ফতোয়া: মুফতি মেরাজ তাহসিন

ফতোয়া নং: ৪৯০৩
তারিখ: ২৭-জুন-২০১৭
বিষয়:

মহিলাদের জন্য জামাতের সহিত তারাবীহ পড়ার বিধান ৷

প্রশ্ন
হুজুর গত বছর আমার মহল্লায় সকল মহিলাদের নিয়ে জামাতে তারাবীহ পড়েছিলাম ৷ এ বছর আমার অন্য মসজিদে তারাবীহ ঠিক হয়েছে ৷ তাই এ বছর মহিলারা আমাকে বলছে আমি যেন একজন হাফেয ঠিক করে দেই ৷ তারা যেন এবছরও জামাতে তারাবীহ পড়তে পারে ৷ জানার বিষয় হল, মহিলাদের জমাতে তারাবীহ পড়তে কোন সমস্যা আছে কি না?
উত্তর
মহিলাদের জন্য তারাবীহ সহ সকল নামাজ নিজ ঘরে একাকি পড়াই মুস্তাহাব । এবং এতেই পুরুষের মসজিদে গিয়ে জামাতের সহিত নামায আদায় করার মত সাওয়াব পাবে ৷ কেননা এমন কোন হাদীস নেই যেখানে রাসূলুল্লাহ সাঃ মহিলাদেরকে জমাতে নামায আদায় করতে নির্দেশ দিয়েছেন বা তাগিদ করেছেন ৷ বরং আরো অনুৎসাহিত করেছেন ৷ তাই রাসূল (সা.)-এর পরবর্তিকালে তার সাহাবিগণ যেমন হজরত ওমর ও হজরত আয়েশা (রা.) ফেতনার আশংকায় মহিলাদের মসজিদে যেতে স্পষ্টভাবে নিষেধ করতেন। যার অনুসরণে দেড় হাজার বছর পর্যন্ত কোনো আলেম মহিলাদেরকে মসজিদে এসে নামাজ পড়ার জন্য উৎসাহিত করেননি এবং এর জন্য কোনো ব্যবস্থাও করেননি।
-সহিহ বোখারি, হাদিস: ৮৬৯; মুসনাদে আহমাদ, হাদিস: ২৭০৯০৷
অতএব মহিলারা নিজ ঘরে একাকি নামায পড়বে এটা ই শরিয়তের বিধান ৷ এবং এর বিপরীত করা জায়েয নয়। প্রশ্নোক্ত ক্ষেত্রে মহিলাদেরকে বলবেন যে, মহিলাদের জন্য জামাতে নামায পড়ার চেয়ে নিজ ঘরে একাকী নামায পড়ার সাওয়াব বেশি ৷ তাই আপনারা ঘরে একাকি নামায পড়বেন ৷ অবশ্য কেউ যদি জামাতে নামায পড়ে ফেলে তাহলে তার নামায আদায় হয়ে যাবে৷
-আল বাহরুর রায়েক: ১/৬২৭, রদ্দুল মুহতার:
২/৪৬ ৷
মুফতী মেরাজ তাহসীন মুফতীঃ জামিয়া দারুল উলুম দেবগ্রাম ব্রাহ্মণবাড়িয়া ৷

উত্তর দিয়েছেন : মুফতি মেরাজ তাহসিন
এ বিষয়ে আরো ফতোয়া:
এ বিভাতের বাকি সকল ফতোয়া এখানে পাবেন : বিভাগ রোজা-ইতিকাফ