Login | Register

ফতোয়া: মুফতি মেরাজ তাহসিন

ফতোয়া নং: ৪৭১১
তারিখ: ১/১১/২০১৬
বিষয়: সু্ন্নাহ-বিদআত

পুরুষের চুল রাখার সুন্নত তরিকা৷ মেয়েদের চুল কাটা৷

প্রশ্ন
(ক) পুরুষের চুল রাখার সুন্নত তরীকা কি? রাসূল সাঃ কেমন চুল রাখতেন? চুল মুন্ডানো কি সুন্নত?
(খ) মহিলারা কি চুল কাটতে পারবে? নাকি যত লম্বাই হোক রাখতে হবে? জানাবেন প্লীজ৷
উত্তর
(ক) পুরুষদের জন্য বাবরী চুল রাখা সুন্নাত। কেননা, রাসূলুুল্লাহ (সা.) এর সাধারণ অভ্যাস ছিল বাবরী চুল রাখা। তা তিন পদ্ধতিতে হতে পারে।
এক.
উভয় কাঁধ বরাবর।
দুই.
ঘাড়ের মাঝামাঝি।
তিন.
উভয় কানের লতি পর্যন্ত। সুনানে আবু দাউদ, হাদীস নং-৪১৮৩-৪১৮৭৷
রাসূলুুল্লাহ (সা.) এহরাম থেকে হালাল হওয়ার জন্য মাথা মুণ্ডাতেন। এছাড়া তিনি কখনো মাথা মুণ্ডাননি। এ সময় তিনি মাথা মুণ্ডানোকে চুল ছোট করে রাখার উপর
প্রাধান্য দিয়েছেন। এজন্য ইমাম তাহতাবী (রহ:) বলেন, মাথা ন্যাড়া করাও সুন্নাত ।
আর কিছু অংশ মুণ্ডানো ও কিছু রেখে দেয়া নিষেধ মুণ্ডাতে ইচ্ছে না করলে চুল ছোট রাখা যেতে পারে।
আলেমগণ তিন তরিকায় বাবরী রাখাকে সুন্নাত আর মাথার চুল ছোট করে রাখা বা মুণ্ডানোকে জায়েয বলেন। এছাড়া সামনে বা পেছনে লম্বা রাখা অথবা ডানপাশে বা বামপাশে ছোট-বড় করে রাখাকে জায়েয মনে করেন না। এক্ষেত্রে লক্ষণীয় বিষয় হল, চুলের যে কাটিং ভিন্ন কোন জাতি সত্তার অনুকরণে হবে, তাই নাজায়েযের মধ্যে শামিল হবে।
মাহমুদিয়া – ২৭/৪৬০, মিশকাত- ৩৮১, ২৩২, ৩৮০
(খ) মেয়েদের জন্য চুল মুণ্ডন করা বা কেটে ছেলেদের মতো করে ফেলা নিষেধ। আবার এতো বড় রাখা উচিত নয় যে, গোছলের সময় পানি পৌঁছানো কষ্টকর হয়। বরং পিঠ বা কোমর পর্যন্ত রাখা ভালো। সেমতে কোমরের নিচের অংশ কেটে ফেলা জায়েয হবে। অবশ্য না কাটলেও কোনো সমস্যা নেই।
তিরমিজি শরিফ ১/১৮২, মুসলিম শরিফ ১/১৪৮৷ মুফতী মেরাজ তাহসীন মুফতীঃ জামিয়া দারুল উলুম দেবগ্রাম ব্রাক্ষণবাড়িয়া
01756473393
উত্তর দিয়েছেন : মুফতি মেরাজ তাহসিন
এ বিষয়ে আরো ফতোয়া:
সু্ন্নাহ-বিদআত এর উপর সকল ফতোয়া >>

Execution time: 0.03 render + 0.00 s transfer.