Login | Register

ফতোয়া: মুফতি মেরাজ তাহসিন

ফতোয়া নং: ৬২২৫
তারিখ: ২৭/১০/২০১৭
বিষয়: কুরআন

সূরা আলেইমরান-এর ১০৬ নং আয়াতের ব্যাখ্যা-বিশ্লেষণ জানতে চাই। বিশেষ করে...

প্রশ্ন

সূরা আলেইমরান-এর ১০৬ নং আয়াতের ব্যাখ্যা-বিশ্লেষণ জানতে চাই। বিশেষ করে ঈমানের পর কুফর দ্বারা কাদেরকে বোঝানো হয়েছে? বিস্তারিত দলিল-প্রমাণসহ জানিয়ে বাধিত করবেন।

উত্তর

প্রশ্নোক্ত আয়াতের তরজমা হল, ‘সেই দিন (কিয়ামতের দিন) কতক মুখ উজ্জ্বল হবে আর কতক মুখ কালো হয়ে যাবে। যাদের মুখ কালো হয়ে যাবে তাদেরকে বলা হবে, তোমরা কি ঈমান আনার পর কুফর অবলম্বন করেছিলে? সুতরাং তোমরা এ শাস্তি আস্বাদন কর, যেহেতু তোমরা কুফরি করতে।’

অধিকাংশ তাফসীরবিদদের মতে উক্ত আয়াতে চেহারার শুভ্রতা ও উজ্জ্বলতা দ্বারা উদ্দেশ্য হল ঈমানের নূর। আর কৃষ্ণতা দ্বারা বুঝানো হয়েছে কুফরের অন্ধকার। অর্থাৎ কিয়ামতের দিন কারো চেহারা ঈমানের নূরে আলোকিত ও উজ্জ্বল হবে। আর কুফরের অন্ধকারের কারণে কারো চেহারা হবে কালো ও অন্ধকারাচ্ছন্ন।

উক্ত আয়াতের ব্যাখ্যায় বিখ্যাত সাহাবী উবাই ইবনে কাব রা. বলেছেন, কাফেরদের চেহারা কালো হবে আর মুমিনদের চেহারা হবে উজ্জ্বল ও শুভ্র।-তাফসীরে তাবারী ৩/৩৮৭

ইমাম ইবনে জারির তাবারী রাহ. এ প্রসঙ্গে কয়েকটি মত উদ্ধৃত করার পর উবাই ইবনে কাব রা.-এর উক্ত মতকে অধিক নির্ভরযোগ্য বলেছেন। আর ‘ঈমান আনয়নের পর কি তোমরা কুফরী করেছিলে?’ এই আয়াতে কাফেরদের ঈমান আনার দ্বারা উদ্দেশ্য ওই ঈমান, যার সম্পর্ক রূহের জগতের সাথে। অর্থাৎ যখন সকল রূহ আল্লাহ তাআলাকে রব হিসেবে স্বীকার করেছিল এবং বলেছিল, হ্যাঁ, আপনি আমাদের রব। অতপর দুনিয়াতে এসে তারা কুফুরি অবলম্বন করেছে।

এ ব্যাপারে বিস্তারিত জানার জন্য আরো দেখুন : তাফসীরে রূহুল মাআনী ৪/২৫; তাফসীরে মাআরিফুল কুরআন ২/১৪৭

উত্তর দিয়েছেন : মাসিক আল-কাওসার
এ বিষয়ে আরো ফতোয়া:
কুরআন এর উপর সকল ফতোয়া >>

Execution time: 0.04 render + 0.00 s transfer.