ সম্পদ থাকা যথেষ্ট। পুরো বছর থাকা জরুরি নয়। তাহলে উক্ত অবস্থায় বছরের শুরু-শেষ নেসাবের মালিক হওয়ার কারণেই কি আমার উপর যাকাত ফরয হয়ে গেছে?

উত্তর

প্রশ্নোক্ত ক্ষেত্রে আপনার নিকট তখন যদি টাকা-পয়সা ছাড়া যাকাতযোগ্য আর কোনো সম্পদ না থেকে থাকে তাহলে আপনার উপর গত বছরের যাকাত ফরয হয়নি। কারণ বছরের মাঝে কিছু সময় আপনার কাছে যাকাতযোগ্য কোনো সম্পদই ছিল না। অথচ যাকাত ফরয হওয়ার জন্য বছরের শুরু-শেষ নেসাবের মালিক হওয়ার সাথে সাথে পুরো বছর অল্প হলেও প্রয়োজন অতিরিক্ত যাকাতযোগ্য সম্পদ থাকা জরুরি। বছরের মাঝখানে কখনো যাকাতযোগ্য সম্পদ সম্পূর্ণ শেষ হয়ে গেলে ঐ বছরের হিসাবও বাদ হয়ে যায়।

সুতরাং প্রশ্নোক্ত ক্ষেত্রে আপনাকে গত বছরের যাকাত দিতে হবে না। এক্ষেত্রে আপনি যখন থেকে পুনরায় নেসাবের মালিক হয়েছেন তখন থেকে নতুন করে যাকাতবর্ষ গণনা শুরু করতে হবে।

-বাদায়েউস সানায়ে ২/৯৮; রদ্দুল মুহতার ২/৩০২; ফাতাওয়া তাতারখানিয়া ৩/১৮১

উত্তর দিয়েছেন : মাসিক আল-কাওসার
ফতোয়া নং: ৬৫৩৬
তারিখ: ২৭/১০/২০১৭
বিষয়: জাকাত

আমাদের বাসা ক্যান্টনমেন্টে। গাজীপুরে আমাদের একটি পাঁচতলা বাড়ি আছে। আমরা...

প্রশ্ন

আমাদের বাসা ক্যান্টনমেন্টে। গাজীপুরে আমাদের একটি পাঁচতলা বাড়ি আছে। আমরা সেটি ভাড়া দেই। আমাদের ঐ বাড়ির উপর কি যাকাত দিতে হবে?

উত্তর

না, ঐ বাড়ির মূল্যের উপর যাকাত দিতে হবে না। তবে ঐ বাড়ি থেকে প্রাপ্ত ভাড়া বছর শেষে নেসাব পরিমাণ হলে তার যাকাত দিতে হবে।

-ফাতাওয়া খানিয়া ১/২৫৩; হাশিয়াতুত তাহতাবী আলাদ্দুর ১/৩৯২

উত্তর দিয়েছেন : মাসিক আল-কাওসার
ফতোয়া নং: ৬৫৩৫
তারিখ: ২৭/১০/২০১৭
বিষয়: জাকাত

আমি ও আমার স্ত্রী উভয়েই নেসাবের মালিক। আমার শ্বশুর অনেক...

প্রশ্ন

আমি ও আমার স্ত্রী উভয়েই নেসাবের মালিক। আমার শ্বশুর অনেক সম্পদের মালিক ছিলেন। কিন্তু তার সৎ ভাইয়েরা জালিয়াতি করে সব সম্পদ লুটে নেয়। পরবর্তীতে মামলা মোকদ্দমা করেও তার কোনো সুরাহা হয়নি। এ অবস্থায় আমার শ্বশুর ইন্তেকাল করেন। তার মৃত্যুর পর পরিবারটি বেশ আর্থিক ক্ষতির সম্মুখীন হয়। বাড়ির ভিটা ছাড়া কোনো সম্পদই তার অবশিষ্ট নেই। পরিবারের বর্তমান সদস্য সংখ্যা ৮ জন। এদের মধ্যে ৫ জন প্রাপ্ত বয়স্ক বাকি ৩ জন অপ্রাপ্তবয়স্ক। বড় ছেলে স্বল্প বেতনে শিক্ষকতা করে এবং মাত্র এক হাজার টাকা পরিবারে খরচ হিসেবে দেয়। বড় দুই মেয়ের বিয়ে হয়েছে। তাদের অবস্থা ভাল। আমার শ্বশুরের আত্মীয়স্বজন আর্থিকভাবে অস্বচ্ছল। তারা আমার শ্বশুর বাড়িতে নির্দিষ্ট সময় বিশেষ করে দুই ঈদে তাদের আর্থিকভাবে সহায়তা করে থাকে। সাহায্যের ধরন থেকে স্পষ্ট বোঝা যায় যে, তাদেরকে যাকাতের টাকা দ্বারা সাহায্য করা হয়।

আমার জানার বিষয় হল, আমরা যেহেতু উভয়েই নেসাবের মালিক তাই আমাদের জন্য শ্বশুর বাড়ির খাবার-দাবার কি বৈধ? সেখান থেকে আমাদেরকে কোনো কিছু দিলে তা নেওয়া যাবে কি? যদি না হয় তাহলে আমরা যদি সেখানে বেড়াতে যাই তখন আমাদের করণীয় কী?

উত্তর

প্রশ্নের বিবরণ অনুযায়ী আপনার শ্বশুর বাড়ির লোকজনের জন্য যাকাত গ্রহণ করা জায়েয। তারা যাকাত হস্তগত করার পর এ থেকে আপনাদেরকে কোনো কিছু হাদিয়া দিলে কিংবা দাওয়াত করে খাওয়ালে তা গ্রহণ করা জায়েয হবে। কেননা যাকাত গ্রহণের যোগ্য ব্যক্তি যাকাত হস্তগত করার পর তা তার নিজস্ব মাল হয়ে যায়। তা যাকাতের মালের হুকুমে থাকে না। অতএব তারা নিজেদের অন্যান্য সম্পদের মতো এই টাকা থেকেও ধনী-গরিব যে কাউকে দাওয়াত দিতে পারবে এবং ধনীদের জন্য তা গ্রহণ করা বৈধ হবে।

-সহীহ বুখারী, হাদীস : ৫০৯৭; ফাতহুল বারী ৫/২৪৩; শরহুল মাজাল্লাহ, মাদ্দাহ : ৯৮; ফাতাওয়া তাতারখানিয়া ৩/২০৩; উমদাতুল কারী ৯/৯২; বাযলুল মাজহূদ ৮/১৯৮; আলইসতিযকার ৫/৭৪; মানাসিক ৩৯৩

উত্তর দিয়েছেন : মাসিক আল-কাওসার
ফতোয়া নং: ৬৫৩৪
তারিখ: ২৭/১০/২০১৭
বিষয়: জাকাত

আমার খালাম্মার গয়নাগাটিসহ প্রায় পাঁচ লক্ষ টাকার যাকাতযোগ্য সম্পদ আছে...

প্রশ্ন

আমার খালাম্মার গয়নাগাটিসহ প্রায় পাঁচ লক্ষ টাকার যাকাতযোগ্য সম্পদ আছে এবং সেই সাথে আরো এক লক্ষ টাকা মোহর বাবদ খালুর কাছে পাওনা আছে। আমার প্রশ্ন হল, খালাম্মা যখন যাকাত আদায় করবেন তখন কি মোহরের ঐ এক লক্ষ টাকারও যাকাত আদায় করতে হবে?

উত্তর

না, আপনার খালাম্মা মহরের যে এক লক্ষ টাকা এখনো পাননি সে টাকার যাকাত তাকে এখন আদায় করতে হবে না। মহরের টাকা হসত্মগত হওয়ার পূর্বে ঐ টাকার উপর যাকাত আসে না।

-আলমাবসূত, সারাখসী ২/১৯৫; আদ্দুররুল মুখতার ২/৩০৬; ফাতাওয়া হিন্দিয়া ১/১৭২; বাদায়েউস সানায়ে ২/৯০; আলবাহরুর রায়েক ২/২০৭

উত্তর দিয়েছেন : মাসিক আল-কাওসার
ফতোয়া নং: ৬৫২৮
তারিখ: ২৭/১০/২০১৭
বিষয়: জাকাত

এক ব্যক্তির তিন মেয়ে দুই ছেলে। তাদের মধ্যে এক ছেলে...

প্রশ্ন

এক ব্যক্তির তিন মেয়ে দুই ছেলে। তাদের মধ্যে এক ছেলে পড়াশোনা করে। ছেলে হল বালেগ। আমার প্রশ্ন হল, ঐ ব্যক্তির নগদ ২ লক্ষ টাকা আছে। সে জানে তার উপর যাকাত ওয়াজিব হয়েছে। টাকাগুলো ২ বছর তার অধীনে আছে। সে যাকাতের টাকাগুলো তার ঐ ছেলের পিছনে খরচ করতে চাচ্ছে। এটা কী বৈধ হবে? জানিয়ে বাধিত করবেন।

উত্তর

সন্তানাদিকে যাকাত দেওয়া জায়েয নয়। সন্তান বালেগ হলেও সে পিতামাতার যাকাত গ্রহণ করতে পারবে না। তাই সন্তানকে যাকাতের টাকা দিলে বা তার পড়ালেখার পেছনে এ টাকা খরচ করলে যাকাত আদায় হবে না।

-আল মুহীতুল বুরহানী ৩/২১২; আদ্দুররুল মুখতার ২/৩৪৬

উত্তর দিয়েছেন : মাসিক আল-কাওসার
ফতোয়া নং: ৬৫০৪
তারিখ: ২৭/১০/২০১৭
বিষয়: জাকাত

আমার এক বোন তার স্বামী থেকে মহর হিসাবে দেড় লক্ষ...

প্রশ্ন

আমার এক বোন তার স্বামী থেকে মহর হিসাবে দেড় লক্ষ টাকা পাবে। কিন্তু তার স্বামী গরীব হওয়ার কারণে মহর আদায় করতে পারছে না। জানার বিষয় হল, আমার ঐ বোনকে কি যাকাত দেওয়া জায়েয হবে?

উত্তর

আপনার ঐ বোনের নিকট প্রয়োজন অতিরিক্ত কোনো সম্পদ কিংবা সোনা-রূপার অলংকারাদী নেসাব পরিমাণ না থাকলে তাকে যাকাত দেয়া জায়েয হবে এবং এক্ষেত্রে তাকে যাকাত দেওয়ার কারণে যাকাত আদায়ের পাশাপাশি আত্মীয়কে সহায়তা করারও সওয়াব হবে।

-আলমুহীতুল বুরহানী ৩/২১৮; ফাতাওয়া তাতারখানিয়া ৩/২১০; রদ্দুল মুহতার ২/৩৪৪

উত্তর দিয়েছেন : মাসিক আল-কাওসার
ফতোয়া নং: ৬৪৭০
তারিখ: ২৭/১০/২০১৭
বিষয়: জাকাত

আমার আববা বৃদ্ধ হওয়ার কারণে বাড়িতে অবসরে আছেন। পরিবারের সকল...

প্রশ্ন

আমার আববা বৃদ্ধ হওয়ার কারণে বাড়িতে অবসরে আছেন। পরিবারের সকল খরচ আমি বহন করি। আমার ব্যবসায় আববা বা পরিবারের কেউ শরিক নেই। পরিবারের জরুরি খরচ আববার হাতে দেই। আমার ছোট প্রাপ্তবয়ষ্ক দুই ভাই লেখাপড়া করে। জানার বিষয় হল, আমার ঐ দুই ভাইকে তাদের লেখাপড়ার জন্য বিভিন্ন কিতাবাদি ও অন্যান্য যাবতীয় খরচের জন্য কি যাকাতের টাকা দিতে পারব? জানালে উপকৃত হব।

উত্তর

প্রশ্নোক্ত ক্ষেত্রে পরিবারের খরচের পাশাপাশি ছোট ভাইদের জরুরি খরচ বহন করাও আপনার দায়িত্ব। তাই জরুরি খরচ যাকাত থেকে গণ্য করতে পারবেন না। তবে জরুরি খরচ থেকে অতিরিক্ত কোনো অর্থ দরিদ্র ভাইদেরকে প্রদান করলে তা যাকাতের নিয়তে দিতে পারবেন।

-আলবাহরুর রায়েক ২/২৪৩; রদ্দুল মুহতার ২/৩৪৬

উত্তর দিয়েছেন : মাসিক আল-কাওসার
ফতোয়া নং: ৬৪৫১
তারিখ: ২৭/১০/২০১৭
বিষয়: জাকাত

এক বছর আগে আমার আম্মা ইন্তেকাল করেছেন। তাঁর একাউন্টে ১৫...

প্রশ্ন

এক বছর আগে আমার আম্মা ইন্তেকাল করেছেন। তাঁর একাউন্টে ১৫ লক্ষ টাকা আছে। সে টাকা এখনো ব্যাংকেই আছে। ওয়ারিশদের মধ্যে মতানৈক্য দেখা দিয়েছে। তাই কাউকে টাকা না দেওয়ার জন্য ব্যাংকে নোটিশ পাঠানো হয়েছে। তিন মাস আগে একজন ব্যাংক থেকে টাকা আনতে গেলে তারা অসম্মতি জানায় এবং ব্যাংকের পক্ষ থেকে জানানো হয় যে, ব্যাংক নিজেই ওয়ারিশদের মধ্যে তাদের প্রাপ্য অংশ বণ্টন করে দিবে।

জানার বিষয় হল, ঐ টাকার যে অংশ আমি পাব তার কারণে কি আমার উপর বিগত বছরের যাকাত ওয়াজিব হবে?

উত্তর

প্রশ্নোক্ত ক্ষেত্রে ব্যাংক থেকে যেহেতু টাকা দিতে অস্বীকৃতি জানানো হয়েছে এবং ব্যাংকের পক্ষ থেকে তা বণ্টন করে দেওয়ার কথা জানিয়েছে তাই এ পরিস্থিতিতে টাকা না পাওয়া পর্যন্ত তার উপর যাকাত আসবে না এবং বিগত বছরেরও যাকাত দিতে হবে না। বরং ঐ টাকা হাতে আসার পর থেকে তা যাকাতযোগ্য বলে বিবেচিত হবে।

-আলমুহীতুল বুরহানী ৩/২৪৯; রদ্দুল মুহতার ২/২৬৬; ফাতাওয়া খানিয়া ৩/২৫০

উত্তর দিয়েছেন : মাসিক আল-কাওসার
ফতোয়া নং: ৬৪৫০
তারিখ: ২৭/১০/২০১৭
বিষয়: জাকাত

রমযানের ২৫ তারিখে আমার যাকাতের বছর পূর্ণ হয়। আমি সবসময়...

প্রশ্ন

রমযানের ২৫ তারিখে আমার যাকাতের বছর পূর্ণ হয়। আমি সবসময় ২৫ রমযান বা তারপর দু একদিনের মধ্যেই যাকাত আদায় করে থাকি। কিন্তু এ বছর একজন দরিদ্র লোককে রমযানের আগেই যাকাত দিয়ে দিয়েছি। প্রশ্ন হল, যাকাতের বছর পূর্ণ হওয়ার আগে যাকাত দিলে তা আদায় হবে কি? জানালে কৃতজ্ঞ হব।

উত্তর

হ্যাঁ, নেসাব পরিমাণ সম্পদের মালিকের জন্য বছর পূর্ণ হওয়ার আগেও যাকাত আদায় করা জায়েয। সুতরাং প্রশ্নোক্ত ক্ষেত্রে আপনার অগ্রিম যাকাত দেওয়া শুদ্ধ হয়েছে।

-জামে তিরমিযী, হাদীস : ৬৭৮; আলমাবসূত, সারাখসী ২/১৭৬; খুলাসাতুল ফাতাওয়া ১/২৪১; ফাতাওয়া খানিয়া ১/২৬৪; রদ্দুল মুহতার ২/২৯৩

উত্তর দিয়েছেন : মাসিক আল-কাওসার
ফতোয়া নং: ৬৩৯১
তারিখ: ২৭/১০/২০১৭
বিষয়: জাকাত

আমাদের গ্রামের এক ব্যক্তি চাল ব্যবসায়ী। দীর্ঘদিন যাবৎ তার এ...

প্রশ্ন

আমাদের গ্রামের এক ব্যক্তি চাল ব্যবসায়ী। দীর্ঘদিন যাবৎ তার এ ব্যবসা। গত বছর সে ব্যবসায় বড় ধরনের লস খায়। যার কারণে সে অনেক ঋণী হয়ে পড়ে এবং অনেকটাই নিঃস্ব হয়ে পড়ে। পাওনাদারদের টাকা পরিশোধ করার মতো তার কাছে কোনো ব্যবস্থা নেই। এ অবস্থা দেখে তার এক ভাই তাকে সহায়তা করার জন্য সোনালী ব্যাংকে একটি ফিক্সড ডিপোজিট একাউন্ট খুলে। উদ্দেশ্য হল, ডিপেজিট থেকে যে মুনাফা আসবে তার পুরোটাই তাকে দিয়ে দিবে। প্রশ্ন হল উক্ত উদ্দেশ্যে তার এ ডিপোজিট খোলা জায়েয হয়েছে কি?

উত্তর

প্রশ্নে বর্ণিত ফিক্সড ডিপোজিট একাউন্টটি সুদভিত্তিক। এই একাউন্টের আয় সম্পূর্ণ হারাম। এ ধরনের একাউন্ট করলে একে তো সুদী চুক্তি করার গুনাহ হবে। আর অতিরিক্ত গ্রহণ করলে সুদ গ্রহণেরও গুনাহ হবে। এ টাকা নিজে ভোগ না করলেও যেহেতু মূল চুক্তিটি সুদী। তাই ঋণগ্রস্ত ব্যক্তির ঋণ পরিশোধে সহায়তা করার উদ্দেশ্যেও এই একাউন্ট খোলা জায়েয হবে না।

সতুরাং ঋণগ্রস্ত বা দুস্থ-অসহায়কে সহায়তা করার জন্যও এ ধরনের পদক্ষেপ নেওয়া যাবে না। বরং শরীয়তসম্মত কোনো পন্থা অবলম্বন করতে হবে। যেমন দীর্ঘ মেয়াদের জন্য সুদমুক্ত কর্জে হাসান দেওয়া, দান-সদকা করা, যাকাত ইত্যাদির মাধ্যমে সহায়তা করা ইত্যাদি।

-সহীহ মুসলিম, হাদীস : ১৫৯৮; বুহুস ফী কাযায়া ফিকহিয়্যাহ মুআসিরা ১/৩৪২

উত্তর দিয়েছেন : মাসিক আল-কাওসার
ফতোয়া নং: ৬৩৮৫
তারিখ: ২৭/১০/২০১৭
বিষয়: জাকাত

কোন্ কোন্ আত্মীয়কে যাকাত দেওয়া যায়? নানী ও খালাকে কি...

প্রশ্ন

কোন্ কোন্ আত্মীয়কে যাকাত দেওয়া যায়? নানী ও খালাকে কি যাকাত দিতে পারব?

উত্তর

নানীকে যাকাত দেওয়া যাবে না। তদ্রূপ নানা, দাদা-দাদী, পিতা-মাতা, স্বামী-স্ত্রী এবং সন্তানাদি ও তাদের অধস্তনকে যাকাত দেওয়া যাবে না। এরা দরিদ্র হলে সামর্থ্য অনুযায়ী তাদেরকে এমনি সহায়তা করা কর্তব্য।

এছাড়া খালাসহ অন্যান্য আত্মীয়স্বজন যদি যাকাত গ্রহণের উপযুক্ত হয় তবে তাদেরকে যাকাত দেওয়া যাবে এবং এ ধরনের আত্মীয়দেরকে যাকাত দেওয়া অধিক উত্তম।

-মুসান্নাফে ইবনে আবী শাইবা ৬/৫৪৪; কিতাবুল আছল ২/১২৪; ফাতহুল কাদীর ২/২০৯; বাদায়েউস সানায়ে ২/১৪৩; খুলাসাতুল ফাতাওয়া ১/২৪২; আলমুহীতুল বুরহানী ৩/২১২

উত্তর দিয়েছেন : মাসিক আল-কাওসার
ফতোয়া নং: ৬৩৬৫
তারিখ: ২৭/১০/২০১৭
বিষয়: জাকাত

বিয়ের সময় স্বামীর পক্ষ থেকে মহর বাবদ তিন ভরি স্বর্ণ...

প্রশ্ন

বিয়ের সময় স্বামীর পক্ষ থেকে মহর বাবদ তিন ভরি স্বর্ণ পেয়েছি। পিত্রালয় থেকে পেয়েছি আরো এক ভরি স্বর্ণ। বর্তমানে এই চার ভরি স্বর্ণ ছাড়া আমার নিকট রূপা, নগদ টাকা-পয়সা কিংবা ব্যবসায়ী পণ্য কোনোটাই নেই। এই চার ভরি স্বর্ণের মূল্য সাড়ে বায়ান্ন তোলা রূপার মূল্যের চেয়ে অনেক বেশি। তাহলে কি আমাকে রূপার নেসাব ধার্য করে উক্ত স্বর্ণের মূল্য হিসেবে যাকাত দিতে হবে?

উত্তর

স্বর্ণের নেসাব সাড়ে সাত ভরি। স্বর্ণের সাথে যাকাতযোগ্য সম্পদ না থাকলে যাকাত ফরয হওয়ার জন্য সাড়ে সাত ভরি স্বর্ণ থাকা জরুরি। এছাড়া যাকাত ফরয হবে না। সুতরাং আপনার নিকট যেহেতু স্বর্ণের পূর্ণ নেসাব নেই আর যাকাতযোগ্য অন্য সম্পদও নেই তাই আপনাকে ঐ চার ভরি স্বর্ণের যাকাত দিতে হবে না। এক্ষেত্রে চার ভরি স্বর্ণের মূল্য রূপার নেসাবের সমপরিমাণ হলেও যাকাত ফরয হবে না। মূল্য তখন ধর্তব্য হবে যখন স্বর্ণের সাথে রূপা বা নগদ টাকা অথবা ব্যবসার পণ্য থাকে।

-সুনানে আবু দাউদ, হাদীস : ১৫৬৭; ফাতাওয়া তাতারখানিয়া ৩/১৫৪; ফাতাওয়া খানিয়া ১/২৪৯; আলমুহীতুল বুরহানী ৩/১৫৭-১৫৮; বাদায়েউস সানায়ে ২/১০৭; রদ্দুল মুহতার ২/২৯৭

উত্তর দিয়েছেন : মাসিক আল-কাওসার
ফতোয়া নং: ৬৩৬৪
তারিখ: ২৭/১০/২০১৭
বিষয়: জাকাত

আমি আমার যাকাতের অর্থ দিয়ে তিনটি ছাত্রের মাসিক খরচ বহন...

প্রশ্ন

আমি আমার যাকাতের অর্থ দিয়ে তিনটি ছাত্রের মাসিক খরচ বহন করি। তাদের প্রত্যেককে মাসে ২৫০০/- টাকা করে দেই। তিনজনই অপ্রাপ্ত বয়স্ক তবে দুজন বুঝমান, তাদের টাকা আমি তাদের হাতেই দিয়ে দেই। আর একজন হল ছোট বাচ্চা ৬/৭ বছর বয়স। তার টাকা আমি তার হুজুরের কাছে দিয়ে আসি। হুজুর প্রয়োজন মতো তার জন্য খরচ করে। জানতে চাই, এভাবে যাকাতের অর্থ প্রদান করা কি বৈধ হচ্ছে? এর দ্বারা যাকাত আদায় হবে কি?

উত্তর

প্রশ্নোক্ত ক্ষেত্রে বুঝমান দুজনকে সরাসরি যাকাতের অর্থ দিয়ে দেয়া ঠিক আছে। তাদের হাতে পৌঁছার দ্বারাই যাকাত আদায় হয়ে যাবে। আর ছোট শিশুটির শিক্ষক যদি তার দেখাশোনার দায়িত্বশীল হয়ে থাকেন তাহলে তাঁর হাতে টাকা দিয়ে দিলেই আপনার যাকাত আদায় হয়ে যাবে। তবে অবুঝ শিশুর হাতে সরাসরি যাকাতের টাকা দেওয়া যাবে না। কেননা তাকে সরাসরি যাকাত দিলে আদায় হবে না।

প্রকাশ থাকে যে, নাবালেগকে যাকাত দেওয়া তখনই বৈধ যখন তার পিতা যাকাত গ্রহণের যোগ্য হয়।

-আলমুহীতুল বুরহানী ৩/২১৪; ফাতাওয়া খানিয়া ১/২৬৮; খুলাসাতুল ফাতাওয়া ১/২৪২; ফাতহুল কাদীর ২/২১০; রদ্দুল মুহতার ২/২৫৭; ফাতাওয়া তাতারখানিয়া ৩/২১১; ফাতাওয়া খানিয়া ১/২৬৬

উত্তর দিয়েছেন : মাসিক আল-কাওসার
ফতোয়া নং: ৬৩৩০
তারিখ: ২৭/১০/২০১৭
বিষয়: জাকাত

আমি প্রতি রমযানে যাকাত আদায় করি। কিন্তু এ বছর ব্যবসায়িক...

প্রশ্ন

আমি প্রতি রমযানে যাকাত আদায় করি। কিন্তু এ বছর ব্যবসায়িক ঝামেলার কারণে রমযানে যাকাত আদায় করা হয়নি। তিন মাস যাওয়ার পর পনের মাসের একত্রে যাকাত আদায় করেছি। রমযান পর্যন্ত যাকাতযোগ্য সম্পদের ব্যালেন্স ছিল প্রায় আশি লক্ষ টাকা। তিন মাস পর কোটি টাকা হয়েছে। তাই কোটি টাকার যাকাত আদায় করেছি। আমার এ আদায় কি ঠিক হয়েছে? এখন এ বছরের তিন মাসের যাকাত দিলাম। তাহলে কি আগামী রমযানে বাকি নয় মাসের যাকাত দিলে চলবে?

উত্তর

প্রশ্নের বর্ণনা অনুযায়ী এক কোটির মধ্যে আশি লক্ষ টাকার যাকাত গত বছরের যাকাত হিসেবে গণ্য হবে। আর বিশ লক্ষ টাকার যাকাত অগ্রিম আদায় হয়েছে বলে ধর্তব্য হবে। সুতরাং আগামি রমযানে যাকাতযোগ্য সকল সম্পদ হিসাব করে সেখান থেকে বিশ লক্ষ টাকা বাদ দিয়ে বাকিটার যাকাত আদায় করতে হবে।

উল্লেখ্য, যাকাতবর্ষ পূর্ণ হওয়ার পরই যাকাত ফরয হয়। যাকাতবর্ষ পূর্ণ হওয়ার আগে যাকাত দিলে তা অগ্রিম গণ্য হবে। সেক্ষেত্রে বর্ষ শেষে যাকাতযোগ্য সম্পদের সাথে সমন্বয় করে নিতে হবে।

উত্তর দিয়েছেন : মাসিক আল-কাওসার
ফতোয়া নং: ৬৩২৯
তারিখ: ২৭/১০/২০১৭
বিষয়: জাকাত

আমার স্ত্রীর স্বর্ণালংকার আছে এবং ব্যাংকে কিছু টাকাও জমা আছে।...

প্রশ্ন

আমার স্ত্রীর স্বর্ণালংকার আছে এবং ব্যাংকে কিছু টাকাও জমা আছে। আমার জন্য কি তার যাকাত দেওয়া জরুরি? আসলে স্ত্রীর যাকাত কার উপর ফরয? আমি যদি তার যাকাত আদায় করে দেই এতে কি আমার সওয়াব হবে?

উত্তর

স্ত্রীর সম্পদের যাকাত স্ত্রীর উপর ফরয। এটি আদায়ের দায়িত্বও তার। তবে স্বামী যদি তার পক্ষ থেকে আদায় করে দেয় তাহলে তা আদায় হয়ে যাবে এবং স্বামী এ কারণে সওয়াব পাবে।

-আলবাহরুর রায়েক ২/২০২

উত্তর দিয়েছেন : মাসিক আল-কাওসার
ফতোয়া নং: ৬৩০৫
তারিখ: ২৭/১০/২০১৭
বিষয়: জাকাত

আমার নিকট দুই লক্ষ টাকা আছে। সে টাকার উপর দশ...

প্রশ্ন

আমার নিকট দুই লক্ষ টাকা আছে। সে টাকার উপর দশ মাস অতিবাহিত হয়েছে। দশ মাসের মাথায় আমার আববা মৃত্যুবরণ করেন। তার রেখে যাওয়া সম্পদ থেকে মীরাস হিসেবে আমি এক লক্ষ টাকা পাই। জানার বিষয় হল, বছর শেষ হলে আমার ঐ দুই লক্ষ টাকার সাথে মীরাস সূত্রে পাওয়া টাকার উপরও কি যাকাত আসবে, নাকি উভয়ের আলাদা আলাদা হিসাব হবে?

উত্তর

প্রশ্নোক্ত ক্ষেত্রে বছর শেষে ঐ এক লক্ষ টাকাসহ পুরো তিন লক্ষ টাকা থাকলে পুরোটার যাকাত দিতে হবে। কেননা নিসাব পরিমাণ সম্পদের মালিকের নিকট যাকাতবর্ষের ভেতর যাকাতযোগ্য যত সম্পদ জমা হবে বছর শেষে যা থাকবে মূল নেসাবের সাথে সেগুলোরও যাকাত দিতে হবে। এক্ষেত্রে মূল নেসাবের উপর বছরপূর্ণ হওয়াই যথেষ্ট। সকল সম্পদের উপর বছর পূর্ণ হওয়া জরুরি নয়।

-আলমাবসূত, সারাখসী ২/১৬৪; আদ্দুররুল মুখতার ২/১৮৮; তাবয়ীনুল হাকায়েক ২/৬২; আলবাহরুর রায়েক ২/২২২

উত্তর দিয়েছেন : মাসিক আল-কাওসার
ফতোয়া নং: ৬২৮১
তারিখ: ২৭/১০/২০১৭
বিষয়: জাকাত

আমাদের বিশজনের একটা সংগঠন আছে। আমরা সবাই মিলে টাকা জমা...

প্রশ্ন

আমাদের বিশজনের একটা সংগঠন আছে। আমরা সবাই মিলে টাকা জমা করি। বর্তমানে প্রায় দেড় লক্ষ টাকা হয়েছে। তবে আলাদা আলাদাভাবে প্রত্যেকের প্রায় আট হাজার টাকা করে জমা হয়েছে। আমাদের এই টাকার উপর কি যাকাত ওয়াজিব হবে?

উত্তর

প্রশ্নোক্ত ক্ষেত্রে সমিতির শুধু ঐ টাকার কারণে পৃথকভাবে কারো উপর যাকাত ওয়াজিব হবে না এবং সমিতির সমষ্টিগত সম্পদের উপরও যাকাত আসবে না। তবে কোনো সদস্যের নিকট যদি সমিতির টাকাসহ যাকাতযোগ্য আরো সম্পদ থাকে এবং উভয়টি মিলে নিসাব পরিমাণ হয়ে যায় তাহলে তার উপর যাকাত ফরয হবে।

-সুনানে আবু দাউদ ১/২১৮-২১৯; সহীহ বুখারী ১/১৯৫; কিতাবুল আছল ২/৬৭; আলমাবসূত, সারাখসী ২/১৫৩; শরহু মুখতাসারিত তহাবী ২/২৫১; বাদায়েউস সানায়ে ২/১২৩; আলবাহরুর রায়েক ২/২১৬

উত্তর দিয়েছেন : মাসিক আল-কাওসার
ফতোয়া নং: ৬২৮০
তারিখ: ২৭/১০/২০১৭
বিষয়: জাকাত

আমার স্ত্রীর ৫০ হাজার টাকার মহর অনাদায়ী আছে। যা পরবর্তী...

প্রশ্ন

আমার স্ত্রীর ৫০ হাজার টাকার মহর অনাদায়ী আছে। যা পরবর্তী সময় আদায় করার কথা। আমি সুযোগমতো তা আদায় করব। এখন প্রতি বছর যাকাতযোগ্য সম্পদ থেকে এই পঞ্চাশ হাজার টাকা বাদ দিয়ে বাকি সম্পদের যাকাত আদায় করব? নাকি তা বাদ দেওয়া যাবে না? দয়া করে জানিয়ে বাধিত করবেন।

উত্তর

আপনার স্ত্রীর মহরের টাকা যেহেতু নগদে আদায় করছেন না তাই তা বর্তমানে যাকাতযোগ্য সম্পদ থেকে বাদ যাবে না। এখন আপনাকে পুরো সম্পদেরই যাকাত দিতে হবে।

-আলবাহরুর রায়েক ২/২০৪; বাদায়েউস সানায়ে ২/৮৪; ফাতাওয়া হিন্দিয়া ১/১৭৩

উত্তর দিয়েছেন : মাসিক আল-কাওসার
ফতোয়া নং: ৬২২৮
তারিখ: ২৭/১০/২০১৭
বিষয়: জাকাত

আমাদের মসজিদের খাদেমকে পুলিশ ধরে নিয়ে গেছে। তাকে মুক্ত করতে...

প্রশ্ন

আমাদের মসজিদের খাদেমকে পুলিশ ধরে নিয়ে গেছে। তাকে মুক্ত করতে বেশ কিছু টাকা প্রয়োজন। তাই মসজিদ কমিটির লোকজন খাদেমকে মুক্ত করার জন্য মুসল্লিদের থেকে অর্থ সংগ্রহ করছে।

জানার বিষয় হল, আমি যদি যাকাতের টাকা দেই তবে কি আমার যাকাত আদায় হবে? উল্লেখ্য যে, টাকা সংগ্রহের বিষয়টি মসজিদ কমিটি খাদেমের সাথে আলোচনা করেনি।

উত্তর

প্রশ্নোক্ত ক্ষেত্রে অর্থ সংগ্রহের এ বিষয়টি যেহেতু খাদেম থেকে অনুমতি নেওয়া হয়নি তাই এ বাবদ যাকাতের টাকা ব্যয় করলে যাকাত আদায় হবে না।

প্রকাশ থাকে যে, খাদেম যদি যাকাত গ্রহণের যোগ্য হয় তবে তার অনুমতি সাপেক্ষে এ বাবদ যাকাতের টাকা ব্যয় করা যাবে।

-আলবাহরুর রায়েক ২/২৪৩; ফাতহুল কাদীর ২/২০৮; আদ্দুররুল মুখতার ২/৩৪৫

উত্তর দিয়েছেন : মাসিক আল-কাওসার
ফতোয়া নং: ৬২১৫
তারিখ: ২৭/১০/২০১৭
বিষয়: জাকাত

আমি বর্তমানে দুই তলা একটি বিল্ডিং এর মালিক। এই বাড়ি...

প্রশ্ন

আমি বর্তমানে দুই তলা একটি বিল্ডিং এর মালিক। এই বাড়ি নির্মাণের সময় ব্যাংক থেকে ২৭ লক্ষ টাকা ঋণ নিয়েছি। আবার চাকুরি শেষে ১৬ লক্ষ টাকা পেয়ে সেই টাকা এই ব্যাংকেই ফিক্সড ডিপোজিট করেছি। ডিপোজিটের লভ্যাংশ থেকে ২৭ লক্ষ টাকার ঋণ পরিশোধ হয়ে যাবে। ঋণ শেষ হতে আরো ১২ বছর সময় লাগবে। ১২ বছর পর ১৬ লক্ষ টাকা আবার নিজের অধীনে এসে যাবে। এছাড়া আরো ৩ লক্ষ টাকা বর্তমানে বিল্ডিংয়ের বাবদ ঋণ আছে। আমার নিকট বর্তমানে স্বর্ণ আছে ৭ ভরি। মাসিক আয়-ব্যয় সমান। মাসিক আয় থেকে আবার মাসিক ডিপিএস-এ জমা দেওয়া হয় ৫,০০০/-। আর ডিপিএস-এ জমা হয়েছে ১ লক্ষ ২৫ হাজার টাকা। এই ডিপিএস থেকে অন্য একজন লোন নিয়েছে ৬০ হাজার টাকা। যেই ব্যক্তি লোন নিয়েছে সে ব্যক্তিই লোন পরিশোধ করছে। এমন অবস্থায় আমার উপর যাকাত ফরয হবে কি না? কিতাবের দলিলসহ জানালে উপকৃত হব।

বি. দ্র. : একটি ফ্ল্যাটে আমি থাকি। আর বাকি তিনটি ফ্ল্যাট ভাড়া দেওয়া। মূলত ভাড়ার অংশ করার জন্যই ঋণ করতে হয়েছে। শুধু এক ফ্ল্যাট করলে ঋণ করতে হত না।

উত্তর

প্রশ্নোক্ত ক্ষেত্রে আপনাকে ঐ সকল সম্পদের যাকাত দিতে হবে। অর্থাৎ ব্যাংকে ফিক্সড ডিপোজিট করা ১৬ লক্ষ টাকা, ৭ ভরি স্বর্ণ এবং ডিপিএস-এর ১ লক্ষ ২৫ হাজার টাকার যাকাত দিতে হবে।

বাড়ি বাবদ আপনার যে ঋণ আছে তা যাকাতযোগ্য সম্পদ থেকে কর্তন যাবে না। কারণ একে তো এই ঋণ প্রবৃদ্ধির জন্য করা হয়েছে। অর্থাৎ ভাড়া বাড়ি নির্মাণের জন্য করা হয়েছে। দ্বিতীয়ত ঋণের বিপরীতে সম্পদও মজুদ আছে। তাই এ ঋণের কারণে যাকাত মওকুফ হবে না। আর ফিক্সড ডিপোজিট করলে টাকা যদিও নিজের হাতে নেই, কিন্তু নিজ প্রয়োজনে ও হেফাযতেই রাখা আছে। সুতরাং মূল জমার যাকাত দিতে হবে।

প্রকাশ থাকে যে, সাধারণ ব্যাংকের ফিক্সড ডিপোজিট এবং ডিপিএস সুদী একাউন্ট। সুদ জঘন্যতম হারাম। এর ভয়াবহতা সরাসরি কুরআন মজীদেই উল্লেখ হয়েছে। তাই এসব সুদী হিসাব দ্রুত বন্ধ করে দেওয়া দরকার। এসব হিসাব থেকে অতিরিক্ত যা পাওয়া যাবে তা সওয়াবের নিয়ত ব্যতীত সদকা করে দিতে হবে।

-আলমাআঈরুশ শরইয়াহ পৃষ্ঠা : ৫৭৩, ৫৮০

উত্তর দিয়েছেন : মাসিক আল-কাওসার
ফতোয়া নং: ৬২১৪
তারিখ: ২৭/১০/২০১৭
বিষয়: জাকাত

এ বছর আমি হজ্ব করেছি। আমরা দুজন সাথী আরাফা থেকে...

প্রশ্ন

এ বছর আমি হজ্ব করেছি। আমরা দুজন সাথী আরাফা থেকে আসরের পরই রওনা হয়ে যাই। মাগরিবের আগেই মুযদালিফার সীমানার ভিতরে পৌঁছে গেছি। একজন হুজুর বললেন, আমাদের উপর দম ওয়াজিব হয়েছে। কিন্তু আমাদের কাছে টাকা না থাকার কারণে দম দেইনি। সফর মাসে আমার চাচা যিনি সৌদী আরব থাকেন তিনি যাবেন। তাকে দমের টাকা দিলে কি চলবে? তিনি কি হজ্বের মাস আসার আগেই দম যবাই করতে পারবেন? আর এর গোশত কি চাচারা খেতে পারবেন? দয়া করে জানিয়ে বাধিত করবেন।

উত্তর

আপনার চাচার মাধ্যমে দম আদায় করতে পারবেন। আর তা হজ্বের মাস আসার আগেও যবাই করা যাবে। কেননা দম ওয়াজিব হলে ঐ বছরের ১০ থেকে ১২ যিলহজ্বের মধ্যে আদায় করা উত্তম। তবে এরপর বছরের অন্য সময়ও জরিমানা দম আদায় করা জায়েয। আর দমের পশু যবাই করতে হবে হারামের এলাকাতেই। হারামের বাইরে যবাই করলে তা দ্বারা দম আদায় হবে না। দমের গোশত সদকা করা জরুরি। এটা ফকীর-মিসকীনের হক। চাচা যদি যাকাত গ্রহণের যোগ্য হন তবে তিনিও আপনার দমের গোশত খেতে পারবেন।

-আলমাবসূত, সারাখসী ৪/৭৫; আলবাহরুর রায়েক ৩/৭২; মানাসিক ৩৯৩-৫; গুনইয়াতুন নাসিক ৩৫৮

উত্তর দিয়েছেন : মাসিক আল-কাওসার
ফতোয়া নং: ৬১৯২
তারিখ: ২৭/১০/২০১৭
বিষয়: জাকাত

আমাদের একটি ঔষধ ফ্যাক্টরি আছে। আমার আববা বছরান্তে যাকাত প্রদান...

প্রশ্ন

আমাদের একটি ঔষধ ফ্যাক্টরি আছে। আমার আববা বছরান্তে যাকাত প্রদান করে থাকেন। একজন আলেম বলেছেন, যাকাত আদায়ের ক্ষেত্রে ঔষধ উৎপাদনকারী যন্ত্রপাতি ইত্যাদির যাকাত দিতে হবে না। জানতে চাই, ঐ হুজুর কি ঠিক বলেছেন?

উত্তর

জ্বী! ঐ আলেম ঠিকই বলেছেন। ঔষধ উৎপাদনে ব্যবহৃত কল-কারখানা ও যন্ত্রপাতির যাকাত দিতে হবে না। তবে ঔষধ তৈরির জন্য কাঁচামাল, প্রস্ত্ততকৃত ঔষধ এবং আয়ের উপর যাকাত দিতে হবে।

-ফাতহুল কাদীর ২/১২০; আদ্দুররুল মুখতার ২/২৬৫; ফাতাওয়া তাতারখানিয়া ৩/১৬৯

উত্তর দিয়েছেন : মাসিক আল-কাওসার
ফতোয়া নং: ৬১৯১
তারিখ: ২৭/১০/২০১৭
বিষয়: জাকাত

একজন সাধারণ সরকারী চাকুরিজীবীর নিজের প্রয়োজন অতিরিক্ত তেমন কোনো অর্থ...

প্রশ্ন

একজন সাধারণ সরকারী চাকুরিজীবীর নিজের প্রয়োজন অতিরিক্ত তেমন কোনো অর্থ নেই। কিন্তু সরকারী চাকুরিজীবী হিসেবে তো প্রভিডেন্ট ফান্ডে তার একটা বড় অংক জমা হয়, যা সে রিটায়ার্ডের পরে পাবে। লোকটির বেতনের টাকা দিয়ে চলা খুব মুশকিল। কিছু ঋণ আছে। এখন সে ঋণ আদায় ও খরচের জন্য যাকাত নিতে পারবে কি? এ ব্যক্তিকে যাকাত দিতে কোনো অসুবিধা আছে কি? প্রভিডেন্ট ফান্ডের অর্থ এক্ষেত্রে কোনো প্রভাব ফেলবে কি? প্রকাশ থাকে যে, সরকার বাধ্যতামূলকভাবে যতটুকু কেটে রাখে ততটুকুই সে জমা করে এর বেশি জমা করে না।

উত্তর

প্রশ্নের বর্ণনা অনুযায়ী ঐ ব্যক্তি যাকাত গ্রহণ করতে পারবে। সরকারী বাধ্যতামূলক প্রভিডেন্ট ফান্ডের টাকা যেহেতু চাকুরি অবস্থায় চাকুরিজীবীর হস্তগতই হয় না এবং এতে তার মালিকানাও প্রতিষ্ঠিত হয় না তাই এই ফান্ড থাকা সত্ত্বেও লোকটি দরিদ্র বা ঋণগ্রস্ত হলে যাকাত গ্রহণ করতে পারবে। এই ফান্ডের টাকা তার যাকাত গ্রহণের জন্য প্রতিবন্ধক হবে না।

-আলবাহরুর রায়েক ২/২০৭; ইমদাদুল মুফতীন পৃষ্ঠা : ৩৯৪; ইমদাদুল আহকাম ২/১৬

উত্তর দিয়েছেন : মাসিক আল-কাওসার
ফতোয়া নং: ৬১৯০
তারিখ: ২৭/১০/২০১৭
বিষয়: জাকাত

এক ব্যক্তির নিজের কোনো অর্থ-সম্পদ নেই। কিন্তু পিতার ইন্তিকালের কারণে...

প্রশ্ন

এক ব্যক্তির নিজের কোনো অর্থ-সম্পদ নেই। কিন্তু পিতার ইন্তিকালের কারণে মিরাসের একটি বড় অংশ সে পাবে। যদিও এখনও তা বণ্টন করা হয়নি। ঐ বক্তিকে কি যাকাত দেওয়া যাবে?

উত্তর

মিরাস বণ্টন না হলেও উত্তরাধিকার সম্পদের মালিক ওয়ারিশগণ। তাই লোকটি পৈত্রিক সম্পত্তি থেকে যা পাবে তা যদি নেসাব পরিমাণ হয় এবং প্রয়োজনের অতিরিক্ত হয় তবে এ কারণে সে যাকাত গ্রহণ করতে পারবে না।

তাকে যাকাত দিলে আদায়ও হবে না। অবশ্য উত্তরাধিকার সম্পত্তি যদি নেসাব পরিমাণ বা প্রয়োজন অতিরিক্ত না হয় অথবা তার নিকট প্রয়োজন অতিরিক্ত এমন কোনো সম্পদও না থাকে যার সাথে মিলে নেসাব পরিমাণ হয়ে যায় তবে সে যাকাত গ্রহণ করতে পারবে।

-মাজাল্লাতুল আহকামিল আদলিয়া, মাদ্দা : ১০৬০; ফাতাওয়া তাতারখানিয়া ৩/২৪২

উত্তর দিয়েছেন : মাসিক আল-কাওসার
ফতোয়া নং: ৬১৬৩
তারিখ: ২৭/১০/২০১৭
বিষয়: জাকাত

ইসলামী অনুষ্ঠান ও গবেষণার জন্য একটি জনপ্রিয় টিভি-চ্যানেল বাংলাদেশে তাদের...

প্রশ্ন

ইসলামী অনুষ্ঠান ও গবেষণার জন্য একটি জনপ্রিয় টিভি-চ্যানেল বাংলাদেশে তাদের শাখা খোলার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। দর্শক ও ধর্মপ্রাণ মুসলমানদের কাছে তারা আর্থিক অনুদানের আহবান জানিয়েছেন। এ বাবদ তারা যাকাতের টাকাও গ্রহণ করবেন বলে জানিয়েছেন।

জানতে চাই, কোনো ইসলামী টিভি চ্যানেল কি যাকাত গ্রহণ করতে পারবে? তাদেরকে যাকাত দিলে তা আদায় হবে কি?

উত্তর

টিভি চ্যানেলের জন্য যাকাত দিলে তা আদায় হবে না। কারণ যাকাত গরীব-মিসকীনের হক। যাকাত আদায়ের খাত শরীয়ত কর্তৃক সুনির্ধারিত। নির্ধারিত খাতের বাইরে যাকাত দিলে তা আদায় হবে না।

আর প্রশ্নে বর্ণিত ক্ষেত্রটি শরীয়ত নির্ধারিত খাতসমূহের অন্তর্ভুক্ত নয়। তাই কোনো চ্যানেলকে যাকাতের টাকা দেওয়া জায়েয হবে না।

-আলমুহীতুল বুরহানী ৩/২১২; তাবয়ীনুল হাকায়েক ২/১২০; ফাতাওয়া হিন্দিয়া ১/১৮৮; আদ্দুররুল মুখতার ২/৩৪৪

উত্তর দিয়েছেন : মাসিক আল-কাওসার
ফতোয়া নং: ৬১৪৪
তারিখ: ২৭/১০/২০১৭
বিষয়: জাকাত

এক বইয়ে পেয়েছি, কোনো মহিলার যদি শুধু দুই ভরি স্বর্ণ...

প্রশ্ন

এক বইয়ে পেয়েছি, কোনো মহিলার যদি শুধু দুই ভরি স্বর্ণ থাকে (যার মূল্য সাড়ে বায়ান্ন তোলা রূপার অধিক) তবে সে নেসাবের মালিক হিসেবে গণ্য হবে না। কিন্তু সেই মহিলার কাছে প্রয়োজনের অতিরিক্ত অল্প টাকাও থাকে তবে সেই টাকা দুই ভরি স্বর্ণের মূল্যের সাথে যোগ হয়ে নেসাব পূর্ণ হবে। সেই হিসেবে বছরান্তে যদি ওই মহিলার কাছে দুই ভরি স্বর্ণের সাথে অল্প টাকাও অতিরিক্ত থাকে তবে তাকে পুরো মূল্যের উপর যাকাত আদায় করতে হবে। মাসআলাটি কি সহীহ?

যদি উপরোক্ত মাসআলাটি সঠিক হয়। তবে ঈদের সময় মহিলারা হাদিয়া হিসেবে যে টাকা পায় এবং সেই টাকা জমিয়ে না রেখে খরচ করার নিয়ত থাকে, তবে কি সেটা ‘‘প্রয়োজনের অতিরিক্ত ’’ টাকা হিসেবে স্বর্ণের মূল্যের সাথে যুক্ত হয়ে ‘নেসাব’ হিসেবে ধর্তব্য হবে? এবং বছরান্তে তার যাকাত দিতে হবে? বিস্তারিত উদাহরণসহ জানালে খুবই উপকৃত হব।

উত্তর

কিতাবের প্রশ্নোক্ত মাসআলাটি সঠিক। দুই ভরি স্বর্ণের সাথে কিছু টাকা থাকলেও স্বর্ণের মূল্য হিসাব করে তা নেসাব পরিমাণ হলে বছর অতিক্রান্ত হওয়ার পর তার যাকাত দিতে হবে। সুতরাং ঈদের কিংবা অন্য সময়ের জমানো উপহারের টাকা থাকলে তা স্বর্ণের মূল্যের সাথে যাকাতের মধ্যে হিসাবযোগ্য। এমনকি এসব উপহারের টাকা কোনো প্রয়োজনে রেখে দিলেও বছর অতিক্রান্ত হওয়ার পর তার যাকাত দিতে হবে।

-রদ্দুল মুহতার ২/২৬২; বাদায়েউস সানায়ে ২/৯২; আলবাহরুর রায়েক ২/২০৬; আননাহরুল ফায়েক ১/৪১৫; ফাতহুল কাদীর ২/১৬২; আলবাহরুর রায়েক ২/২৩০; রদ্দুল মুহতার ২/৩০৩; আততাজরীদ ৩/১৩১১

উত্তর দিয়েছেন : মাসিক আল-কাওসার
ফতোয়া নং: ৬১২৭
তারিখ: ২৭/১০/২০১৭
বিষয়: জাকাত

আযাদের বয়স সাত বছর। সে গত বছর উত্তরাধিকার সূত্রে নগদ...

প্রশ্ন

আযাদের বয়স সাত বছর। সে গত বছর উত্তরাধিকার সূত্রে নগদ দুই লক্ষ টাকার মালিক হয়েছে। প্রশ্ন হল, তার উক্ত টাকার যাকাত দিতে হবে কি?

উত্তর

না, আযাদ যেহেতু নাবালেগ তাই সম্পদ থাকলেও তার উপর যাকাত ফরয নয়। কেননা যাকাত ফরয হওয়ার জন্য সম্পদের মালিক হওয়ার পাশাপাশি প্রাপ্ত বয়স্ক হওয়াও শর্ত।

-মুসান্নাফ আবদুর রাযযাক ৪/৬৯; বাদায়েউস সানায়ে ২/৭৯; আদ্দুররুল মুখতার ২/২৫৮; আলবাহরুর রায়েক ২/২০২; ফাতাওয়া হিন্দিয়া ১/১৭২

উত্তর দিয়েছেন : মাসিক আল-কাওসার
ফতোয়া নং: ৬১২৬
তারিখ: ২৭/১০/২০১৭
বিষয়: জাকাত

আমার বোনের নিকট দশ ভরি স্বর্ণালংকার আছে। গত তিন বছর...

প্রশ্ন

আমার বোনের নিকট দশ ভরি স্বর্ণালংকার আছে। গত তিন বছর সেগুলোর যাকাত দেওয়া হয়নি। এখন তিনি তা আদায় করতে চাচ্ছেন। আমার জানার বিষয় হল, গত তিন বছরের যাকাত কিভাবে আদায় করবেন? বর্তমান মূল্য হিসাবে? না কি প্রত্যেক বছরের স্বর্ণের যে মূল্য ছিল সে হিসাবে? জানিয়ে বাধিত করবেন।

উত্তর

বিগত বছরগুলোর যাকাত যখন আদায় করা হবে তখনকার স্বর্ণের বাজার মূল্য হিসাবেই যাকাত দিতে হবে। এক্ষেত্রে বিগত বছরের মূল্য ধরা যাবে না। তাই এখন যাকাত আদায় করলে স্বর্ণের বর্তমান মূল্য হিসাবেই আদায় করতে হবে।

-বাদায়েউস সানায়ে ২/১১১; আলবাহরুর রায়েক ২/২২১; রদ্দুল মুহতার ২/২৮৬

উত্তর দিয়েছেন : মাসিক আল-কাওসার
ফতোয়া নং: ৬১২৫
তারিখ: ২৭/১০/২০১৭
বিষয়: জাকাত

আমার এক দরিদ্র প্রতিবেশী অসুস্থতার কারণে হাসপাতালে ভর্তি হয়। তাকে...

প্রশ্ন

আমার এক দরিদ্র প্রতিবেশী অসুস্থতার কারণে হাসপাতালে ভর্তি হয়। তাকে আমি হাসপাতালে দেখতে যাই। সাথে তার জন্য আমার যাকাতের টাকা থেকে পাঁচ হাজার টাকা নিয়ে যাই। তন্মধ্যে যাকাতের নিয়তে এক হাজার টাকার কিছু জিনিস কিনে নিয়ে যাই। আর বাকি চার হাজার টাকা তাকে প্রদান করি। জানার বিষয় হল, আমার পুরো পাঁচ হাজার টাকা যাকাত হিসাবে আদায় হয়েছে কি?

উত্তর

অসুস্থ লোকটি যাকাত গ্রহণের যোগ্য হলে আপনার পুরো পাঁচ হাজারই যাকাত হিসাবে আদায় হয়েছে। কেননা যাকাত গ্রহণের যোগ্য ব্যক্তিকে নগদ টাকা প্রদান করলে যেভাবে যাকাত আদায় হয় তেমনিভাবে যাকাতের নিয়তে কোনো পণ্য কিনে দিলেও যাকাত আদায় হয়ে যায়। তবে কোনো পণ্য দ্বারা যাকাত আদায় করার চেয়ে নগদ অর্থ দ্বারা আদায় করাই শ্রেয়।

-বাদায়েউস সানায়ে ২/১৪৬; আদ্দুররুল মুখতার ২/২৫৬-২৫৭; রদ্দুল মুহতার ২/২৫৭; আলবাহরুর রায়েক ২/২০১; ফাতহুল কাদীর ২/১৪৪

উত্তর দিয়েছেন : মাসিক আল-কাওসার
ফতোয়া নং: ৬১২৪
তারিখ: ২৭/১০/২০১৭
বিষয়: জাকাত

আমি একজন বস্ত্র ব্যবসায়ী। গত মাসে আমার যাকাত বর্ষ পূর্ণ...

প্রশ্ন

আমি একজন বস্ত্র ব্যবসায়ী। গত মাসে আমার যাকাত বর্ষ পূর্ণ হয়েছে। বছরান্তে আমি ব্যবসার নীট লাভ এবং উৎপাদিত পণ্যের মূল্য হিসাব করে যাকাতের পরিমাণ নির্ধারণ করি। এক্ষেত্রে স্টক কাঁচামালের হিসাব করিনি। কিন্তু একজন আলেম আমাকে বললেন, আপনার ব্যবসার কাঁচামালেরও যাকাত আদায় করতে হবে। উল্লেখ্য যে, আমার ব্যবসার কাঁচামালগুলো হচ্ছে সুতা, রং, স্টীকার, প্যাকেটিং সামগ্রী ইত্যাদি। আমার জানার বিষয় হল, আমাকে কি এসব কাঁচামালেরও যাকাত আদায় করতে হবে?

উত্তর

হ্যাঁ, বছরান্তে যাকাতযোগ্য অন্যান্য সম্পদের সাথে ঐ সব মজুদ কাঁচামালেরও যাকাত দিতে হবে।

-ফাতাওয়া হিন্দিয়া ১/১৭২; ফাতহুল কাদীর ২/১২১; বাদায়েউস সানায়ে ২/১০৯; রদ্দুল মুহতার ২/২৬৫; আলবাহরুর রায়েক ২/২০৬; আলমুহীতুল বুরহানী ৩/১৬২; ফাতাওয়া খানিয়া ১/২৫০

উত্তর দিয়েছেন : মাসিক আল-কাওসার

Execution time: 0.06 render + 0.01 s transfer.