Login | Register

ফতোয়া: মুফতি মেরাজ তাহসিন

ফতোয়া নং: ৭০৩৫
তারিখ: ২৭/১০/২০১৭
বিষয়: খাওয়া-পোশাক

নূরানী পদ্ধতিতে কুরআন শিক্ষা, লেখক : মাওলানা বেলায়েত হুসাইন। বইটিতে...

প্রশ্ন

নূরানী পদ্ধতিতে কুরআন শিক্ষা, লেখক : মাওলানা বেলায়েত হুসাইন। বইটিতে একটি হাদীস পেয়েছি-

ما أسفل من الكعبين من الإزار في النار .

সেখানে অর্থ লেখা হয়েছে, টাখনুর নিচের যেই অংশ পায়জামা বা লুঙ্গি দ্বারা ঢাকা থাকে তাহা দোযখে যাইবে।

জানার বিষয় হল, হাদীসটিতে কি শুধু পায়জামা ও লুুঙ্গি উদ্দেশ্য? কেউ যদি এমন লম্বা জুব্বা পরিধান করে যা টাখনুর নিচে গিয়ে পড়ে। তাহলে কি এ হাদীসের অন্তর্ভুক্ত হবে? হাদীসটির ব্যাখ্যা বিস্তারিত জানালে কৃতজ্ঞ থাকব।

উত্তর

হাদীসের উক্ত বিধান এবং ধমকিবাণী শুধু লুঙ্গি বা পায়জামার সাথে সীমাবদ্ধ নয়; বরং জুব্বা বা যেকোনো পোশাক টাখনুর নিচে পরিধান করলেই তা এ হাদীসের অন্তর্ভুক্ত হবে। এই ব্যাপক হুকুম অন্যান্য হাদীস-আসার দ্বারা প্রমাণিত।

হাদীস শরীফে এসেছে, রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেন,

الإسبال في الإزار والقميص والعمامة، من جر منها شيئا خيلاء لم ينظر الله إليه يوم القيامة.

লুঙ্গি, জামা, পাগড়ি এর কোনোটাকে যে অহংকারবশত (টাখনুর নিচে) ঝুলিয়ে পড়বে কিয়ামতের দিন আল্লাহ তাআলা তার দিকে (রহমতের দৃষ্টিতে) তাকাবেন না। -মুসান্নাফে ইবনে আবী শাইবা,হাদীস ২৫৩৩৭

অপর এক বর্ণনায় এসেছে, আবদুল্লাহ ইবনে উমর রা. বলেন,

ما قال رسول الله صلى الله عليه وسلم في الإزار، فهو في القميص.

রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম লুঙ্গি/পায়জামার সম্পর্কে যা কিছু বলেছেন তা জামার ব্যাপারেও প্রযোজ্য। -সুনানে আবু দাউদ, হাদীস ৪০৯২ 

প্রখ্যাত তাবেয়ী মুজাহিদ রাহ. বলেন,

جر القميص والإزار سواء.

জামা ঝুলিয়ে পড়া আর লুঙ্গি ঝুলিয়ে পড়া একই সমান।

-মুসান্নাফে ইবনে আবী শাইবা, হাদীস ২৫৩৩৮

উত্তর দিয়েছেন : মাসিক আল-কাওসার
এ বিষয়ে আরো ফতোয়া:
খাওয়া-পোশাক এর উপর সকল ফতোয়া >>

Execution time: 0.03 render + 0.00 s transfer.