Login | Register

ফতোয়া: মুফতি মেরাজ তাহসিন

ফতোয়া নং: ৪৯৬১
তারিখ: ২৮/৭/২০১৭
বিষয়: কুরবানী

কুরবানী কখন কার উপর ওয়াজিব হয়?

প্রশ্ন
হুজুর! কুরবানী কার উপর ওয়াজিব হয়? এবং
কি পরিমান ও কি ধরনের সম্পদ থাকলে কুরবানী ওয়াজিব হয়? জমি কিংবা ঘরের আসবাবপত্র কি কুরবানী নেসাবের অন্তর্ভোক্ত হবে? এ বিষয়ে স্ববিস্তারে জানালে কৃতজ্ঞ হব।
উত্তর
যে সুস্থ মস্তিষ্ক সম্পন্ন, প্রাপ্তবয়ষ্ক, মুকীম মুসলমান নর-নারী ১০ যিলহজ্ব সুবহে সাদিক থেকে ১২ যিলহজ্ব সূর্যাস্ত পর্যন্ত সময়ের মধ্যে বাসস্থান ব্যবহার্য দ্রব্যাদি ইত্যাদি নিত্য প্রয়োজন অতিরিক্ত নেসাব পরিমাণ সম্পদের মালিক হবে তার উপর কুরবানী করা ওয়াজিব হবে। কুরবানী নেসাব হল, সাড়ে সাত (৭.৫) ভরি স্বর্ন অথবা সাড়ে বায়ান্ন (৫২.৫) ভরি রূপা অথবা সাড়ে বায়ান্ন ভরি রুপার সমমূল্যের সম্পদ। স্বর্ণ বা রুপার কোনো একটি যদি পৃথকভাবে নেসাব পরিমাণ না হয় তাহলে উভয়টি মিলে কিংবা এর সাথে প্রয়োজন-অতিরিক্ত অন্য পন্যের মূল্য মিলে সাড়ে বায়ান্ন ভরি রুপার সমমূল্যের হয়ে যায় সেক্ষেত্রেও কুরবানী ওয়াজিব হবে।
উল্লেখ্য যে, স্বর্ণ-রুপার অলঙ্কার, যে জমি বাৎসরিক খোরাকীর জন্য প্রয়োজন হয় না এবং প্রয়োজন অতিরিক্ত সবধরনের আসবাবপত্র কুরবানীর নেসাবের ক্ষেত্রে হিসাবযোগ্য।
-বাদায়েউস সানায়ে ৪/১৯৬, ফাতাওয়ায়ে তাতারখানিয়া ১৭/৪০৫; আলমুহীতুল বুরহানী ৮/৪৫৫ ৷
উত্তর প্রদানে মুফতী মেরাজ তাহসীন মুফতীঃ জামিয়া দারুল উলুম দেবগ্রাম ব্রাহ্মণবাড়িয়া ৷


উত্তর দিয়েছেন : মুফতি মেরাজ তাহসিন
এ বিষয়ে আরো ফতোয়া:
কুরবানী এর উপর সকল ফতোয়া >>

Execution time: 0.01 render + 0.00 s transfer.